আইসিসি নকআউটে ধারাবাহিক ব্যর্থ কোহলি ও ভারত

আইসিসি নকআউটে ধারাবাহিক ব্যর্থ কোহলি ও ভারত

আইসিসি টুর্নামেন্টগুলো নকআউটে কোহলির ব্যর্থতা ভুগিয়েছে ভারতকে। ছবি: এফপি

গত এক দশকে সব ফরম্যাটেই অবিশ্বাস্য ধারাবাহিক কোহলির ব্যাট হাসেনি আইসিসি টুর্নামেন্টের নকআউট পর্বগুলোয়। ফলসরূপ বিদায় নিতে হয়েছে তার দল ভারতকেও।

আইসিসির কোনো বৈশ্বিক টুর্নামেন্টে সবশেষ শিরোপা জেতে ভারত ২০১৩ সালে। ওই বছরের চ্যাম্পিয়নস ট্রফির শিরোপা উঁচিয়ে ধরে মহেন্দ্র ধোনির দল। তারপর থেকে বৈশ্বিক যেকোনো ফরম্যাটের টুর্নামেন্টের নকআউট পর্বে ব্যর্থ ভারত।

আর মেন ইন ব্লুদের এই ব্যর্থতার হাতে হাত ধরে এসেছে দলের বর্তমান অধিনায়ক ও সেরা ব্যাটসম্যান ভিরাট কোহলির ব্যর্থতা।

গত এক দশকে সব ফরম্যাটেই অবিশ্বাস্য ধারাবাহিক কোহলির ব্যাট হাসেনি আইসিসি টুর্নামেন্টের নকআউট পর্বগুলোয়। ফলসরূপ বিদায় নিতে হয়েছে তার দল ভারতকেও।

২০১৪ ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি

এর শুরুটা হয় ২০১৪ ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে। পুরো টুর্নামেন্টে চমৎকার খেলে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ফাইনাল নিশ্চিত করে ভারত। ফাইনালে কোহলির ব্যাটে রান আসলেও জেতেনি ভারত।

শের-ই-বাংলার ফাইনালে কোহলির ৭৭ রানের পরও মাত্র ১৩০ রান সংগ্রহ করে তার দল। জবাবে ১৩ বল বাকি থাকতে ছয় উইকেটের সহজ জয়ে ট্রফি নিজেদের করে নেয় শ্রীলঙ্কা।

২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপ

পরের বছর ছিল ২০১৫ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। এবারও পুরো টুর্নামেন্টে ছন্দে থাকা ভারতকে সেমিফাইনাল থেকে বিদায় করে দেয় অস্ট্রেলিয়া। সিডনির ম্যাচে স্টিভেন স্মিথের অনবদ্য সেঞ্চুরিতে ৩২৮ রানের পাহাড় গড়ে স্বাগতিক দল।

জবাবে ব্যর্থ হন কোহলি। ব্যার্থ হয় ভারত। এক রান করে মিচেল জনসনের বলে আউট হন ভারতীয় ক্রিকেটের পোস্টার বয়। ৯৫ রানে ম্যাচ হেরে যায় তার দল।

আইসিসি নকআউটে ধারাবাহিক ব্যর্থ কোহলি ও ভারত
২০১৫ ওডিআই বিশ্বকাপের সেমি ও ২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে ব্যর্থ হন কোহলি। ছবি: এএফপি



২০১৬ ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি

ওয়ানডে বিশ্বকাপের এক বছর পর নিজ দেশে ওয়ার্ল্ড টি-টোয়েন্টি আয়োজন করে ভারত। এবারও ছিল একই চিত্র, পুরো টুর্নামেন্টে অপ্রতিরোধ্য ভারত পৌঁছে যায় সেমিফাইনালে।

এই ম্যাচে অবশ্য জ্বলে ওঠে কোহলির ব্যাট। ৪৭ বলে ৮৯* রান করেন তিনি। ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ১৯২/২। তবে ক্যারিবিয়ানদের ব্যাটিং ঝড়ে দুই বল আগেই ম্যাচ শেষ হয়ে যায়। নিজেদের আয়োজন করা টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিতে হয় ভারতকে।

২০১৭ চ্যাম্পিয়নস ট্রফি

দুই টুর্নামেন্টের সেমিফাইনালের জুজু কাটিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে ভারত। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি পাকিস্তানের বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারনী ম্যাচে মুখ থুবড়ে পড়ে কোহলির ভারত।


পাকিস্তানের দেয়া ৩৩৯ রানে জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ৫ রান করেন ভারতের অধিনায়ক কোহলি। তার দল গুটিয়ে যায় মাত্র ১৫৮ রানে। হাতছাড়া হয় শিরোপা।

২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপ

ইংল্যান্ডের ৫০ ওভারের বিশ্বকাপে গ্রুপ পর্বে মাত্র এক ম্যাচ হেরে ভারত পৌঁছে যায় সেমিফাইনালে। মুখোমুখি হয় নিউজিল্যান্ডের।
ব্যর্থতার ধারাবাহিকতা ধরে রাখেন কোহলি। দলকে ফাইনালে নিয়ে যাওয়ার জন্য ২৪০ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১ রান করে আউট হন ভারতের অধিনায়ক। ১৮ রানে হেরে আবারও আরেকটি সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়ে ভারত।

আইসিসি নকআউটে ধারাবাহিক ব্যর্থ কোহলি ও ভারত
২০১৯ বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এক রান করে আউট হন কোহলি। ছবি: এএফপি

২০২১ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ ফাইনাল

করোনাভাইরাস মহামারির কারণে ক্রীড়াঙ্গনে ঘটনাবহুল ২০২০ ও ২১ সালেও ভারত ধরে রাখে তাদের ফর্ম। টেস্টের দ্বিতীয় সেরা দল হিসেবে কোয়ালিফাই করে আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে।

সাউদ্যাম্পটনের ফাইনালে নিউজিল্যান্ডের মুখোমুখি হয় কোহলির ভারত। ফাইনালের দুই ইনিংসেই চরমভাবে ব্যর্থ হন দলের অধিনায়ক ও সেরা ব্যাটসম্যান। দুই ইনিংসে কোহলির ব্যাট থেকে আসে ৪৪ ও ১৩। ভারতও ম্যাচ হেরে যায় ৮ উইকেটে।

আইসিসি নকআউটে ধারাবাহিক ব্যর্থ কোহলি ও ভারত
টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কোহলিকে আউট করার পর কাইল জেমিসনের উচ্ছ্বাস। ছবি: এএফপি



ভারত ও ভিরাট কোহলির সামনে খুব শিগগিরই আরেকটি আইসিসি টুর্নামেন্টের হাতছানি। অক্টোবরে সংযুক্ত আরব আমিরাতে শুরু হচ্ছে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। এবারের আসরে অন্তত নকআউটে রেকর্ডটাকে আরও উজ্জ্বল করতে নিশ্চিত ভাবেই চাইবেন কোহলি।

আরও পড়ুন:
‘উইলিয়ামসন ভারতের হলে তাকেই বিশ্বসেরা বলা হতো’
ইংল্যান্ড সফরে ভারতের দলে নেই পান্ডিয়া ও কুলদিপ
কোহলির আবেদনে সাড়া দিয়ে আইপিএলের নিয়ম পরিবর্তন

শেয়ার করুন

মন্তব্য