হাফ সেঞ্চুরি জুটির পর সাকিবের বিদায়

হাফ সেঞ্চুরি জুটির পর সাকিবের বিদায়

আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে ফিরছেন সাকিব আল হাসান। ছবি: এএফপি

২৬ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে লুক জঙ্গওয়ের ডেলিভারিতে অফস্টাম্পের বাইরে শট খেলতে গিয়ে কট বাহাইন্ড হন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার ব্যাট থেকে আসে ৪২ বলে ৩০ রান।

জিম্বাবুয়েকে ক্লিন সুইপ ও আইসিসি সুপার লিগের পুরো ৩০ পয়েন্ট অর্জনের লক্ষ্যে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে ব্যাট করছে বাংলাদেশ। স্বাগতিক দলের দেওয়া ২৯৯ রান তাড়া করছে টাইগাররা।

২৬ ওভার শেষে সফরকারী দলের সংগ্রহ দুই উইকেটে ১৪৯। আউট হয়েছেন লিটন দাস ও সাকিব আল হাসান।

দুই ব্যাটসম্যান ওপেনিং ব্যাটসম্যান লিটন দাস ও তামিম ইকবাল শুরু করেন দেখেশুনে। আস্কিং রেটের দিকে নজর রেখে বাউন্ডারিও বের করেছেন নিয়মিত বিরতিতে।

দুই জন মিলে সাতটি বাউন্ডারি মেরেছেন তাদের ৮৮ রানের জুটিতে। তামিম হাঁকিয়েছেন একটি ছক্কা।

বাংলাদেশের অধিনায়ক পূর্ণ করেছেন ক্যারিয়ারের ৫২তম ওয়ানডে ফিফটি।

অধিনায়কের ফিফটি ছোঁয়ার পরপরই আউট হন তার সঙ্গী লিটন। ১৪তম ওভারের চতুর্থ বলে মাধেভেরেকে তুলে মারতে গিয়ে ব্যাকওয়ার্ড স্কয়্যার লেগে ধরা পড়েন তিনি। লিটনের ব্যাট থেকে আসে ৩২।

এরপর তামিমের সঙ্গে জুটি গড়েন অভিজ্ঞ সাকিব। দুই জনে মিলে অনায়াসে তুলে নেন ফিফটি জুটি। দ্বিতীয় উইকেটে ৫৯ রান যোগ করার পর বিদায় নেন সাকিব।

২৬ তম ওভারের দ্বিতীয় বলে লুক জঙ্গওয়ের ডেলিভারিতে অফস্টাম্পের বাইরে শট খেলতে গিয়ে কট বাহাইন্ড হন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার। তার ব্যাট থেকে আসে ৪২ বলে ৩০ রান।

এর আগে, টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ২৯৮ রানে অলআউট হয় জিম্বাবুয়ে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৪ রান করেন রেগিস চাকাবভা। সিকান্দার রাজা করেন ৫৪। আর রায়ান বার্লের ব্যাট থেকে আসে ৫৯ রান।

প্রথম দুই ম্যাচ জিতে এরই মধ্যে সিরিজ নিজেদের করে নিয়েছে বাংলাদেশ।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বিসিবি নির্বাচন ৬ অক্টোবর

বিসিবি নির্বাচন ৬ অক্টোবর

বিসিবির সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ছবি: বিসিবি

অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন করার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে বিসিবি। সেই মোতাবেক ৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বোর্ডের নির্বাচন। পরদিন প্রকাশ করা হবে ফল।

গত সপ্তাহে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) জানিয়েছিল অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হবে বহুল প্রতীক্ষিত বোর্ড নির্বাচন। সে সময় সঠিক তারিখটা জানানো হয়নি বোর্ডের তরফ থেকে।

অবশেষে মঙ্গলবার আসল ঘোষণা। অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহে নির্বাচন করার সিদ্ধান্তে অটল রয়েছে বিসিবি। সেই মোতাবেক ৬ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে বোর্ডের নির্বাচন।

পরদিন প্রকাশ করা হবে ফল। নির্বাচনের জন্য গঠিত কমিশন মঙ্গলবার রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বিজ্ঞপ্তিতে নির্বাচনের বিস্তারিত তুলে ধরেছে কমিশন।

