চট্টগ্রামে টাইগারদের সামনে রেকর্ডের হাতছানি

সাকিব আল হাসান। ছবি: বিসিবি

চট্টগ্রামে টাইগারদের সামনে রেকর্ডের হাতছানি

তৃতীয় ওয়ানডে খেলতে এখন চট্টগ্রামে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। সেখানে আরও একটি রেকর্ড অপেক্ষা করছে সাকিবের জন্য।

মিরপুরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে নতুন মাইলফলক গড়েন সাকিব আল হাসান। মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে করেন ২,৫০০ রান। যার মধ্য দিয়ে একটি নির্দিষ্ট স্টেডিয়ামে ২,৫০০ রান ও ১০০ উইকেটের ডাবল থাকা একমাত্র ক্রিকেটার হন সাকিব।

তৃতীয় ওয়ানডে খেলতে এখন চট্টগ্রামে বাংলাদেশ ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল। সেখানে আরও একটি রেকর্ড অপেক্ষা করছে সাকিবের জন্য।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ৬০ ম্যাচ খেলেছেন সাকিব। উইকেট তুলে নিয়েছেন ৯৮টি।

তৃতীয় ওয়ানডেতে মাত্র দুই উইকেট নিতে পারলেই প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে চট্টগ্রামের এই স্টেডিয়ামে ১০০ আন্তর্জাতিক উইকেট হবে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারের।

এই স্টেডিয়ামে ১৬ টেস্ট খেলে ৩২ গড়ে ৬০ উইকেট নিয়েছেন সাকিব। ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এই মাঠেই নিজের ক্যারিয়ার সেরা ৩৬ রানে সাত উইকেট নেন সাকিব।

ওয়ানডেতে জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে আরও অপ্রতিরোধ্য সাকিব। ১৫ ম্যাচ খেলে ১৬ গড়ে তার নামের পাশে ৩০ উইকেট। ছয়টি টি-টোয়েন্টি খেলে এই মাঠে সাকিব উইকেট পেয়েছেন আটটি।

তৃতীয় ওয়ানডেতে ১০০ উইকেট না হলেও সাকিবের সামনে এই সিরিজেই সুযোগ থাকবে আরও। দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম টেস্টও যে একই স্টেডিয়ামে।

তৃতীয় ওয়ানডেতে চার উইকেট শিকার কর‍তে পারলে আরও একটি রেকর্ড নিজের করে নেবেন সাকিব। ২৬৯ উইকেট নিয়ে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ উইকেট মাশরাফি মোর্ত্তজার।

২৬৬ উইকেট পাওয়া সাকিব আর চারটি উইকেট নিলেই হয়ে যাবেন ওয়ানডেতে বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি বোলার।

আরও একটি মাইলফলক ছুতে পারেন সাকিব। তৃতীয় ওয়ানডেতে মাত্র ছয় রান করলেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বাংলাদেশের হয়ে ঘরের মাঠে ৬,০০০ রান পূরণ হবে বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যানের।

একটি রেকর্ডের সামনে আছেন মুশফিকুর রহিমও। তৃতীয় ওয়ানডেতে ৯২ রান করতে পারলেই দ্বিতীয় বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ১,০০০ পূরণ হবে এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানের। এর আগে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে ফিফটি তুলে নিয়ে প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে সেই রেকর্ড গড়েন বাংলাদেশ অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

অভিষেকের পর থেকেই বাংলাদেশের হয়ে বিভিন্ন রেকর্ড ভাঙা মুস্তাফিজুর রহমানও একটি রেকর্ড করতে পারেন বাংলাদেশের হয়ে। একটি উইকেট পেলেই দ্রুততম বাংলাদেশি বোলার হিসেবে ২০০ আন্তর্জাতিক উইকেট শিকার করবেন ‘দ্য ফিজ’। চার উইকেট পেলে মাত্র ২৪ ম্যাচে ঘরের মাটিতে ৫০ উইকেট শিকার করবেন মুস্তাফিজ।

