‘অ্যাডমিন অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি সুসম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে’

‘অ্যাডমিন অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি সুসম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে’

বরিশাল ক্লা‌বে ‌শ‌নিবার বিকে‌লে ৪২ উপ‌জেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান সংবাদ স‌ম্মেলন করেন। ছবি: নিউজবাংলা

গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী ব‌লেন, ‘১৮ আগস্ট বরিশাল সদরের ইউএনও কর্তৃক মেয়র ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ওপর গুলিবর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন যে বিবৃতি দিয়েছে, তাতে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সুসম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে।’

বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশনের বিবৃতি জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সুসম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে ব‌লে মনে করছে বাংলাদেশ উপজেলা পরিষদ অ্যাসোসিয়েশন, বরিশাল বিভাগ।

বরিশাল ক্লা‌বে ‌শ‌নিবার বিকে‌লে বিভা‌গের ৪২ উপ‌জেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যানদের সংবাদ স‌ম্মেলনে এ মন্তব্য করা হয়।

সংবাদ স‌ম্মেল‌নে ৬৩ জন উপ‌জেলা চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান উপ‌স্থি‌তি‌ ছিলেন।

লিখিত বক্ত‌ব্যে গৌরনদী উপজেলা চেয়ারম্যান সৈয়দা মনিরুন নাহার মেরী ব‌লেন, ‘বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুনিবুর রহমান কলাপাড়া উপজেলায় দায়িত্ব পালনকালেও সাধারণ মানুষের সঙ্গে খারাপ আচরণ করেছেন। দুর্নীতি ও অনিয়মের অভিযোগের মুখে তিনি কলাপাড়া থে‌কে চলে আসতে বাধ্য হন। বর্তমানে বরিশাল সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালনের সময়ও কলাপাড়ার মতো আচরণ করছেন।’

তি‌নি আরও ব‌লেন, ‘১৮ আগস্ট বরিশাল সদরের ইউএনও কর্তৃক মেয়র ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের ওপর গুলিবর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন যে বিবৃতি দিয়েছে তাতে জনপ্রতিনিধিদের সঙ্গে প্রশাসনের সুসম্পর্কের অবনতি ঘটাতে পারে।’

আ‌গৈলঝাড়া উপ‌জেলা চেয়ারম্যান আব্দুর রইচ সেরনিয়াবাত ও ব‌রিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান রিন্টু ব‌লেন, ‘শোকাবহ আগস্টের মর্যাদা রক্ষায় এই নিন্দনীয় ঘটনার কোনো প্রতিবাদ বা বিক্ষোভে যাইনি। সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে স্বেচ্ছাচারী এই নির্বাহী কর্মকর্তাকে অপসারনের দাবি জানাচ্ছি।’

এ সময় ব‌রিশাল সি‌টি মেয়র সাদিক আবদুল্লাহর বিরুদ্ধে হওয়া দুই মামলা প্রত্যাহারসহ ঘটনার বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানানো হয়। দাবি আদায় না হলে আগস্ট শেষ হলেই কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বাংলাদেশ অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন বরিশালের ঘটনায় মেয়র সাদিক আব্দুল্লাহকে দায়ী করে। পুরো বরিশাল বিভাগ মেয়রের অত্যাচারে অতিষ্ঠ বলে অভিযোগ করে তার গ্রেপ্তারের দাবিও জানানো হয়।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

মন্তব্য

মার্জিত ভাষা, শালীনতাবোধ জরুরি: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

মার্জিত ভাষা, শালীনতাবোধ জরুরি: তথ্য প্রতিমন্ত্রী

জামালপুরে সংবাদমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময়ে বক্তব্য রাখেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান। ছবি: নিউজবাংলা

তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান বলেন, ‘জনগণের ট্যাক্সের টাকায় প্রতিপালিত হয় প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা। সেজন্য সাধারণ জনগণসহ সবার সঙ্গেই তাদের ভাষা ও ব্যবহারে মার্জিত, শোভন ও শালীনতাবোধ থাকা বাঞ্ছনীয়।’

