পৌর কাউন্সিলরকে কুপিয়ে জখম

পৌর কাউন্সিলরকে কুপিয়ে জখম

ঝালকাঠি পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির খানকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। ছবি: নিউজবাংলা

কাউন্সিলর কামাল শরীফ নিউজবাংলকে বলেন, ‘এলাকায় ধাওয়া, গ্যাঞ্জাম, চুরি যা কিছুই ঘটুক না কেন, সব সময় হুমায়ুন কবির গংরা আমাকে ও আমার ভাইদের দোষ দেয়। আমার কাজে বাধা দেয়াই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য। হুমায়ুন কবিরকে যেভাবে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে, সেটা সত্যিই কষ্টদায়ক। এটা কখনোই কাম্য নয়।’

ঝালকাঠি পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির খানকে কুপিয়ে আহত করেছে দুর্বৃত্তরা।

পৌর এলাকার পালবাড়ি সড়কে বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে কাউন্সিলর কুদ্দুস হাওলাদারের বাসার সামনে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খলিলুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে বন্ধুদের নিয়ে পেয়ারাবাগানে পিকনিকে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল কাউন্সিলর হুমায়ুনের ছেলে আবিদ খান। পিকনিকের প্রস্তুতিতে বাধা দিলে কথা-কাটাকাটি হয় আরেকটি কিশোর গ্রুপের সঙ্গে।

সেই গ্রুপটি কাউন্সিলরের ছেলেকে পিটিয়ে আহত করে। এ নিয়ে দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি ধাওয়া হয়। পরে কাউন্সিলর হুমায়ুন কবিরের পালবাড়ির বাসায় হামলা চালিয়ে তার স্ত্রী রুমা বেগমকেও আহত করা হয়।

ওসি আরও জানান, ঘটনার সময় কাউন্সিলর হুমায়ুন কবির খান পশ্চিম ঝালকাঠি ফেরিঘাট এলাকায় অন্য বাড়িতে অবস্থান করছিলেন।

তাকে বাসা থেকে খবর দেয়া হলে রাত ১১টার দিকে অতুল মাঝির খেয়া পার হয়ে পালবাড়িতে আসার পথেই দুর্বৃত্তরা তাকে পিটিয়ে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত করে।

এতে তার বাঁ হাতের কবজি দুই ভাগ হয়ে যায়। আহত হুমায়ুনকে চিকিৎসার জন্য ঝালকাঠি থেকে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাত দেড়টার দিকে তাকে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে রেফার করা হয়।

হুমায়ুনের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ করে বলা হয়, ৪ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামাল শরীফের ভাই ইদ্রিস শরীফ, ইলিয়াস শরীফ ও জামাল শরীফ ২০-২৫ জন লোক নিয়ে এসে এ হামলা চালান। পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করা হয়েছে কাউন্সিলর ও তার পবিরারের সদস্যদের। সেই সঙ্গে ভাঙচুর করা হয় বসতঘরে।

অভিযুক্ত জামাল শরীফ জানান, ঘটনার সময় তিনি তার বরিশালের বাসায় ছিলেন। সেখানে থেকে তিনি ঘটনা শুনেছেন।

অন্য অভিযুক্তদেরও দাবি, এ ঘটনার সঙ্গে তারা জড়িত নন।

কাউন্সিলর কামাল শরীফ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এলাকায় ধাওয়া, গ্যাঞ্জাম, চুরি যা কিছুই ঘটুক না কেন, সব সময় হুমায়ুন কবির গংরা আমাকে ও আমার ভাইদের দোষ দেয়। আমার কাজে বাধা দেয়াই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য।

‘হুমায়ুন কবিরকে যেভাবে কুপিয়ে আহত করা হয়েছে সেটা সত্যিই কষ্টদায়ক। এটা কখনোই কাম্য নয়।’

কামাল আরও বলেন, ‘আমি বা আমার কোনো ভাই এ ঘটনায় জড়িত থাকলে সকল বিচার মাথা পেতে নেব। কিন্তু যারা এ ধরনের কাজ করে আমাদের ওপর মিথ্যা দোষ চাপিয়ে দিচ্ছে, তাদের শনাক্ত করে বিচারের আওতায় আনা হোক। আমি কাউন্সিলর হিসেবে এলাকায় শান্তি চাই।’

ওসি বলেন, ‘ঘটনা ঘটেছে, কিন্তু কারা ঘটিয়েছে তার কোনো প্রমাণ এখনো পাইনি। আপাতত ধরে নিচ্ছি অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা এ হামলা চালিয়েছে।

