মুস্তাফিজ-মিরাজে কুপোকাত শ্রীলঙ্কা

ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে আউট করার পর বাংলাদেশি ক্রিকেটারদের উদযাপন। ছবি: এএফপি

মুস্তাফিজ-মিরাজে কুপোকাত শ্রীলঙ্কা

এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল স্বাগতিক দল। বাংলাদেশের দেয়া ২৫৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ২২৪ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস।

তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে শ্রীলঙ্কাকে ৩৩ রানে হারিয়েছে বাংলাদেশ। এই জয়ে সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল স্বাগতিক দল। বাংলাদেশের দেয়া ২৫৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ২২৪ রানে থামে লঙ্কানদের ইনিংস।

লঙ্কানদের ব্যাটিং ধসের পেছনে মূল কারিগর মেহেদী মিরাজ। তার স্পিনেই একে একে ফেরেন দানুস্কা গুনাতিলাকা, কুশাল পেরেরা, ধনঞ্জয়া ডি সিলভা ও আসেন বান্দেরা। তবে স্লো উইকেটে অনবদ্য হাফ সেঞ্চুরির জন্য ম্যাচসেরার পুরস্কার পান মুশফিকুর রহিম।

সিরিজের প্রথম ম্যাচ জেতায় বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে অভিনন্দন জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মিরপুরের স্লো উইকেটে ব্যাট করতে নেমে দ্রুতগতিতে শুরু করে সফরকারী দল। ওপেনার দানুস্কা গুনাতিলাকার ব্যাটে ওভারপ্রতি ছয় রান করে তুলতে থাকে লঙ্কানরা।

ইনিংসের পঞ্চম ওভারের শেষ বলে আক্রমণাত্মক খেলতে থাকা গুনাতিলাকাকে কট অ্যান্ড বোল্ড করেন মিরাজ। ১৯ বলে পাঁচটি চারে ২১ রান করে আউট হন তিনি।

এর কিছু পরই পাথুম নিসাঙ্কাকে ফেরান মুস্তাফিজুর রহমান। অষ্টম ওভারের চার নম্বরে বলে ফিজকে পুল করতে গিয়ে মিড উইকেটে আফিফ হোসেনের হাতে ধরা পড়েন নিসাঙ্কা। ১৩ বল খেলে আট রান আসে তার ব্যাট থেকে।

শ্রীলঙ্কার ইনিংসে প্রথম ১৫ ওভার বল করেননি। ১৭তম ওভারে তার হাতে বল তুলে দেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল। সাকিব আল হাসান ব্যাট হাতে সফল ছিলেন না। ১৫ রান করেই ফিরতে হয় বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে।

বল হাতে যেন সেটি পুষিয়ে দেয়ার চেষ্টা তার শুরু থেকেই। প্রথম ওভারে দিলেন মাত্র ৩ রান। প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে কুশল পেরেরা ক্যাচ উঠিয়েছিলেন ঠিকই। সাকিব ঝাঁপিয়ে পড়েও নাগালে পাননি।

দ্বিতীয় ওভারে উইকেট ঠিকই পেলেন বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক। ১৯তম ওভারের প্রথম বলেই পয়েন্টে মেহেদী মিরাজের ক্যাচ বানিয়ে ফেরালেন কুশল মেন্ডিসকে। ৩৬ বল খেলা মেন্ডিস ফেরেন ২৪ রান করে।

২২তম ওভারে লঙ্কান অধিনায়ক কুশল পেরেরাকে বোল্ড করে ম্যাচের লাগাম বাংলাদেশের হাতে তুলে দেন মেহেদী মিরাজ। ৫০ বল খেলে ৩০ রান করেন পেরেরা।

দুই ওভার পর আবারও আঘাত হানেন এই অফস্পিনার। এবারে বোল্ড করেন ৯ রান করা ধনঞ্জয়া ডি সিলভাকে।

