বিশ্বকাপ পালটে দিয়েছে মিরাজকে

বিশ্বকাপ পালটে দিয়েছে মিরাজকে

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরাজের উইকেট উদযাপন। ছবি: এএফপি

মিরাজের ক্যারিয়ারের গতিপথ বদলাতে শুরু করে ২০১৮ থেকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর, এশিয়া কাপ ও আয়ারল্যান্ড সিরিজে ভালো করেন মিরাজ। তার মতে তার পারফরমেন্সে আমূল পরিবর্তন এনেছে বিশ্বকাপ। সেখানে খেলেই ওয়ানডের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পারফর্ম করার আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন।

বাংলাদেশের ক্রিকেটে ধূমকেতুর মতো আগমন মেহেদী হাসান মিরাজের। ২০১৬ সালের অক্টোবরে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেকেই ইনিংসে ছয় উইকেট নিয়ে জানান দেন নিজের প্রতিভার। দ্বিতীয় টেস্টে দুই ইনিংস মিলিয়ে নেন ১২ উইকেট। ম্যান অফ দ্য ম্যাচ ও ম্যান অফ দ্য সিরিজ দুটো পুরস্কারই বগলদাবা করেন অনূর্ধ্ব ১৯ দলের অধিনায়ক।

ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেকের জন্য কয়েক মাস অপেক্ষা। মার্চে অভিষেক হয়ে যায় সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটেও। তবে এখানে যাত্রা সহজ ছিল না। বছর খানেক খেলার পর মিরাজের গায়ে তকমা লেগে যায় টেস্ট বোলারের।

টেস্ট বোলার হিসেবে যাত্রা শুরু করে আজ ওয়ানডেতে বিশ্বের দুই নম্বর বোলার। কঠিন এই পথটুকু নিজের চেষ্টা ও ধৈর্যের সঙ্গেই অতিক্রম করেছেন মিরাজ। সংবাদমাধ্যমকে নিজের ক্যারিয়ারের শুরুর দিকের পরিকল্পনা জানান। জানান সাফল্যের পেছনের গল্পটা।

‘নিজের ভেতর একটা বিষয় কাজ করত যে সব ফরম্যাট খেলব এবং সবগুলোতে যেন সাফল্যের সঙ্গে খেলতে পারি। চেষ্টা ছিল কীভাবে দলে অবদান রাখতে পারি ও নিজে পারফর্ম করতে পারি। জানতাম যে ওয়ানডে ক্রিকেট খেলতে হলে ইকোনমি ঠিক রাখতে হবে। দলের প্রয়োজনের সময় ব্রেক থ্রু দিতে পারলে ও গেমপ্ল্যান অনুযায়ী খেলতে পারলে নিজের জন্যও ভালো হবে, দলের জন্যও ভালো হবে। সে লক্ষ্যে ছোটখাটো কিছু বিষয় নিয়ে কোচের সঙ্গে কাজ করেছি।’

মিরাজের ক্যারিয়ারের গতিপথ বদলাতে শুরু করে ২০১৮ থেকে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর, এশিয়া কাপ ও আয়ারল্যান্ড সিরিজে ভালো করেন মিরাজ। তার মতে, তার পারফরমেন্সে আমূল পরিবর্তন এনেছে বিশ্বকাপ। সেখানে খেলেই ওয়ানডের সর্বোচ্চ পর্যায়ে পারফর্ম করার আত্মবিশ্বাস পেয়েছেন।

‘বিশ্বকাপ আমাকে অনেক আত্মবিশ্বাস দিয়েছে। বিশ্বমানের সব খেলোয়াড়ের সঙ্গে খেলেছি। ওখানে স্পিন ট্র্যাক না হওয়ার পরও যতটুকু সম্ভব চেষ্টা করেছি ভালো খেলতে। ওখানে আমার লক্ষ্য ছিল উইকেট না পেলেও যেন ব্যাটসম্যান মারতে না পারে বা ডমিনেট করতে না পারে। রান চেক দিয়ে দলের প্রয়োজনের দুই-একটি উইকেট পেলে ভালো হবে এমনটা ভেবেছি।’

বিশ্বকাপ পালটে দিয়েছে মিরাজকে
শ্রীলঙ্কার গুনাতিলাকাকে আউট করার পর মিরাজের উচ্ছ্বাস। ছবি: এএফপি



