শ্রীলঙ্কা যাবার আগে ক্রিকেটারদের
টিকার দ্বিতীয় ডোজ

টিকার প্রথম ডোজ নিচ্ছেন বাংলাদেশ দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। ছবি: বিসিবি

শ্রীলঙ্কা যাবার আগে ক্রিকেটারদের টিকার দ্বিতীয় ডোজ

নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার আগে ১৮ ও ২০ ফেব্রুয়ারি টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা। সঙ্গে টিকা নিয়েছিলেন টিম বয় ও ম্যানেজমেন্টের সদস্যরা।

দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে ১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এর আগেই শনিবার তাদেরকে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী টিকার দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হবে।

শুক্রবার নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান চিকিৎসক ডা. দেবাশীষ চৌধুরী।

নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়ার আগে ১৮ ও ২০ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন ক্রিকেটাররা। সঙ্গে টিকা নিয়েছিলেন টিম বয় ও ম্যানেজমেন্টের সদস্যরাও।

‘যারা নিউজিল্যান্ড যাওয়ার আগে প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন তারা সবাই আশা করি কালকে নিয়ে নেবে,’ বলেন ডা. দেবাশীষ।

দ্বিতীয় ডোজ অবশ্য আপাতত নেয়া হচ্ছে না মুস্তাফিজুর রহমানের। নিউজিল্যান্ড সফরের আগে প্রথম ডোজ নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু বর্তমানে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলতে ভার‍তে থাকায় আপাতত টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেয়া হচ্ছে না কাটার মাস্টারের।

ডা. দেবাশীষ জানান, মুস্তাফিজ টিকা নেবেন আইপিএল শেষ করে এসে। তিনি বলেন, ‘ও (মুস্তাফিজ) আইপিএল শেষ করে এসে তারপর নেবে। তিন মাস সময় আছে, এর মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ নিলেই হবে।’

নিউজিল্যান্ড সফরের আগে টিকা নেননি মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদসহ আরও কয়েকজন ক্রিকেটার। বিসিবির প্রধান চিকিৎসক জানালেন, শ্রীলঙ্কা সফরের আগে তারাও চাইলে নিতে পারবেন প্রথম ডোজ। তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ, যারা প্রথম ডোজ নেয়নি তারা চাইলে নিতে পারবে।’

ডা. দেবাশীষ জানান, নির্ধারিত তারিখের এক সপ্তাহ আগেই টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিচ্ছেন ক্রিকেটাররা। কারণ হিসেবে তিনি বলেন, যথেষ্ট টিকা না থাকার যে বিষয়টি সামনে এসেছে, তা নিয়ে ঝুঁকি না নিতে আগেই টিকা নিয়ে নিচ্ছেন ক্রিকেটাররা।

‘এক সপ্তাহ আগে নেয়া হচ্ছে। সরকারি নির্দেশনা হচ্ছে এক থেকে তিন মাসের মধ্যে নেয়া। আসলে টিকার অবস্থা বুঝতে পারছি না। আমরা হয়ত এখন দিলাম না, এসে দিলাম। তখন যদি দেখা যায় যে টিকা নেই, তখন কী হবে? তাই এখন আমরা আগে নিয়ে নেয়াই ভালো মনে করছি’-বলেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক।

এছাড়াও সাউথ আফ্রিকা এমার্জিং দলের বিপক্ষে চলমান সিরিজ শেষে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দলও টিকার দ্বিতীয় ডোজ নেবে বলে জানান তিনি।

১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কা পৌঁছে কোয়ারেন্টিনে থাকবে বাংলাদেশ দল। পাল্লেকেলেতে দুই টেস্টের সিরিজ শুরু হবে ২১ এপ্রিল।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ওয়ানডে সিরিজে নিশ্চিত নন রুবেল

ওয়ানডে সিরিজে নিশ্চিত নন রুবেল

ফাইল ছবি: এএফপি

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ বছর আগে মাত্র ১৯ বছর বয়সে অভিষেক হয় রুবেলের। দীর্ঘ ক্যারিয়ারের ধকল নিতে হচ্ছে তার শরীরকে। রুবেলের শরীরে আপাতত ব্যথা নেই, তবে ম্যাচ খেলার মতো অবস্থায় আছেন কি না, সেই সিদ্ধান্ত তাকে নিতে হবে, এমনটাই জানালেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজের প্রাথমিক দলে থাকলেও মাঠে নামা নিশ্চিত নয় রুবেল হোসেনের। পিঠের চোটে ভুগছেন অভিজ্ঞ এই পেইসার। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) জানিয়েছে পুনর্বাসনপ্রক্রিয়া সঠিকভাবেই যাচ্ছে রুবেলের।

