আমরা এই সিরিজটি ভুলতে চাইব: মাহমুদুল্লাহ

তৃতীয় টি-টোয়েন্টির পর হতাশ বাংলাদেশ দল। ছবি: এএফপি

আমরা এই সিরিজটি ভুলতে চাইব: মাহমুদুল্লাহ

মাহমুদুল্লাহ যোগ করেন, এই ম্যাচ থেকে ইতিবাচক কিছুই নেওয়ার নেই। সঙ্গে বলেন, এই সফরে নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে পারেনি বাংলাদেশ।

পুরো নিউজিল্যান্ড সিরিজেই ছন্নছাড়া ছিল বাংলাদেশ দল। একটি ওয়ানডেতে সামান্য প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারলেও, বাকি সব ম্যাচেই জুটেছে বড় ধরনের পরাজয়।

অকল্যান্ডে শেষ টি-টোয়েন্টিতে তো রীতিমত উড়েই গিয়েছে বাংলাদেশ দল। বৃষ্টির কারণে ১০ ওভারে নেমে আসা ম্যাচে প্রথমে ব্যাট করে ১৪১ রান তোলে নিউজিল্যান্ড। জবাবে ১০ ওভারের ম্যাচে বাংলাদেশ টিকতে পারে মাত্র ৫৭ বল, গুটিয়ে যায় ৭৬ রানে।

এই ম্যাচে চোটের কারণে অবশ্য ছিলেন না টি-টোয়েন্টি দলের নিয়মিত অধিনায়ক মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তার বদলে অধিনায়কত্ব করেন লিটন দাস, যিনি শূন্য রানে আউট হন প্রথম বলেই।

ম্যাচের পর সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদুল্লাহ বলেন, এই সিরিজটি ভুলে যেতে চাইবেন তারা।

‘অবশ্যই আমরা এই সিরিজটি ভুলতে চাইবো। কারণ আমরা এখানে এসেছিলাম কিছু অর্জন করতে কারণ আমরা এখানে আগে কখনও কিছু করতে পারিনি। কিন্তু আমরা মুখিয়ে ছিলাম এই সফরে প্রতিযোগিতার জন্য কিন্তু আমরা কিছু করতে পারিনি’, বলেন এই অভিজ্ঞ ক্রিকেটার।

মাহমুদুল্লাহ যোগ করেন, এই ম্যাচ থেকে ইতিবাচক কিছুই নেওয়ার নেই। সঙ্গে বলেন, এই সফরে নিজেদের সেরা ক্রিকেট খেলতে পারেনি বাংলাদেশ।

‘আপনি যখন ৭৬ রানে অল আউট হবেন, তখন সেখান থেকে ইতিবাচক কিছু নেওয়ার থাকে না। আমার মনে হয় আমরা সিরিজজুড়ে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলিনি। আমরা এখানে আগে এসেছি, নিজেদের প্রস্তুত করেছি, কুইন্সটাউনে ভালো একটি ক্যাম্প করেছি, ছেলেরা কঠোর পরিশ্রম করছিল, জিমে কাজ করছিল, কিন্তু আমরা মাঠে সেটি দেখাতে পারিনি। অধিনায়ক হিসেবে এটা হতাশাজনক। কিন্তু তারপরও আমাদের এই সিরিজ থেকে কিছু বের করতে হবে যা নিয়ে আমরা পরের সিরিজের জন্য কাজ করতে পারব’, বলেন তিনি।

নিউজিল্যান্ড সফর থেকে দেশে ফিরে শ্রীলঙ্কা সফরে যাবে বাংলাদেশ দল। সেখানে তারা খেলবে দুটি টেস্ট।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

কোনো চাপে নেই মুমিনুল

কোনো চাপে নেই মুমিনুল

ছবি: বিসিবি

ঘরের মাঠে অনভিজ্ঞ এক ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের কাছে দুই টেস্টই হারে বাংলাদেশ। এসব নিয়ে অবশ্য মাথা ঘামাচ্ছেন না বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক।

দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে এখন শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ। সেই সিরিজের প্রথমট ম্যাচ শুরু হচ্ছে বুধবার।

শ্রীলঙ্কা আসার আগে সর্বশেষ বাংলাদেশ টেস্ট খেলে ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। অনভিজ্ঞ এক ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের কাছে দুই টেস্টই হারে বাংলাদেশ।

সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে তাদেরই মাঠে দুই টেস্টের সিরিজের দুটি ম্যাচই ড্র করে এসেছে শ্রীলঙ্কা দল।

এসবের কোনোটি নিয়েই অবশ্য মাথা ঘামাচ্ছেন না বাংলাদেশ দলের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক। মঙ্গলবার ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে মুমিনুল জানান, তিনি কিংবা দল, কেউই চাপে নেই।

‘আমি কোনো চাপে নেই। টিম কোনো চাপে নেই। এখানে ম্যাচ জেতার জন্য এসেছি। পুরোপুরি চেষ্টা করব ম্যাচ জেতার জন্য’, বলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক।

শ্রীলঙ্কার ফর্ম ভালো ও বাংলাদেশের ফর্ম খারাপ হলেও সেটি নিয়ে একদমই ভাবছেন না মুমিনুল। তার মতে, ক্রিকেটে সবকিছুই নতুন করে শুরু হয়, অতীত নিয়ে পড়ে থাকছেন না তিনি।

‘হ্যা, শ্রীলঙ্কা অবশ্যই খুব ভালো অবস্থানে আছে। আমরা লাস্ট দুই টেস্টে ভালো খেলতে পারিনি। এটা আগেও বলেছি আগে কী হয়েছে সেটা নিয়ে আমি চিন্তাভাবনা করি না। সামনে যদি আমাদের প্রক্রিয়া ঠিক থাকে, যদি ভালো খেলতে পারি শুরু থেকে তাহলে জয় নিয়ে ফিরতে পারব’, বলেন তিনি।

সর্বশেষ ২০১৭ সালে টেস্ট খেলতে শ্রীলঙ্কা সফর করেছিল বাংলাদেশ দল। সেবার নিজেদের শততম টেস্টে জয় তুলে নিয়ে সিরিজে সমতা এনে ফিরেছিল টাইগাররা। সেই টেস্টে অবশ্য একাদশে জায়গা হয়নি মুমিনুলের।

সেখান থেকে চার বছর পরে মুমিনুল ফিরছেন অধিনায়ক হয়ে। তিনি চাইছেন, জয় দিয়েই ফেরার ম্যাচ রাঙাতে।

২১ এপ্রিল প্রথম ম্যাচ শুরু হওয়ার পর দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে ২৯ এপ্রিল, একই মাঠে।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

রয়্যালসের হারে খরুচে মুস্তাফিজ

রয়্যালসের হারে খরুচে মুস্তাফিজ

ছবি সংগৃহীত

১৮৯ রানের টার্গেটে নেমে ৯৫ রানে সাত উইকেট হারিয়ে ভরাডুবি হয় রাজস্থানের। ব্যাট হাতে আলো ছড়ান জস বাটলার। ৩৫ বলে তার ৪৯ রান বাদ দিলে সেভাবে কেউই থিতু হতে পারেননি। ২০ ওভার খেলে নয় উইকেটে ১৪৩ রান করে রাজস্থান। ৪৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে চেন্নাই সুপার কিংস।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে হারের স্বাদ পেয়েছে রাজস্থান র‌য়্যালস। মুস্তাফিজদের ৪৫ রানে হারিয়ে নিজেদের দ্বিতীয় জয় তুলে নিয়েছে ধোনিদের চেন্নাই সুপার কিংস।