বিশ্বকাপের পর গত দেড় বছরে ওয়ানডে দলে নিয়মিত মিরাজ। সাফল্যও পাচ্ছেন নিয়মিত, যার পুরস্কার হিসেবে পেলেন আইসিসির র‍্যাঙ্কিংয়ের স্বীকৃতি। যা পেয়ে স্বাভাবিকভাবে উচ্ছ্বসিত মিরাজ। আনন্দের মুহুর্তেও ভোলেননি দুঃসময়ের সঙ্গীদের।

‘দুই নম্বরে আসতে পেরে খুবই ভালো লাগছে। কখনও ভাবিনি যে ওয়ানডেতে বোলিংয়ে দুই নম্বরে আসব। দলের সবাই শুভেচ্ছা জানিয়েছে। যখন সতীর্থরা সমর্থন দেয় সেটা খুবই ভালো লাগে। সবারই খারাপ সময় ভালো সময় আসে। খারাপ সময়ে সতীর্থরা যখন সাপোর্ট করে এটা অনেক বড় পাওয়া। সতীর্থ ও টিম ম্যানেজমেন্টকে ধন্যবাদ যে তারা আমার খারাপ সময়ে সমর্থন দিয়েছে।’

দলে সাকিব-তামিম-মুশফিকদের মতো মহারথীদের উপস্থিতি ভরসা দেয় নতুন ও উঠতি তারকাদের এমনটা দাবি মিরাজের। তার মতে সিনিয়রদের কাছ থেকে শেখার সুযোগ সবচেয়ে বেশি।

‘একটা সময় আমরা বিশ্বের খেলোয়াড়দের আইডল ভাবতাম। এখন বিশ্বমানের খেলোয়াড়দের সঙ্গেই ক্রিকেট খেলছি। তারা চোখের সামনেই আছেন। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মুশফিক-রিয়াদ ভাই ব্যাটিং করেছেন, সেখান থেকে শেখার অনেক কিছু আছে। সাকিব ভাই বিশ্বকাপে সেরা পারফর্ম করেছেন। তামিম ভাই বিশ্বের সেরা ওপেনারদের একজন।

তাদের দেখে আমরা শিখতে পারি এখন। টেস্ট ক্রিকেটে সবচেয়ে সফল মুমিনুল হক ভাই। তিনি সব ফরম্যাট খেলেন না। কিন্তু যেভাবে পরিশ্রম করেন বা অনুশীলন করেন সেটা থেকে আমরা জুনিয়ররা শিখতে পারি। যত দ্রুত শিখতে পারব, তত দ্রুত একটা ভালো টিম হতে পারব।‘

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই ম্যাচে সাত উইকেট শিকার করে ম্যান অফ দ্য সিরিজ হওয়ার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে আছেন মিরাজ। শেষ ম্যাচে লঙ্কার বিপক্ষে তার পারফরমেন্স ভালো হলে ব্যক্তিগত পুরস্কারের পাশাপাশি বাংলাদেশও ৩-০ ব্যবধানে সিরিজ জয়ের ক্ষেত্রে অনেকটাই এগিয়ে যাবে।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব

আবুধাবীতে অনুশীলনে ফিরেছেন সাকিব

কলকাতার জার্সিতে সাকিব। ছবি: সংগৃহীত

মাঠে ফেরার দিনে তাকে স্বাগত জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আইপিএল দল কলকাতা নাইট রাইডার্স লিখেছে, ‘সাকিব ফিরেছে’।

ঘরের মাঠে সফলভাবে সিরিজ শেষে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) বাকি খেলায় অংশ নিতে এখন আবুধাবীতে রয়েছেন সাকিব আল হাসান।

কোয়ারেন্টিন পর্ব শেষে শনিবার প্রথম দিন অনুশীলনে নামলেন বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডার।

মাঠে ফেরার দিনে তাকে স্বাগত জানিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় আইপিএল দল কলকাতা নাইট রাইডার্স লিখেছে, ‘সাকিব ফিরেছে’।

বিশ্বকাপের প্রস্তুতি হিসেবে আইপিএলে খেলতে সংযুক্ত আরব আমিরাতের উদ্দেশে সাকিব রাজধানী ছাড়ে গত ১২ সেপ্টেম্বর। পৌঁছে দেশটির কোভিড প্রটোকল অনুযায়ী ৫ দিনের কোয়ারেন্টিনে থাকতে হয় সাকিবকে।

রোববার থেকে মাঠে গড়াবে আইপিএলের বাকী আসর।

করোনা সংকটে মে মাসে মাঝপথেই আইপিএল স্থগিত করে দেয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই। পরে ক্রিকেটের অন্যতম জনপ্রিয় এই টুর্নামেন্টটির ভেন্যু বদলে নেয়া হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। যেখানে বিশ্বকাপের আগেই টুর্নামেন্টের বাকি অংশ হয়ে যাবে।