তৃতীয় ওয়ানডেতে দুই দল মুখোমুখি হবে সোমবার। তিন দিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচের পর ৩ ফেব্রুয়ারি একই ভেন্যুতে শুরু হবে প্রথম টেস্ট।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বাংলাদেশের বিপক্ষে ফিরতে পারেন ফার্গুসন

বাংলাদেশের বিপক্ষে ফিরতে পারেন ফার্গুসন

চোট কাটিয়ে দ্রুত মাঠে ফিরছেন এই ফাস্ট বোলার। নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিড তাকে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজেই দলে পাওয়ার আশা রাখছেন।

ডিসেম্বরে স্ট্রেস ফ্র্যাকচারের কারণে মাঠের বাইরে চলে যেতে হয়েছিল নিউজিল্যান্ডে লকি ফার্গুসনকে। ব্ল্যাকক্যাপদের জন্য সুখবর চোট কাটিয়ে দ্রুত মাঠে ফিরছেন এই ফাস্ট বোলার। নিউজিল্যান্ডের কোচ গ্যারি স্টিড তাকে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজেই দলে পাওয়ার আশা রাখছেন।

নিয়মিত দেড় শ কিলোমিটার গতিতে বল করেন ফার্গুসন। সিমিং কন্ডিশনে বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানদের ওপর আরও চাপ বাড়াতে এই ফাস্ট বোলারের গতি কাজে লাগাতে চায় স্বাগতিক দল। ওয়ানডে সিরিজে না পেলেও টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাকে জাতীয় দলে দেখা যেতে পারে বলেন জানান স্টিড।

‘ওয়ানডে সিরিজের সময় সে মাঠে ফিরবে। শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি সম্পন্ন করবে ও দেখবে যে তার ফিটনেস ঠিক আছে কি না। সব ঠিক থাকলে তাকে বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজে পাওয়া যাবে।’

ফার্গুসন এত দ্রুত সেরে ওঠায় সন্তুষ্ট নিউজিল্যান্ড কোচ। বিশ্বের অন্যতম দ্রুতগতির বোলারের প্রশংসা করে মঙ্গলবার ওয়েলিংটনে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, ‘চোটকে কে কীভাবে নেবে সেটা বলা যায় না। লকির সুবিধা হচ্ছে ও শক্তিশালী আর ফিট। স্ট্রেংথ ও কন্ডিশনিং নিয়ে প্রচুর পরিশ্রম করে সে। আশা করি, এ কারণে সে দ্রুত ফিরে আসবে।’

দুই দলের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে ২০ মার্চ ডানেডিনে। ক্রাইস্টচার্চ ও ওয়েলিংটনে ২৩ ও ২৬ মার্চ বাকি দুই ওয়ানডের পর হ্যামিল্টনে ২৮ মার্চ প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। বাকি দুই টি-টোয়েন্টি হবে নেপিয়ার ও অকল্যান্ড। ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

এশিয়া কাপের পর টাইগারদের জিম্বাবুয়ে সফর

এশিয়া কাপের পর টাইগারদের জিম্বাবুয়ে সফর

জুনের শেষ দিকে দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টির পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে আফ্রিকার দেশটি যাবে টাইগাররা। এই তথ্য নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

আট বছর পর জিম্বাবুয়ে সফরে যাচ্ছে বাংলাদেশ দল। জুনের শেষ দিকে দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টির পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে আফ্রিকার দেশটি যাবে টাইগাররা। এই তথ্য নিশ্চিত করেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

জুনে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) পরিকল্পনা অনুযায়ী হওয়ার কথা এশিয়া কাপ। এরপরই জিম্বাবুয়ে সফরে যাবে বাংলাদেশ জানান প্রধান নির্বাহী।

