মুশফিকের বিদায়ে ধুঁকছে টাইগাররা

মুশফিকের বিদায়ে ধুঁকছে টাইগাররা

রমেশ মেন্ডিসের বলে আউট হন মুশফিকুর রহিম। ছবি: এএফপি

সিরিজে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে ২৮ রান। তার ৫৪ বলের সাবধানী ইনিংসে ছিল না কোনো বাউন্ডারি।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নামা শ্রীলঙ্কাকে ২৮৬ রানেই আটকে দেয় বাংলাদেশ। কিন্তু ২৮৭ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুষ্মন্ত চামিরার গতিতে শুরুতেই লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় স্বাগতিকদের ব্যাটিং লাইনআপ।

তৃতীয় ওয়ানডেতে লিটন দাসকে বাদ দিয়ে একাদশে আনা হয়েছিল নাইম শেখকে। কিন্তু সেই নাইম করতে পারেন মাত্র ১ রান। চামিরার করা দ্বিতীয় ওভারের প্রথম বলেই অফ স্টাম্পের বাইরের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে কুশল মেন্ডিসকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি।

চামিরার পরের ওভারেই ফেরেন সাকিবও। তাতে টানা তিন ম্যাচেই ব্যাট হাতে ব্যর্থ তিনি। প্রথম দুই ম্যাচে ১৫ ও শূন্যের পর এই ম্যাচেও তার ব্যাট থেকে আসে এক অঙ্কের রান। মাত্র ৪ রানে চামিরার শর্ট বল পুল করতে যান। কিন্তু শর্ট স্কোয়ার লেগে রমেশ মেন্ডিসের দারুণ ক্যাচে ফেরেন তিনি।
মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ইনিংস সামাল দিতে থাকা তামিম ইকবাল ফেরেন দশম ওভারে। চামিরার তৃতীয় শিকার হন টাইগার অধিনায়ক।

মোসাদ্দেক সৈকতের সঙ্গে মিলে দলের হাল ধরেন মুশফিক। গড়েন ৫০ রানের জুটি। ৫৬ রানের জুটি ভাঙ্গে লঙ্কান বোলার রমেশ মেন্ডিস।

অভিষিক্ত এই স্পিনারকে মারতে যেয়ে ২৪তম ওভারে আউট হন মুশফিক। সিরিজে বাংলাদেশের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যানের ব্যাট থেকে আসে ২৮ রান। তার ৫৪ বলের সাবধানী ইনিংসে ছিল না কোনো বাউন্ডারি।

তার বিদায়ের পর ব্যাট করছেন মোসাদ্দেক ও মাহমুদুল্লাহ। ২৭ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ চার উইকেটে ১০৪ রান।

এর আগে টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে অধিনায়ক কুশল পেরেরার সেঞ্চুরি ও ধনঞ্জয় ডি সিলভার ফিফটিতে ভর করে ৬ উইকেটে ২৮৬ রান তোলে শ্রীলঙ্কা।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

অধিনায়ক ওয়েটকে ফিরিয়ে চাপ বাড়াল বাংলাদেশ

অধিনায়ক ওয়েটকে ফিরিয়ে চাপ বাড়াল বাংলাদেশ

আশা জাগিয়েও পারলেন না ওয়েড

ছোটখাটো লক্ষ্য দিলেও অস্ট্রেলিয়াকে শুরুতেই চেপে ধরেছে বাংলাদেশ। দলীয় ৪৯ রানেই অতিথি দলের ৪ উইকেট তুলে নিয়েছে টাইগাররা।

সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের দেয়া ১৩২ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ১০ ওভারে অজিদের সংগ্রহ ৪ উইকেটের খরচায় ৫১ রান।

ব্যাট করতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলেই ওপেনার অ্যালেক্স ক্যারিকে সাজঘরে ফিরিয়ে শুভ সূচনা করেন মেহেদী হাসান।

মেহেদীর ঘূর্ণীতে কিছু বুঝে ওঠার আগেই বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন ক্যারি।

