20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
মাঠে ফেরার অপেক্ষায় ঘরোয়া ক্রিকেটাররা

মাঠে ফেরার অপেক্ষায় ঘরোয়া ক্রিকেটাররা

শুধু ডিপিএলই নয়, প্রস্তাবিত কর্পোরেট লিগেও সর্বোচ্চ সংখ্যায় অংশ নিতে চান ঘরোয়া ক্রিকেটাররা। টুর্নামেন্টে বিদেশিদের অংশগ্রহণের বিষয়টি এখনও পরিষ্কার করেনি বোর্ড। টুর্নামেন্টে ঘরোয়া ক্রিকেটাররা খেলতে চান। বাইরের ক্রিকেটাররা খেললে স্থানীয়দের জায়গা নষ্ট হবে এমনটাই মনে করছেন ক্রিকেটাররা।

ক্রিকেট ফেরানোর তাগিদে দুই দিনের প্রস্তুতি ম্যাচের সিরিজের পর, এবারে ওয়ানডে টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড। পরিকল্পনায় আছে পাঁচ দলের একটি টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টও।

পেশাদার ক্রিকেটারদের চাওয়া, দ্রুত ফিরে আসুক ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল)। করোনাভাইরাসের কারণে মার্চ মাসে এক রাউন্ডের পর স্থগিত করা হয় টুর্নামেন্টটি। ভবিষ্যতে কবে হবে, বিসিবি বা ক্রিকেট কমিটি অফ ঢাকা মেট্রোপলিস (সিসিডিএম) কেউই তা খোলাসা করেনি।

বিসিবির এরই মধ্যে ডিপিএলকে মাঠে ফেরানোর প্রক্রিয়া শুরু করে দিয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাহী নিজামউদ্দিন চৌধুরী।

প্রধান নির্বাহী বলেন, '(ডিপিএল ফেরাবার) উদ্যোগ ইতোমধ্যে নেওয়া হয়েছে। ক্লাব কর্মকর্তা অনেকের সাথে আমাদের কথা হয়েছে এবং এর বাইরে সিসিডিএম তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে। পরিস্থিতি অনুকূলে থাকলে আমাদেরও চেষ্টা থাকবে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ক্লাব ক্রিকেটকেও ফিরিয়ে আনার।'

ঘরোয়া ক্রিকেটাররা স্বাগত জানাচ্ছেন বিসিবির এই উদ্যোগকে। অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার অলক কাপালির মতে, কর্পোরেট টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের পর বিসিবির ডিপিএল চালু করা উচিত।

‘আমরা যা শুনছি তা হলো এই টুর্নামেন্টটি (কর্পোরেট টি-টোয়েন্টি) বিসিবি আয়োজন করছে সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণের জন্য। এরপর ডিপিএল শুরু করার পরিকল্পনা যদি তারা করে থাকেন তাহলে খুবই ভাল। অনেক ক্রিকেটারই এই লিগের টাকা দিয়ে পরিবার চালায়, ডিপিএল না হলে সবার এক বছরের লস,’ জানান কাপালি।

আরেক অলরাউন্ডার ফরহাদ রেজাও মনে করেন, ডিপিএলের ফেরাটা দেশিয় ক্রিকেটারদের জন্য ভাল খবর। তিনি বলেন, ‘ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ যদি শুরু করতে পারত বিসিবি তাহলে খুবই ভাল হয়। কারণ পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে আমাদের আর্থিক বিষয়টিও এর সাথে জড়িত, আমরা প্রায় সাত মাস ধরে বসে আছি।’
ডাবল সেঞ্চুরির পথে সৌম্য সরকারের শট

শুধু ডিপিএলই নয়, প্রস্তাবিত কর্পোরেট লিগেও সর্বোচ্চ সংখ্যায় অংশ নিতে চান ঘরোয়া ক্রিকেটাররা। টুর্নামেন্টে বিদেশিদের অংশগ্রহণের বিষয়টি এখনও পরিষ্কার করেনি বোর্ড। টুর্নামেন্টে ঘরোয়া ক্রিকেটাররা খেলতে চান। বাইরের ক্রিকেটাররা খেললে স্থানীয়দের জায়গা নষ্ট হবে এমনটাই মনে করছেন ক্রিকেটাররা।

এই প্রসঙ্গে ফরহাদ রেজা বলেন, 'যেহেতু পাঁচটা দল, অনেক খেলোয়াড় সুযোগ পাবে, অনেকে পাবে না। বিদেশি খেলোয়াড় আনা হলে আরও দশজন লোকাল খেলোয়াড়ের খেলার সুযোগ বন্ধ হয়ে গেল।'

একই সুর কাপালির কন্ঠেও। তার মতে আরও বেশি স্থানীয় খেলোয়াড়দের সুযোগ দেওয়া উচিত।

জাতীয় দলের সাবেক তারকা ব্যাটসম্যান মোহাম্মদ আশরাফুল উলটো দিকটাও দেখছেন। তিনি বলেন, ‘দুই দিকই আছে। বিদেশি খেলোয়াড় আসলে লিগের মর্যাদা বাড়বে, মান বাড়বে। অন্যদিকে না আসলে দেশিয় খেলোয়াড়রা সুযোগ পাবে।’

শেয়ার করুন

মন্তব্য