নিউজবাংলার সঙ্গে যুক্ত হলেন আতহার

নিউজবাংলার সঙ্গে যুক্ত হলেন আতহার

নিউজবাংলার প্ল্যাটফর্মে আতহার আলী খানকে নিয়ে ১ নভেম্বর শুরু হচ্ছে এক্সক্লুসিভ ক্রিকেট শো 'ক্রিক টক উইথ আতহার'। সাপ্তাহিক এই স্পোর্টস শোতে বাংলাদেশসহ বিশ্ব ক্রিকেটের নানা বিষয়ে নিজের বিশ্লেষণ ও মতামত দেবেন তিনি।

অনলাইন সংবাদ মাধ্যম নিউজবাংলা টোয়েন্টিফোর ডটকমের সঙ্গে যুক্ত হলেন আতহার আলী খান। নিউজবাংলার নিজস্ব বিশেষজ্ঞ ও বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করবেন ‘ভয়েস অফ বাংলাদেশ ক্রিকেট’ খ্যাত সাবেক এ ক্রিকেটার ও ধারাভাষ্যকার।

নতুন এই প্ল্যাটফর্মে যোগ দেওয়ার পর আতহার জানান, নিখুঁত ও নিরপেক্ষ ক্রিকেট বিশ্লেষণের পাশাপাশি তার লক্ষ্য ভবিষ্যৎ ক্রিকেটারদের অনুপ্রেরণা জোগানো। নিউজবাংলার সঙ্গে কাজ করতে পেরে তিনি আনন্দিত।

আতহার বলেন, ‘চেষ্টা থাকবে নিউজবাংলার সঙ্গে এমন কিছু করা যাতে করে যারা ভবিষ্যতে ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখেন বা জাতীয় দলে খেলোয়াড় হওয়ার স্বপ্ন দেখেন, তারা একটা ইতিবাচক বার্তা পান। সেটা করতে পারলে বাংলাদেশ ক্রিকেট লাভবান হবে।’

বুধবার দুপুরে রাজধানীর বীর উত্তম রফিকুল ইসলাম অ্যাভেনিউয়ে নিউজবাংলা কার্যালয়ে আতহারের সঙ্গে চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে প্রতিষ্ঠানটি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নিউজবাংলার হেড অফ নিউজ সঞ্জয় দে, কনসালট্যান্ট নিউজ শিবব্রত বর্মন ও চিফ নিউজ এডিটর ওয়াসেক বিল্লাহ আল-ফারুক।

নিউজবাংলার সঙ্গে যুক্ত হলেন আতহার

নিউজবাংলার প্ল্যাটফর্মে আতহার আলী খানকে নিয়ে ১ নভেম্বর শুরু হচ্ছে এক্সক্লুসিভ ক্রিকেট শো ‘ক্রিক টক উইথ আতহার’। সাপ্তাহিক এই স্পোর্টস শোতে বাংলাদেশসহ বিশ্ব ক্রিকেটের নানা বিষয়ে নিজের বিশ্লেষণ ও মতামত দেবেন তিনি।

অনুষ্ঠানটিতে বিশেষভাবে যুক্ত করা হচ্ছে দর্শকদের একটি পর্ব, যেখানে নিউজবাংলার ফলোয়াররা নিজস্ব ক্রিকেট জিজ্ঞাসার ভিডিও পাঠাতে পারবেন আতহারের কাছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

জাতীয় দলে ফিরছেন না ভিলিয়ার্স

জাতীয় দলে ফিরছেন না ভিলিয়ার্স

ছবি: সংগৃহীত

সিএসএ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘এবি ডি ভিলিয়ার্সের সাথে আলোচনা শেষে এই ব্যাটসম্যান নিজেই তার অবসর চূড়ান্ত থাকবে বলে জানিয়েছে।’

২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সাউথ আফ্রিকার হয়ে খেলতে ফিরছেন না এবি ডি ভিলিয়ার্স। দেশটির ক্রিকেট বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে বিবৃতি দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। বোর্ডের সঙ্গে আলোচনা করে এমন সিদ্ধান্ত ভিলিয়ার্স নিজেই নিয়েছেন বলে জানায় ক্রিকেট সাউথ আফ্রিকা (সিএসএ)।