দ্বিতীয় ওভারেই আরেক ওপেনার জশ ফিলিপকে ফিরিয়ে দেন নাসুম আহমেদ। আর তাতেই ১১ রান তুলতে দুই উইকেট হারিয়ে বসে সফরকারীরা।

তৃতীয় ওভারে আঘাত হানেন সাকিব। মোয়েজেস এনরিকেসকে ১ রানেই মাঠছাড়া করেন দেশসেরা এই অলরাউন্ডার।

এরপর অধিনায়ক ম্যাথিউ ওয়েডকে নিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেন মিচেল মার্শ। দেখেশুনে খেলে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন দলকে। কিন্তু নাসুমের ওয়াইড বল সুইপ করতে গিয়ে ১৩ রানে মুস্তাফিজের হাতে বন্দী হয়ে মাঠ ছড়েন তিনি।

এর আগে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়াকে ১৩২ রানের লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের খরচায় ১৩১ রানে থামে টাইগারদের রানের চাকা।

অজিদের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা সুবিধার হয়নি বাংলাদেশের। অজি পেইসারদের বোলিং তোপ নাঈম শেখ সামাল দিলেও বল যেন বুঝেই উঠতে পারছিলেন না সৌম্য সরকার।

মাত্র ৯ বল খেলে দুই রান করে হ্যাজেলউডের লেগ স্ট্যাম্পের অনেক বাহিরের বল এক প্রকারে ইচ্ছে করেই স্ট্যাম্পে ঠেলে দিয়ে ম্যাচের চতুর্থ ওভারেই মাঠ ছাড়েন বাঁহাতি এই ওপেনার।

সৌম্য বিদায় নিলেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন নাঈম। কিন্তু অ্যাডাম জাম্পার বলে ধরাশায়ী হয়ে ২৯ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনিও।

এরপর মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু হ্যাজেলউডের বলে এনরিকেসের তালুবন্দি হয়ে ২০ রানে সাজঘরে ফেরেন দলপতি রিয়াদ।

আশা জাগিয়ে একবুক হতাশা নিয়ে ৩৬ রান করে মাঠ ছাড়েন সাকিবও। উইকেটের অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকলেও অবিচল থাকেন আফিফ। শেষ পর্যন্ত ১৭ বলে ২৩ রান করে ফেরেন তিনি। সেই সঙ্গে দল পায় ১৩১ রানের পুঁজি।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

শুরুতেই অজি শিবিরে টাইগারদের তিন আঘাত

শুরুতেই অজি শিবিরে টাইগারদের তিন আঘাত

মোয়েজেস এনরিকেসকে আউট করার পর সাকিব আল হাসানকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন বাংলাদেশ দলের সদস্যরা। ছবি: এএফপি

দুই ওপেনারকে হারানো অজি দলের ভিত আরও নড়বড়ে করে দেন সাকিব আল হাসান। তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই ময়েসেস হেনরিকসকে বোল্ড করেন তিনি।

ছোটখাটো লক্ষ্য দিলেও অস্ট্রেলিয়াকে শুরুতেই চেপে ধরেছে বাংলাদেশ। দলীয় ১১ রানেই অতিথি দলের তিন উইকেট তুলে নিয়েছে টাইগাররা।

ইনিংসের প্রথম বলেই ওপেনার অ্যালেক্স ক্যারিকে সাজঘরে ফিরিয়ে শুভ সূচনা এনে দেন মেহেদী হাসান।

মেহেদীর ঘূর্ণীতে কিছু বুঝে ওঠার আগেই বোল্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন অ্যালেক্স ক্যারি।

দ্বিতীয় ওভারে জশ ফিলিপেকে ফেরান নাসুম আহমেদ। তার বলে ৯ রান করে আউট হন ফিলিপে। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে স্টাম্পড হওয়া প্রথম অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটসম্যানে পরিণত হন তিনি।

১০ রানে দুই ওপেনারকে হারানো অজি দলের ভিত আরও নড়বড়ে করে দেন সাকিব আল হাসান। তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই মোয়েজেস এনরিকসকে বোল্ড করেন তিনি।