দুই দল চেন্নাই সুপার কিংস বনাম মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মধ্যকার ম্যাচ দিয়ে শুরু হচ্ছে আইপিএলের দ্বিতীয় পর্ব।

সাকিবদের প্রথম ম্যাচটি হবে দ্বিতীয় দিন ২০ সেপ্টেম্বর। কোহলির দল বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে মাঠে নামবে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

‘চেনা ভুবনে’ ফিরে আপ্লুত মাশরাফি

‘চেনা ভুবনে’ ফিরে আপ্লুত মাশরাফি

ছবি: সংগৃহীত

টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসরে গেলেও আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়ার ঘোষণা দেননি মাশরাফি।

মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ফিরেছেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। বহুদিন পর সবুজ ঘাসে পা রেখে আবেগাপ্লুত হয়ে গেছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের এই কিংবদন্তি। ফিরে গেছেন হাজারো স্মৃতিতে।

শনিবার চেনা ভুবনে বহুদিন পর ঘুরে গেলেন মাশরাফি। ছেলে সোহেল ও মেয়ে হুমায়রাকে নিয়ে কিছুক্ষণ সময় কাটিয়েছেন শের-ই বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

দীর্ঘ সময় পর এখানে ফিরে পুরোনো স্মৃতিতে আকাশে ভেসে গেলেন ওয়ানডে ক্রিকেট দলের সাবেক এই অধিনায়ক।

সোশ্যাল মিডিয়ায় নিজের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে দুটি ছবি দিয়ে তিনি লেখেন, ‘অনেকদিন পর, যেখানে আমি থাকি...(বাড়ির ইমোজি)’।

সবশেষ ২০২০ সালের ৬ মার্চ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছিলেন মাশরাফি। এর মধ্যে করোনার সংকট শুরু হলে জেলায় করোনা সংকট মোকাবিলায় ব্যস্ত থাকতে হয়েছে সাংসদ মাশরাফিকে। সময় কোথায় ফেরার!

মাঝে ই-কমার্স ইস্যুতে তার নাম জড়ানোর ঘটনায় কম বিভ্রাট যায়নি!

প্রায় দেড় বছর পেরিয়ে ফুরসত পেলেন মাশরাফি। চেনা ভুবনে এসে স্বস্তির পাশাপাশি শত স্মৃতিতে ফিরে গেছেন এই কিংবদন্তি ক্রিকেটার, ‘ফ্রেশ লাগছে এবং মনের ভেতরে অনেক স্মৃতি উঁকি দিচ্ছে।’

টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসরে গেলেও আনুষ্ঠানিকভাবে ওয়ানডে ক্রিকেট থেকে অবসরে যাওয়ার ঘোষণা দেননি মাশরাফি।

এখন আপাতত সকল ব্যস্ততা রাজনীতি নিয়ে। সম্প্রতি আন্তর্জাতিক স্বীকৃতিও পেয়েছেন। তরুণ নেতৃত্বে দক্ষিণ এশিয়ার সেরা দশে জায়গা পেয়েছেন মাশরাফি। ‘দ্য ফোরাম অব ইয়াং গ্লোবাল লিডার্স’ এর তালিকায় দক্ষিণ এশিয়ার শীর্ষ দশে নির্বাচিত হন নড়াইল-২ আসনের এই সাংসদ।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

ইংল্যান্ডের পর এবারে শঙ্কায় অস্ট্রেলিয়ার পাকিস্তান সফর

ইংল্যান্ডের পর এবারে শঙ্কায় অস্ট্রেলিয়ার পাকিস্তান সফর

রাওয়ালপিন্ডি স্টেডিয়ামের সামনে কড়া পাহাড়া। ছবি: এএফপি

ইংল্যান্ড সিরিজ নিয়ে শঙ্কা জাগার পর এবারে শঙ্কা জেগেছে অস্ট্রেলিয়ার পাকিস্তান সফর নিয়ে। নিরাপত্তা ইস্যুটি নিজেরা পর্যালোচনা আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে।

১৮ বছর পর পাকিস্তান সফরে গিয়েছিল নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। কথা ছিল তিনটি ওয়ানডে ও পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলার। তবে সিরিজ না খেলে দেশে ফিরে যাচ্ছে ব্ল্যাক ক্যাপস।