২০১৮ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নেন প্রোটিয়া অধিনায়ক ভিলিয়ার্স। চূড়ান্ত ফর্মে থেকে অবসরের পর নানা সময় তার ফেরা নিয়ে গুঞ্জন হয়েছে। সবশেষ স্থগিত হওয়া আইপিএলের ১৪তম আসরে এই গুঞ্জনের পালে হাওয়া দিয়েছেন ভিলিয়ার্স নিজেই।

সিএসএ এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘এবি ডি ভিলিয়ার্সের সাথে আলোচনা শেষে তিনি নিজেই তার অবসর চূড়ান্ত থাকবে বলে জানিয়েছেন।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেওয়ার পর থেকে ভিলিয়ার্স ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট খেলতে থাকেন এবং ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর (আরসিবি) হয়ে মুগ্ধ করতে থাকেন।

এবারের আইপিএলে ৩৭ বছর বয়সী এই ক্রিকেটারের চমকপ্রদ পারফরম্যান্সে আবারও আন্তর্জাতিক প্রত্যাবর্তনের আলোচনার জন্ম হয়। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে মাত্র ৩৪ রানে অপরাজিত ৭৬ রানের ইনিংস শেষে ডি ভিলিয়ার্স বলেছিলেন যে, সম্ভাব্য প্রত্যাবর্তনের বিষয়ে তিনি সাউথ আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচারের সঙ্গে আলোচনা করবেন।

ভিলিয়ার্স বলেছিলেন, ‘আমি যদি জায়গা করতে পারি তবে তা দুর্দান্ত হবে। আমার ফর্ম, আমার ফিটনেসের বিষয়ে আমি পুরোপুরি আগ্রহী, আমাদের সেরা ১৫ জন ক্রিকেটার দরকার। সে অনুযায়ী আমরা পরিকল্পনা করব। আমি আইপিএলের শেষ দিকে বাউচারের সঙ্গে প্রত্যাবর্তনের বিষয়ে কথা বলব।’

মঙ্গলবার তাকে বাদ দিয়েই আয়ারল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের জন্য স্কোয়াড ঘোষণা করেছে সাউথ আফ্রিকা।

ডি ভিলিয়ার্স সাউথ আফ্রিকার হয়ে ১১৪ টি টেস্ট, ২২৮ ওয়ানডে এবং ৭৮টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন।

শেয়ার করুন

মাঠে কোয়ারেন্টিন মুক্ত সাকিব-মুস্তাফিজ

মাঠে কোয়ারেন্টিন মুক্ত সাকিব-মুস্তাফিজ

ফাইল ছবি

কোয়ারেন্টিন শেষে মঙ্গলবারই অনুশীলনে যোগ দেন সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। অনুশীলনে যোগ দেয়ার আগে দলের বায়ো বাবলে প্রবেশ করেন তারা। দলের সঙ্গে যোগ দিলেও বৃষ্টির কারণে আউটফিল্ডে অনুশীলন করতে পারেননি সাকিব ও মুস্তাফিজ।

৬ মে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) খেলে ভারত থেকে দেশে ফেরে ফেরেন সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। দেশের ফেরার পর থেকে ঢাকার দুই হোটেলে আনুষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে ছিলেন এই দুই তারকা।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে সিরিজ শুরু ২৩ মে। তার আগে সিরিজের জন্য আনুষ্ঠানিক প্রস্তুতি শুরু ১৮ মে। যে কারণে তাদের কোয়ারেন্টিন সংক্ষিপ্ত করার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের কাছে বারবার আবেদন জানায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

বোর্ডের যুক্তি ছিল যেহেতু তারা আইপিএলের বায়ো বাবলে ছিলেন পুরোটা সময় তাই দেশে তাদের কোয়ারেন্টিন সময় সংক্ষিপ্ত করা যেতে পারে।

সোমবার রাতে তাদের কোয়ারেন্টিন শিথিল করা হয়। বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন বিসিবির চিকিৎসক মঞ্জুর হোসেন চৌধুরী।

কোয়ারেন্টিন শেষে মঙ্গলবারই অনুশীলনে যোগ দেন সাকিব আল হাসান ও মুস্তাফিজুর রহমান। অনুশীলনে যোগ দেয়ার আগে দলের বায়ো বাবলে প্রবেশ করেন তারা।

দলের সঙ্গে যোগ দিলেও বৃষ্টির কারণে আউটফিল্ডে অনুশীলন করতে পারেননি সাকিব ও মুস্তাফিজ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ডে নাইট ম্যাচের আগে ফ্লাড লাইটের আলোয় অনুশীলন সেশন রাখে বিসিবি।