‘এফটিপিতে এশিয়া কাপের জন্য একটা স্লট রাখা আছে। এশিয়া কাপের পরই আমাদের জিম্বাবুয়ের সঙ্গে একটা এফটিপি কমিটমেন্ট রয়েছে। দুই টেস্ট, তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টির। এখন পর্যন্ত ওভাবেই আছে।’

টাইগার বাহিনী এখন ব্যস্ত নিউজিল্যান্ডে। সেখান থেকে ফিরে এসে দল যাবে শ্রীলঙ্কায়। সফর চূড়ান্ত হলেও সূচি এখনও চূড়ান্ত করেনি দুই বোর্ড জানালেন নিজামউদ্দিন।

‘ভেন্যু দুটো এখনও চূড়ান্ত হয়নি। ওরা একটা দুইটা অপশনের কথা বলেছে। প্রারম্ভিক ক্যাম্পের ব্যাপারে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে। দুই-এক দিনের মধ্যেই চূড়ান্ত হবে যে আমাদের ক্যাম্প ও কোয়ারেন্টিন কোথায় করব। আমাদের কিছু পর্যবেক্ষণ তাদের পাঠানো হয়েছে। আশা করছি খুব শিগগিরই তারা জানাবে।’

কোভিড বিরতির পর আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ডামাডোল শুরু হয়ে গেলে এখনও নির্দিষ্ট নয় ঘরোয়া ক্রিকেটের ফেরা। ঘরোয়া ক্রিকেটারদের করোনা টিকার জন্য অপেক্ষা করছে বোর্ড, বললেন নিজামউদ্দিন।

‘টিকার জন্য সরকারের কাছে সম্ভাব্য খেলোয়াড়, টিম ম্যানেজমেন্ট, সাপোর্ট স্টাফ ও গ্রাউন্ডস স্টাফদের তালিকা জমা দিয়েছি। টিকা যত দ্রুত দেওয়া সম্ভব হবে তত তাড়াতাড়ি ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরে আসতে পারব।’

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

তিন নম্বর বিশ্বকাপ জিততে চান গেইল

তিন নম্বর বিশ্বকাপ জিততে চান গেইল

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের আগে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় গেইল জানান ৪১ বছর বয়সে তিনি বিশ্বকাপ জিততে চান।

প্রায় দুই বছর পর ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলে ডাক পেয়েছেন ক্রিস গেইল। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সর্বকালের সেরা বলে বিবেচিত এই ব্যাটসম্যানের চোখ নিজের ও দলের তিন নম্বর বিশ্বকাপ শিরোপার দিকে। যে কারণেই ফিরে আসার অনুপ্রেরণা পেয়েছেন তিনি।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের আগে সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে কথা বলার সময় গেইল জানান, ৪১ বছর বয়সে তিনি বিশ্বকাপ জিততে চান।

‘এই সিরিজটা জিতে শুরু করতে চাই। আসল লক্ষ্য হচ্ছে আমি তিনটা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জিততে চাই। মাথায় এখন বিশ্বকাপ জেতার লক্ষ্যটাই আছে। বিশ্বকাপের আগে বেশ কয়েকটি সিরিজ খেলব। সিরিজগুলো খেলে যতটা সম্ভব প্রস্তুত হয়ে নিতে হবে।’

২০১৯ বিশ্বকাপ শেষে ভারত সিরিজের পর ক্রিকেটকে বিদায় বলার সিদ্ধান্ত নেন গেইল। তবে ভক্ত ও উইন্ডিজ ক্রিকেটের কথা ভেবে থেকে গেছেন এই হার্ড হিটার।

‘আমি আসলেই খেলাটা ছাড়তে চেয়েছিলাম। কিন্তু তখন সবাই বলল ছেড় না। যত দিন সম্ভব খেলে যাও। এরপরই আসলে সিদ্ধান্ত নিই খেলা চালিয়ে যাওয়ার। আমি আসলে এত দূর ভাবিনি। ভেবেছিলাম, বাকিটা সময় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলে সবাইকে আনন্দ দিয়ে যাব।’