আর নিজের নবম ও ইনিংসের ২৮তম ওভারে বোল্ড করেন ৩ রান করা বান্দেরাকে। ১০ ওভারের স্পেলে ৩০ রান দিয়ে চার উইকেট নেন মিরাজ।

১০২ রানে ছয় উইকেট হারানোর পর একাই লঙ্কানদের হয়ে লড়াই করেন ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা। দাশুন শানাকাকে নিয়ে জুটি গড়ে বিপর্যয় সামাল দেয়ার চেষ্টা করেন তিনি।

দলীয় ১৪৯ রানে সাউফউদ্দিনের বলে বোল্ড হন শানাকা। এরপরই লঙ্কানদের হয়ে ম্যাচের সবচেয়ে সফল জুটি গড়েন হাসারাঙ্গা ও ইসুরু উদানা।

৫৯ বলে ৬১ রান যোগ করেন দুই লঙ্কান। ৬০ বলে ৭৪ রান করা হাসারাঙ্গাকে আউট করে জুটি ভাঙেন সাইফউদ্দিন।

মুস্তাফিজ-মিরাজে কুপোকাত শ্রীলঙ্কা
শ্রীলঙ্কার ইনিংসের ৩৯তম ওভারে পেশি টান পড়ায় পাঁচ ওভারের জন্য মাঠের বাইরে চলে যান মুস্তাফিজ। ছবি: এএফপি

৩৯তম ওভারে পায়ের পেশিতে টান পড়ায় মাঠের বাইরে চলে যান মুস্তাফিজ। এর পাঁচ ওভার পর ফিরে এসে শিকার করেন উদানাকে। সেই সঙ্গে শেষ হয়ে যায় শ্রীলঙ্কার শেষ আশা।

লঙ্কান ইনিংসও গুটিয়ে দেন ফিজ। ৪৯তম ওভারের প্রথম বলে দুষ্মন্ত চামিরাকে ৫ রানে আউট করে নিশ্চিত করেন বাংলাদেশের জয়। মিরাজ ৩০ রানে চারটি ও মুস্তাফিজ ৩৪ রানে তিন উইকেট নেন। সাইফউদ্দিন দুটি আর সাকিব শিকার করেন এক উইকেট।

এর আগে দুপুরে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে বাংলাদেশ তুলতে পারে ২৫৭। সর্বোচ্চ ৮৪ রান করেন মুশফিক। সঙ্গে ফিফটি তুলে নেন তামিম ইকবাল ও মাহমুদুল্লাহ। শেষ দিকে আফিফ হোসেনের ২১ বলে ২৩ রানের ইনিংসে ২৫০ ছাড়ায় বাংলাদেশ।

টসে জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে অবশ্য শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি বাংলাদেশের। ইনিংসের নবম বলে দুষ্মন্ত চামিরার বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে আউট হন লিটন দাস। তিন বল খেলে শূন্য রান করেন তিনি।

৫ রানে এক উইকেট হারানো বাংলাদেশকে কিছুক্ষণ সামাল দেন তামিম ও তিন নম্বরে নামা সাকিব আল হাসান।

দ্বিতীয় উইকেটে ৩৮ রানের জুটি গড়েন এই দুই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। ১০ ওভারের প্রথম পাওয়ার প্লেতে আর উইকেট হারাতে দেননি সাকিব-তামিম।

পাওয়ার প্লে শেষ হওয়ার পরপরই আউট হন সাকিব। ১৩ তম ওভারের প্রথম বলে দানুস্কা গুনাতিলাকাকে উড়িয়ে মারতে গিয়ে লং অনে পাথুম নিশাঙ্কার বলে আউট হন এই অলরাউন্ডার। ৩৪ বল খেলে ১৫ রান করেন সাকিব।

এরপর তৃতীয় উইকেটে ৫৬ রানের জুটি গড়ে বাংলাদেশকে শত রানের দিকে এগিয়ে নিচ্ছিলেন মুশফিক-তামিম।