রুবেলের স্ক্যানে পিঠের চোট ধরা পড়ে। তারপর থেকেই বিসিবির মেডিক্যাল টিমের অধীনে পুনর্বাসনপ্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। পেইসারদের এমন সমস্যা অস্বাভাবিক নয় বলে জানালেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী।

‘রুবেল এক যুগের বেশি সময় ধরে এলিট লেভেলে বল করছেন। এই ধরনের বোলারদের ব্যাকে কিছু ইস্যু হয়ে থাকে। রুবেলও তার ব্যতিক্রম না। কয়েক দফা স্ক্যান করানো হয়েছে, স্ক্যানে তার লো ব্যাকে কিছু সমস্যা দেখা গিয়েছে। এই সমস্যাটা মাঝে মাঝে মাথাচাড়া দেবে। রুবেলকে একটা খুব ভালো পুনর্বাসনপ্রক্রিয়ায় থাকতে হবে। আর সে সেটিই করছে।’

লঙ্কা সিরিজে রুবেলের খেলার সম্ভাবনার বিষয়ে নিশ্চিত নন দেবাশীষ। পিঠের সমস্যাটা সিরিজের আগে বর্তমান অবস্থা থেকে উন্নতি করবে, এমনটা ধারণা তার।

‘বিবেচনার বিষয়টি শেষ মুহূর্তে নির্বাচকরা সিদ্ধান্ত নেবে। এখনই তো বলার প্রয়োজন নেই যে সে দলের বাইরে চলে গেছে। এটা একটা চলমান প্রক্রিয়া। দল নির্বাচনের আগে যখন আমাদের জিজ্ঞেস করবে তখন আপডেট জানাব। এটা তত দিনে আরেকটু ভালো হবে।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ১২ বছর আগে মাত্র ১৯ বছর বয়সে অভিষেক হয় রুবেলের। দীর্ঘ ক্যারিয়ারের ধকল নিতে হচ্ছে তার শরীরকে। রুবেলের শরীরে আপাতত ব্যথা নেই, তবে ম্যাচ খেলার মতো অবস্থায় আছেন কি না, সেই সিদ্ধান্ত তাকে নিতে হবে, এমনটাই জানালেন বিসিবির প্রধান চিকিৎসক।

‘এটা যত দিন ও খেলবে তত দিন চলবে। ১২-১৫ বছর খেলাটা সহজ না পেসারদের জন্য। শুধু রুবেল না, আমাদের অন্য অনেক পেসারই এ রকম সমস্যায় ভুগছে। দেখা যায় ক্যারিয়ার লম্বা হয় না কিংবা মাঝে মাঝে খেলে। নিউজিল্যান্ডে থাকা অবস্থাতেই ওর কিছুটা সমস্যা হচ্ছিল। ম্যাচ ফিটনেসের ব্যাপারটা ওর নিজের বুঝতে হবে। আমরা পরীক্ষা করে আসলে এই মুহূর্তে কোনো ব্যথা পাচ্ছি না।’

২০০৯ সালে অভিষেকের পর থেকে বাংলাদেশের হয়ে ২৭টি টেস্ট ও ১০৪টি ওয়ানডে খেলেছেন রুবেল। টেস্টে তার উইকেট ৩৬টি। ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে গত এক দশকের অন্যতম সফল বোলার তিনি। উইকেট সংখ্যা ১২৯টি।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

চার করোনা পরীক্ষার পর অনুশীলন করবে শ্রীলঙ্কা

চার করোনা পরীক্ষার পর অনুশীলন করবে শ্রীলঙ্কা

অনুশীলনে শ্রীলঙ্কা দল। ফাইল ছবি: টুইটার

বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী নিউজবাংলাকে জানান লঙ্কান স্কোয়াডের প্রত্যেক সদস্যের চারটি করে পরীক্ষা করা হবে।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে রোববার সকালে বাংলাদেশে এসেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। এসে তাদের থাকতে হচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে। স্থানীয় হোটেলে তিনদিনের আইসোলেশন শেষে ১৯মে থেকে অনুশীলন করার সুযোগ পাবেন তারা। তবে, তার আগে যেতে হবে একাধিক কোভিড টেস্টের মধ্য দিয়ে।

বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী নিউজবাংলাকে জানান লঙ্কান স্কোয়াডের প্রত্যেক সদস্যের চারটি করে পরীক্ষা করা হবে।

‘বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কায় যে প্রোটোকলে ছিল আমরা সেরকম প্রোটোকলই তৈরি করেছি বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুসারে। প্রথম তিনদিনে একটা কঠোর কোয়ারেন্টাইন অনুসরণ করা হবে। অর্থাৎ খেলোয়াড়েরা তাদের হোটেল রুমে অবস্থান করবেন। বাইরে আসবেন না এই তিন দিন। তিনদিনের মধ্যেই দুটো টেস্ট হবে। চতুর্থ দিনের টেস্টের ভিত্তিতে অনুশীলনের অনুমতি মিলবে। নিজেদের মধ্যে অনুশীলন করতে পারবেন।’

অনুশীলন শুরু করার পরও একবার পরীক্ষা করা হবে অতিথিদের। ২৩মে প্রথম ওয়ানডের আগে দুই দলেরই করোনা পরীক্ষা করা হবে।

‘মোট চারটা পরীক্ষা হবে। ২০ ও ২১ তারিখ বিকেএসপিতে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে দুই দল আলাদা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে। এরপর ২২ তারিখ একটা কোভিড পরীক্ষা হবে। ঐ পরীক্ষার ফলের উপর ২৩ তারিখ থেকে ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে।’

শুধু লঙ্কানরাই নন, স্বাগতিক বাংলাদেশের ক্রিকেটারদেরও কঠোর বিধি-নিষেধের মধ্যে দিয়ে যেতে হচ্ছে করোনা মহামারির সময়ে মাঠে থাকার জন্য। মাসের শুরু থেকে অনুশীলনরত ক্রিকেটারদের পরীক্ষা নিয়মিত শুরু হয়ে গেলেও, সিরিজের জন্য আনুষ্ঠানিক পরীক্ষা করা হয় শনিবার।

‘ঢাকায় অবস্থান করা অন্যদের কোভিড পরীক্ষা শুরু হয় এই মাসের প্রথম থেকে। আর তারা এক ধরণের মোডিফাইড বায়ো বাবল সিকিউরিটিতে থেকে অনুশীলন চালিয়ে যাচ্ছিল। আনুষ্ঠানিকভাবে আমরা বাংলাদেশ দলের পরীক্ষা শুরু করেছি। গতকাল প্রথম পরীক্ষা হয়েছে। আজকেও হবে, আগামীকালও হবে। ১৬ ও ১৭ এই দুইদিনে দুই দফা পরীক্ষা হবে বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটার ও সাপোর্ট স্টাফদের। সে ফলাফলের ভিত্তিতে তারা ১৮ তারিখ অনুশীলন শুরু করবেন।’

২৩মে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার প্রথম ওয়ানডে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচ ২৭ ও ২৯মে। সবগুলো ম্যাচই ডে-নাইট। খেলাগুলো হবে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

ঢাকায় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল

ঢাকায় শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল

ছবি: বিসিবি

ঢাকায় টিম হোটেলে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন করবে পুরো লঙ্কা স্কোয়াড। কোয়ারেন্টিন শেষে বুধবার থেকে অনুশীলন শুরু করবে সফরকারীরা।

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে এসেছে শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট দল। রোববার সকাল সাড়ে আটটার দিকে কুশাল পেরেরার নেতৃত্বে ১৮ সদস্যের দল ঢাকায় পৌঁছায়।

ঢাকায় টিম হোটেলে তিন দিনের কোয়ারেন্টিন করবে পুরো লঙ্কা স্কোয়াড। কোয়ারেন্টিন শেষে বুধবার থেকে অনুশীলন শুরু করবে সফরকারীরা।

বাংলাদেশ সফরে আসা লঙ্কান স্কোয়াডে জায়গা হয়েছে তরুণ সদস্যদের। জায়গা পাননি সাবেক ওয়ানডে অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে, অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ ও দিনেশ চান্দিমালের মতো অভিজ্ঞরা।

শ্রীলঙ্কার হয়ে অধিনায়কত্বের প্রথম অধ্যায়ে দলের কাছে ভয়ডরহীন ক্রিকেট চান কুশল। বাংলাদেশে আসার আগে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, হারের ভয় পাওয়া চলবে না।