নিরাপত্তা ইস্যু দেখিয়ে খেলা শুরুর আগ মুহূর্তে সিরিজ বাতিল করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

নিউজিল্যান্ডের এই সিরিজ বাতিলের বিষয়টি ভাবাচ্ছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডকে (ইসিবি) তাদের পাকিস্তান সফর নিয়ে। গতকাল কিউইরা সিরিজ বাতিলের পর ইসিবি এক বিবৃতিতে জানায় ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার ভেতর তাদের সিরিজটি নিয়ে সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেবেন তারা।

ইংল্যান্ড সিরিজ নিয়ে শঙ্কা জাগার পর এবারে শঙ্কা জেগেছে অস্ট্রেলিয়ার পাকিস্তান সফর নিয়ে। নিরাপত্তা ইস্যুটি নিজেরা পর্যালোচনা আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা জানানো হয়েছে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার পক্ষ থেকে।

ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার এক মুখপাত্র জানান, বিষয়টি তারা নিজেরা খতিয়ে দেখবেন আসলেই কোনো ঝুঁকি রয়েছে কিনা।

তিনি বলেন, ‘আমরা এ ব্যপারে আমাদের কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করবো ও যথাযথভাবে বিচার বিশ্লেষণ করে সিদ্ধান্তে আসব।’

এর আগে ২০০৯ সালে শ্রীলঙ্কা দলের ওপর সন্ত্রাসী হামলার পর থেকে লম্বা সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট আয়োজন থেকে নির্বাসিত ছিল পাকিস্তান। পরে শ্রীলঙ্কার হাত ধরে প্রায় এক যুগ পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরে পাকিস্তান।

পিসিবি আয়োজন করে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক সিরিজ। তবে নিউজিল্যান্ডের পিছু হটায় আবার শঙ্কা দেখা দিয়েছে পাকিস্তানের নির্বাসনের।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

শান্তর পর শুক্কুরের ব্যাটে বড় সংগ্রহ এ-দলের

শান্তর পর শুক্কুরের ব্যাটে বড় সংগ্রহ এ-দলের

এ-দল ও এইচপির মধ্যেকার ম্যাচের দ্বিতীয় দিনের একটি মুহূর্ত। ছবি: বিসিবি

চারদিনের ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে ৩৩৯ রানে অল আউট হয়েছে এ-দল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে এইচপি দলের সংগ্রহ ৩ উইকেটের খরচায় ৪১ রান।

চট্টগ্রামে বাংলাদেশ-এ দল ও হাই পারফরম্যান্স ইউনিটের (এইচপি) মধ্যকার চারদিনের ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে ৩৩৯ রানে অল আউট হয়েছে এ-দল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে দ্বিতীয় দিন শেষে এইচপি দলের সংগ্রহ ৩ উইকেটের খরচায় ৪১ রান।

চার দিনের ম্যাচের প্রথম দিনে সেঞ্চুরির আক্ষেপ নিয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন এ-দলের নাজমুল হোসেন শান্ত। দ্বিতীয় দিনে একই হতাশায় ডুবতে হল ইরফান শুক্কুরকে।

শান্তর চেয়ে তার কষ্ট কিছুটা কম থাকার কথা। কেননা শান্তর আক্ষেপ ছিল ৪ রানের। আর শুক্কুরের ১৫।

৫ উইকেটের বিনিময়ে ২৬০ রান দিয়ে দ্বিতীয় দিন শুরু করে শুরুতে মুনিম শাহরিয়ারকে হারায় এ-দল। সুমন খানের বলে আকবর আলীর হাতে ধরা দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এই ব্যাটসম্যান।

সুমন খানের কল্যাণে উইকেটে থিতু হতে পারেননি নাঈম হাসানও। এরপর ভুল বোঝাবুঝিতে রান আউটের শিকার হন শহিদুল ইসলাম।

উইকেটের একপ্রান্ত আগলে ধরে রাখেন ইরফান। সঙ্গে পান কামরুল ইসলাম রাব্বিকে। ব্যক্তিগত অর্ধশতক তুলে নিয়ে ব্যাট ছোটান শতকের দিকে।

তার ছুটন্ত ব্যাট থামে হাসান মুরাদের কারনে। ২ ছক্কা এবং ১০ চারে ৮৫ রান করেই থামতে হয় তাকে। এ-দলের কফিনের শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন সুমন খান।