লঙ্কান বোলারদের অক্লেশে খেলে ক্যারিয়ারের ৫১তম ফিফটি তুলে নেন তামিম। ৬৬ বলে একটি ছক্কা ও ছয়টি চারে পঞ্চাশ পূর্ণ করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

২৩তম ওভারে জোড়া আঘাত হানেন ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। লঙ্কান এই স্পিনারের পঞ্চম বলে লেগ সাইডে খেলতে গিয়ে লাইন মিস করেন তামিম। ইয়র্কার লেংথের বল আঘাত হানে তার প্যাডে। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি তামিম। ৭০ বলে ৫২ রান করে এলবিডব্লিউ হন অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যান।

তার পরের বলেই আবারও আঘাত ধনঞ্জয়ার। নতুন ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ মিঠুন তাকে সুইপ করতে গেলে বল প্যাডে আঘাত করে তার। বোলারের লেগ বিফোরের আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। মিঠুন রিভিউ নিলেও রক্ষা পাননি। ফলে দুই বলে দুই উইকেটে পাশাপাশি দুটি রিভিউ হারায় বাংলাদেশ।

সেই বিপদ থেকে বাংলাদেশকে উদ্ধার করেন মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ। দুজনের ১০৯ রানের জুটিতে দারুণ এক ভিত্তি পায় বাংলাদেশ।

সেই জুটিতে নিজের ৪০তম ফিফটি তুলে নেন মুশফিক। ফিফটির পরে এগোচ্ছিলেন নিজের অষ্টম ওয়ানডে সেঞ্চুরির দিকে।

মুস্তাফিজ-মিরাজে কুপোকাত শ্রীলঙ্কা
বাংলাদেশের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৪ রান করেন মুশফিকুর রহিম। ছবি: এএফপি

কিন্তু ৮৪ রানে হয় মতিভ্রম। লাকশান সান্দাকানের বলে রিভার্স সুইপ খেলতে গিয়ে শর্ট থার্ড ম্যানে ইসুরু উদানাকে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফেরেন মুশফিক।

মুশফিকের বিদায়ের পর নিজের ১৬তম ফিফটি তুলে নিলেও প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই ফেরেন মাহমুদুল্লাহ। ধনঞ্জয়ের বলে নিজের স্টাম্প খুইয়ে ৫৪ রানে ফিরতে হয় তাকে।

এরপর শেষ পর্যন্ত আফিফ ও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন মিলে বাংলাদেশকে নিয়ে যান ২৫৭ রানে।

শ্রীলঙ্কার হয়ে তিনটি উইকেট শিকার করেন ধনঞ্জয়া। একটি করে উইকেট পান চামিরা, সান্দাকান ও গুনাথিলাকা।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

মন্তব্য

যৌথ বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় বিসিবি

যৌথ বিশ্বকাপ আয়োজন করতে চায় বিসিবি

ছবি: টুইটার

এককভাবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আয়োজনের প্রস্তাব দেবে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা।

আগামী ২০২৭ ও ২০৩১ সালের ছেলেদের ওয়ানডে ক্রিকেট বিশ্বকাপের জন্য বিড করবে বাংলাদেশ। এশিয়ার অন্য কোনো দেশের সঙ্গে যৌথভাবে আয়োজনের প্রস্তাব দেয়ার পরিকল্পনা নিয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

এছাড়া এককভাবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফি আয়োজনের প্রস্তাব দেবে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা।

মঙ্গলবার বিসিবির সাধারণ সভার বৈঠকে বিষয়টি অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে রাত আটটার দিকে বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন নিজেই বিশ্বকাপ আয়োজনের ব্যাপারে জানিয়েছেন।

বিসিবি সভাপতি বলেন, ‘আইসিসির শর্ত অনুযায়ী ওয়ানডে বিশ্বকাপ আয়োজনে ১০ টা ফুল ফ্যাসিলিটি সহ ভেন্যু দরকার। যারাই নিবে তাদের দরকার। যদি আমরা টি-টুয়েন্টিতে যাই তাদের আটটা দরকার। এটাও আমাদের জন্য কঠিন।