‘আমাদের ম্যাচ জিততে ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলতে হবে। আপনি হারের ভয় পেতে পারবেন না। যদি দলে আপনার জায়গা নিয়ে সন্দিহান হন, তাহলে শতভাগ দিতে পারবেন না,’ বলেন শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক।

ভয়ডরহীন ক্রিকেট খেলার ফর্মুলাও বলে দেন কুশল। বলেন, ‘খেলোয়াড়দের বলব তাদের সর্বোচ্চটা দিতে। যদি অনুশীলনে ভয়হীন ক্রিকেট খেলতে পারি, তাহলে ম্যাচেও পারব। এটিই দলকে বলেছি। ভয় পেলে আরও পিছিয়ে পড়ব। এমন একটি সংস্কৃতি গড়তে চাচ্ছি যেখানে সবাই আত্মবিশ্বাসে ভরপুর থাকবে।’

দুই দলের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে ২৩ মে। তবে তার আগে ২১ মে বিকেএসপিতে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে শ্রীলঙ্কা।

২৩ মে শুরু হতে যাওয়া ওয়ানডে সিরিজের তিনটি ম্যাচই হবে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। দিবারাত্রির ম্যাচ তিনটি হবে যথাক্রমে ২৩, ২৫ ও ২৮ মে।

সিরিজ শেষ করে ২৯ মে দেশে ফিরে যাবে সফরকারীরা।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

কোনো অভিষেক মনের মতো হয়নি শরিফুলের

কোনো অভিষেক মনের মতো হয়নি শরিফুলের

প্রথম টেস্ট উইকেটের পর উদযাপনে শরিফুল। ছবি: এএফপি

রূপকথার গল্প হলে, সিরিজের প্রথম ম্যাচটা বাংলাদেশকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়তেন তিনি। কিন্তু বাস্তবে সেরকম হয় না। প্রথম ম্যাচে চার ওভারে ৫০ রান দেন তিনি। পাননি কোনো উইকেট।

পঞ্চগড় থেকে উঠে আসা বাঁহাতি পেইসার শরিফুল ইসলামের স্বপ্ন ছিল, জাতীয় দলে খেলে পরিবারের অর্থনৈতিক অবস্থার পরিবর্তন। সেই স্বপ্নের কাছাকাছি পৌঁছে যান ৪ জানুয়ারি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঘরের মাঠের সিরিজের প্রাথমিক দলে ডাক পেয়ে যান।

দুটি স্বপ্ন ছিল। সেগুলো পূরণের কাছাকাছি চলে এসেছি জাতীয় দলের প্রাথমিক স্কোয়াডে ডাক পেয়ে। চেষ্টা করব নিজের সেরাটা দিয়ে দলে থাকার জন্য। যেভাবে খেলে আসছি, সেভাবেই খেলে, ভালো পারফর্ম করে জাতীয় দলে থাকা,’ নিউজবাংলাকে বলেন তরুণ এ পেইসার।

শেষ পর্যন্ত অবশ্য সেই সিরিজে অভিষেক হয়নি শরিফুলের। সেটি হয় দেশ থেকে হাজার মাইল দূরের নিউজিল্যান্ডে। সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে।

রূপকথার গল্প হলে, সিরিজের প্রথম ম্যাচটা বাংলাদেশকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়তেন তিনি। কিন্তু বাস্তবে সেরকম হয় না। প্রথম ম্যাচে চার ওভারে ৫০ রান দেন তিনি। পাননি কোনো উইকেট।

প্রথম ম্যাচে বাজে করার পর ভেঙে পড়েননি শরিফুল। টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নির্বাচক হাবিবুল বাশারের অনুপ্রেরণার পাশাপাশি নিজের বিশ্বাসও ছিল যে ফিরে আসতে পারবেন।

‘প্রথম ম্যাচ খেলার পর আমি নরমাল ছিলাম। পরে রিয়াদ ভাই এসে আমাকে বলল যে সমস্যা নেই, এরকম হয় প্রথম ম্যাচে। পরে সুমন স্যার (হাবিবুল বাশার) এসে আমাকে আরো কিছু ইতিবাচক কথা বলেছেন। তখন এসব খুব ভালোভাবে নিয়েছি। রিয়াদ ভাই বলেছেন যে বাংলাদেশকে লম্বা সময় সার্ভিস দিতে হবে। প্রথম ম্যাচে এমন হতেই পারে, সমস্যা নেই। পরের ম্যাচ ভালো হবে। পরের ম্যাচেই আমি কামব্যাক করি।’