তবে মঙ্গলবার বিকেলের বৃষ্টিতে সেই অনুশীলন আর হয়নি টাইগারদের। ক্রিকেটারদের ফুটবল অনুশীলনের সময়ই ব্যাঘাত ঘটায় বৃষ্টি। এরপর আর মাঠে তারা অনুশীলন করেননি।

স্বাগতিক বাংলাদেশের ক্রিকেটারদেরও কঠোর বিধি-নিষেধের মধ্যে দিয়ে যেতে হচ্ছে করোনা মহামারির সময়ে মাঠে থাকার জন্য। মে মাসের প্রথম সপ্তাহ থেকে অনুশীলনরত ক্রিকেটারদের পরীক্ষা নিয়মিত শুরু হয়ে গেলেও, সিরিজের জন্য আনুষ্ঠানিক পরীক্ষা করা হয় শনিবার। ওইদিন বিসিবির চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী নিউজবাংলাকে জানান সিরিজ শুরুর আগে চারবার পরীক্ষা করা হবে ক্রিকেটার ও স্টাফদের।

সিরিজের আগে ২১ মে সবশেষ পরীক্ষা করা হবে ক্রিকেটারদের। ২৩মে বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কার প্রথম ওয়ানডে। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচ ২৭ ও ২৯মে। সবগুলো ম্যাচই ডে-নাইট। খেলাগুলো হবে মিরপুরের শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে।

শেয়ার করুন

ব্যানক্রফটকে জবাব দিলেন স্টার্ক-কামিনসরা

ব্যানক্রফটকে জবাব দিলেন স্টার্ক-কামিনসরা

অস্ট্রেলিয়ার অনুশীলনে হেইজলউড, স্টার্ক ও কামিনস। ফাইল ছবি: এএফপি

সংবাদ মাধ্যমে পুরনো এই ইস্যুটি আবারও আলোচনায় আসায় খুব একটা সন্তুষ্ট নন চার বোলার। বিবৃতিতে তারা জানান যে বাধ্য হয়েই পুরনো জবাব তারা আবার দিচ্ছেন।

২০১৮ সালের মার্চে বল সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে কেপটাউন টেস্টে বল টেম্পারিংয়ের অভিযোগে শাস্তি পান তিন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার। বলের এক পাশের মসৃণতা নষ্ট করতে শিরিষ কাগজ ব্যবহার করেন তারা। এই দোষে স্টিভেন স্মিথ, ক্যামেরন ব্যানক্রফট ও ডেভিড ওয়ার্নারকে বিভিন্ন মেয়াদে নিষেধাজ্ঞা দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া।

সেই শাস্তি কাটিয়ে অস্ট্রেলিয়া টেস্ট দলে ফিরেছেন ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথ। ব্যানক্রফট ফিরেছেন ঘরোয়া ক্রিকেটে। তবে ‘স্যান্ডপেপার গেইট’ নামে কুখ্যাত ওই ঘটনার ছায়া সরছে না অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট থেকে।

গত সপ্তাহে ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ানকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্যানক্রফট দাবি করেন ওইদিন মাঠে শিরিষ কাগজ ব্যবহারের ঘটনা শুধু অধিনায়ক স্মিথ বা সহ-অধিনায়ক ওয়ার্নারই জানতেন না, বোলাররাও জানতেন। পরে ব্যানক্রফটের এই দাবির সঙ্গে সহমত প্রকাশ করেন সাবেক ইংলিশ অধিনায়ক মাইকেল ভন।

অস্ট্রেলিয়ান বোলাররা এই মন্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে এক আনুষ্ঠানিক বিবৃতি দিয়েছেন মঙ্গলবার। চার ফ্রন্টলাইন অজি বোলার মিচেল স্টার্ক, প্যাট কামিনস, জশ হেইজলউড ও নেইথান লায়নের পক্ষ থেকে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া ছাপানো হয় ওই বিবৃতি।

সংবাদ মাধ্যমে পুরনো এই ইস্যুটি আবারও আলোচনায় আসায় খুব একটা সন্তুষ্ট নন চার বোলার। বিবৃতিতে তারা জানান যে বাধ্য হয়েই পুরনো জবাব তারা আবার দিচ্ছেন।