‘চ্যাম্পিয়নস ট্রফিটা আমরা এককভাবে নিজেরা বিড করব। এছাড়া ওয়ানডে বিশ্বকাপ ও টি-টুয়েন্টি আমরা একা পারব না। কিন্তু যৌথভাবে চেষ্টা করব।’

এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) সঙ্গে আলোচনা করে এ বিষয়ে প্রস্তাব প্রস্তুত করা হবে বলে জানান পাপন।

তিনি বলেন, ‘এসিসির অধীনে যারা আছে তাদের সঙ্গে কথা বলে একসঙ্গে বিড করলে আমাদের পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।’

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

ক্রিকেটে হচ্ছে ‘ছায়া’ জাতীয় দল

ক্রিকেটে হচ্ছে ‘ছায়া’ জাতীয় দল

ছবি: সংগৃহীত

এ দলের মূল কাজ হবে- জাতীয় দলের খেলোয়াড়ের প্রাথমিক বা তাৎক্ষণিক অভাব পূরণ করা। প্রত্যেক পজিশনের ক্রিকেটারের বিকল্প থাকবে এই শ্যাডো জাতীয় দলে। প্রয়োজন বোধে জাতীয় মূল দলে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ রাখার জন্য গড়া হবে এই শ্যাডো দল।

জাতীয় দলের পাশাপাশি ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটের জন্য একটা শ্যাডো জাতীয় দল গড়ার পরিকল্পনা হাতে নিচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। দলটির নামও ঠিক করে ফেলা হয়েছে। ‘বাংলাদেশ টাইগার’ নামে নামকরণ করা হয়েছে শ্যাডো জাতীয় দলের।

এ দলের মূল কাজ হবে- জাতীয় দলের খেলোয়াড়ের প্রাথমিক বা তাৎক্ষণিক অভাব পূরণ করা। প্রত্যেক পজিশনের ক্রিকেটারের বিকল্প থাকবে এই শ্যাডো জাতীয় দলে। প্রয়োজন বোধে জাতীয় মূল দলে অন্তর্ভুক্ত করার সুযোগ রাখার জন্য গড়া হবে এই শ্যাডো দল।

মঙ্গলবার বিসিবির সাধারণ সভার বৈঠকে বিষয়টি অনুমোদন দেয়া হয়।

বৈঠক শেষে রাত আটটার দিকে বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন নিজেই বিষয়টির ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আপনারা হয়তো জানেন তারপরেও বলে দিচ্ছি, জাতীয় দলে যারা যাক পায়, তারা যদি উদাহরণ হিসেবে ধরেন না পায়, কখনও ইমরুল পায় নাই, সৌম্য থাকে না স্কোয়াডে, ওরা নাকি অনুশীলন করারও সুযোগ পায় না এখানে। আমাদের ফ্যাসিলিটিগুলা নাকি পায় না। এটা তো একটা বড় প্রবলেম। ওরা কোথায় প্রাকটিস করবে।

‘তাদের যদি কোনো ঘাটতি থাকে, কেউ যদি ড্রপ হয় তাহলে ও শিখবে কোথায়? এইটা একটা ইস্যু ছিল।

জাতীয় দলের প্রধান কোচের সমন্বয়ে বছরব্যাপী চলবে শ্যাডো জাতীয় দলের প্রশিক্ষণ।

পাপনের কথায় তা স্পষ্ট, ‘এখান থেকেই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সারাবছর রাউন্ড দ্য ক্লোক এখানে ট্রেনিং চলবে। ব্যাসিক্যালি স্থানীয় কোচদের নিয়ে এই প্রশিক্ষণ চলবে। হেড কোচের নির্দেশনা অনুযায়ী এটা চলবে।’