পরের ম্যাচে দারুণ বোলিং করেন শরিফুল। নিউজিল্যান্ড ১৭৩ স্কোর করলেও শরিফুলের তিন ওভারে তারা নিতে পারে মাত্র ১৬ রান। সঙ্গে উইকেট পান ডেভন কনওয়ের।

ম্যাচে ভালো করার পর শরিফুলের মনে হতে থাকে, আরও ভালো কিছু করতে পারবেন তিনি।

২৮ মার্চ অভিষেকের আগের বছরটা অবশ্য গল্পের মতোই। অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপ জেতার পর করোনার কারণে তেমন খেলতে পারেননি। প্রেসিডেন্টস কাপে ঝলক দেখালেও দারুণ কিছু করতে পারেননি।

সেটি করলেন বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে। গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের হয়ে নিজের আদর্শ মুস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে গড়েন দারুণ এক জুটি। ১০ ম্যাচে তুলে নেন ১৬ উইকেট। সেই টুর্নামেন্টের পর শরিফুলের মনে হতে থাকে, জাতীয় দলের ক্যাম্পে সুযোগ পাবেন তিনি।

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপে শরিফুল। ছবি: বিসিবি

‘যখন ওই টুর্নামেন্টে ভালো করেছি, তখন মনে করেছি যে আমাকে ক্যাম্পে ডাকবে। অন্যদের সঙ্গে থেকে আরও শেখার চেষ্টা করব। যখন ক্যাম্পে ডেকেছে তখন প্র্যাকটিসে নিজের সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। আমার এই আশা ছিল যে আমি ডাক পাব,’ আলাপচারিতায় বলেন শরিফুল।

টি-টোয়েন্টির পর টেস্ট অভিষেকও হয়ে গিয়েছে শরিফুলের। সেটিও দেশের বাইরে, শ্রীলঙ্কায়। সেখানেও অভিষেকটা ভালো হয়নি, দুই ইনিংস মিলিয়ে পেয়েছেন মাত্র এক উইকেট।

অভিষেক নিয়ে শরিফুলের মত, তার অভিষেকটাই কেনো যেন ভালো যায় না!

‘অনূর্ধ্ব-১৯ দলের হয়ে আমার অভিষেক ম্যাচও ভালো যায়নি। চেষ্টা করি যে প্রথম থেকেই ভালো করার। সব অভিষেক ম্যাচই আসলে এরকম বাজে হয়ে গিয়েছে (হাসি)। কিন্তু আমি ওভাবে ভাবি না। প্রথম ম্যাচটা খারাপ খেলেছি তো পরে কী হবে। চেষ্টা থাকে প্রথম থেকেই ভালো করার।’

শরিফুলকে তার ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই সাহায্য করে গেছেন তার কোচ ও বাংলাদেশের হয়ে দুটি টেস্ট খেলা সাবেক বাংলাদেশ পেইসার আলমগীর কবির। তার কোচের ভাগ্যে বাংলাদেশের জার্সি গায়ে উইকেট জোটেনি। আর অভিষেকেই উইকেট পেয়েছেন শরিফুল। শিষ্যের খুশিতেই উচ্ছ্বসিত আলমগীর। এক জায়গায় অবশ্য মিলে গেছেন গুরু শিষ্য, দুজনের টেস্ট অভিষেকই শ্রীলঙ্কায়।

“আমার কোচ আলমগীর কবির টেস্ট প্লেয়ার ছিলেন। উনার যখন শ্রীলঙ্কায় অভিষেক হয়েছে তখন উনি উইকেট পাননি। তো আমার যখন অভিষেক হয় শ্রীলঙ্কায়, আমি তাকে ফোন দিয়েছিলাম। তখন উনি এত খুশি হয়েছে যে বলছিলেন যে ’আমার যেমন শ্রীলঙ্কায় হয়েছে, তোমারও হল। তুমি খেল। ভালো কিছু করবা।’”

সামনে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ঘরের মাঠে ওয়ানডে সিরিজ। শরিফুল আছেন ২৩ সদস্যের প্রাথমিক দলে। শরিফুল চান এই সিরিজেই অভিষেক হোক ওয়ানডেতেও। বাকি অভিষেক ম্যাচের মতো নয়, ওয়ানডে অভিষেকটা চান রাঙিয়ে রাখতে।