এবারের আইপিএলে প্রথম ম্যাচে পাঞ্জাব কিংসের কাছে হেরে দ্বিতীয় ম্যাচে দিল্লিকে হারিয়ে প্রথম জয়ের দেখা পায় রাজস্থান। তৃতীয় ম্যাচে জুটেছে চেন্নাইয়ের হার। ম্যাচে এক উইকেট নিয়ে ৩৭ রান দিয়েছেন মুস্তাফিজুর রহমান।

সোমবার মুম্বাইয়ের ওয়াংখেরে স্টেডিয়ামে টস জিতে চেন্নাইকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় রাজস্থান।

ক্রিজে নেমে ফাফ ডু প্রেসিস ছাড়া সেভাবে কেউই বড় ইনিংস উপহার দিতে পারেনি। ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারালেও দলের পুঁজি সংগ্রহে খুচরো খুচরো রান করেছেন মঈন আলী, রায়না, রাইডু, ধোনি ও ডোয়াইন ব্রাভো। নয় উইকেট হারিয়ে তারা টার্গেট দেয় ১৮৯ রানের।

জবাবে ৯৫ রানে সাত উইকেট হারিয়ে ভরাডুবি হয় রাজস্থানের। ব্যাট হাতে আলো ছড়ান জস বাটলার। ৩৫ বলে তার ৪৯ রান বাদ দিলে সেভাবে কেউই থিতু হতে পারেননি। ২০ ওভার খেলে নয় উইকেটে ১৪৩ রান করে রাজস্থান।

৪৫ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে চেন্নাই সুপার কিংস।

নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে থাকা রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর বিপক্ষে খেলবে মুস্তাফিজদের দল।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

ক্যান্ডিতে বাংলাদেশ দল

ক্যান্ডিতে বাংলাদেশ দল

শ্রীলঙ্কা পৌঁছানোর পর বাংলাদেশ দল। ছবি: শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট

সোমবার দুপুরে সেখানে পৌঁছায় বাংলাদেশ দল। এক দিন অনুশীলনের পর প্রথম টেস্ট শুরু হবে ২১ এপ্রিল।

দুই টেস্টের সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ দল শ্রীলঙ্কায় পৌঁছায় ১২ এপ্রিল। এরপর তিন দিনের কোয়ারেন্টিনের পর অনুশীলন শুরু করেছিল কাতুনায়েকে।

এবার সেখান থেকে ম্যাচ ভেন্যু ক্যান্ডিতে পৌঁছেছে টাইগাররা। সেখানকার পাল্লেকেলে আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে হবে সিরিজের দুটি টেস্ট।

সোমবার দুপুরে সেখানে পৌঁছায় বাংলাদেশ দল। এক দিন অনুশীলনের পর প্রথম টেস্ট শুরু হবে ২১ এপ্রিল।

শ্রীলঙ্কা সফরে বাংলাদেশ গিয়েছে ২১ জনের প্রাথমিক দল নিয়ে। নিজেদের মধ্যে একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলার পর মূল দল ঘোষণার কথা থাকলে এখন সেটি করেনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

১২ এপ্রিল শ্রীলঙ্কা পৌঁছানোর পর তিন দিন কোয়ারেন্টিনে ছিল বাংলাদেশ দল। এরপর তারা অনুশীলন শুরু করে ১৫ এপ্রিল। নিজেদের মধ্যে লাল ও সবুজ দলে ভাগ হয়ে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ তারা খেলে ১৭ ও ১৮ এপ্রিল।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

সাউথ আফ্রিকা দলে ফিরছেন এবি

সাউথ আফ্রিকা দলে ফিরছেন এবি

সাউথ আফ্রিকার জার্সিতে এবি। ছবি: বিসিসিআই

গত বছরের শুরুতেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে এবির ফেরা নিয়ে চলছিল গুঞ্জন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে হয়নি সেটি, তবে এ বছরে সে সুযোগ আসছে আবারও।

হুট করেই ২০১৮ সালের মে মাসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন সাউথ আফ্রিকার ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স।