পরিচালক পদে প্রথম ক্যাটাগরিতে নির্বাচনযোগ্য পদসংখ্যা ১০ জন, দ্বিতীয় ক্যাটাগরিতে ১২ ও তৃতীয় ক্যাটাগরিতে এক জন নির্ধারিত হয়েছে আগের মতো।

তফসিল অনুযায়ী ২২ সেপ্টেম্বরের ভেতর খসরা ভোটার তালিকা প্রকাশ করতে হবে বলে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। খসরা তালিকায় কোনো আপত্তি বা শুনানি থাকলে সেটি ২৩ সেপ্টেম্বর সমাধান করা হবে। ওইদিন চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশ করা হবে।

২৪ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হবে মনোনয়নপত্র বিতরণ। চলবে ২৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় ২৭ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টা।

২৮ সেপ্টেম্বর চলবে দাখিলকৃত মনোনয়ন পত্রের যাচাই বাছাই। বাছাইকৃতদের তালিকা প্রকাশ করা হবে সেদিন।

২৯ সেপ্টেম্বর সকাল ১১টা থেকে শুরু হনে মনোনয়নের বিষয়ে আপিল গ্রহণ। এরপর বেলা দুইটা থেকে পাঁচটা পর্যন্ত চলবে আপিলের শুনানী।

৩০ তারিখ সময় দেয়া হয়েছে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের। ওইদিন প্রার্থীদের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করবে নির্বাচন কমিশন।

একই দিন বেলা তিনটায় পোস্টাল অথবা ই-ব্যালট প্রেরণ করা হবে ভোটারদের কাছে যা কিনা ৬ অক্টোবর ভোট গ্রহণ সমাপ্তির আগে অর্থাৎ বিকেল পাঁচটার মধ্যে জমা দিতে হবে রিটার্নিং অফিসারের কাছে।

৬ অক্টোবর সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে বিসিবি নির্বাচন। চলবে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত। আর সাত তারিখ প্রকাশিত হবে চূড়ান্ত ফলাফল।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

বিসিবির বিশ্বকাপ আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন

বিসিবির বিশ্বকাপ আয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর সমর্থন

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ট্রফি। ফাইল ছবি

বোর্ড এককভাবে ঘরের মাঠে আয়োজন করতে চায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ২০২৫ সালের আসর। একইসঙ্গে ভারত, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের সঙ্গে যৌথভাবে একটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ, আর শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য আইসিসির কাছে বিড করেছে বিসিবি।

২০২৪ থেকে ২০৩১ সালে আইসিসির ফিউচার টুর প্ল্যানের (এফটিপি) মধ্যে রয়েছে বেশ কিছু বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট। যার ভেতর রয়েছে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি, দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও চারটি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ।

বৈশ্বিক টুর্নামেন্টগুলো আয়োজনের দৌড়ে নাম লিখিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোর্ড এককভাবে ঘরের মাঠে আয়োজন করতে চায় চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির ২০২৫ সালের আসর। একইসঙ্গে ভারত, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের সঙ্গে যৌথভাবে একটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ, আর শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ আয়োজনের জন্য আইসিসির কাছে বিড করেছে বিসিবি।

মঙ্গলবার বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের শেষ সভার পর সাংবাদিকদের এমনটাই জানিয়েছেন বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

পাপন বলেন, ‘আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির জন্য একক ভাবে আবেদন করেছি। ইভেন্ট করার জন্য যে কয়টা স্টেডিয়াম দরকার সেটা আমাদের আছে। আর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের জন্য আমরা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে যৌথভাবে আবেদন করেছি। ওই বিশ্বকাপের জন্য যে পরিমান স্টেডিয়াম দরকার সেটা আমাদের নেই, দুটো দেশ মিলে করা যায়। আর ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য আমরা তিনটা দেশ – বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান মিলে আবেদন করেছি।’

এতবড় ইভেন্ট আয়োজনে বিসিবির সঙ্গে আছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বাংলাদেশ সরকার এমনটা জানান পাপন।

তিনি বলেন, ‘এখানে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো সরকারি বিভিন্ন মন্ত্রনালয় থেকে অনুমতি বা নিশ্চয়তার দরকার ছিল। আমরা আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে এই সংক্রান্ত অনুমতি নেয়ার যে পত্র দরকার হয় সেটার প্রথম পত্রটা পেয়েছি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে। ওনার নিজের সই করা, এবং লেখা যে যদি কোনো টুর্নামেন্ট হয় তো সমস্ত দায়িত্ব নিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার।’