অনলাইনে একটি সাক্ষাৎকারে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, তার নাতনি জাইমা রহমানকে নিয়ে আপত্তিকর বক্তব্য দিয়ে সমালোচনায় পড়া তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান এবার জোর দিয়েছেন মার্জিত ভাষা ও শালীনতাবোধে। এটি বাংলাদেশের জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শিক্ষা-সেটিএ স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন তিনি।

প্রতিমন্ত্রী নিজ জেলা জামালপুরে গিয়ে এই মন্তব্য করেন সেখানকার গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে এক মত বিনিময়ে। সেখানকার পুলিশ সুপার গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে বাজে আচরণ করেছেন, এমন অভিযোগ উঠার পর তিনি বসেন সাংবাদিকদের সঙ্গে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জনগণের ট্যাক্সের টাকায় প্রতিপালিত হয় প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা। সেজন্য সাধারণ জনগণসহ সবার সঙ্গেই তাদের ভাষা ও ব্যবহারে মার্জিত, শোভন ও শালীনতাবোধ থাকা বাঞ্ছনীয়।’

‘‌সেবা দেয়া ছাড়া তারা কারও সঙ্গেই কোনো অশোভন আচরণ করার অধিকার রাখেন না’- এ কথা জানিয়ে তিনি বঙ্গবন্ধুর কথাও তুলে ধরেন। বলেন, ‘‌এটা আমার কথা নয়, বাংলাদেশের স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কথা।’

সম্প্রতি একটি সাক্ষাৎকারে তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তাদের পুত্র তারেক রহমানকে নিয়ে যে বক্তব্য রেখেছেন, তার তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। ইন্টারনেটে ছড়িয়ে প্রতিমন্ত্রী সেটি সরিয়ে নেন, যদিও নিউজবাংলাকে তিনি বলেছেন, তিনি তার বক্তব্যে অটল। কে কী সমালোচনা করল, তা তিনি গুরুত্ব দেন না।

প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে এই মতবিনিময় যে কারণে সাংবাদিকরা আয়োজন করেছেন, তার শুরু গত শুক্রবার। সেই রাতে সাংবাদিকদের ধরে এনে পিটিয়ে চামড়া তুলে নেয়ার হুমকি দেয়ার অভিযোগ ওঠে পুলিশ সুপার মো. নাছির উদ্দীন আহমেদের বিরুদ্ধে। তার প্রত্যাহার দাবিতে গতকাল শনিবার থেকে আন্দোলনে নামেন জেলার গণমাধ্যমকর্মীরা।

তথ্য প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে মতবিনিময় শেষে তার কাছে পুলিশ সুপারের প্রত্যাহার চেয়ে স্মারকলিপি দেন তারা।
পরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় চত্বরে সমাবেশ করে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেন সাংবাদিকরা। তারপর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান।

তিনি বলেন, ‘জামালপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) নাছির উদ্দীন আহমেদ সাংবাদিকদের সঙ্গে যে অশোভন আচরণ করেছেন, তা আমি বিভিন্ন মাধ্যমে অবগত হয়েছি। সাংবাদিক ভাইদের কাছ থেকেও বিস্তারিত শুনলাম। এ বিষয়ে আমি সরাসরি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলব।’

শুক্রবার রাতে পুলিশের নিজস্ব সংগঠন পুলিশ নারীকল্যাণ সমিতি-পুনাক আয়োজিত মেলা সম্পর্কে অবহিত করতে সাংবাদিকদের মেলা প্রাঙ্গণে ডাকেন পুলিশ সুপার নাছির উদ্দীন। সেখানে যাওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে জামালপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা ও সাধারণ সম্পাদক লুৎফর রহমানকে ধরে পিটিয়ে চামড়া তোলা এবং ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দেন এসপি। এরপর থেকেই আন্দোলনে নামেন জেলার কর্মরত সাংবাদিকরা।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু: ক্ষতিপূরণ নিয়ে হাইকোর্টের রুল

চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে শিক্ষার্থীর মৃত্যু: ক্ষতিপূরণ নিয়ে হাইকোর্টের রুল

আইনজীবী অনিক আর হক বলেন, ‘ড্রেনে পড়ে অকাল মৃত্যুর ঘটনায় সাদিয়ার পরিবারকে কেন ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হবে না সেটি জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে আদালত।’