এরপরও চালিয়ে যান বিভিন্ন ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগে খেলা। পারফর্মও করেছেন ধারাবাহিকভাবে।

গত বছরের শুরুতেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে তার ফেরা নিয়ে চলছিল গুঞ্জন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে হয়নি সেটি। এ বছরে সে সুযোগ আসছে আবারও।

ডি ভিলিয়ার্স জানিয়েছেন চলমান ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) আসর চলার সময়ে সাউথ আফ্রিকা কোচ মার্ক বাউচারের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন তিনি। এর মধ্যে কথাও হয়েছে দুজনের মধ্যে।

‘আইপিএল চলাকালীন আমাদের কথা বলার কথা রয়েছে। আমরা কথা বলা শুরু করেছি। গত বছর বাউচার জানতে চেয়েছিল আমি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে আগ্রহী কি না। আমি বলেছিলাম অবশ্যই। আইপিএল শেষে আমরা দেখব যে ফর্ম ও ফিটনেসের দিক থেকে আমি কোথায় আছি’, বলেন এবি।

সাউথ আফ্রিকান এই সুপারস্টার ব্যাটসম্যান এটিও মাথায় রাখছেন যে তার অবর্তমানে পারফর্ম করে দলে জায়গা করে নিয়েছেন অন্য খেলোয়াড়রা। এবি চাচ্ছেন জায়গা খালি থাকলেই যেন সুযোগ মেলে তার।

‘অবশ্যই তাকে (বাউচার) দেখতে হবে যে দলের কারা লম্বা সময়ের জন্য ভালো করছে। যদি আমার জন্য কোনো জায়গা না থাকে তবে তেমনই হোক। কিন্তু যদি থাকে, তাহলে এটা দারুণ হবে। বাউচারের সঙ্গে আইপিএলের শেষদিকে আলোচনা করার জন্য মুখিয়ে আছি। সে সময়ে আমরা পরিকল্পনা সাজাব’, বলেন আইপিএলে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর হয়ে মাঠ মাতানো এবি।

সাম্প্রতিক সময়ে ঘরের মাটিতে পাকিস্তানের কাছে ৪ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ৩-১ ব্যবধানে হেরেছে সাউথ আফ্রিকা। সেই সিরিজের পরই বাউচার জানান, সাউথ আফ্রিকা দলের জন্য দরজা খোলা এবি ডি ভিলিয়ার্সের।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

এনজিওপ্লাস্টির পর সুস্থ মুরালিধরন

এনজিওপ্লাস্টির পর সুস্থ মুরালিধরন

ভারতের চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে রোববার রাতে এনজিওপ্লাস্টির পর এখন সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন এই স্পিন কিংবদন্তি। আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি সানরাইজার্স হায়দরবাদের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করছেন মুরালি। সে কারণে চেন্নাইয়ে ছিলেন তিনি।

এনজিওপ্লাস্টি করানো হয়েছে মুত্তাইয়া মুরালিধরনের। ভারতের চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে রোববার রাতে এনজিওপ্লাস্টির পর এখন সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন এই স্পিন কিংবদন্তি। আইপিএলের ফ্র্যাঞ্চাইজি সানরাইজার্স হায়দরবাদের বোলিং কোচ হিসেবে কাজ করছেন মুরালি। সে কারণে চেন্নাইয়ে ছিলেন তিনি।

আইপিএলের জন্য দেশ ছাড়ার আগে লঙ্কান ডাক্তাররা মুরালিকে পরামর্শ দেন হার্টের এনজিওপ্লাস্টি আপাতত দরকার নেই। নিয়মমাফিক মেডিক্যাল চেকাপের জন্য রোববার অ্যাপোলো হাসপাতালে যান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সর্বোচ্চ উইকেটের মালিক। সেখানে পরীক্ষা করার পর তাকে জানানো এনজিওপ্লাস্টি প্রয়োজন। স্টেন্টিং করাতে হবে।