আইসিসির দেয়া ২০২৪ থেকে ২০৩১ সাল পর্যন্ত আট বছরের সূচিতে ২০২৭ ও ২০৩১ এ অনুষ্ঠিত হবে দুটি ওয়ানডে বিশ্বকাপ। আর ২০২৪, ২০২৬, ২০২৮ ও ২০৩০ সালে অনুষ্ঠিত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চারটি আসর।

এর বাইরে ২০২৫ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতো আছেই। ঘরের মাঠে এই টুর্নামেন্টগুলো আয়োজনে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বিসিবি।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

রমিজ রাজার প্রস্তাবে সাড়া দেয়নি বিসিবি

রমিজ রাজার প্রস্তাবে সাড়া দেয়নি বিসিবি

বাংলাদেশ বনাম পাকিস্তানের ম্যাচের একটি মুহূর্ত। ছবি: এএফপি

বিসিবিকে পাকিস্তান বোর্ড প্রস্তাব দেয় দুটি বাতিল হয়ে যাওয়া সিরিজের বদলে বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানে গিয়ে খেলে আসতে। পিসিবির দেয়া সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ।

প্রায় দুই দশক পর পাকিস্তানে সিরিজ খেলতে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড। নিরাপত্তা ইস্যুতে ম্যাচের ঠিক আগে সিরিজ বাতিল ঘোষণা করে ব্ল্যাক ক্যাপস। তাদের দেখাদেখি পাকিস্তানের থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয় ইংল্যান্ড।

পরপর দুটো সিরিজ বাতিল হওয়ায় বেশ বিপাকে পড়ে যায় পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি)। নিজেদের দেশকে নিরাপদ প্রমাণ করতে মরিয়া পিসিবি সাহায্য চায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি)।

বিশ্বকাপের পরপর বাংলাদেশ সফরে আসছে পাকিস্তান। বিসিবিকে পাকিস্তান বোর্ড প্রস্তাব দেয় দুটি বাতিল হয়ে যাওয়া সিরিজের বদলে বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানে গিয়ে খেলে আসতে।

পিসিবির দেয়া সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। লাগাতার বায়োবাবলে থাকার ফলে বিশ্বকাপের আগে ক্রিকেটারদের লম্বা ছুটি দিতেই পিসিবিকে ফিরিয়ে দিয়েছে বিসিবি। এমনটা জানান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

মঙ্গলবার বর্তমান পরিচালনা পর্ষদের শেষ সভা শেষে এমনটাই জানিয়েছেন বিসিবি বস।

পাপন বলেন, ‘টানা বায়ো বাবলে ছিল দল। এতগুলো সিরিজ খেলার পর তারা একটু ছুটিতে আছে। এখন আবার সেই বায়ো বাবলে ঢুকতে হবে লম্বা সময়। সবাই ২০ দিনের ছুটিতে গিয়েছে। সবাই ওমানে যোগ দিবে। এখন ওদেরকে এনে অনুশীলন বা তৈরির ব্যবস্থা করতে গেলে যে সময় লাগে, বিশ্বকাপের আগে সেটার কোনো সুযোগ নেই।’

পাকিস্তানে খেলতে গেলে বিশ্বকাপে প্রস্তুতির পরিকল্পনা ভেস্তে যেত এমনটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘আমাদের যে পরিকল্পনা, ওমানে গিয়ে তিনটা অনুশীলন ম্যাচ খেলব, ক্যাম্প করব সেগুলো কোনটাই হতো না। সেজন্য বলেছি জাতীয় দল মানে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে যারা আছে তাদের পাঠানো এই মুহুর্তে সম্ভব না।’

তবে কথার কিছুটা ভিন্নতা ছিল পিসিবির নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান রমিজ রাজার কণ্ঠে। বোর্ডের দেয়া এক ভিডিও বার্তায় তিনি দাবি করেন বাংলাদেশ তাদের দ্বিতীয় সারির দল পাঠাতে চেয়েছিল, সেই প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করেছে পিসিবি।

রাজা বলেন, ‘এই সময়ে অনেকে পাশে দাঁড়াতে চেয়েছে। জিম্বাবুয়ে, শ্রীলঙ্কা আসতে চেয়েছে। বাংলাদেশ তাদের বি-টিম পাঠাতে চেয়েছে। তবে আমরা আর অযথা ঝামেলা চাইনি তাই তাদের মানা করেছি।’