এর আগে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়াকে ১৩২ রানের লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের খরচায় ১৩১ রানে থামে টাইগারদের রানের চাকা।

অজিদের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা সুবিধার হয়নি বাংলাদেশের। অজি পেইসারদের বোলিং তোপ নাঈম শেখ সামাল দিলেও বল যেন বুঝেই উঠতে পারছিলেন না সৌম্য সরকার।

মাত্র ৯ বল খেলে দুই রান করে হ্যাজেলউডের লেগ স্ট্যাম্পের অনেক বাহিরের বল এক প্রকারে ইচ্ছে করেই স্ট্যাম্পে ঠেলে দিয়ে ম্যাচের চতুর্থ ওভারেই মাঠ ছাড়েন বাঁহাতি এই ওপেনার।

সৌম্য বিদায় নিলেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন নাঈম। কিন্তু অ্যাডাম জাম্পার বলে ধরাশায়ী হয়ে ২৯ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনিও।

এরপর মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু হ্যাজেলউডের বলে এনরিকেসের তালুবন্দি হয়ে ২০ রানে সাজঘরে ফেরেন দলপতি রিয়াদ।

আশা জাগিয়ে একবুক হতাশা নিয়ে ৩৬ রান করে মাঠ ছাড়েন সাকিবও। উইকেটের অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকলেও অবিচল থাকেন আফিফ। শেষ পর্যন্ত ১৭ বলে ২৩ রান করে ফেরেন তিনি। সেই সঙ্গে দল পায় ১৩১ রানের পুঁজি।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার দরকার ১৩২ রান

জয়ের জন্য অস্ট্রেলিয়ার দরকার ১৩২ রান

উইকেত পাওয়ার পর জশ হেইজলউডকে অভিনন্দন জানাচ্ছেন সতীর্থরা। ছবি: টুইটার

নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের খরচায় ১৩১ রানে থামে টাইগারদের রানের চাকা। সর্বোচ্চ ৩৬ রান করে সাকিব। আফিফের ব্যাট থেকে আসে ২৩।

সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়াকে ১৩২ রানের লক্ষ্য বেঁধে দিয়েছে বাংলাদেশ। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৭ উইকেটের খরচায় ১৩১ রানে থামে টাইগারদের রানের চাকা।

অজিদের বিপক্ষে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা সুবিধার হয়নি বাংলাদেশের। সফরকারী পেইসারদের বোলিং তোপ নাঈম শেখ সামাল দিলেও বল যেন বুঝেই উঠতে পারছিলেন না সৌম্য সরকার।

মাত্র ৯ বল খেলে দুই রান করে জশ হেইজলউডের লেগ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল এক রকম যেন ইচ্ছে করেই স্টাম্পে ঠেলে ম্যাচের চতুর্থ ওভারেই মাঠ ছাড়েন বাঁহাতি এই ওপেনার।

সৌম্য বিদায় নিলেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন নাঈম। অ্যাডাম জ্যাম্পার বলে ধরাশায়ী হয়ে ২৯ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনিও।

এরপর মাহমুদউল্লাহকে নিয়ে রানের চাকা সচল রাখেন সাকিব আল হাসান। কিন্তু হেইজলউডের বলে মোয়েজেস এনরিকেসের তালুবন্দি হয়ে ২০ রানে ফেরেন দলপতি রিয়াদ।

আশা জাগিয়ে একবুক হতাশা নিয়ে ৩৬ রান করে মাঠ ছাড়েন সাকিবও। উইকেটের অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল চলতে থাকলেও অবিচল থাকেন আফিফ। শেষ পর্যন্ত ১৭ বলে ২৩ রান করে ফেরেন তিনি। সেই সঙ্গে দল পায় ১৩১ রানের পুঁজি।

টেস্ট ও ওয়ানডে ফরম্যাটে জয় পেলেও টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়া বধের স্বপ্ন অধরা রয়ে গেছে টাইগারদের। এখন পর্যন্ত চারবার ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। যার সবকয়টিই বিশ্বকাপের মঞ্চে। প্রতি ম্যাচে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে সাকিব-তামিমদের।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