‘আমাদের সততা নিয়ে আমরা গর্বিত। ২০১৮ সালের কেপটাউন টেস্টের ঘটনা নিয়ে কয়েকজন সাংবাদিক ও সাবেক খেলোয়াড় আমাদের সততা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন বিষয়টা দুঃখজনক। আমরা এই প্রসঙ্গে ইতিমধ্যে বহু প্রশ্নের জবাব দিয়েছি। কিন্তু আবারও জবাব দিতে বাধ্য হচ্ছি।’

মাঠে যে ব্যানক্রফট শিরিষ কাগজ নিয়ে ঢুকেছেন সেটা জানতেন না স্টার্ক, কামিনস, হেইজলউডরা। তাদের দাবি জায়ান্ট স্ক্রিনে দেখানোর পরই তারা বিষয়টা জানতে পারেন।

‘নিউল্যান্ডসের বড় স্ক্রিনে দেখার আগে পর্যন্ত আমরা জানতাম না যে বলের অবস্থা বদলানোর জন্য বাইরে থেকে কোনো কিছু মাঠে ঢুকেছ।’

তারা টেম্পারিংয়ের বিষয়টি জানতেন এই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে চারজন বিবৃতিতে জানান যে ওই সময়ের ম্যাচ আম্পায়াররা বল পরীক্ষার পরও বদলাননি।

‘যারা কোনো প্রমাণ ছাড়াই বলছেন যে বোলার হিসেবে বাইরের কোনো বস্তুর ব্যবহার সম্পর্কে আমরা জানতাম তাদেরকে বলতে চাই, ওই ম্যাচের দুই অভিজ্ঞ ও সম্মানিত আম্পায়ার নাইজেল লং ও রিচার্ড ইলিংওয়র্থ টিভিতে ওই দৃশ্য দেখার পরও বল বদলে দেননি কারণ তাতে দৃশ্যমাণ কোনো ক্ষতির চিহ্ন ছিল না।’

তবে সবশেষে তারা বলেন, ‘কোনো কিছুই আসলে অজুহাত নয়। ওইদিন নিউল্যান্ডসে যেটা ঘটেছে সেটা কখনই হওয়া উচিত হয়নি।’

অস্ট্রেলিয়ার হয়ে চার বোলার মোট খেলেছেন ২৫০টি টেস্ট। উইকেট শিকার করেছেন ১,০৩০টি। চার জনের মধ্যে স্পিনার লায়নের উইকেট সবচেয়ে বেশি। ১০০ টেস্টে ৩৯৯ উইকেট পেয়েছেন এই অফস্পিনার।

শেয়ার করুন

বিসিবির সম্প্রচার স্বত্ব পেল ব্যান টেক

বিসিবির সম্প্রচার স্বত্ব পেল ব্যান টেক

ফাইল ছবি: এএফপি

এই বছরের ১৮ মে থেকে ২০২৩ সালের ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বিসিবির সঙ্গে চুক্তি করেছে ব্যান টেক। চুক্তি অনুযায়ী এই সময়ে বাংলাদেশের সব হোম সিরিজের সম্প্রচার স্বত্ব এখন তাদের। ১ কোটি ৯০ লাখ ৭০ হাজার ডলারের (১৬১ কোটি টাকা) বিনিময়ে এই স্বত্ব কিনেছে ব্যান টেক।

দুই বছরের জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছ থেকে সম্প্রচার স্বত্ব কিনে নিয়েছে বাংলাদেশি প্রযুক্তি বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ব্যান টেক। সোমবার রাতে বিসিবি এই তথ্য নিশ্চিত করে। আজ বিসিবি সভা শেষে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেবে বোর্ড।

এই বছরের ১৮ মে থেকে ২০২৩ সালের ৫ অক্টোবর পর্যন্ত বিসিবির সঙ্গে চুক্তি করেছে ব্যান টেক। চুক্তি অনুযায়ী এই সময়ে বাংলাদেশের সব হোম সিরিজের সম্প্রচার স্বত্ব এখন তাদের। ১ কোটি ৯০ লাখ ৭০ হাজার ডলারের (১৬১ কোটি টাকা) বিনিময়ে এই স্বত্ব কিনেছে ব্যান টেক।