শেষ প্রশ্ন হিসেবে নিউজবাংলা শরিফুলের কাছে প্রশ্ন রেখেছিল ক্যারিয়ার নিয়ে তার স্বপ্নের ব্যাপারে। শরিফুল জানান, বিশ্বের সেরা বোলারদের একজন হতে চান তিনি। চান দেশের হয়ে লম্বা সময় খেলতে।

‘ফিট থেকে লম্বা সময় দেশকে সার্ভিস দিতে চাই। চাই বিশ্বের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার হতে,’ বলেন এ বাঁহাতি পেইসার।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

‘উইলিয়ামসন ভারতের হলে তাকেই বিশ্বসেরা বলা হতো’

‘উইলিয়ামসন ভারতের হলে তাকেই বিশ্বসেরা বলা হতো’

ফাইল ছবি: এএফপি

ভারতীয় ও বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যান্য বিশ্লেষক সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয়তার লোভে কোহলিকে সেরা বলেন, এমনটাই দাবি ২০০৫ অ্যাশেজ জয়ী অধিনায়কের।

আধুনিক ক্রিকেটের গত এক দশকের সেরা ব্যাটসম্যানদের ‘বিগ ফোর’ তালিকায় ধরা হয় ভারতের ভিরাট কোহলি, অস্ট্রেলিয়ার স্টিভেন স্মিথ, নিউজিল্যান্ডের কেইন উইলিয়ামসন ও ইংল্যান্ডের জো রুটকে। সাম্প্রতিক ফর্মের বিচারে এই তালিকার আশেপাশে আছেন পাকিস্তানের বাবর আজম।

টেস্টে বিগ ফোরের তুমুল প্রতিদ্বন্দ্বিতা থাকলেও তিন ফরম্যাট মিলিয়ে কোহলিকেই একবাক্যে বিশ্বসেরা মেনে নেন বিশেষজ্ঞরা। স্মিথ, উইলিয়ামসন ও রুটের টেস্ট পরিসংখ্যান কোহলির সঙ্গে তুলনীয় কিন্তু শর্টার ফরম্যাটে সমসাময়িকদের ধরাছোঁয়ার বাইরে ভারতীয় অধিনায়ক।

তবে, কোহলিকে বিশ্বসেরা মানতে রাজি নন মাইকেল ভন। সাবেক ইংলিশ অধিনায়কের মতে উইলিয়ামসনই বিশ্বের সেরা ব্যাটার। নিউজিল্যান্ডের ওয়েবসাইট স্পার্ক স্পোর্টকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ভন বলেন উইলিয়ামসন ভারতীয় হলে, তাকেই বিশ্বসেরা বলতো সবাই।

‘যদি কেইন উইলিয়ামসন ভারতীয় হতেন তাহলে তাকেই বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় বলা হতো। কিন্তু সে তা নয়। কারণ সোশ্যাল মিডিয়ার আক্রমণ থেকে বাঁচতে ভিরাট কোহলিকে সেরা না বলার উপায় নেই।’

ভারতীয় ও বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যান্য বিশ্লেষক সোশ্যাল মিডিয়ায় জনপ্রিয়তার লোভে কোহলিকে সেরা বলেন, এমনটাই দাবি ২০০৫ অ্যাশেজ জয়ী অধিনায়কের।

‘কিছু ক্লিক ও লাইকের জন্য সবাই ভিরাটকে সেরা বলে। এতে কিছু ফলোয়ারও বাড়ে।’

ভনের মতে শুধু টেস্টেই নয় কঠিন পরিস্থিতিতে শান্ত থাকার দক্ষতার জন্য উইলিয়ামসন তিন ফরম্যাটেই সেরা। কোহলির মতো মিডিয়াকে আকর্ষণ করেন না দেখে তার উপর মনোযোগ কম মনে করেন সাবেক ইংলিশ তারকা।

‘কেইন উইলিয়ামসন সব ফরম্যাট মিলিয়েই সেরা। সে যেভাবে খেলে, তার শান্ত আচরণ, বিনয় সব মিলিয়ে সে সেরা। মাঠে যা করে সেটা নিয়ে সে চুপচাপ থাকে।’

ইংল্যান্ডের সিমিং কন্ডিশনে কোহলিকে রান পেতে সংগ্রাম করতে হয়েছে উল্লেখ করে ভন বলেন, ‘যদিও কোহলি ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের কন্ডিশনে রান পেয়েছে। কিন্তু তার আগে প্রায় সবসময়ই তাকে সংগ্রাম করতে হয়েছে। সেখানে উইলিয়ামসন রান পেয়েছে। আমি নিউজিল্যান্ডে আছি বলেই এমনটা বলছি না, আমি আসলেই মনে করি তিন ফরম্যাট মিলিয়ে উইলিয়ামসন কোহলির সমান।’