আশা জাগিয়েও পারলেন না নাঈম

আশা জাগিয়েও পারলেন না নাঈম

ফাইল ছবি

১১ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ দুই উইকেটের খরচায় ৬১ রান। উইকেটে রয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং সাকিব আল হাসান।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা সুবিধার হয়নি বাংলাদেশের। ১১ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ দুই উইকেটের খরচায় ৬১ রান। ৯ রানে উইকেটে রয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং ১৮ রানে খেলছেন সাকিব আল হাসান।

ব্যাটিংয়ে নেমে অজি পেসারদের বোলিং তোপ নাঈম শেখ সামাল দিলেও বল যেন বুঝেই উঠতে পারছিলেন না সৌম্য সরকার। মাত্র ৯ বল খেলে দুই রান করে হেইজলউডের লেগ স্টাম্পের অনেক বাইরের বল এক রকম ইচ্ছে করেই যেন স্টাম্পে ঠেলে ম্যাচের চতুর্থ ওভারেই মাঠ ছাড়েন বাঁহাতি এই ওপেনার।

সৌম্য বিদায় নিলেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন নাঈম। কিন্তু অ্যাডাম জ্যাম্পার বলে ধরাশায়ী হয়ে ২৯ বলে ৩০ রানের ইনিংস খেলে বিদায় নেন তিনিও।

টেস্ট ও ওয়ানডে ফরম্যাটে জয় পেলেও টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়া বধের স্বপ্ন অধরা রয়ে গেছে টাইগারদের। এখন পর্যন্ত চারবার ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। যার সবকয়টিই বিশ্বকাপের মঞ্চে। প্রতি ম্যাচে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে সাকিব-তামিমদের।

এই প্রথম ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। জয় দিয়েই সিরিজ শুরু করতে আশাবাদী জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। যদিও দলে নেই তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের মতো তারকা ক্রিকেটার।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

অনন্য আরেক রেকর্ডের সামনে সাকিব

অনন্য আরেক রেকর্ডের সামনে সাকিব

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ব্যাট করছেন সাকিব আল হাসান। ছবি: এএফপি

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে পাঁচটি উইকেট পেলেই অনন্য এক উচ্চতায় উঠবেন সাকিব আল হাসান। টি-টোয়েন্টিতে ১০০০ রানের পাশাপাশি ১০০ উইকেট নেয়া প্রথম ক্রিকেটার হবেন তিনি।

দারুণ এক রেকর্ডের হাতছানি নিয়ে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে নেমেছেন দেশসেরা ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

মঙ্গলবার সিরিজের প্রথম ম্যাচে বা চলতি সিরিজে ৫ উইকেট নিলেই টি-টোয়েন্টিতে ১০০ উইকেট শিকারিদের তালিকায় নাম লেখাবেন তিনি। হবেন এই ফরম্যাটের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১০০০ রান করা ও ১০০ উইকেট শিকারি প্রথম ক্রিকেটার।

আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে উইকেটের সেঞ্চুরি রয়েছে শুধুমাত্র একজনের। তিনি হলেন শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা। সাবেক এই পেইসারের ঝুলিতে রয়েছে ১০৭টি উইকেট।

তবে সাকিবের রেকর্ডটি হবে অলরাউন্ডিং নৈপুণ্যের। টি-টোয়েন্টিতে আগেই ১০০০ রান করে ফেলা সাকিব পাঁচটি উইকেট পেলেই উঠবেন অনন্য উচ্চতায়।

উইকেটের সেঞ্চুরির তালিকায় সাকিবের সঙ্গে অপেক্ষায় রয়েছেন আরও দুই জন। তারা হলেন নিউজিল্যান্ডের পেসার টিম সাউদি এবং আফগানিস্তানের স্পিনার রাশিদ খান। বর্তমানে সাউদির উইকেট সংখ্যা ৮৩ ম্যাচে ৯৯ এবং রাশিদ খানের ৫১ ম্যাচে ৯৫।