রোববারই তার এনজিওপ্লাস্টি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ জানিয়েছে সম্পূর্ণ সুস্থ আছেন ৪৯ বছর বয়সী মুরালিধরন।

‘চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে তার এনজিওপ্লাস্টি সম্পন্ন হয়েছে। তিনি পুরোপুরিভাবে সুস্থ আছেন। কয়েকদিনের মধ্যেই তিনি মাঠে ফিরতে পারবেন’, এক বিবৃতিতে জানান সানরাইজার্সের প্রধান নির্বাহী শানমুগানাথন।

শনিবার মুরালির দল সানরাইজার্স চেন্নাইয়ে মুখোমুখি হয় মুম্বাই ইনডিয়ানসের।

১৯৯২ থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলেন মুত্তাইয়া মুরালিধরন। শ্রীলঙ্কার হয়ে ১৩৩ টেস্ট খেলে নেন ৮০০ উইকেট। আর ৩৫০ ওয়ানডেতে নেন ৫৩৪ উইকেট। দুটি এখনও সর্বোচ্চ উইকেটের বিশ্বরেকর্ড।

এছাড়া আইপিএলে মুরালি খেলেছেন রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু ও চেন্নাই সুপারকিংসের হয়ে। ২০১৫ সাল থেকে যুক্ত আছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের সঙ্গে বোলিং কোচ হিসেবে।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

আইপিএলে টানা দ্বিতীয় হার সাকিবদের

আইপিএলে টানা দ্বিতীয় হার সাকিবদের

ছবি: সংগৃহীত

রবিবার নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর কাছে ৩৮ রানে হেরেছে কলকাতা।

প্রথম ম্যাচে জয় দিয়ে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের (আইপিএল) ১৪তম আসর শুরু করা কলকাতা নাইট রাইডার্স পরের দুই ম্যাচে টানা হারের স্বাদ পেয়েছে।

রোববার নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর (আরসিবি) কাছে ৩৮ রানে হেরেছে কলকাতা।

বল হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি সাকিব আল হাসান। দুই ওভারে দিয়েছেন ২৪ রান। আর ব্যাট হাতে ২৫ বলে ২৬ রান করেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার।

টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে পাঁচ রানে বিদায় নেন ব্যাঙ্গালুরুর অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। নয় রানের মাথায় রজত পাতিদারকে হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় দল। সেখান থেকে দলকে রানের পাহাড় গড়তে সাহায্য করেন দুই অভিজ্ঞ ফরেন রিক্রুট গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও এবি ডি ভিলিয়ার্স।

ম্যাক্সওয়েলের ৪৯ বলে ৭৮ রানের ঝড়ো ইনিংস ও ভিলিয়ার্সের ৩৪ বলে ৭৬ রানের তাণ্ডবে চার উইকেট হারিয়ে আরসিবি সংগ্রহ করে ২০৪ রান।

বড় টার্গেট তাড়া করতে নেমে বড় কোনো ইনিংস উপহার দিতে পারেনি কলকাতার ব্যাটসম্যানরা। ধারাবাহিকভাবে উইকেট হারাতে থাকে ওইন মরগানের দল।

৭৪ রানের মধ্যে নিতিশ রানা, শুভমান গিল, রাহুল ত্রিপাথি ও দিনেশ কার্তিককে হারিয়ে লক্ষ্যচ্যুত হতে থাকে কলকাতা। এই অবস্থা থেকে মরগান কিছুটা টানার চেষ্টা করলেও ২৯ রানে তার বিদায়ের পর রানের ধারা আরও কমে যায়।

ব্যাট হাতে তখনও ক্রিজে টিকে সাকিব। মরগানের পর ব্যাটিংয়ে আসেন আন্ড্রে রাসেল। ২০ বলে রাসেলের বিদায় আর ২৬ রানে সাকিবের বিদায়ের পর জয়ের শেষ অবলম্বনটুকুও হারিয়ে যায় কলকাতার।