‘এ ঘটনায় শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে পালবাড়ি এলাকায় পুলিশি টহল জোরদার করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বদনাম কাউয়াদের কারণে: তাপস

বদনাম কাউয়াদের কারণে: তাপস

রোববার গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিট সম্মেলনে বক্তব্য দেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। ছবি: নিউজবাংলা

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা-কর্মী দল ও সরকারের কোনো বদনাম করে না। কোনো সুনাম ধ্বংস করে না। সুনাম ধ্বংস করে কাউয়ার দল। এই কাউয়ার দল থেকে আমাদের সচেতন থাকতে হবে। এই গুটিকয়েক কাউয়ারা আমাদের দলের বদনাম করে। তারা দলের সকল অর্জনকে, শেখ হাসিনার সকল অর্জনকে ম্নান করে দেয়। আমরা কাউয়া চাই না, আমরা চাই ত্যাগী পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের যথার্থ মূল্যায়ণ।’

সুযোগসন্ধানীদেরকে ‘কাউয়া’ উল্লেখ করে তাদেরকে আওয়ামী লীগের দেখতে চান না বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। বলেছেন, এই ‘কাউয়াদের’ কারণে দলের বদনাম হচ্ছে।

রোববার গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের ৩৮ নম্বর ওয়ার্ডের ইউনিট সম্মেলনে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

আওয়ামী লীগে ‘কাউয়া’ শব্দটি দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের মুখে উচ্চারিত হয় ২০১৭ সালে। সে বছর সিলেট আওয়ামী লীগের এক প্রতিনিধি সম্মেলনে ‘দলে কাউয়া ঢুকেছে’ বলে উল্লেখ করেছিলেন। দলের অনুপ্রবেশকারীদেরও একই নামে অবহিত করা হয়।

শেখ তাপস বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা-কর্মী দল ও সরকারের কোনো বদনাম করে না। কোনো সুনাম ধ্বংস করে না্। সুনাম ধ্বংস করে কাউয়ার দল। এই কাউয়ার দল থেকে আমাদের সচেতন থাকতে হবে।

‘এই গুটিকয়েক কাউয়ারা আমাদের দলের বদনাম করে। তারা দলের সকল অর্জনকে, শেখ হাসিনার সকল অর্জনকে ম্নান করে দেয়। আমরা কাউয়া চাই না, আমরা চাই ত্যাগী পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের যথার্থ মূল্যায়ন।’

জন্মলগ্ন থেকে আওয়ামী লীগ নিপীড়িত, অত্যাচারিত, অধিকার বঞ্চিত, জনগণের জন্য কাজ করে চলেছে উল্লেখ করে ঢাকা দক্ষিণের মেয়র বলেন, ‘আমাদের রয়েছে দীর্ঘ পথ পরিক্রমা, ত্যাগী, পরীক্ষিতে নেতা-কর্মী, বীরমুক্তিযোদ্ধারা। তাদের মূল্যায়ন করতে হবে। তাদের যোগ্য জায়গায় অধিষ্ঠিত করতে হবে। তাহলে আওয়ামী লীগ আরও শক্তিশালী হবে।’

ইউনিট সম্মেলনে পর ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগে এক এলাকার ভোটার অন্য এলাকায় দিয়ে আর নেতৃত্ব দেয়ার সুযোগ থাকবে বলে জানান তাপস। বলেন, ‘তৃণমূলে যে কারও নেতৃত্বের মেধা, কার্যক্রম তার এলাকাতেই তাকে দেখাতে হবে এবং অবস্থান নিতে হবে।’

সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বক্তব্য রাখেন দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দীপু মনি, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবু আহম্মেদ মান্নাফী, হুমায়ুন কবির।

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

সেই লিলিকে গাভী উপহার দিলেন জেলা প্রশাসক

সেই লিলিকে গাভী উপহার দিলেন জেলা প্রশাসক

লিলি বেগমকে বাছুরসহ গরু উপহার দিয়েছেন বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান। ছবি: নিউজবাংলা

লিলি বেগম বলেন, ‘মোরে ডিসি ছারে একটা গরু আর বাছুর দেছে। মুই এই গরুডা পাইল্লা দুধ বেইচ্চা দুগ্গা ডাইল ভাত খাইতে পারমু আনে। হেগো লইগ্গা দোয়া হরি আল্লায় ভালো রাহুক। আপনেগো লইগ্গাও দোয়া হরি মোর কষ্ট তুইল্লা ধরছেন আপনেরা।’

