অ্যাশেজের জন্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ছাড়তে রাজি স্মিথ

অ্যাশেজের জন্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ছাড়তে রাজি স্মিথ

অস্ট্রেলিয়ার অনুশীলনে স্টিভেন স্মিথ। ছবি: এএফপি

অস্ট্রেলিয়ার সেরা এই ব্যাটসম্যান বাঁ-হাতের কনুইয়ের চোট থেকে সেরে উঠছেন। শনিবার  ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্মিথ বলেন দ্রুত সেরে ওঠার জন্য প্রয়োজনে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবেন না তিনি।

ডিসেম্বরে শুরু হচ্ছে দ্য অ্যাশেজ। অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মধ্যেকার মর্যাদাপূর্ণ ও সবচেয়ে পুরনো এই টেস্ট লরাইয়ের জন্য মুখিয়ে থাকেন দুই দেশের তারকারা। তাদের কাছে অ্যাশেজের আকর্ষণের কাছে ম্লান অন্য যেকোনো আসর।

তেমনটাই জানালেন স্টিভেন স্মিথ। অস্ট্রেলিয়ার সেরা এই ব্যাটসম্যান বাঁ-হাতের কনুইয়ের চোট থেকে সেরে উঠছেন। শনিবার ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার ওয়েবসাইটকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে স্মিথ বলেন দ্রুত সেরে ওঠার জন্য প্রয়োজনে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলবেন না তিনি।

স্মিথ বলেন, ‘বিশ্বকাপে খেলতে পারলে আমার খুবই ভালো লাগবে। কিন্তু আমার আসল লক্ষ্য টেস্ট ক্রিকেট। আমি চাই আগের অ্যাশেজগুলোতে যেমন খেলেছি সুস্থ হয়ে এবারও তেমনটাই খেলি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রস্তুতির সময়ই চোটের কারণে দল থেকে ছিটকে যান স্মিথ। তার কনুইয়ে চোট সারতে সময় নিচ্ছে। সেটা পুরোপুরি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে নাও সারতে পারে।

অ্যাশেজের জন্য টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ছাড়তে রাজি স্মিথ
অস্ট্রেলিয়ার বর্ষসেরা ক্রিকেটারের অ্যালান বোর্ডার মেডেল গলায় স্টিভেন স্মিথ। ফাইল ছবি

সময়মতো চোট না সারলে দলের স্বার্থে ও অ্যাশেজে পুরো ফিট থাকতেই বিশ্বকাপে না খেলার সিদ্ধান্ত নেবেন জানান স্মিথ।

বলেন, ‘আমি দেখতে চাই দলের হয়ে ম্যাচে আমি কতটুকু প্রভাব ও অবদান রাখতে পারছি। বিশ্বকাপেও যদি খেলতে না হয় তাহলে সেই পথে যেতে রাজি আমি। আশা করি আমাদের সেই পথ বেছে নিতে হবে না।

বিশ্বকাপের আগে কিছুটা সময় বাকি আছে। আমি সবকিছুই নজরে রাখছি। ধীরে ধীরে এটা ঠিক হচ্ছে।’

আরব আমিরাতে ১৭ অক্টোবর শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ চলবে ১৪ নভেম্বর পর্যন্ত। ৭ ডিসেম্বর ব্রিসবেনে শুরু হচ্ছে অ্যাশেজের প্রথম টেস্ট।

বল ট্যাম্পারিংয়ের নিষেধাজ্ঞা থেকে ফিরে এসে সবশেষ অ্যাশেজে দুর্দান্ত খেলেন স্মিথ। চার টেস্টে ১১০.৫৭ গড়ে ৭৭৪ রান করেন সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক।

এবারও অ্যাশেজে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইনআপের মূল ভরসা ৩২ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান। আশার কথা হলো নেটে ব্যাটিং শুরু করেছেন স্মিথ। প্রতিদিনই বাড়াচ্ছেন সময়।

তিনি বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে আমি কিছুটা উন্নতি করেছি। ১০ মিনিট করে ব্যাট করছি। আস্তে আস্তে এই সময় বাড়াতে চাই। যেহেতু এটা একটা টেনডন ইনজুরি তাই সকালে ওঠার পর কেমন অনুভব করছি সেটা গুরুত্বপূর্ণ। তাই ১০ মিনিট ব্যাট করার পরদিন যদি ব্যাথা না থাকে তাহলে আমি ১২ মিনিট ব্যাট করব। পরদিন ১৫ মিনিট।

‘এই সময়টাকে ৪৫ মিনিটে নিয়ে আসতে পারলে চিকিৎসকেরা জানাবেন আমি স্বস্তিতে থাকতে পারব কিনা।’

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ ও উইন্ডিজ সিরিজ দলে জায়গা পাওয়ার পরীক্ষা: ফিঞ্চ
বাংলাদেশ সফরে আসছেন না স্মিথ-কামিনস
ব্যানক্রফটকে জবাব দিলেন স্টার্ক-কামিনসরা

শেয়ার করুন

মন্তব্য