৬৬ বলে ১২ রান করা রাব্বিকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলে। ততক্ষণে ৩৩৯ রানের বড় পুঁজি পেয়ে গেছে মোহাম্মদ মিঠুনের এ-দল।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা বেশ সাবধানী হলেও বেশিক্ষণ সেটি ধরে রাখতে পারেনি এইচপি দল।

২৯ রানে এক উইকেট হারানোর পর দলীয় স্কোরে এক রান যোগ করতে আরও দুই উইকেট হারায় তারা। ফলে তিন উইকেটের বিনিময়ে ৪১ রান করে দিন শেষ করে আকবর আলীরা।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

চতুর্থ ম্যাচ জিতল আফগান যুবারা

চতুর্থ ম্যাচ জিতল আফগান যুবারা

ফাইল ছবি

আফগানিস্তানের দেয়া ২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯১ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। আর সেই সুবাদে ১৯ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সফরকারীরা।

টানা তিন ম্যাচ জয়ের পর আফগানিস্তানের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ম্যাচে এসে হোঁচট খেল বাংলাদেশের যুবারা। আফগানিস্তানের দেয়া ২১১ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১৯১ রানে গুটিয়ে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। আর সেই সুবাদে ১৯ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে সফরকারীরা।

সিলেট আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দিনের শুরুতে ব্যাট করতে নেমে আফগান ওপেনার সুলাইমান আরবজাইয়ের ৫২ বলে ৪৩ এবং বিল্লাল আহমেদের ৮৮ বলে ৬০ রানের ইনিংসে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটের খরচায় ২১০ রানের পুঁজি পায় সফরকারীরা।

বাংলাদেশের হয়ে ৫৯ রানে দুই উইকেট নেন মহিউদ্দিন তারেক। একটি করে উইকেট নেন মুশফিক হাসান, এসএম মেহেরুব, আইচ মোল্লা, নাইমুর রহমান এবং আবদুল্লাহ আল মামুন।

জবাবে ব্যাট করতে নেমে দুর্দান্ত সূচনা করে টাইগার যুবারা। মাফিজুল ইসলাম এবং ইফিতেখার ইসলামের ওপেনিং জুটি থেকে আসে ৫২ রান। দলীয় ৫২ ও ব্যক্তিগত ১৮ রানে ইফিতেখারের বিদায়ের পর বিপর্যয় নেমে আসে স্বাগতিকদের শিবিরে।

৯১ রান তুলতে ৫ ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফেরেন বাংলাদেশের। কিন্তু উইকেট কামড়ে রেখে রানের চাকা সচল রাখেন তাহজিবুল ইসলাম। তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতক।

উইকেটের অপরপ্রান্তে আসা যাওয়ার মিছিল না থামায় ব্যর্থ হয় তার দুর্দান্ত ইনিংসটি। শেষতক সবগুলো উইকেটের খরচায় ১৯১ রানে থামে স্বাগতিকদের চাকা। এতে করে সিরিজে প্রথম জয় পায় সফরকারীরা।

আফগানদের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন নানগেয়ালিয়া খারোটে, ইজহারুল হক নাভিদ এবং শাহিদুল্লাহ হাসানি। আর একটি করে উইকেট ঝুলিতে পুরেন ইয়ামা আরব, ফয়সাল খান আহমেদজাই এবং মোহাম্মদ নাজিবুল্লাহ।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

নিউজিল্যান্ডের পর সিরিজ বাতিল করতে পারে ইংল্যান্ডও

নিউজিল্যান্ডের পর সিরিজ বাতিল করতে পারে ইংল্যান্ডও

ছবি: এএফপি

নিউজিল্যান্ডের সিরিজ বাতিল করার পরপরই শঙ্কা দেখা দিয়েছে ইংল্যান্ডের পাকিস্তান সফর নিয়েও। নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে  ভাবতে শুরু করেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয় ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার ভেতর পাকিস্তান সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে তারা।

১৮ বছরের অপেক্ষার পর পাকিস্তানে সিরিজ খেলতে যায় নিউজিল্যান্ড। সিরিজ না খেলে দেশে ফিরে যাচ্ছে ব্ল্যাক ক্যাপস। নিরাপত্তা ইস্যুতে সিরিজের প্রথম ম্যাচ মাঠে গড়ানোর আগে সিরিজ বাতিল করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

ক্রিকেট বোর্ডের নিরাপত্তা ইউনিটের তথ্য অনুযায়ী নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের মাঠে যাওয়ার সময় হামলার আশঙ্কাতে বাতিল ঘোষণা করা হয় সিরিজটি।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডে আজ বিকেলে মাঠে গড়ানোর কথা ছিল। কিন্তু নির্দিষ্ট সময় পার হয়ে যাওয়ার পরও মাঠে উপস্থিত হননি নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। যার কারণে টসে দেরি হয়।