বরগুনার ঢলুয়া ইউনিয়নের পোটকাখালীতে এলাকায় খাকদোন নদীতে খেয়া পারাপারকারি লিলি বেগমকে গাভী উপহার দিয়েছেন বরগুনার জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান।

রোববার সকাল ১০টার দিকে জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান কার্যালয়ের সামনে লিলিকে বাছুরসহ দুগ্ধদানকারী গাভী উপহার দেন।

উপহার পেয়ে উচ্ছ্বসিত লিলি বেগম বলেন, ‘মোরে ডিসি ছারে একটা গরু আর বাছুর দেছে। মুই এই গরুডা পাইল্লা দুধ বেইচ্চা দুগ্গা ডাইল ভাত খাইতে পারমু আনে। হেগো লইগ্গা দোয়া হরি আল্লায় ভালো রাহুক। আপনেগো লইগ্গাও দোয়া হরি মোর কষ্ট তুইল্লা ধরছেন আপনেরা।'

জেলা প্রশাসক হাবিবুর রহমান বলেন, ‘জীবনসংগ্রামে প্রতিনিয়ত সংগ্রামী নারী লিলি বেগম। তিনি বরগুনার খাকদোন নদে খেয়া পারাপার করতেন। বিষয়টি দৃষ্টিগোচর হলে আমরা লিলি বেগমের খোঁজখবর নেই এবং তাকে একটি বাছুরসহ গাভী উপহার দেই। এছাড়াও তাকে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা প্রদান করা হবে।'

খাকদোন নদীতে খেয়া পারাপারকারি লিলি বেগমকে নিয়ে সর্বপ্রথম প্রতিবেদন প্রকাশ করে নিউজবাংলা। বিষয়টি নজরে আসলে তাকে সহায়তা দেয়ার উদ্যোগ নেয় বরগুনা জেলা প্রশাসন।

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

২০২৬ সাল পর্যন্ত ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম হোসেন

২০২৬ সাল পর্যন্ত ব্র্যাক ব্যাংকের এমডি সেলিম হোসেন

সেলিম আর এফ হোসেন

সেলিম হোসেন বলেন, ‘পুনরায় নিয়োগ করে আমাকে সম্মানিত করার জন্য আমি ব্র্যাক ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও বোর্ড অব ডিরেক্টসকে ধন্যবাদ জানাই। ব্র্যাক ব্যাংকের মেধাবী ও নিবেদিতপ্রাণ টিমের সাথে এ সমৃদ্ধির পথচলা অব্যাহত রাখার সুযোগ পেয়ে আমি আনন্দিত।’

সেলিম আর এফ হোসেন ২০২৬ সাল পর্যন্ত ব্র্যাক ব্যাংকের নেতৃত্ব দেবেন।

রোববার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বেসরকারি এই ব্যাংকটি জানিয়েছে, ব্র্যাক ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও বোর্ড অব ডিরেক্টরস বর্তমান ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (এমডি অ্যান্ড সিইও) সেলিম আর এফ হোসেনকে একই পদে ২০২৬ সালের মার্চ মাস পর্যন্ত পুনরায় নিয়োগ করেছেন। বাংলাদেশ ব্যাংক তার এ পুনর্নিয়োগের অনুমোদন দিয়েছে।

এ পুনর্নিয়োগ নভেম্বর ২০২১ থেকে কার্যকর হয়েছে।

সেলিম হোসেন ২০১৫ সালের নভেম্বরে এমডি অ্যান্ড সিইও হিসেবে ব্র্যাক ব্যাংকের নেতৃত্ব গ্রহণ করেন। পরবর্তীতে তিন বছর করে দুই মেয়াদ (ছয় বছর) সম্পন্ন করেছেন। এই ছয় বছরে তিনি ব্র্যাক ব্যাংককে মধ্যম সারির ব্যাংক থেকে ব্যাংকিং খাতের শীর্ষস্থানীয় অবস্থানে নিয়ে গেছেন। ব্র্যাকটিকে বাংলাদেশের আর্থিক খাতে অগ্রগামী প্রতিষ্ঠান হিসেবে দৃঢ় ও মজবুত ভিতের উপর প্রতিষ্ঠিত করেছেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়েছে।