৪ অক্টোবর বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব খেলতে ওমান যাচ্ছে মাহমুদুল্লাহ বাহিনী। সেখানকার কন্ডিশনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে বাংলাদেশের তিনটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

চিরনিদ্রায় জালাল চৌধুরী

চিরনিদ্রায় জালাল চৌধুরী

ছবি: সংগৃহীত

জালাল চৌধুরীর মরদেহের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ভলিবল ও হ্যান্ডবল অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি ও বাংলাদেশ স্পোর্টস জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন।

বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে তার ক্রিকেটে হাতে খড়ি, এখানেই তার কোচিং ক্যারিয়ারে উত্থানের গল্প আর এই স্টেডিয়ামের প্রেস বক্সে তার সাংবাদিকতার কলম ধরা। মঙ্গলবার চিরপরিচিত সবুজ ঘাসে নিথর দেহে শেষবারের মতো আসলেন সাবেক ক্রিকেটার কোচ ও প্রখ্যাত ক্রীড়া লেখক জালাল আহমেদ চৌধুরী।
তার জানাজায় শ্রদ্ধা ও ভালোবাসা জানান শতাধিক সাংবাদিক, সাবেক ক্রিকেটার ও বন্ধু-পরিজন।
জালাল চৌধুরীর মরদেহের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ভলিবল ও হ্যান্ডবল অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতি ও বাংলাদেশ স্পোর্টস জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন।
বন্ধুর বিদায়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন দেশের ক্রিকেটের খ্যাতিমান কোচ ওসমান খান। বলেন, ‘ও চলে গেল। আমাকে একা রেখে। আমি একা হয়ে গেলাম। ক্রিকেটের জন্য যা করে গেছেন তার ঋণ শোধ হওয়ার নয়।’
বহুদিন ধরে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন জালাল চৌধুরী। অবস্থার অবনতি হলে হাসপাতালে ভর্তি করাতে হয় তাকে। পরে ফুসফুসের সংক্রমণ ধরা পড়ে। মঙ্গলবার সকালে মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়েন ৭৪ বছর বয়সী জালাল আহমেদ।
সাবেক জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক গাজী আশরাফ লিপুর কণ্ঠেও ঝরে পড়ে গভীর শ্রদ্ধা। লিপু বলেন, ‘আমরা যারা ৮০-৯০ বা ২০০০ দশকের ক্রিকেটার ছিলাম, জালাল ভাইয়ের অভাব তাদের করুণভাবে নাড়া দেবে। রিয়াদ থেকে শুরু অনেকেই তার অধীনে কোচিং করেছে।
‘৯৭ সালের আইসিসি ট্রফিটাকে যদি আমরা মাইলফলক হিসেবে ধরি, তাহলে সেখানে তিনি, ওসমান ভাই নেপথ্যে থেকে কাজ করে গেছেন। আমরা গর্ডন গ্রিনিজের প্রশংসা করি কিন্তু তাদের অবদানও অনেক ছিল। অত্যন্ত মেধাবী কোচ ছিলেন। অনেক জ্ঞান রাখতেন। তিনি যা-ই করতেন অনেক যত্ন নিয়ে করতেন।’
জালাল চৌধুরীর লেখায় ছিল অন্য এক মাত্রা। তিনি শিক্ষকের শিক্ষক ছিলেন মন্তব্য করে কথাগুলো বলেছেন আরেক সাংবাদিক মোস্তফা মামুন।
তিনি বলেন, ‘যখন তিনি ছিলেন, তখন তার গুরুত্ব আমরা বুঝতে পারিনি। তার ভাষার যে শক্তি, মেদহীনতা, শব্দের প্রয়োগ, গভীর চিন্তার প্রকাশ। সবকিছু মিলিয়ে তিনি অনন্য ছিলেন। শিক্ষকের শিক্ষক ছিলেন। তিনি নেই, তবে তিনি বেঁচে থাকবেন তার সতীর্থ ও শিষ্যদের লেখনীতে।’
জালাল চৌধুরীর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড, বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন, যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশন।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