শ্রীলঙ্কা সিরিজের জন্য ২০১৯ সালের পর প্রথম উইন্ডিজ দলে ডাক পান ‘মিস্টার ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট’। জাতীয় দলের ডাক অগ্রাহ্য করার কোনো ইচ্ছে ছিল না তার।

‘আমি উইন্ডিজ ক্রিকেটের হয়ে খেলতে চাই। আমার মন এখানে পড়ে আছে। এই মুহূর্তে উইন্ডিজ ক্রিকেটে অংশগ্রহণের কোনো সুযোগ আমি ছাড়তে চাই না। যে কারণে আমি পাকিস্তান থেকে ফিরে এসে বিশ্বকাপের উদ্দেশে দলে যোগ দিয়েছি। আশা করি দলের একাত্মতা বাড়বে ও আমরা এই বিশ্বকাপটা জিততে পারব।’

ওপেনার হিসেবেই ক্যারিয়ারের অধিকাংশ সময় খেললেও, গত আইপিএলে তিন নম্বরে দেখা গেছে গেইলকে। ক্যারিবিয়ান জাতীয় দলে এই মুহূর্তে আছেন আরও তিনজন ওপেনার। দলের স্বার্থে নিজের প্রিয় ব্যাটিং পজিশন ছাড়তেও আপত্তি নেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে ২০১২ ও ২০১৬ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জেতা তারকার।

‘এটা কোনো সমস্যা না। ওপেনার হিসেবে আমি স্পিন ভালো খেলতে পারি। ফাস্ট বোলিংও ভালো খেলতে পারি। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট যেখানে চাইবে আমি সেখানেই খেলব। ওপেনিং হলে আমি প্রস্তুত। তিন বা পাঁচ নম্বর। যেখানে খুশি। সেখানে খেললেও আমি বিশ্বের সেরা তিন নম্বর ও সেরা পাঁচ নম্বর ব্যাটসম্যান হব।’

গেইল ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু হচ্ছে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ দিয়ে। অ্যান্টিগায় দুই দলের প্রথম ম্যাচ শুরু বৃহস্পতিবার।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারবেন, বিশ্বাস তামিমের

নিউজিল্যান্ডকে হারাতে পারবেন, বিশ্বাস তামিমের

দলের সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহ নেই অধিনায়কের। সংবাদ মাধ্যমের উদ্দেশে বিসিবির এক ভিডিও বার্তায় তামিম জানান দলীয় ভাবে খেলাটা বেশি জরুরী।

ওয়ানডে অধিনায়কত্বে সাম্প্রতিক জিতেছেন উইন্ডিজ সিরিজ। দলকে নিয়ে প্রথম দেশের বাইরে সফর করছেন তামিম ইকবাল। এমন এক দেশে যেখানে আজ পর্যন্ত জয়ের মুখ দেখেনি টাইগাররা।

তামিম জানেন চ্যালেঞ্জটা কঠিন। তারপরও তার দলের সামর্থ্য নিয়ে সন্দেহ নেই অধিনায়কের। সংবাদ মাধ্যমের উদ্দেশে বিসিবির এক ভিডিও বার্তায় তামিম জানান দলীয় ভাবে খেলাটা বেশি জরুরী।

‘প্রথম ওয়ানডের আগে আমরা প্রস্তুত হয়ে যাব। নিজেদের সেরাটা খেলতে সবাই মুখিয়ে আছে। সবাই মিলে পারফর্ম করতে পারলে যেকোনো দলকে হারানো সম্ভব।’

নিউজিল্যান্ডে যেয়েই কোয়ারেন্টিনের চ্যালেঞ্জে পড়তে হয়েছে বাংলাদেশ দলকে। একেবারে ভিন্ন মেজাজে সফর করছেন তামিম-মুশফিক-মুস্তাফিজরা। তবে, দলের সবাই বুঝতে পারছেন এর গুরুত্ব জানালেন তামিম।