চট্টগ্রামে ড্রেনে পড়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী সেহরীন মাহবুব সাদিয়ার মৃত্যুর ঘটনায় ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হবে না কেন সেটি জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে দুর্ঘটনাস্থলকে নিরাপদ জায়গা হিসেবে গড়ে তোলারও নির্দেশ দেয় হয়েছে।

এজন্য কী কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে সেটি জানাতে ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদনও দিতে বলা হয়েছে।

রোববার বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী অনিক আর হক। আর রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

পরে আইনজীবী অনিক আর হক বলেন, ‘ড্রেনে পড়ে অকাল মৃত্যুর ঘটনায় সাদিয়ার পরিবারকে কেন ১০ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ দেয়া হবে না সেটি জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে আদালত।’

সাদিয়ার মৃত্যুতে ক্ষতিপূরণ চেয়ে ২৫ নভেম্বর আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক), সিসিবি ফাউন্ডেশন ও নিহত শিক্ষার্থীর মামা জাহিদ উদ্দিন বেলালের পক্ষে রিট করেন।

এতে চট্টগ্রাম সিটির মেয়র, চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসককে বিবাদী করা হয়।

২৮ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (আইআইইউসি) শিক্ষার্থী সেহরীন মাহবুব সাদিয়ার মৃত্যু হয়। তার বাসা হালিশহরের বড়পোল এলাকার মইন্যাপাড়ায়। দুই ভাই ও দুই বোনের মধ্যে সাদিয়া ছিলেন সবার বড়।

ওই শিক্ষার্থী চশমা কিনে বাসায় ফেরার পথে চৌমুহনী এবং আগ্রাবাদের মাঝামাঝি এলাকার একটি ড্রেনে পা পিছলে পড়ে যান। সঙ্গে থাকা সাদিয়ার বাবাও মেয়েকে বাঁচাতে ঝাপ দেন ড্রেনে, তবে খোঁজ না পেয়ে খবর দেন ফায়ার সার্ভিসে। নিখোঁজের পাঁচ ঘণ্টা পর সাদিয়ার মরদেহ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিস।

এর আগে ২৭ আগস্ট নগরীর মুরাদপুর এলাকায় জলাবদ্ধতার সময় ড্রেনে পড়ে সালেহ আহম্মেদ নামের এক সবজি ব্যবসায়ী নিখোঁজ হন। এরপর তার আর খোঁজ মেলেনি।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

করোনায় ঢাবি অধ্যাপক মাহমুদ হাসানের মৃত্যু

করোনায় ঢাবি অধ্যাপক মাহমুদ হাসানের মৃত্যু

অধ্যাপক মাহমুদ হাসান। ছবি: সংগৃহীত

মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘স্যারের করোনা পজিটিভ ছিল। প্রায় সাত দিন ধরে উনি হাসাপাতালে ভর্তি ছিলেন। শেষের দিকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। আজ সাড়ে ১২টায় তিনি মারা যান।’

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মাহমুদ হাসান।

রাজধানীর একটি হাসপাতালে রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় তার মৃত্যু হয় বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘স্যারের করোনা পজিটিভ ছিল। প্রায় সাত দিন ধরে উনি হাসাপাতালে ভর্তি ছিলেন। শেষের দিকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। আজ সাড়ে ১২টায় তিনি মারা যান।’

আসরের নামাজের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে মাহমুদ হাসানের নামাজে জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে। জানাজা শেষে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীতে নিয়ে যাওয়া হবে।

অবিবাহিত ছিলেন মাহমুদ হাসান। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোডের মনিরুজ্জামান ভবনের একটি বাসায় থাকতেন তিনি।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

ডেমু-বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষ: বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলা

ডেমু-বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষ: বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলা

খুলশীতে শনিবার ডেমু,বাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

রেলওয়ে থানার ওসি নাজিম উদ্দীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী বাসটি দ্রুতগতিতে এসে দাঁড়িয়ে থাকা সিএনজিচালিত অটোরিকশার পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে বাস ও অটোরিকশা রেললাইনের ওপর উঠে যায়। তাই মামলার একমাত্র আসামি বাসচালক। তবে তাকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি।’