সে সময় গুঞ্জন ওঠে নিউজিল্যান্ড শিবিরে করোনা আঘাত হানায় দেরি হচ্ছে ম্যাচে। এর কিছুক্ষণ পর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়ে সিরিজ বাতিল করে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট বোর্ড।

এনজেডসির পক্ষ থেকে জানানো হয়, ‘আমাদের সরকার পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করায় ও নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের পরামর্শে সফর বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’

পাকিস্তান বোর্ডের পক্ষ থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ‘নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট (এনজেডসি) সকালে আমাদের জানিয়েছে, তাদের কাছে নিরাপত্তা নিয়ে আশঙ্কাজনক খবর রয়েছে। যে কারণে তারা ঝুঁকি নিতে একেবারেই রাজি নয়।’

এদিকে নিউজিল্যান্ডের সিরিজ বাতিল করার পরপরই শঙ্কা দেখা দিয়েছে ইংল্যান্ডের পাকিস্তান সফর নিয়েও। নিরাপত্তা ইস্যু নিয়ে ভাবতে শুরু করেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। বোর্ডের পক্ষ থেকে জানানো হয় ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার ভেতর পাকিস্তান সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে তারা।

এক বিবৃতিতে ইসিবি জানায়, ‘আমাদের নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের সঙ্গে আলোচনা করে বিষয়টি নিয়ে পর্যালোচনা করছি। আমরা ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পাকিস্তান সফর নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে চলে আসব।’

পাকিস্তানের বিপক্ষে তিনটি ওয়ানডে ও পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা ছিল নিউজিল্যান্ডের। এর আগে সবশেষ ২০০৩ সালে পাকিস্তানে যায় নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল। নিরাপত্তা ইস্যুতে এতদিন পাকিস্তান সফর থেকে বিরত ছিল ব্ল্যাক ক্যাপস।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন

পাকিস্তানে খেলবে না নিউজিল্যান্ড, সফর বাতিল

পাকিস্তানে খেলবে না নিউজিল্যান্ড, সফর বাতিল

ট্রফি নিয়ে দুই পাক ও কিউই অধিনায়কের ফটোসেশন।

তিনটি ওয়ানডে ও পাঁচটি টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য পাকিস্তানে অবস্থান করছিল নিউজিল্যান্ডের ক্রিকেট দল। কিন্তু প্রথম ওয়ানডে মাঠে গড়ানোর দিনেই সফর বাতিলের ঘোষণা এলো।

নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কার কারণে গোটা পাকিস্তান সফর বাতিল করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দল।

শুক্রবার পৃথক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) ও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট (এনজেডসি)। ইতোমধ্যেই পাকিস্তান ছেড়ে দেশে ফেরার প্রস্তুতি শুরু করেছে সফরকারী কিউইরা।

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট জানিয়েছে, তাদের সরকার পাকিস্তানের নিরাপত্তা পরিস্থিতি নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করায় এবং নিরাপত্তা উপদেষ্টাদের পরামর্শে সফর বাতিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

লাহোরে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে যাওয়ার আগে শুক্রবার রাওয়ালপিন্ডিতে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে স্বাগতিক পাকিস্তানের মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিল ব্ল্যাকক্যাপসদের। বাংলাদেশ সময় বিকেল ৩টা ৩০ মিনিটে খেলাটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু ম্যাচ শুরুর কিছুক্ষণ আগেই ক্রিকেটবিষয়ক ওয়েবসাইট ইএসপিএনক্রিকইনফো জানায়, টসের সময় পেরিয়ে গেলেও দুই দল মাঠে পৌঁছায়নি। রাওয়ালপিন্ডি স্টেডিয়ামে নেই কোনো দর্শকের উপস্থিতিও। খেলোয়াড়দের হোটেলে অবস্থান করতে বলা হয়েছে এবং বাইরে বের হয়ে ঘোরাফেরা করতে নিষেধ করা হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই নিরাপত্তা শঙ্কায় পুরো সিরিজ বাতিলের সিদ্ধান্ত এসেছে।

আরও পড়ুন:
তৃতীয় ওয়ানডের দলে নাঈম
আইসিসি র‍্যাঙ্কিংয়ের দুইয়ে মিরাজ

শেয়ার করুন