সবচেয়ে বেশি মার্কেট ক্যাপিটালাইজেশন ও সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক বিনিয়োগকারীদের শেয়ারহোল্ডিং এবং আন্তর্জাতিক ক্রেডিট রেটিং সংস্থা- এসঅ্যান্ডপি ও মুডি’জ থেকে প্রাপ্ত দেশের সব ব্যাংক থেকে উৎকৃষ্ট ক্রেডিট রেটিং ব্র্যাক ব্যাংকের উচ্চমানের ব্যবস্থাপনা ও কর্মদক্ষতার প্রতিফলন বহন করে। প্রায় সব আর্থিক সূচক ও মানদণ্ডে ব্র্যাক ব্যাংক অন্য সব ব্যাংক থেকে এগিয়ে আছে। এছাড়াও সুশাসন ও মূল্যবোধ ভিত্তিক ব্যাংকিংয়ে একটি অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।

সেলিম হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অ্যাকাউন্টিংয়ে স্নাতক ডিগ্রি এবং একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ) থেকে এমবিএ (মেজর ইন ফাইন্যান্স) ডিগ্রি অর্জন করেন। ২০১০ সালে আইডিএলসিতে যোগদানের পূর্বে তিনি বাংলাদেশের দুটি বৃহত্তম বহুজাতিক ব্যাংক এএনজেড গ্রিন্ডলেইজ ব্যাংক এবং স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকে ২৪ বছর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। ২০১৫ সালে ব্র্যাক ব্যাংক এ যোগদানের পূর্বে তিনি ছয় বছর আইডিএলসির নেতৃত্ব দেন।

পুনর্নিয়োগ সম্পর্কে সেলিম হোসেন বলেন, ‘পুনরায় নিয়োগ করে আমাকে সম্মানিত করার জন্য আমি ব্র্যাক ব্যাংকের চেয়ারম্যান ও বোর্ড অব ডিরেক্টসকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাই। ব্র্যাক ব্যাংকের মেধাবী ও নিবেদিতপ্রাণ টিমের সাথে এ সমৃদ্ধির পথচলা অব্যাহত রাখার সুযোগ পেয়ে আমি আনন্দিত।’

‘সম্মিলিত প্রচেষ্টায় আমরা ব্র্যাক ব্যাংককে মার্কেট শেয়ারে সুউচ্চতর স্থানে নিয়ে যেতে সংকল্পবদ্ধ। একই সাথে আমাদের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান স্যার ফজলে হাসান আবেদ, কেসিএমজি এর আর্থিক অন্তর্ভুক্তি ও মূল্যবোধ ভিত্তিক উন্নয়ন কার্যক্রমের লালিত স্বপ্ন ধারণ ও পালন করে এগিয়ে নিতে যেতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ আমরা।’

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

বাসই প্রাণ কাড়ল পরিবহন শ্রমিকের

বাসই প্রাণ কাড়ল পরিবহন শ্রমিকের

খন্দকার সাখাওয়াত হোসেন জানান, খোরশেদ আলম দুপুর ১টার দিকে বাসস্ট্যান্ডের ভেতর একটি পার্কিং করা বাসের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় নেত্র পরিবহনের ‘সিয়াম-শারমিন’ নামক একটি বাসের চালক তার বাসটিকে স্ট্যান্ডের ভেতর থেকে মূল সড়কে নেয়ার চেষ্টা করেন। তখন দুই বাসের মাঝখানে খোরশেদ চাপা পড়েন।

বাসের সুপারভাইজারের কাজ করতেন খোরশেদ আলম। দুই বাসের মাঝখানে চাপা পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

নেত্রকোণা শহরের পারলা এলাকার আন্তজেলা বাসস্ট্যান্ডে রোববার দুপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত খোরশেদের বাড়ি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার মোগলটোলা গ্রামে।

নেত্রকোণা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার সাখাওয়াত হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, খোরশেদ আলম দুপুর ১টার দিকে বাসস্ট্যান্ডের ভেতর একটি পার্কিং করা বাসের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় নেত্র পরিবহনের ‘সিয়াম-শারমিন’ নামক একটি বাসের চালক তার বাসটিকে স্ট্যান্ডের ভেতর থেকে মূল সড়কে নেয়ার চেষ্টা করেন।

তখন দুই বাসের মাঝখানে খোরশেদ চাপা পড়েন। এতে তার মাথায় গুরুতর জখম হয়। পরে অন্য শ্রমিকরা তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি খন্দকার শাকের আহমেদ আরও জানান, নিহত খোরশেদের স্বজনদের খবর পাঠানো হয়েছে। তারা এলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। আপাতত তার মরদেহটি হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ  

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ

 

এই অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা

যুবকের বাবা খায়রুল প্রধান বলেন, ‘শনিবার সকালে দোকান খুলতে বাজারের উদ্দেশে বের হয় হাবিবুল। রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। বাজারে গিয়ে দেখি দোকান খোলা। তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ ছিল। রোববার স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।’