৩৮ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে র‌য়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু। এই হারে সাতে নেমে গেছে কলকাতা। টানা তিন ম্যাচ জিতে শীর্ষে বেঙ্গালুরু। নিজেদের চতুর্থ ম্যাচটি কলকাতা খেলবে ২১ এপ্রিল চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন

দ্বিতীয় দিনে বল হাতে সফল বাংলাদেশ লাল দল

দ্বিতীয় দিনে বল হাতে সফল বাংলাদেশ লাল দল

বাংলাদেশ সবুজ দল ৭১ ওভারে ২২৫ রানে অল আউট হয়। তাদের গুটিয়ে যাওয়ার সঙ্গেই শেষ হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন লিটন দাস।

শ্রীলঙ্কায় টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে একমাত্র অনুশীলন ম্যাচে ব্যস্ত বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। নিজেদের মধ্যে দুই ভাগে বিভক্ত হয়ে ম্যাচে অংশ নেন তামিম-মুশফিক-মিরাজরা। কলম্বো পৌঁছানোর পর বৃহস্পতিবার অনুশীলন শুরু করে টাইগাররা। দুইদিনের অনুশীলন ম্যাচ শুরু হয় শনিবার।

ম্যাচের প্রথম দিন তামিম, সাইফ, শান্ত ও মুশফিকের ফিফটিতে ছয় উইকেটে ৩১৪ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ লাল দল। দ্বিতীয় দিন বাংলাদেশ সবুজ দলকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানায় তারা।

দ্বিতীয় দিন বল হাতে জ্বলে ওঠেন লাল দলের বোলাররা। বিশেষ করে স্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ। ৪১ রান দিয়ে তিন উইকেট নেন তিনি।

বাংলাদেশ সবুজ দল ৭১ ওভারে ২২৫ রানে অল আউট হয়। তাদের গুটিয়ে যাওয়ার সঙ্গেই শেষ হয় দ্বিতীয় দিনের খেলা ও ম্যাচ।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৬৪ রান করেন লিটন দাস। এরপরই অবসর নেন তিনি। অধিনায়ক মুমিনুল হকের ব্যাট থেকে আসে ৪৭। মোহাম্মদ মিঠুন করেন ২৮ আর শরিফুল ইসলাম অপরাজিত থাকেন ২০ রানে।

মিরাজ ছাড়াও লাল দলের হয়ে উইকেট পেয়েছেন দলের সিনিয়র স্পিনার তাইজুল ইসলাম আর পেইসার আবু জায়েদ রাহি।

ম্যাচে লাল দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল, তার দলে খেলেছেন সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদি হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, আবু জায়েদ রাহি, খালেদ আহমেদ ও দলের সাপোর্ট স্টাফের একজন সদস্য।

সবুজ দলের অধিনায়ক মুমিনুল হকের সঙ্গে ছিলেন সাদমান ইসলাম, লিটন দাস, মোহাম্মদ মিঠুন, ইয়াসির আলি রাব্বি, শুভাগত হোম, নাঈম হাসান, শরিফুল ইসলাম, এবাদত হোসেন, শহিদুল ইসলাম ও মুকিদুল ইসলাম মুগ্ধ।

দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ শেষ হওয়ার পর আরও দুই দিন অনুশীলন করবে টাইগাররা। ২১ এপ্রিল পাল্লেকেলেতে শুরু হবে দুই টেস্টের সিরিজের প্রথম টেস্ট।

আরও পড়ুন:
পঞ্চপাণ্ডব ছাড়া যাচ্ছেতাই বাংলাদেশ
জঘন্য ব্যাটিংয়ে ভরাডুবি বাংলাদেশের
অ্যালেন-ঝড়ে বাংলাদেশের লক্ষ্য ১৪২

শেয়ার করুন