এই শ্যাডো দল থেকে কীভাবে জাতীয় দলে সুযোগ পাবে কোনো খেলোয়াড়ও উদাহরণ দিয়ে তার ব্যাখ্যা দেয়ার চেষ্টা করেন বিসিবি সভাপতি।

পাপন বলেন, ‘ধরেন ওপেনিংয়ে একটা প্লেয়ার সুযোগ পেল। সে খেলবে না বা ইনজুরিতে বা কোনো কারণে নাই। তখন আমরা একেকদিন একেকজনকে ট্রাই করি। আজকে একে করি কালকে ওকে করি। আমাদের যদি রেডিমেড থাকতো। যদি দরকার হয় জাতীয় দলে তাহলে কে যাবে? কে কোন পজিশনে ওভাবে চিহ্নিত করে কোচ ট্রেনিং করা হবে।’

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

তিন ফরম্যাটেই কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরেছেন সাকিব

তিন ফরম্যাটেই কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরেছেন সাকিব

ছবি: নিউজবাংলা

২০১৯ সালের অক্টোবরে জুয়াড়ির কাছ থেকে প্রস্তাব পেয়ে আইসিসিকে না জানানোয় গতবার বিসিবি সাকিবকে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দিয়েছিল।

ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান।

এর ফলে ভবিষ্যতে দেশের হয়ে দেশসেরা অলরাউন্ডারের খেলা নিয়ে সংশয় কার্যত উঠে যাচ্ছে।

কারণ বিসিবির নির্দেশনা অনুযায়ী চুক্তিতে থাকলে দেশের হয়ে খেলাকেই অগ্রাধিকার দিতে হবে ক্রিকেটারদের।

মঙ্গলবার সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার লম্বা বৈঠকে সাকিবের চুক্তির বিষয়টি অনুমোদন দেয় বিসিবি। পরে সংবাদমাধ্যমের কাছে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিসিবির সভাপতি নাজমুল হাসান।

এর আগে ২০১৯ সালের অক্টোবরে জুয়াড়ির কাছ থেকে প্রস্তাব পেয়ে আইসিসিকে না জানানোয়, এক বছরের স্থগিতাদেশ সহ দুই বছরের নিষেধাজ্ঞায় থাকার সময় বিসিবি সাকিবকে কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ দিয়েছিল।

এখন থেকে চুক্তির আওতায় বেতনভুক্ত হলেন সাকিব।

সাকিবকে ফেরানোর সঙ্গে সভায় ২২ জন নারী ক্রিকেটারকে চুক্তিতে আনার সিদ্ধান্ত অনুমোদন দিয়েছে বিসিবি। এতে করে বিসিবির বেতন কাঠামোর মধ্যে আসবেন সালমা-জাহানারা-রুমানাদের মতো সিনিয়র সহ অন্যান্য নারী তারকারা।

সভার এছাড়া মিনহাজুল আবেদীনের অধীনস্থ তিন সদস্যের নির্বাচক প্যানেলের মেয়াদ বাড়ানোরও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

মিনহাজুল-হাবিবুল বাশার ও আব্দুর রাজ্জাকদের প্যানেল থাকছে এই বছরের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

আইসিসির মে মাসের সেরা মুশফিক

আইসিসির মে মাসের সেরা মুশফিক

মুশফিকুর রহিম। ফাইল ছবি

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজে তিন ম্যাচে মুশফিক করেন ২৩৭ রান। প্রথম ম্যাচে করেন ৮৪। দ্বিতীয় ম্যাচে তার ব্যাট থেকে আসে অনবদ্য ১২৫। তার দুর্দান্ত এ দুই ইনিংসে প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ।