গাজীপুরের শ্রীপুরে গাছের সঙ্গে দড়ি বাঁধা অবস্থায় এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। কাওরাইদ ইউনিয়নের পন্ডিতের ভিটা এলাকা থেকে রোববার সকাল ৮টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

মৃত যুবকের নাম হাবিবুল বাশার। ৩৫ বছরের হাবিবুলের বাড়ি কাওরাইদ ইউনিয়নের বেলদিয়া গ্রামে। কাওরাইদ বাজারে তার একটি ফার্মেসি আছে।

এসব নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন।

যুবকের বাবা খায়রুল প্রধান বলেন, ‘শনিবার সকালে দোকান খুলতে বাজারের উদ্দেশে বের হয় হাবিবুল। রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। বাজারে গিয়ে দেখি দোকান খোলা। তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ ছিল। রোববার স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।’

স্থানীয় আলফাজ মিয়া বলেন, ‘মরদেহের হাঁটু মাটিতে লেগে ছিল, গলায় দড়ি পেঁচানো। মনে হচ্ছে এটা পরিকল্পিত হত্যা।’

ওসি ইমাম হোসেন বলেন, ‘ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে মরদেহ। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

ভোট না দেয়ায় ভিক্ষুককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

ভোট না দেয়ায় ভিক্ষুককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের খৈয়রভাঙ্গা এলাকার শারীরিক প্রতিবন্ধী খলিল খান। ছবি: নিউজবাংলা

খলিল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শুক্রবার সকালে আমি মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে ভিক্ষা করতে যাই। ভিক্ষা করেই আমার সংসার চলে। বাসস্ট্যান্ডে একা পেয়ে ওই সময় সোহরাব খানের সামনেই তার ভাই ও ভাইয়ের ছেলে দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়।’

মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জয়ী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শ্বাসরোধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করেছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী এক ভিক্ষুক।

নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে সমর্থন দেয়ায় হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে শনিবার রাতে সদর থানায় লিখিত অভিযোগটি দেন ভিক্ষুক খলিল খান। তার বাড়ি মস্তফাপুর ইউনিয়নের খৈয়রভাঙ্গা এলাকায়।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, গত ২৮ নভেম্বর মস্তফাপুর ইউনিয়নে ভোট হয়। নির্বাচনে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়ী হন সোহরাব খান। আরেক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মজিবর রহমান মোটরসাইকেল প্রতীকে পরাজিত হন।

নির্বাচনে মজিবরকে সমর্থন দেন ভিক্ষুক খলিল। এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে শুক্রবার সকালে মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে এলাকায় খলিলকে শ্বাসরোধে হত্যাচেষ্টা চালান সোহরাবের ভাই আনোয়োর খান ও তার ছেলে সজিব খানসহ বেশ কয়েকজন।

এ ঘটনায় খলিল নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দেন।

খলিল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শুক্রবার সকালে আমি মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে ভিক্ষা করতে যাই। ভিক্ষা করেই আমার সংসার চলে। বাসস্ট্যান্ডে একা পেয়ে ওই সময় সোহরাব খানের সামনেই তার ভাই ও ভাইয়ের ছেলে দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়। আমাকে সবাই মিলে মারধর করে।’

চেয়ারম্যান সোহরাব খান অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘ভিক্ষুককে আমি মারধর কেন করব। আমি কিছু করিনি। তবে ওই ভিক্ষুকের সঙ্গে একটু ঝামেলা হয়েছিল, যা পুলিশের এসআই খসরুজ্জামান এসে মীমাংসা করে দিয়েছেন।’

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এ এইচ এম সালাউদ্দিন বলেন, থানায় এ বিষয় অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মস্তফা রাসেল বলেন, ‘থানায় যদি অভিযোগ দেয়, তাহলে ঘটনার সঙ্গে যেই জড়িত হোক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন

করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ২৮ হাজার

করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ২৮ হাজার

দেশে এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের। ফাইল ছবি

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৩ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ২৮ হাজার।

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ২৮ হাজার। এ সময়ের মধ্যে আরও ১৯৭ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

রোববার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গত ২৪ ঘণ্টার এ তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৩ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের।

বিস্তারিত আসছে....

আরও পড়ুন:
‘মোবাইল নিয়ে বিরোধ’, স্কুলছাত্রকে কুপিয়ে জখম
ঘর থেকে উদ্ধার রক্তাক্ত কিশোরী
আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

শেয়ার করুন