আট দিন পার হয়ে গেলে তারা বের হতে পারবেন। অনুশীলন শুরু করতে পারবেন। সেই দিনটার অপেক্ষাতেই আছেন সবাই।

‘অনুশীলন শুরু করলে ঠিক হয়ে যাব। যেহেতু মুভমেন্ট কম ছিল একটা দুইটা সেশন করলে সব ঠিক হয়ে যাবে। আর দুই দিন পর থেকে জিম করতে পারব। জিম করলে শরীর আরও খাপ খাইয়ে নিতে পারবে।’

দুই দলের ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে ২০ মার্চ ডানেডিনে। তার আগে ৪ মার্চ থেকে কুইন্সটাউনে শুরু হবে টাইগারদের কন্ডিশনিং ক্যাম্প।

ক্রাইস্টচার্চ ও ওয়েলিংটনে ২৩ ও ২৬ মার্চ বাকি দুই ওয়ানডের পর হ্যামিল্টনে ২৮ মার্চ প্রথম টি-টোয়েন্টি খেলবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ড। বাকি দুই টি-টোয়েন্টি হবে নেপিয়ার ও অকল্যান্ড। ৩০ মার্চ ও ১ এপ্রিল।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

পিচ নিয়ে হাহাকার বন্ধের পরামর্শ ভিভের

পিচ নিয়ে হাহাকার বন্ধের পরামর্শ ভিভের

ইংলিশ ক্রিকেটারদের ভারতের স্পিন-বান্ধব পিচ নিয়ে ‘হাহাকার ও কাতরতা’ নিয়ে উদ্বিগ্ন নন। তার মতে ইংল্যান্ড কন্ডিশন অনুযায়ী ভাল প্রস্তুতি নেয়নি।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের কিংবদন্তি ভিভ রিচার্ডস অতীত ও বর্তমান ইংলিশ ক্রিকেটারদের ভারতের স্পিন-বান্ধব পিচ নিয়ে ‘হাহাকার ও কাতরতা’ নিয়ে উদ্বিগ্ন নন। তার মতে ইংল্যান্ড কন্ডিশন অনুযায়ী ভাল প্রস্তুতি নেয়নি।

চার ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় টেস্টে ভারতের কাছে আড়াইদিনে হারের পর বিতর্কের মুখে পড়েছে আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদি স্টেডিয়ামের পিচ।

ইংল্যান্ডের সাবেক অধিনায়ক মাইকেল ভন ও ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যমের একাংশের কাছ থেকে পিচ নিয়ে আসে তীব্র সমালোচনা।

সর্বকালের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানের পিচ নিয়ে এতো সমালোচনা পছন্দ হয়নি। নিজের ফেইসবুক অ্যাকাউন্টে পোস্ট করা এক ভিডিওতে স্যর ভিভ জানান পিচ নিয়ে এতো কাতর হওয়ার কারণ খুঁজে পাননি তিনি।

‘সম্প্রতি আমাকে ভারতে ইংল্যান্ডের খেলা দ্বিতীয় ও তৃতীয় টেস্ট ম্যাচ নিয়ে অনেকেই অনেক প্রশ্ন করছেন। আমি কিছুটা দ্বিধায় আছি সেগুলো নিয়ে। পিচ নিয়ে অনেক হাহাকার শুনলাম।’

সিমিং ট্র্যাকে ব্যাটসম্যানদের সমস্যার কথা মনে করিয়ে দেন নিজের ধুন্ধুমার ব্যাটিংয়ের জন্য ‘মাস্টার ব্লাস্টার’ খ্যাতি পাওয়া রিচার্ডস।