নেপালে খেলার এনওসি পেলেন তামিম

নেপালে খেলার এনওসি পেলেন তামিম

তামিম ইকবাল। ছবি: সংগৃহীত

টুর্নামেন্টে ২৬ সেপ্টেম্বর পোখারা রাইনোসের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে তামিমের গ্ল্যাডিয়েটর্স। এরপর ২৭ সেপ্টেম্বর চিতওয়ান টাইগার্স, ২৯ সেপ্টেম্বর বিরাটনগর ওয়ারিয়র্স, ২ অক্টোবর কাঠমান্ডু কিংস ইলেভেন ও ৪ অক্টোবর ললিতপুর প্যাট্রিয়টসের বিপক্ষে লড়বে তামিমের দল।

চূড়ান্ত হল নেপালের ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট এভারেস্ট প্রিমিয়ার লিগে (ইপিএল) জাতীয় দলের ওপেনার তামিম ইকবালের খেলা। টুর্নামেন্টে খেলার জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ছাড়পত্র পেয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান।

টুর্নামেন্টে ভাইরাহাওয়া গ্ল্যাডিয়েটর্সের হয়ে খেলবেন তিনি। আর এই টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ২৪ সেপ্টেম্বর দেশ ছাড়ার কথা রয়েছে তার।

সংবাদমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।

টুর্নামেন্টে ২৬ সেপ্টেম্বর পোখারা রাইনোসের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচ খেলবে তামিমের গ্ল্যাডিয়েটর্স। এরপর ২৭ সেপ্টেম্বর চিতওয়ান টাইগার্স, ২৯ সেপ্টেম্বর বিরাটনগর ওয়ারিয়র্স, ২ অক্টোবর কাঠমান্ডু কিংস ইলেভেন ও ৪ অক্টোবর ললিতপুর প্যাট্রিয়টসের বিপক্ষে লড়বে তামিমের দল।

চলতি বছরের শুরুতে জিম্বাবুয়ে সিরিজের পর থেকে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে আর দেখা যায়নি তামিম ইকবালকে। হাঁটুর ইনজুরির জন্য ক্রিকেটের শর্টার ফরম্যাট থেকে নিজেকে সরিয়ে রেখেছেন বাঁহাতি এই ওপেনার।

সম্প্রতি বিশ্বকাপ থেকেও নিজের নাম প্রত্যাহার করে নেন দেশসেরা এই ওপেনার।

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

কেউ বলুক সভাপতি হতে চাই: পাপন

কেউ বলুক সভাপতি হতে চাই: পাপন

প্রেস ব্রিফিংয়ে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। ফাইল ছবি

পাপন জানান সভাপতি পদে তার থাকার ইচ্ছা নেই, কিন্তু কেউ তার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চায় না। কারও আগ্রহ নেই বিসিবির সর্বোচ্চ পদের জন্য তাকে চ্যালেঞ্জ করার।

দরজায় কড়া নাড়ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) নির্বাচন। নির্বাচনকে সামনে রেখে ক্রিকেট পাড়ায় চলছে জোর গুঞ্জন। কেননা গত মাসের এজিএমে সভায় বর্তমান বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ইঙ্গিত দেন সভাপতি পদে নির্বাচন না করার।

এর ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তিনি নিজের বক্তব্য থেক সরে আসে। তবে মঙ্গলবার বর্তমান পর্ষদের অধীনে সবশেষ বোর্ড সভায় বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন আবারও কথা বলেন পুরনো সুরে।

পাপন জানান সভাপতি পদে তার থাকার ইচ্ছা নেই, কিন্তু কেউ তার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে চায় না। কারও আগ্রহ নেই বিসিবির সর্বোচ্চ পদের জন্য তাকে চ্যালেঞ্জ করার।

তিনি বলেন, ‘আমি যদি এখানে থাকি, একটা জিনিস মনে হচ্ছে আমি মারা যাওয়ার আগ পর্যন্ত এ পদটায় কেউ দাঁড়াবে না এটা আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি। বোর্ডে যারাই আসে তারা আমাকে চ্যালেঞ্জ জানাক। কেউ বলকু, সভাপতি হতে চাই। কেউ তো বলেও না! এটা ভালো দিক নয়। কারো জন্য কিছু আটকে থাকে না।’

তবে অন্যরা চাইলে পরিচালক পদে থাকতে তার সমস্যা নেই এমনটা জানান বর্তমান বোর্ড প্রধান। একই সঙ্গে জানান নির্বাচনে তার নিজস্ব কোনো প্যানেল থাকছে না।