এই বছরের শুরুতে হওয়া বাংলাদেশ-উইন্ডিজ সিরিজের সম্প্রচার স্বত্ব কিনেছিল প্রতিষ্ঠানটি। ১৯ মিলিয়ন ডলারের আস্কিং প্রাইসের চেয়ে একমাত্র তারাই বেশি দর হাঁকিয়েছে। বিসিবির ফাইন্যান্স কমিটির প্রধান ইসমাইল হায়দার ক্রিকেট ওয়েবসাইট ক্রিকবাজকে বলেন, ‘ব্যান টেক আগামী দুই বছরের জন্য সম্প্রচার স্বত্ব পেয়েছে। আমরা আনন্দিত, কারণ তারাই একমাত্র আমাদের প্রত্যাশা অনুযায়ী বিড করেছে।’

এর আগে বিসিবি ২০ দশমিক ০২ মিলিয়ন ডলারে ছয় বছরের জন্য গাজী টিভির কাছে সম্প্রচার স্বত্ব বিক্রি করেছিল। দুই পক্ষের চুক্তি শেষ হয় ২০২০ সালের এপ্রিলে। ব্যান টেক আসন্ন শ্রীলঙ্কা ওয়ানডে সিরিজের সম্প্রচারের জন্য গাজী টিভি ও টি-স্পোর্টসের সঙ্গে আলোচনা করছে বলে জানায় ক্রিকবাজ।

দুই বছরের চুক্তিতে ব্যান টেক বাংলাদেশের ১০টি হোম সিরিজ সম্প্রচার করতে পারবে। এর মধ্যে রয়েছে ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার সফর। এই বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে ইংল্যান্ড বাংলাদেশে আসবে তিন ওয়ানডে ও তিন টি-টোয়েন্টি খেলার জন্য।
আর আগস্টে আসার কথা অস্ট্রেলিয়ার। তাদের বিপক্ষে তিনটি টি-টোয়েন্টি সিরিজের সূচি আছে বিসিবির। তবে, বোর্ড চেষ্টা করছে ম্যাচের সংখ্যা দুটি বাড়াতে।

এ ছাড়া ২০২২ সালের নভেম্বরে ভারত আসবে বাংলাদেশে দুই টেস্ট ও তিনটি ওয়ানডে খেলতে। জানুয়ারি ২০২৩-এর আগে শ্রীলঙ্কা সফর করবে দুবার। উইন্ডিজ, নিউজিল্যান্ড, পাকিস্তান ও আফগানিস্তানও পূর্ণাঙ্গ সফরে আসবে বাংলাদেশে।

শেয়ার করুন

প্রথম করোনা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শ্রীলঙ্কা দল

প্রথম করোনা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শ্রীলঙ্কা দল

অনুশীলন শুরু করার পরও একবার পরীক্ষা করা হবে অতিথিদের। ২৩মে প্রথম ওয়ানডের আগে দুই দলেরই করোনা পরীক্ষা করা হবে।

প্রথম করোনা পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন শ্রীলংকা ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় ও স্টাফরা। সোমবার এই তথ্য নিশ্চিত করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

তিনদিন রুম কোয়ারেন্টাইনে থাকা দলটির আগামীকাল আরও একবার করোনা পরীক্ষা করা হবে। এবং পরীক্ষার ফলাফল উপর ভিত্তি করে স্বাগতিক বাংলাদেশের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের জন্য অনুশীলন শুরু করবে লংকানরা।

বিসিবির প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরি সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, ‘গতকাল করোনার নমুনা পরীক্ষা দিয়েছিলো সফরকারী শ্রীলংকা দলের খেলোয়াড় এবং স্টাফরা। আজ সকলের রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আগামীকাল আরও একবার করোনা পরীক্ষা করা হবে তাদের এবং যদি এবারও সকলের নেগেটিভ আসে, তবে ১৯ মে থেকে অনুশীলন শুরু করতে পারবে।’

দেবাশীষ রোববার জানান, অনুশীলন শুরু করার পরও একবার পরীক্ষা করা হবে অতিথিদের। ২৩মে প্রথম ওয়ানডের আগে দুই দলেরই করোনা পরীক্ষা করা হবে।

‘মোট চারটা পরীক্ষা হবে। ২০ ও ২১ তারিখ বিকেএসপিতে নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে দুই দল আলাদা প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে। এরপর ২২ তারিখ একটা কোভিড পরীক্ষা হবে। ঐ পরীক্ষার ফলের উপর ২৩ তারিখ থেকে ওয়ানডে সিরিজ শুরু হবে।’