ব্যাট হাতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দারুণ এক সিরিজ খেলার স্বীকৃতি পেলেন মুশফিকুর রহিম। আইসিসি তাকে মে মাসের সেরা খেলোয়াড় হিসেবে নির্বাচিত করেছে। সোমবার দুপুরে এক টুইট বার্তায় মুশফিকের পুরস্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করে আইসিসি।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল সিদ্ধান্ত নেয় প্রতি মাসের সেরা খেলোয়াড়কে পুরস্কৃত করার। প্রথম চার মাস বাংলাদেশের কোনো খেলোয়াড় সে পুরস্কারের জন্য মনোনীত না হলেও ধারা ভাঙে মে মাসে।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে দুর্দান্ত পারফরমেন্সের বরাতে মে মাসে ‘আইসিসি সেরা খেলোয়াড় (পুরুষ)’- হয়েছেন মুশফিকুর রহিম।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজে তিন ম্যাচে মুশফিক করেন ২৩৭ রান। প্রথম ম্যাচে করেন ৮৪। দ্বিতীয় ম্যাচে তার ব্যাট থেকে আসে অনবদ্য ১২৫। তার দুর্দান্ত এ দুই ইনিংসে প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ জেতে বাংলাদেশ। শেষ ম্যাচে মুশফিক ব্যর্থ হলে হারে বাংলাদেশও।

মুশফিকের পাশাপাশি এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত ছিলেন পাকিস্তানের হাসান আলি ও শ্রীলঙ্কার প্রাভিন জয়াউইক্রামা।

হাসান আলি জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দুটি টেস্ট খেলে ১৪ উইকেট তুলে নেন। জয়াউইক্রামা বাংলাদেশের বিপক্ষে একটি টেস্ট খেলে তুলে নেন ১১টি উইকেট। যা অভিষিক্ত কোনো শ্রীলঙ্কান বোলারের সেরা পারফরমেন্স।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

বৃষ্টিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি ব্রাদার্স ও মোহামেডানের

বৃষ্টিতে পয়েন্ট ভাগাভাগি ব্রাদার্স ও মোহামেডানের

ছবি: সংগৃহীত

সাকিবকে ছাড়া নিজেদের প্রথম ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ওল্ডডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাবকে পাঁচ রানে হারালেও সোমবারের ম্যাচে পয়েন্ট খোয়াতে হয়েছে মোহামেডানকে। বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন বনাম মোহামেডানের ম্যাচ।

আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) ম্যাচে অসদাচরণের জন্য তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞায় আছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। তাকে ছাড়া দুটি ম্যাচ খেলে ফেলেছে মোহামেডান।

রোববার সাকিবকে ছাড়া নিজেদের প্রথম ম্যাচে বৃষ্টি আইনে ওল্ডডিওএইচএস স্পোর্টস ক্লাবকে পাঁচ রানে হারালেও সোমবারের ম্যাচে পয়েন্ট খোয়াতে হয়েছে মোহামেডানকে।

বৃষ্টির কারণে পরিত্যক্ত হয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন বনাম মোহামেডানের ম্যাচ।

বিকেএসপিতে মোহামেডানের ইনিংস শেষ হলেও বৃষ্টির কারণে মাঠ খেলার উপযুক্ত হওয়ায় ব্রাদার্সের ইনিংস শুরু করা যায়নি। ম্যাচে ফল ঘোষণার জন্য অন্তত পাঁচ ওভার খেলা হতে হয়। তেমনটা না হওয়ায় ম্যাচ রেফারি ম্যাচটিকে পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন।

বিকেএসপির চার নম্বর মাঠে টস জিতে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় মোহামেডান। নির্ধারিত ওভারে নয় উইকেটে ১৪৩ রান সংগ্রহ করে তারা। সর্বোচ্চ ২৮ রান আসে মাহমুদুল হাসানের ব্যাট থেকে। ১৯ রান করেন আগের ম্যাচে ফিফটি করা ইরফান শুক্কুর।

ব্রাদার্সের পক্ষে আলাউদ্দিন বাবু ও রাহাতুল ফেরদৌস দুটি করে উইকেট নেন। এরপর বৃষ্টির কারণে ১৪৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে পারেনি ব্রাদার্স। ফলে এক পয়েন্ট করে পায় দুই দল।

