20201002104319.jpg
রাসেলকে ছাড়াই নিউ জিল্যান্ড যাচ্ছে উইন্ডিজ

রাসেলকে ছাড়াই নিউ জিল্যান্ড যাচ্ছে উইন্ডিজ

ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টির অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হয়েও জাতীয় দলে জায়গা হয়নি রাসেলের। মার্চে শ্রীলংকা সফরের সিরিজে দলে ছিলেন এই অলরাউন্ডার। দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৩৫ ও অপরাজিত ৪০ রান করেন রাসেল।

নভেম্বরের শেষে নিউজিল্যান্ড সফরের জন্য দল ঘোষনা করেছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট বোর্ড। সফরে দুটি টেস্ট ও তিনটি টি টোয়েন্টি ম্যাচ খেলবে ক্যারিবিয়ানরা। টেস্ট দলে জায়গা হারিয়েছেন ওপেনার শেই হোপ। টি-টোয়েন্টি দলে সুযোগ হয়নি অলরাউন্ডার আন্ড্রে রাসেল, লেন্ডল সিমনস ও এভন লুইসের।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে পারফরমেনস ভাল ছিল না হোপের। ছয় ইনিংসে মাত্র ১০৫ রান করেন তিনি। টেস্ট দলে ফিরেছেন ড্যারেন ব্রাভো, কিমো পল ও শিমরন হেটমায়ার।ড্যারেন ব্রাভো

২০১৩ সালে নিউজিল্যান্ডের সফরে ডানেডিন টেস্টে ক্যারিয়ারের সর্বোচ্চ ২১৮ রান করেন ব্রাভো। ব্রাভো-পল-হেটমায়ার দলে থাকায় বাড়তি ব্যাটিং শক্তি নিয়ে নিউ জিল্যান্ড যাচ্ছে দল এমনটাই মনে করেন উইন্ডিজের প্রধান নির্বাচক রজার হার্পার। তিনি বলেন, ‘ব্রাভো-হেটমায়ার দলে থাকায় ব্যাটিং শক্তি বাড়ল। পলও ভাল ব্যাটিং করতে পারে। এবারের সিরিজে আমাদের ব্যাটিং লাইন-আপ বেশ শক্তিশালী হয়েছে বলে মনে করি।’

ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টির অন্যতম সেরা খেলোয়াড় হয়েও জাতীয় দলে জায়গা হয়নি রাসেলের। মার্চে শ্রীলংকা সফরের সিরিজে দলে ছিলেন এই অলরাউন্ডার। দুটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৩৫ ও অপরাজিত ৪০ রান করেন রাসেল। দুই বছরেরও বেশি সময় পর উইন্ডিজ টি-টোয়েন্টি দলে ফিরেছেন উইকেটকিপার ব্যাটসম্যান আন্ড্রে ফ্লেচার। নতুন মুখ হিসেবে সুযোগ হয়েছে অলরাউন্ডার কাইল মায়ারসের।

টি-টোয়েন্টি দিয়ে শুরু হবে নিউ জিল্যান্ড-উইন্ডিজ সিরিজ। ২৭ নভেম্বর অকল্যান্ডে হবে প্রথম টি-টোয়েন্টি। এরপর ২৯ এবং ৩০ নভেম্বর মাউন্ট মঙ্গানুইয়ে হবে সিরিজের শেষ দুই ম্যাচ। তিন ডিসেম্বর থেকে হ্যামিল্টনে শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। ১১ ডিসেম্বর থেকে ওয়েলিংটনে হবে সিরিজের দ্বিতীয় এবং শেষ টেস্ট।

কোয়ারেন্টাইনের বাধ্যবাধকতা থাকায় দুই সপ্তাহ আগে নিউ জিল্যান্ড পৌঁছে যাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেখানে পৌছে জৈব-সুরক্ষা বলয়ের মধ্যে থাকবেন ক্রিকেটাররা। সূত্র: বাসস।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ দল

টেস্ট স্কোয়াড: জেসন হোলডার (অধিনায়ক) জার্মেইন ব্ল্যাকউড, ক্রেইগ ব্র্যাথওয়েইট, ড্যারেন ব্রাভো, সামারাহ ব্রুকস, জন ক্যাম্পবেল, রস্টন চেজ, রাখিম কর্নওয়াল, শেন ডাউরিচ, শ্যানন গেব্রিয়েল, শিমরন হেটমায়ার, চেমার হোল্ডার, আলজারি জোসেফ, কিমো পল ও কেমার রোচ।

টি-টোয়েন্টি স্কোয়াড: কাইরন পোলার্ড (অধিনায়ক), ফ্যাবিয়েন অ্যালেন, ডোয়াইন ব্রাভো, শেলডন কটরেল, আন্ড্রে ফ্লেচার, শিমরন হেটমায়ার, ব্রেন্ডন কিং, কাইল মায়ারস, রভম্যান পাওয়েল, কিমো পল, ওশেইন থমাস, হেইডেন ওয়ালশ জুনিয়র ও কেসরিক উইলিয়ামস।

শেয়ার করুন

মন্তব্য