সিরিজ শেষে বাংলাদেশ দলের সদস্যদের করোনা পরীক্ষা করা না হলেও, বাংলাদেশ ছাড়ার আগে আরও একবার করোনা পরীক্ষা করা হবে শ্রীলংকার।

করোনার নেগেটিভ রিপোর্ট নিয়েই ঢাকায় এসেছিলো শ্রীলংকা ক্রিকেট দল।

শেয়ার করুন

ম্যাচের আগে নির্ঘুম রাত কাটত টেন্ডুলকারের

ম্যাচের আগে নির্ঘুম রাত কাটত টেন্ডুলকারের

২০২০ সালের লরিয়াস স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ডস অনুষ্ঠানে টেন্ডুলকার। ফাইল ছবি: এএফপি

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই এই সমস্যায় ভুগতেন কিংবদন্তি এ ব্যাটসম্যান। পরের দিকে নিজের প্রস্তুতির অংশ হিসেবেই উদ্বেগ ও অনিদ্রাকে মেনে নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

ক্যারিয়ারের দীর্ঘ সময় উদ্বেগ ও অনিদ্রায় ভুগেছেন শচীন টেন্ডুলকার। সোমবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়াকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে টেন্ডুলকার জানান, কোনো ম্যাচের আগের রাতে তিনি স্নায়ু চাপে ভুগতেন ও ঘুমাতে পারতেন না।
টেস্ট ও ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ রানের মালিক আরও জানান ম্যাচের আগে শ্যাডো ব্যাটিং করে, টিভি দেখে বা ভিডিও গেম খেলে রাত কাটাতেন।

‘মাঠে নামার অনেক আগে আমার মাথায় ম্যাচ শুরু হয়ে যেত। উদ্বেগের মাত্রা থাকত অনেক বেশি।’

ক্যারিয়ারের শুরু থেকেই এই সমস্যায় ভুগতেন কিংবদন্তি এ ব্যাটসম্যান। পরের দিকে নিজের প্রস্তুতির অংশ হিসেবেই উদ্বেগ ও অনিদ্রাকে মেনে নিয়েছেন বলে জানান তিনি।

‘১০-১২ বছর উদ্বেগে ভুগেছি। অনেক নির্ঘুম রাত কাটিয়েছি ম্যাচের আগে। পরের দিকে, আমি মেনে নিয়েছি যে এটা আমার প্রস্তুতিরই অংশ। নির্ঘুম রাত নিতে আমি বেশি চিন্তা করতাম না। নিজের মনকে ব্যস্ত রাখতে কিছু একটা করা শুরু করি।’

করোনা মহামারির সময়ে ক্রিকেটারদের মানসিক সুস্থতার বিষয়টি সামনে চলে এসেছে। অনেকেই ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বা সিরিজের সময় বায়ো বাবলে বন্দি থাকার ধকল নিতে চাচ্ছেন না। সম্প্রতি আইপিএল চলাকালীন অ্যাডাম জ্যাম্পা ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের মতো তারকা ক্রিকেটাররা বায়ো বাবলের থাকার ধকল নিয়ে কথা বলেন।

২০০ টেস্ট ও ৪৬৩ ওয়ানডে খেলা টেন্ডুলকারের মতে মানসিক সমস্যার সমাধান করার প্রথম পদক্ষেপ সমস্যাকে স্বীকার করে নেয়া।

‘যখন কোনো ইনজুরি হয়, ফিজিও ও চিকিৎসকেরা পরীক্ষা করে সমস্যাটা বের করেন। মানসিক স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রেও ব্যাপারটা তাই। ভালো-খারাপ সময়ের মধ্যে দিয়ে যাওয়া সবার জন্যেই স্বাভাবিক। যখন খারাপ সময় যাচ্ছে তখন আপনার আশেপাশে লোকজনের দরকার হবে। বিষয়টা মেনে নিতে হবে। শুধু খেলোয়াড়কেই নয়, তার আশেপাশের সবাইকে। সমস্যা আছে স্বীকার করে নেয়ার পর সমাধান খুঁজে বের করা সম্ভব। ’

১৯৭৩ সালের ২৪ এপ্রিল মুম্বাইয়ের মহারাষ্ট্রে জন্মগ্রহণ করেন শচীন টেন্ডুলকার। মাত্র ১৬ বছর বয়সে পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে তার অভিষেক হয় ১৯৮৯ সালে। এরপরের ২৪ বছর শাসণ করেছেন ক্রিকেট জগত।