সোশ্যাল মিডিয়ায় কোহলির জনপ্রিয়তা উইলিয়ামসনের চেয়ে বেশি হলেও, মাঠে ব্ল্যাক ক্যাপস অধিনায়ককে ধারাবাহিকতার জন্য এগিয়ে রাখছেন ভন। সামনের ইংলিশ গ্রীষ্মে উইলিয়ামসন কোহলির চেয়ে সফল হবেন বলে বিশ্বাস তার।

‘কোহলির মতো তার ইন্সট্যাগ্রামে ১০ কোটি ফলোয়ার তার নেই বা সে বিজ্ঞাপণ থেকে ৩-৪ কোটি ডলার আয় করে না। কিন্তু গুণগুত ভাবে মাঠে সে কি দিতে পারে ও ধারাবাহিকতার দিক থেকে সে এগিয়ে। আমার মতে এই গ্রীষ্মে কোহলির চেয়ে ইংল্যান্ডে উইলিয়ামসন রান বেশি পাবে।’

জুনে বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে মুখোমুখি হবে কোহলির ভারত ও উইলিয়ামসনের নিউজিল্যান্ড। তার আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি অ্যাওয়ে টেস্ট খেলবে ব্ল্যাক ক্যাপস।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

ছুটিতে সিলভারউড, ইংল্যান্ডের দায়িত্বে কলিংউড-থর্প

ছুটিতে সিলভারউড, ইংল্যান্ডের দায়িত্বে কলিংউড-থর্প

ইংল্যান্ড কোচ ক্রিস সিলভারউড। ছবি: এএফপি

শ্রীলঙ্কা ও ভারত সফর করার সময় ক্রিকেটাররা ছুটি পেলেও কোনো ছুটি পাননি সিলভারউড। জৈব নিরাপত্তা বলয়ের ভেতরেই থাকতে হয়েছে তাকে। সে কারণেই ছুটি নিচ্ছেন এ ইংলিশ কোচ। তার মতে, এসময় দায়িত্ব পালন করলেও শতভাগ দিতে পারবেন না তিনি।

সামনেই শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ আছে ইংল্যান্ড দলের। সেই দুই সিরিজে থাকছেন না ইংলিশদের হেড কোচ ক্রিস সিলভারউড।

শ্রীলঙ্কা ও ভারত সফর করার সময় ক্রিকেটাররা ছুটি পেলেও কোনো ছুটি পাননি সিলভারউড। জৈব নিরাপত্তা বলয়ের ভেতরেই থাকতে হয়েছে তাকে। সে কারণেই ছুটি নিচ্ছেন এ ইংলিশ কোচ। তার মতে, এসময় দায়িত্ব পালন করলেও শতভাগ দিতে পারবেন না তিনি।

তার বদলে দুটি সিরিজে অদলবদল করে হেড কোচের দায়িত্ব সামলাবেন সিলভারউডের দুই সহকারী পল কলিংউড ও গ্রাহাম থর্প।

‘সবাইকে সতেজ রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ। এটা খেলোয়াড়দের জন্য ঠিক নয় যে তাদেরকে আমার শতভাগ দিতে পারব না। এটি আমার জন্যও ঠিক নয়। এটি গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা সবাইকে দেখেশুনে রাখব,’ বলেন সিলভারউড।

ইংল্যান্ড হেড কোচের মতে, কলিংউড ও থর্পের জন্য এটি দারুণ এক অভিজ্ঞতা হবে। তিনি বলেন, ‘এটি তাদের জন্য দারুণ অভিজ্ঞতা হবে। আমি এটি করতাম না যদি না আমি তাদের পুরোপুরি বিশ্বাস করতাম। আপনি যদি তাদের অভিজ্ঞতার দিকে তাকান, এটি আমার জন্য বিশাল বোনাস যে যেখানেই যাই দল নিয়ে তারা আমার সঙ্গে থাকে।’

ইংল্যান্ডের হয়ে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ৩০১টি ম্যাচ খেলেছেন কলিংউড। ২০১০ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপজয়ী দলের অধিনায়কও ছিলেন তিনি।