‘যারা এ নিয়ে হাহাকার করছেন তাদের মনে করিয়ে দেই, অনেক সময় সিমিং ট্র্যাক থাকে যেখানে গুড লেংথ থেকে বল লাফিয়ে ওঠে। তখন সেটাকে সবাই ব্যাটসম্যানের সমস্যা মনে করেন।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজের সর্বজয়ী দলের অধিনায়কত্ব করা এই ব্যাটসম্যান মনে করেন ক্রিকেটারদের টেস্ট ম্যাচে কঠিন চ্যালেঞ্জের জন্য প্রস্তুত থাকা উচিত। ভারতে স্পিন ট্র্যাকই থাকবে, এতে অবাক হচ্ছেন না রিচার্ডস।

‘সবাই ভুলে যাচ্ছে ভারত সফরে এটাই প্রত্যাশা করা উচিত। আপনি স্পিনারদের দেশে যাচ্ছেন। সামনে যা আসছে সেটার জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে নেয়া ভালো।’

স্পিন পিচে খাবি খেতে থাকা ইংল্যান্ড দলকে সফলতার টোটকাও দেন এই কিংবদন্তি।

‘এখন তোমরা ভারতে আছ। এগুলোই তোমাদের মোকাবিলা করতে হবে ও একটা উপায় বের করতে হবে। কোনো নিয়মে উল্লেখ করা নেই যে শুধু মাত্র ক্লাসিকাল ও দৃষ্টিনন্দন ভাবে খেলেই রান করতে হবে।’

ভারত-ইংল্যান্ডের শেষ টেস্ট শুরু হবে একই ভেন্যুতে চার মার্চ। সিরিজে ২-১ ব্যবধানে এগিয়ে স্বাগতিক দল।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

ভারতের কারণে পেছাতে পারে এশিয়া কাপ

ভারতের কারণে পেছাতে পারে এশিয়া কাপ

ফাইনাল ম্যাচটি হবে ১৮ থেকে ২২ জুন। সেখানেই দেখা দিয়েছে নতুন বিপত্তি। এই বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে শ্রীলঙ্কায় বসার কথা এশিয়া কাপ। গত বছরের সেপ্টেম্বরের টুর্নামেন্ট কোভিড মহামারির কারণে পিছিয়ে দেয়া হয় এই বছরে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) তখন ঘোষণা করে, জুনে তারা আয়োজন করতে চায় এই টুর্নামেন্ট।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচে পরাজয় এড়াতে পারলেই আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে কোয়ালিফাই করবে ভারত। জুনে ইংল্যান্ডের লর্ডসে শিরোপা লড়াইয়ে তারা মুখোমুখি হবে নিউজিল্যান্ডের।

ফাইনাল ম্যাচটি হবে ১৮ থেকে ২২ জুন। সেখানেই দেখা দিয়েছে নতুন বিপত্তি। এই বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে শ্রীলঙ্কায় বসার কথা এশিয়া কাপ। গত বছরের সেপ্টেম্বরের টুর্নামেন্ট কোভিড মহামারির কারণে পিছিয়ে দেয়া হয় এই বছরে। এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের (এসিসি) তখন ঘোষণা করে জুনে তারা আয়োজন করতে চায় এই টুর্নামেন্ট।

তবে, ভারত টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে পৌঁছালে টুর্নামেন্ট পেছাতে পারে এসিসি করাচিতে সংবাদ মাধ্যমকে এমনটা আভাস দেন পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) প্রধান এহসান মানি।

‘অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে এশিয়া কাপ ২০২৩ সালে আয়োজন করতে হবে। যেহেতু ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের তারিখ রয়েছে জুনে, তাই মনে হচ্ছে এ বছর আর এশিয়া কাপ হবে না।’

গত বছর জুনে পাকিস্তানে আয়োজন হওয়ার কথা ছিল এশিয়া কাপের। তবে ভারতের আপত্তির কারণে সেটি সরিয়ে নেয়া হয় শ্রীলঙ্কায়।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যদি ভারত শেষ টেস্টে হেরে যায় তাহলে অবশ্য এশিয়া কাপ হওয়ার সম্ভাবনা আছে! ভারত হারলে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল খেলবে অস্ট্রেলিয়া।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট পরিচালক মুডি

শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট পরিচালক মুডি

ডিরেক্টর অব ক্রিকেট হিসেবে জাতীয় দল ছাড়াও ঘরোয়া ক্রিকেটের দেখভালও করবেন মুডি। আগামী তিন বছরের অন্তত ৩০০ দিন শ্রীলঙ্কার ‘জাতীয় দল, ঘরোয়া ক্রিকেটের কাঠামো, খেলোয়াড়দের শিক্ষা ও দক্ষতা বৃদ্ধি, ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম এবং খেলোয়াড়দের উপাত্ত বিশ্লেষণ’-এর ওপর নজর থাকবে মুডির, এমনটাই জানিয়েছেন এসএলসির প্রধান নির্বাহী অ্যাশলি ডি সিলভা।

শ্রীলঙ্কার ক্রিকেটের সঙ্গে নতুন ভূমিকায় যুক্ত হলেন টম মুডি। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড (এসএলসি) ‘ডিরেক্টর অব ক্রিকেট’ হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে এই সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অলরাউন্ডারকে। এর আগে ২০০৫ থেকে ২০০৭ সালে পর্যন্ত লঙ্কানদের জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে কাজ করেন মুডি।

ডিরেক্টর অব ক্রিকেট হিসেবে জাতীয় দল ছাড়াও ঘরোয়া ক্রিকেটের দেখভালও করবেন মুডি। আগামী তিন বছরের অন্তত ৩০০ দিন শ্রীলঙ্কার ‘জাতীয় দল, ঘরোয়া ক্রিকেটের কাঠামো, খেলোয়াড়দের শিক্ষা ও দক্ষতা বৃদ্ধি, ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম ও খেলোয়াড়দের উপাত্ত বিশ্লেষণ’-এর ওপর নজর থাকবে মুডির, এমনটাই জানিয়েছেন এসএলসির প্রধান নির্বাহী অ্যাশলি ডি সিলভা।

এক বিবৃতিতে তিনি যোগ করেন, ‘টম শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সঙ্গে আগেও কাজ করেছেন ও আমাদের সাফল্য এনে দিয়েছেন। এখানকার পুরো ব্যবস্থা সম্বন্ধে টমের যে জ্ঞান আছে, সেটা আমাদের ক্রিকেটকে আরও ওপরে নিয়ে যাবে।’

শ্রীলঙ্কার পরামর্শক প্যানেলের সুপারিশে মুডিকে নিয়োগ দেয়া হয়। পরামর্শক প্যানেলের প্রধান ও লঙ্কান কিংবদন্তি অরবিন্দ ডি সিলভা তার নিয়োগ নিয়ে ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোকে বলেন, ‘অন্য দেশগুলো কীভাবে সফলতা পাচ্ছে সে বিষয়ে টমের প্রচুর অভিজ্ঞতা ও জ্ঞান আছে। সেই দেশগুলোর থেকে সেরাটা নিয়েই আমাদের ব্যবস্থার সঙ্গে মিলিয়ে সেগুলোকে এখানে বাস্তবায়ন করাই আমাদের লক্ষ্য।’

কমিটিতে ডি সিলভা ছাড়াও আছেন কুমার সাঙ্গাকারা ও মুত্তাইয়া মুরালিধরন। তিন বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হওয়া মুডি কাজ শুরু করছেন ১ মার্চ থেকে।

আরও পড়ুন:
সাকিবের কীর্তি আর কারও নেই
নিউজিল্যান্ড সফরে অনিশ্চিত সাকিব
শুরু হয়েছে সাকিবের অ্যাকাডেমির ভর্তি কার্যক্রম

শেয়ার করুন

ad-close 103.jpg