তিনি বলেন, ‘আমার কোনো প্যানেল নাই। যে খুশি দাঁড়াতে পারে। নির্বাচন হবে। যে জিতে আসতে পারে। ওখানে যদি আমি জিতে আসি তাহলে পরিচালক হয়ে আসবো। এরপর আমার প্রথম আবেদন যেটা থাকবে। আমি সভাপতি হতে চাই না।’

জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের যেমন পাইপলাইন থাকে, তেমন নাজমুল হাসান চান বিসিবির নেতৃত্বেরও পাইপলাইনও যেন প্রস্তুত থাকে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমি সমর্থন দেওয়ার জন্য আছি। এরপর কী হয় আমি জানি না। প্রত্যেকবার প্যানেল থাকে। প্যানেল দিলে আর কেউ দাঁড়ায় না। এখন কেউ বলতে পারবে না সে আমার ক্যান্ডিডেট। আমি আশা করব এবার নির্বাচনটা উন্মুক্ত হোক।’

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন

‘ওপারে ভালো থাকবেন স্যার’

‘ওপারে ভালো থাকবেন স্যার’

মিরপুর শেরে বাংলায় মাশরাফি মোর্ত্তজার সঙ্গে জালাল আহমেদ চৌধুরী। ছবি: ইনস্টাগ্র্যাম

জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি মোর্ত্তজা তার পরামর্শ গ্রহণ করতেন বিপদে আপদে। তার অধীনে খেলেছেন দেশের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এই স্তম্ভ। জালাল চৌধুরীর চলে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যথিত মাশরাফি।

সাবেক ক্রিকেট কোচ, খেলোয়াড় ও বিশ্লেষক জালাল আহমেদ চৌধুরী চলে গেলেন মঙ্গলবার। ফুসফুসের সংক্রমণ ও শ্বাসকষ্টের সঙ্গে যুদ্ধ করে হার মানের ৭৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেট ‘গুরু’।

সত্তর ও আশির দশকে ক্রিকেট খেলা ও এরপর থেকে কোচিংয়ের সঙ্গে যুক্ত জালাল চৌধুরীর হাত ধরে বাংলাদেশ ক্রিকেটে এসেছে গাজী আশরাফ হোসেন লিপু, নজরুল কাদের লিন্টু, নাজমুন নূর রবিন, গোলাম ফারুক, জি এম নওশের প্রিন্স, তুষার ইমরানের মতো তারকারা।

জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মাশরাফি মোর্ত্তজা তার পরামর্শ গ্রহণ করতেন বিপদে আপদে। তার অধীনে খেলেছেন দেশের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এই স্তম্ভ। জালাল চৌধুরীর চলে যাওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই ব্যথিত মাশরাফি।

নিজের ইনস্টাগ্র্যামে পোস্ট দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন এই ক্রিকেট গুরুর প্রতি শ্রদ্ধা জানান তিনি। জালাল চৌধুরীর সঙ্গে নিজের একটি ছবি পোস্ট করে মাশরাফি লেখেন, ‘যাদের হাত ধরে ক্রিকেট জীবন শুরু, তাদের বিদায়গুলো এভাবে দেখা খুব কঠিন।
স্যার আপনার আন্ডারে খেলা, আপনার আদেশ, ড্রেসিং রুমে আপনার স্থির থাকা, আপনার লেখা এ সব কিছুই এখন স্মৃতি হয়ে গেল।’

বাংলাদেশের ক্রিকেটে জালাল আহমেদ চৌধুরীর অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে বলে মনে করেন মাশরাফি।

তিনি আরও লেখেন, ‘বাংলাদেশ ক্রিকেটে আপনার অবদান যারা দেখেছে, তারা আজীবন মনে রাখবে। অসংখ্য খেলোয়াড়ের গুরু ছিলেন, আপনি আর হয়েও থাকবেন। ওপারে ভালো থাকবেন স্যার। আল্লাহ আপনাকে জান্নাত বাসী করুন। আমিন’

জালাল আহমেদ চৌধুরীর স্মরণে বিসিবির বোর্ড সভার আগে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। বিকেল ৩টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে তার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়

আরও পড়ুন:
ভালো শুরুর পর ফিরলেন লিটন
বার্ল ও রাজার ব্যাটে বাংলাদেশের সামনে ২৯৯ রানের লক্ষ্য
২০০তম ম্যাচে মাহমুদুল্লাহর জোড়া আঘাত

শেয়ার করুন