চট্টগ্রাম নগরের খুলশীতে ডেমু ট্রেন, বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে তিনজন নিহতের ঘটনায় বাসচালকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

শনিবার রাতে চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানায় উপপরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলায় বাসচালককে আসামি করা হলেও তাকে এখনও চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজিম উদ্দীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী বাসটি দ্রুতগতিতে এসে দাঁড়িয়ে থাকা সিএনজিচালিত অটোরিকশার পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে বাস ও অটোরিকশা রেললাইনের ওপর উঠে যায়। তাই মামলার একমাত্র আসামি বাসচালক। তবে তাকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি।’

এর আগে শনিবার দুপুরে রেলওয়ে পুলিশের চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল গফুরকে প্রধান করে এ সংঘর্ষের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

রেলওয়ে পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) ও চট্টগ্রামের রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্তাকেও তদন্ত কমিটির সদস্য করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটিকে তিন কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘এ ঘটনায় গেটম্যানের কোনো অবহেলা থাকলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরের ঝাউতলা এলাকায় ডেমু ট্রেন, বাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবলসহ তিনজন নিহত হন। এতে আহত হন অন্তত ছয়জন।

নিহতরা হলেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের ট্রাফিক উত্তর বিভাগের কনস্টেবল মনির হোসেন। তার বাড়ি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে। বাকি দুজন নগরীর হামজারবাগ এলাকার সৈয়দ বাহাউদ্দিন আহমেদ ও পাহাড়তলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র সাতরাজ উদ্দিন।

দুর্ঘটনার পরই স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি নাজিম উদ্দিন জানান, একটি ডেমু ট্রেন ষোলশহর থেকে চট্টগ্রাম স্টেশনে যাচ্ছিল। এ সময় জাকির হোসেন রোডের ওই লেভেল ক্রসিংয়ের দুই দিকের গেট আটকানো ছিল।

তবে এর মধ্যেও একটি অটোরিকশা উল্টোপথে লাইন অতিক্রম করার চেষ্টা করে। এর পেছনে একটি বাসও লাইনের ওপর উঠে যায়। এ সময় ট্রেনটি বাস ও অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সৈয়দ বাহাউদ্দিন আহমেদের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

রাজারবাগ পিরের নামে মামলার নথি হাইকোর্টে

রাজারবাগ পিরের নামে মামলার নথি হাইকোর্টে

পির মো. দিল্লুর রহমান থাকেন রাজারবাগের এ দরবার শরিফে। ছবি: নিউজবাংলা

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চের নির্দেশ অনুযায়ী আদালতে পিরের মামলা সংক্রান্ত নথি উপস্থাপন করেন সুপারিনটেনডেন্ট।

রাজারবাগ দরবার শরিফের পির দিল্লুর রহমানসহ তার সঙ্গীদের নামে করা মামলা সংক্রান্ত নথি পাওয়া যাচ্ছে না শোনার পর দ্রুত তা খুঁজে বের করতে নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের রিট দাখিল সেকশনের সুপারিনটেনডেন্টকে রোববার দুপুর ২টার মধ্যে এসব নথি আদালতে জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চের নির্দেশ অনুযায়ী আদালতে সে নথি উপস্থাপন করেন সুপারিনটেনডেন্ট।

পরে শুনানি শেষে দুই বিচারপতির বেঞ্চ কিছু নির্দেশ দেয়। এর মধ্যে রয়েছে সিআইডি, দুদক, কাউন্টার টেররিজম ইউনিটসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা মনে করলে রাজারবাগের পির ও সঙ্গীদের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা দিতে পারবে।

উচ্চ আদালত রাজারবাগ পিরের কর্মকাণ্ডের ওপর সার্বক্ষণিক নজর রাখতে কাউন্টার টেররিজম ইউনিটকে নির্দেশ দেয়।

রাজারবাগ পিরের বিষয়ে সিআইডির প্রতিবদনের আলোকে কোনো ভুক্তভোগী চাইলে মামলা করতে পারবে বলেও নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

আদালতে দুটি আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ শিশির মনির ও এমাদুল হক বশির।