খেলাটির ব্যাটিং-এর প্রায় সব রেকর্ড তার দখলে। সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক সেঞ্চুরি, রান, বাউন্ডারি, ম্যান অফ দ্য ম্যাচ পুরস্কার, সর্বোচ্চ সংখ্যক ওয়ানডে ও টেস্ট ম্যাচ খেলাসহ অসংখ্য রেকর্ড তার নামের পাশে। জিতেছেন ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপ। ২০১৩ সালের ১৬ নভেম্বর বিদায় নেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে।

শেয়ার করুন

উইন্ডিজ ও বাংলাদেশ সফরে নেই ল্যাবুশেইন

উইন্ডিজ ও বাংলাদেশ সফরে নেই ল্যাবুশেইন

অস্ট্রেলিয়া দলের অনুশীলনে মারনাস ল্যাবুশেইন। ছবি: এএফপি

৯ জুলাই শুরু হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। সেইন্ট লুসিয়ায় হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলো আর বার্বেডোসে হবে তিনটি ওয়ানডে। এরপর অস্ট্রেলিয়ার আসার কথা বাংলাদেশে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও বাংলাদেশে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজের জন্য প্রাথমিক দল ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। ২৩ সদস্যের দলে জায়গা হয়নি অজিদের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মারনাস ল্যাবুশেইনের।

গ্ল্যামরগানের হয়ে ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলছেন ল্যাবুশেইন। সেখান থেকে দলে যোগ দিতে হলে কোয়ারেন্টাইন ও আইসোলেশনের বিধিনিষেধের ভেতর দিয়ে যেতে হবে। এছাড়া ইংল্যান্ড থেকে উইন্ডিজের ফ্লাইটেও আছে কড়াকড়ি। সবমিলিয়ে অস্ট্রেলিয়ার নির্বাচক ট্রেভর হনস সোমবার জানান ইংল্যান্ডে কাউন্টি খেলাই হবে ল্যাবুশেইনের জন্য সেরা সমাধান।

‘আমরা বৈশ্বিক মহামারির ভেতরে না থাকলে মারনাস অবশ্যই এই সফরের দলে থাকত। বিশ্বে সবাই যে ধরনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে সেটা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। মারনাসের সামনে সুযোগ আছে বিশ্বকাপ ও অস্ট্রেলিয়ার হোম সিরিজের আগে গ্ল্যামরগানের হয়ে কাউন্টি ক্রিকেট ও টি-টোয়েন্টি খেলার।’

৯ জুলাই শুরু হচ্ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও অস্ট্রেলিয়ার পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি ও তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। সেইন্ট লুসিয়ায় হবে টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলো আর বার্বেডোসে হবে তিনটি ওয়ানডে। এরপর অস্ট্রেলিয়ার আসার কথা বাংলাদেশে।

অস্ট্রেলিয়ার হেড অফ ন্যাশনাল টিমস বেন অলিভার জানান বাংলাদেশ সফরের সূচি নিয়ে আলোচনা এখনও চলছে।

এর আগে, এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে বিসিবির ক্রিকেটার অপারেশনসের প্রধান আকরাম খান জানান জুলাই-আগস্টে বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া।

‘ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজ শেষ করে জুলাইয়ের শেষে কিংবা আগস্টের শুরুতে বাংলাদেশে আসবে অস্ট্রেলিয়া। নিউজিল্যান্ড আসবে তাদের পর।’

আকরাম আরও জানান ক্রিকেট বোর্ড চেষ্টা করছে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে বাড়তি দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলতে। তেমনটা হলে দুই দলের মধ্যে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি উপভোগ করতে পারবেন ক্রিকেট ভক্তরা।

দুই ট্রান্স-তাসমান দেশ অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরে আসার কথা বিশ্বকাপের আগে। পুরনো সূচি অনুযায়ী নিউজিল্যান্ডের আগে আসার কথা ছিল বাংলাদেশে। টাইগারদের বিপক্ষে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলার কথা ব্ল্যাক ক্যাপদের।

তাদের পর তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলতে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়ার। তবে, নতুন সূচিতে অস্ট্রেলিয়া আসছে আগে। ফলে, বাংলাদেশের বিশ্বকাপ প্রস্তুতি শুরু হচ্ছে ক্রিকেটের হেভিওয়েটদের বিপক্ষেই।

শেয়ার করুন