নয় ম্যাচ শেষে মোহামেডানের সংগ্রহ ১১ পয়েন্ট। টেবিলের পাঁচে আছে পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। সমান ম্যাচে তাদের চেয়ে এক পয়েন্ট কম পাওয়া ব্রাদার্স আছে সুপার লিগের শেষ স্পট অর্থাৎ ছয়ে।

রাউন্ড রবিনে আর দুটি ম্যাচ আছে মোহামেডানের। এর শেষটি খেলতে পারবেন সাকিব। আর মোহামেডান যদি সুপার লিগে কোয়ালিফাই করে তাহলে পুরো সুপারলিগই খেলতে পারবেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

দিনের অন্যম্যাচে জয় পেয়েছে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাব, আবাহনী লিমিটেড, প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাব ও শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব।

নয় ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকার শীর্ষে আছে প্রাইম ব্যাংক। সমান ম্যাচে তাদের চেয়ে এক পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে প্রাইম দোলেশ্বর।

আট ম্যাচ খেলা আবাহনীর সংগ্রহ ১২। তারা আছে তিনে। ১২ পয়েন্ট সংগ্রহ করেছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সও। তবে তারা খেলেছে নয় ম্যাচ। আছে চার নম্বরে।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

করোনায় জিম্বাবুয়েতে লকডাউন, শঙ্কায় বাংলাদেশ সিরিজ

করোনায় জিম্বাবুয়েতে লকডাউন, শঙ্কায় বাংলাদেশ সিরিজ

ফাইল ছবি

জিম্বাবুয়েতে নতুন করে লকডাউন দিয়েছে দেশটির সরকার। ফলে স্থগিত করা হয়েছে যেকোনো ধরনের আউটডোর ইভেন্ট। যার মধ্যে রয়েছে ক্রীড়া ইভেন্টও।

করোনাভাইরাস মহামারির পরিস্থিতি খারাপ হওয়াতে জিম্বাবুয়েতে নতুন করে লকডাউন দিয়েছে দেশটির সরকার। ফলে স্থগিত করা হয়েছে যেকোনো ধরনের আউটডোর ইভেন্ট। যার মধ্যে রয়েছে ক্রীড়া ইভেন্টও।

হারারতে চলমান জিম্বাবুয়ে-এ ও সাউথ আফ্রিকা-এ দলের মধ্যেকার আনঅফিশিয়াল টেস্ট ম্যাচটিও বাতিল করা হয়েছে।
জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট এক টুইট বার্তায় জানায় দেশটিতে লকডাউনের কারণে সকল ক্রিকেট ম্যাচ স্থগিত করা হয়েছে।

লকডাউনের কারণে শঙ্কায় পড়েছে আসন্ন জিম্বাবুয়ে-বাংলাদেশ সিরিজও। এই মাসের শেষে ডিপিএলের পর ২৯ অথবা ৩০ জুন জিম্বাবুয়েতে যাওয়ার কথা বাংলাদেশ দলের।

সাত জুলাই থেকে শুরু হওয়া সিরিজে একটি টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিনটি টি-টোয়েন্টি খেলার কথা দুই দলের। লকডাউন বেশিদিন চললে স্থগিত হতে পারে সিরিজ। তবে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে সিরিজ বাতিল বা স্থগিত নিয়ে কিছু বলেনি।

গত বছর করোনাভাইরাস মহামারির কারণে স্থগিত হয় বাংলাদেশ-পাকিস্তান চলমান সিরিজ। এরপর করোনাভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের নির্দিষ্ট সফরে আসেনি শ্রীলঙ্কা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কিছু জানায়নি।