পির দিল্লুর রহমানসহ চারজনের বিদেশযাত্রায় গত ২ ডিসেম্বর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে সম্পূরক রিট আবেদন করা হয়। এতে দিল্লুরসহ শাকিরুল কবির, ফারুকুর রহমান ও মফিজুল ইসলামের দেশত্যাগে নিষেধাজ্ঞা চাওয়া হয়।

ব্যবসায়ী একরামুল আহসান কাঞ্চনের পক্ষে আইনজীবী এমাদুল হক বশির আবেদনটি করেন।

এ ছাড়া দেশের বিভিন্ন জেলায় ৪৯টি মামলা হওয়ার বিরুদ্ধে কাঞ্চন হাইকোর্টে রিট করেন। সে রিটের শুনানি নিয়ে আদালত সিআইডিকে একরামুলের বিরুদ্ধে হওয়া ৪৯ মামলার তদন্ত করে ৬০ দিনের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে রুলসহ আদেশ দেয়।

পরে সিআইডির প্রতিবেদনে কাঞ্চনের বিরুদ্ধে পির দিল্লুর সিন্ডিকেটের করা হয়রানিমূলক মামলার তথ্য উঠে আসে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ১৯ সেপ্টেম্বর রাজারবাগ দরবার শরিফের সব সম্পদের তথ্য খুঁজতে দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) নির্দেশ দেয় হাইকোর্ট।

পিরের জঙ্গি সম্পৃক্ততা আছে কি না, তা তদন্ত করতে সিটিটিসি এবং হাইকোর্টে রিটকারী আটজনের বিরুদ্ধে করা হয়রানিমূলক মামলার বিষয়ে তদন্ত করতে সিআইডিকে নির্দেশ দেয় উচ্চ আদালত।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

মন্ত্রীদের ভাষা সুস্থ-সভ্য নয়: বিএনপি

মন্ত্রীদের ভাষা সুস্থ-সভ্য নয়: বিএনপি

প্রেস ক্লাবের সামনে সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: পিয়াস বিশ্বাস/নিউজবাংলা

মির্জা ফখরুল ইসলাম আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তিনি বিএনপির ভুল ছাড়া আর কিছুই দেখতে পান না। শুধু বিএনপি-বিএনপি-বিএনপি। আপনারা বলে থাকেন, বিএনপি নাকি নাই; বিএনপি যদি না-ই থাকে তাহলে বিএনপিকে নিয়ে এত দুঃস্বপ্ন দেখেন কেন?’

ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের মন্ত্রীরা যেসব কথা বলেন সেগুলো কোনো সুস্থ্য-সভ্য মানুষের ভাষা হতে পারে না বলে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনাদের মন্ত্রীরা যে ভাষায় কথা বলেন, কোনো সুস্থ-সভ্য মানুষ এ ভাষায় কথা বলতে পারে না।’

রোববার জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসার দাবিতে জাতীয়তাবাদী শ্রমিক দলের সমাবেশে এ কথা বলেন ফখরুল।

সম্প্রতি তথ্য প্রতিমন্ত্রী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমান সম্পর্কে অশালীন ভাষায় বক্তব্য দেন। সে বিষয়টিকেই সামনে এনে এসব কথা বলেন ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এরইমধ্যে তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের ওই বক্তব্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ভাইরাল হয়েছে। এতে দল এবং দলেও বাইরেও সমালোচনার মুখে পড়েন তিনি।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে বলেন, ‘তিনি বিএনপির ভুল ছাড়া আর কিছুই দেখতে পান না। শুধু বিএনপি-বিএনপি-বিএনপি। আপনারা বলে থাকেন, বিএনপি নাকি নাই; বিএনপি যদি না-ই থাকে তাহলে বিএনপিকে নিয়ে এত দুঃস্বপ্ন দেখেন কেন?’