অন্যদিকে ইংল্যান্ডের হয়ে ১০০টি টেস্ট খেলা থর্প তাদের ইতিহাসের অন্যতম সেরা ব্যাটার।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ইংল্যান্ডের ওয়ানোডে সিরিজ শুরু হবে ২৯ জুন। অন্যদিকে পাকিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে ৮ জুলাই।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনে খেলবেন সাকিব

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনে খেলবেন সাকিব

বাংলাদেশের অনুশীলনে সাকিব আল হাসান। ফাইল ছবি: এএফপি

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে তিনি ফিরে পাচ্ছেন ওয়ান ডাউন স্পট। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে এক সাক্ষাৎকারে এমনটা নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন।

২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের হয়ে তিন নম্বরে ব্যাট করেন সাকিব আল হাসান। বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ওয়ানডাউনে ব্যাট করে রীতিমত ঝড় তোলের বিশ্বকাপে। আট ম্যাচে দুটি সেঞ্চুরি সহ ৮৬.৫৭ গড়ে সংগ্রহ করেন টুর্নামেন্টের তৃতীয় সর্বোচ্চ ৬০৬ রান।

এমন পারফর্মেন্সের পর তিন নম্বর পজিশনটি সাকিবের জন্য বরাদ্দ থাকার কথা। তেমনটি হয়নি। আইসিসির এক বছরের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে নিজের প্রথম সিরিজে উইন্ডিজের বিপক্ষে চার নম্বরে ব্যাট করেন সাকিব। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তিন নম্বরে খেলায় নাজমুল হোসেন শান্তকে।

সাকিবের পজিশনে ব্যর্থ হন শান্ত। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজে তিনে খেলেন সৌম্য সরকার। তার ব্যাটও হাসেনি প্রত্যাশামতো।

শ্রীলঙ্কা সিরিজের আগে সাকিবের জন্য সুসংবাদ দিয়েছে বিসিবি। তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে তিনি ফিরে পাচ্ছেন ওয়ান ডাউন স্পট। ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে এক সাক্ষাৎকারে এমনটা নিশ্চিত করেছেন বিসিবির প্রধান নির্বাচক ও সাবেক অধিনায়ক মিনহাজুল আবেদীন।

‘সে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিনে ব্যাট করবে। ওই পজিশনে ও সেট হতে সুয় পাবে তাই আমাদের মনে হয়েছে তিন নম্বরই ওর জন্য সেরা জায়গা। সাকিবও ওখানে ব্যাট করতে চায়। সবমিলিয়ে আমরা তাকে সুযোগটা আবার দিচ্ছি।’

শুধু বিশ্বকাপের আট ম্যাচেই নয় তিনে ব্যাট করে তার গড় ক্যারিয়ারে গড়ের চেয়ে অনেকটাই বেশি। ২৩ ম্যাচে ৫৮.৫৮ গড়ে ১,১৭৭ রান সাকিবের। যেখানে তার ওয়ানডে ক্যারিয়ার গড় ৩৮.০৮।

করোনার কারণে আইপিএল স্থগিত হয়ে যাওয়ায় দেশে ফিরে কোয়ারেন্টিনে আছেন সাকিব। কোয়ারেন্টিন শেষ করে ২১ মে দলের অনুশীলনে ফেরার কথা দেশসেরা এই ক্রিকেটারের। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরু ২৩ মে।

পরের দুই ওয়ানডে ২৫ ও ২৮ মে। সাকিব প্রথম ম্যাচে খেলতে না পারলে পরের দুই ম্যাচে তার থাকাটা নিশ্চিত।

ওয়ানডে সিরিজ শেষে সাকিবকে দেখা যাবে ঘরোয়া ক্রিকেটের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের (ডিপিএল) আসরে। ডিপিএলের এবারেরআসর শুরু হচ্ছে ৩১ মে। চিরাচরিত ওয়ানডে ফরম্যাটের বদলে এবার খেলা হবে টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে। সেখানেই মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের হয়ে খেলবেন সাকিব।

জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ককে দলে ভেড়ানোর ব্যাপারে সাকিবের সইসহ একটি চিঠি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে মঙ্গলবার জমা দিয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব।

আরও পড়ুন:
বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সিরিজের টাইটেল স্পন্সর ওয়ালটন
আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সময় দিতে হবে তরুণদের: র‍্যাডফোর্ড
স্থগিত জাতীয় ক্রিকেট লিগ

শেয়ার করুন