এর আগে, গুঞ্জন ছিল জিম্বাবুয়ে সফরে যেতে চান না জাতীয় দলের কিছু অভিজ্ঞ খেলোয়াড়। এমন কিছু পরিকল্পনায় নেই বলেই পরে সংবাদমাধ্যমকে জানান বিসিবির নির্বাচক হাবিবুল বাশার। নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, সম্ভাব্য সেরা দলটিই তারা পাঠাতে চান জিম্বাবুয়ে সফরে।

জিম্বাবুয়ে সফর যদি হয়, সেখানে র কোয়ারেন্টিন নিয়ে এখনও আসেনি কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। গত সপ্তাহে বিসিবি জানায় ৫-৭ দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হতে পারে টাইগারদের। সেটি হলে ৭ জুলাই শুরু হতে যাওয়া সিরিজের আগে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচটি খেলা হবে না বাংলাদেশ দলের।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন

সাকিবকে নিয়ে মোহামেডানের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

সাকিবকে নিয়ে মোহামেডানের সংবাদ সম্মেলন স্থগিত

মোহামেডানের জার্সিতে সাকিব আল হাসান। ফাইল ছবি

মোহামেডানের পরিচালক ও ক্রিকেট কমিটির সভাপতি মাসুদুজ্জামানের পক্ষ থেকে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনটি সোমবার হচ্ছে না। ক্লাব ও খেলোয়াড়ের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী তারিখ দ্রুত জানিয়ে দেয়া হবে।

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে (ডিপিএল) আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ম্যাচে অসদাচরণের জন্য তিন ম্যাচ নিষিদ্ধ ও পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করা হয় মোহামেডানের অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে। নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে শনিবারই আপিল করে মোহামেডান।

আর আম্পায়ারিং ইস্যুতে ক্রিকেট কমিটি অফ ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) জানায় তারা ক্লাব ও অধিনায়কদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে। তার পরদিন রোববার মোহামেডান আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয় সোমবার সংবাদ সম্মেলন করার।

ক্লাব প্রাঙ্গণে সোমবার বেলা ৩টায় হওয়ার কথা ছিল সংবাদ সম্মেলনটি। তবে সম্মেলনের দিন সকালে পুরান ঢাকার ক্লাবটি জানায় অনিবার্য কারণে সংবাদ সম্মেলনটি বাতিল করছে তারা।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে মোহামেডানের পরিচালক ও ক্রিকেট কমিটির সভাপতি মাসুদুজ্জামানের পক্ষ থেকে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনটি সোমবার হচ্ছে না। ক্লাব ও খেলোয়াড়ের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী তারিখ দ্রুত জানিয়ে দেয়া হবে।

ডিপিএলের জন্য বায়ো বাবলে থাকায় সোমবারের সংবাদ সম্মেলনে সাকিব আল হাসানের উপস্থিতির কোনো সম্ভাবনা ছিল না। মোহামেডান ক্লাবের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সম্মেলনে ক্লাব ও সাকিবের যৌথ বক্তব্য তুলে ধরার কথা ছিল।

সাকিব নিষিদ্ধ হওয়ার পর ডিপিএলে নিজেদের প্রথম ম্যাচ জিতেছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক শুভাগত হোমের নেতৃত্বে শনিবার ওল্ডডিওএইচএস ক্লাবকে বৃষ্টি আইনে পাঁচ রানে হারায় মোহামেডান।

মোহামেডান পরের বাকি দুই ম্যাচ জিতে গেলে সুপার লিগে কোয়ালিফাই করবে সাদা-কালোরা। লিগ পর্যায়ের শেষ ম্যাচে খেলবেন সাকিব। আর মোহামেডান সুপার লিগে কোয়ালিফাই করলে খেলতে পারবেন সুপার লিগের সব ম্যাচ।

আরও পড়ুন:
মিরাজের স্পিনে জয় দেখছে বাংলাদেশ
মিরাজ-সাকিবের ঘূর্ণিতে বিপদে শ্রীলঙ্কা
ডমিঙ্গোর বিকল্প নেই বিসিবির কাছে

শেয়ার করুন