তাদের মধ্যে সবার আগে উইকেটের সেঞ্চুরির সম্ভাবনা সাকিবেরই প্রবল। কেননা নিউজিল্যান্ড ও আফগানিস্তানের বর্তমানে কোনো টি-টোয়েন্টি সিরিজ নেই।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

নাঈম-সাকিবের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ

নাঈম-সাকিবের ব্যাটে লড়ছে বাংলাদেশ

ব্যাট করছেন সাকিব আল হাসান। ফাইল ছবি

৬ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটের খরচায় ৩৩ রান। উইকেটে রয়েছেন নাঈম শেখ এবং সাকিব আল হাসান।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা খুব একটা সুবিধার হয়নি বাংলাদেশের। শেষ খবর পর্যন্ত ৬ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ ১ উইকেটের খরচায় ৩৩ রান। উইকেটে রয়েছেন নাঈম শেখ। খেলছেন ২৭ রানে। অন্য প্রান্তে সাকিব আল হাসান আছেন ৩ রানে।

ব্যাটিংয়ে নেমে অজি পেসারদের বোলিং তোপ নাঈম শেখ সামাল দিলেও, বল যেন বুঝেই উঠতে পারছিলেন না সৌম্য সরকার। মাত্র ৯ বল খেলে ২ রান করে হেইজলউডের বলে আউট হন তিনি।

টেস্ট ও ওয়ানডে ফরম্যাটে জয় পেলেও টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়া বধের স্বপ্ন অধরা রয়ে গেছে টাইগারদের। এখন পর্যন্ত চারবার ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। যার সবকয়টিই বিশ্বকাপের মঞ্চে। প্রতি ম্যাচে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে সাকিব-তামিমদের।

এই প্রথম ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। জয় দিয়েই সিরিজ শুরু করতে আশাবাদী জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। যদিও দলে নেই তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের মতো তারকা ক্রিকেটার।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন

অজিদের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

অজিদের বিপক্ষে টস হেরে ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশ

ম্যাচের আগে টস করছেন দুই অধিনায়ক। ছবি: এএফপি

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া।

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। টসে জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছে সফরকারী অস্ট্রেলিয়া।

টেস্ট ও ওয়ানডে ফরম্যাটে জয় পেলেও টি-টোয়েন্টিতে অস্ট্রেলিয়া বধের স্বপ্ন অধরা রয়ে গেছে টাইগারদের। এখন পর্যন্ত চারবার ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে মুখোমুখি হয়েছে দুই দল। যার সবকয়টিই বিশ্বকাপের মঞ্চে। প্রতি ম্যাচে হার নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয়েছে সাকিব-তামিমদের।

এই প্রথম ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলছে বাংলাদেশ। জয় দিয়েই সিরিজ শুরু করতে আশাবাদী জাতীয় দলের টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। যদিও দলে নেই তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম ও লিটন দাসের মতো তারকা ক্রিকেটার।

বাংলাদেশ একাদশ: মোহাম্মদ নাঈম, সৌম্য সরকার, সাকিব আল হাসান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন, শামিম হোসাইন, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান, মুস্তাফিজুর রহমান, শরিফুল ইসলাম, নাসুম আহমেদ।

অস্ট্রেলিয়া একাদশ: অ্যালেক্স ক্যারি, জশ ফিলিপ, মিচেল মার্শ, মোয়েজেস এনরিকেস, ম্যাথিউ ওয়েড, অ্যাস্টন টার্নার, অ্যাস্টন এইগার, মিচেল স্টার্ক, অ্যান্ড্রু টাই, অ্যাডাম জ্যাম্পা, জশ হেইজলউড।

আরও পড়ুন:
শুরুতেই বিপদে বাংলাদেশ
৩-০ করতে বাংলাদেশের চাই ২৮৭
চারবারের চেষ্টায় সেঞ্চুরিয়ান পেরেরাকে ফেরাল বাংলাদেশ

শেয়ার করুন