সমবেশে মির্জা ফখরুল দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি করে বলেন, ‘তাকে সম্পূর্ণ মিথ্যা একটি মামলায় কারাগারে পাঠানো হয়েছে। রাজনৈতিক প্রভাব বিস্তার করে তার সাজা দেয়া হয়েছে। যেখানে লোয়ার কোর্ট থেকে দেয়া হয়েছিল ৫ বছর সাজা, সেখানে হাইকোর্টে দেয়া হয়েছে ১০ বছর। এতেই বোঝা যায় কীভাবে রাষ্ট্রিয় প্রতিষ্ঠানগুলো ব্যবহার করছেন। কীভাবে বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরণ করছেন। গণমাধ্যমকে নিয়ন্ত্রণ করছেন। এই রাষ্ট্রকে একদলীয় রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন। সে কারণে খালেদা জিয়াকে চিকিৎসা না দিয়ে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিচ্ছেন।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকার গণতন্ত্রের কথা মুখে বলে, বিশ্বাস করে না। ১৯৭১ সালে স্বাধীনতার পর থেকে তারা একই কাজ করে আসছে। এক সময় গণতন্ত্রকে বাদ দিয়ে বাকশাল গঠন করে একনায়কতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিল।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া শুধু বিএনপি নেত্রী বলে আমরা বলছি না, বেগম খালেদা জিয়া এই দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য, গণতন্ত্রের জন্য, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য, আপোষহীন ভূমিকার জন্য দেশের মানুষই তার মুক্তি চায়।’

শ্রমিকরা সবসময় আওয়ামী লীগ সরকারের কাছে অবহেলিত উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘আমাদের দুর্ভাগ্য, যারা ক্ষমতায় আছে তারা বড় মানুষদের কথা চিন্তা করেন। যাদের মিল আছে, ফ্যাক্টরি আছে তাদেরকে প্রণোদনা দেন। কিন্তু যারা মিল ফ্যাক্টরিগুলোর চালু রেখেছেন, গাড়ির চাকা চালু রেখেছেন তাদেরকে কোনো প্রণোদনা দেননি।

‘সরকার উন্নয়ন কথা বলে। এই উন্নয়ন কাদের হচ্ছে? সাধারণ মানুষের কোনো উন্নয়ন হচ্ছে না। সে জন্য দেশের মানুষ পরিবর্তন চায়। বিএনপিকে ক্ষমতায় আনতে হবে সেই জন্য বলছি না। এই সরকারকে সরাতে হবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মহানগর উত্তর বিএনপির আহ্বায়ক আমানউল্লাহ আমান, দক্ষিণের আহ্বায়ক আব্দুস সালাম, শ্রমিকদলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েলসহ অন্যরা।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

বিদেশি সিগারেটসহ চীনা নাগরিক আটক

বিদেশি সিগারেটসহ চীনা নাগরিক আটক

কোস্টগার্ড পূর্বজোনের মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ জানান, স্টেশন কামান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম উর হকের নেতৃত্বে শাহপরীর দ্বীপের সমুদ্র এলাকায় একটি ট্রলারে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১০ হাজার ৮৪০ প্যাকেট ব্ল্যাক ব্র্যান্ডের সিগারেটগুলো উদ্ধার করা হয়। এ সময় চীনা নাগরিক ইয়াপেংকে আটক করা হয়।

কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত এলাকা থেকে অনুমোদনহীন বিদেশি সিগারেটসহ এক চীনা নাগরিককে আটক করেছে কোস্ট গার্ড।

রোববার বেলা ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোস্টগার্ড পূর্বজোনের মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ।

তিনি জানান, বিসিজি স্টেশন কামান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম উর হকের নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাহপরীর দ্বীপের সমুদ্র এলাকায় একটি ট্রলারে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১০ হাজার ৮৪০ প্যাকেট ব্ল্যাক ব্র্যান্ডের সিগারেটগুলো উদ্ধার করা হয়। এ সময় চীনা নাগরিক ইয়াপেংকে আটক করা হয়।

মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ বলেন, আটক চীনা নাগরিকের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা শেষে টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হবে।

আরও পড়ুন:
আপনারা এবার অফ যান: সাংবাদিকদের ইউএনও
ভারতে পাঠানোর হুমকি দেয়া সেই ইউএনও বদলি
‘পিটিয়ে ভারত পাঠিয়ে দেয়ার’ হুমকি ইউএনওর
ব্যবসায়ীকে পিটুনি: অভিযানে যাচ্ছেন না ইউএনও রুনা
জরিমানার বদলে ইউএনওর খাদ্যসামগ্রী পেলেন মাছ ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন