ছাত্রদল থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

ছাত্রদল থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন কমিটিতে পদ পাওয়া প্রতীক হাসানাত খান। ছবি: নিউজবাংলা

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারেফ হোসেন খান বলেন, ‘প্রতীক হাসানাত কীভাবে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন তা আমার জানা নেই। তবে তাকে আওয়ামী লীগবিরোধী লোক হিসেবে চিনি।’

পিরোজপুরের নাজিরপুরে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন কমিটিতে ছাত্রদল নেতাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করার অভিযোগ উঠেছে।

পদ পাওয়া প্রতীক হাসানাত খান ছাত্রদলের সদ্য বিলুপ্ত উপজেলা আহ্বায়ক কমিটির ১৯ নম্বর সদস্য ছিলেন বলে জানিয়েছেন ছাত্র সংগঠনটির নেতারা। তবে প্রতীক ছাত্রদল করার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন।

তার দাবি, ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করতে একটি মহল তার বিরুদ্ধে এমন প্রচারণা চালাচ্ছে। তিনি কখনও ছাত্রদল করেননি।

উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতারা জানান, আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির দপ্তর সম্পাদক আজিজুল হক আজিজ স্বাক্ষরিত চিঠিতে শনিবার রাতে এ কমিটি দেয়া হয়।

কমিটিতে তুহিন হালদার তিমিরকে সভাপতি ও মো. আল-আমিন খানকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়। সাংগঠনিক সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয় জাকারিয়া হাওলাদার, রিজভী খান ও প্রতীক হাসানাত খানকে।

তিন নম্বর সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে ছাত্রদল নেতা প্রতীক হাসানাতের নাম আসার পর আওয়ামী লীগ ও বিএনপি দুই দলের নেতারাই করেছেন সমালোচনা।

ছাত্রদল থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা

উপজেলা ছাত্রদলের একাধিক নেতা জানান, ২০১৬ সালের ২৪ আগস্ট উপজেলা ছাত্রদলের ১০১ সদস্যের যে আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়, তার ১৯ নম্বর সদস্য ছিলেন প্রতীক হাসানাত।

উপজেলা ছাত্রদলের ওই কমিটির সদস্যসচিব হাফিজুর রহমান লায়েক জানান, প্রতীক হাসানাত ছাত্রদলের প্রাথমিক সদস্য ফরম পূরণ করে পদ পেয়েছিলেন। তবে তার ওই পদের জন্য জেলাকে সুপারিশ করতে সংগঠনের স্থানীয় একটি মহলের চাপ ছিল।

উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান খান বলেন, ‘একটি সুবিধাবাদী মহল সব সময়ই সুবিধা নিতে দল বদলায়। সরকারি দল করা সহজ, কিন্তু সরকারের বাইরে থেকে দল করতে সাহস লাগে।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারেফ হোসেন খান বলেন, ‘প্রতীক হাসানাত কীভাবে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক হয়েছেন তা আমার জানা নেই। তবে তাকে আওয়ামী লীগবিরোধী লোক হিসেবে চিনি।’

নতুন ঘোষিত কমিটির সভাপতি তুহিন হালদার তিমির বলেন, ‘প্রতীক হাসানাতের নাম কীভাবে উপজেলা কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে এসেছে তা আমার জানা নেই।’

প্রতীক হাসানাত ছাত্রদল করার বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ‘ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ করতে একটি মহল আমার বিরুদ্ধে এমন প্রচারণা চালাচ্ছে। আমি কখনও ছাত্রদল করিনি। ছাত্রদলের পদে ছিলাম তাও জানতাম না।’

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, প্রতীক হাসানাত উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবুল হাসানাত খান পেয়ারার ছেলে এবং উপজেলা বিএনপির বর্তমান সভাপতি নজরুল ইসলাম খানের ভাইপো। তিনি ‘রিক’ নামে বেসরকারি একটি এনজিওর ঢাকার প্রধান কার্যালয়ের কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

মন্তব্য

বাসই প্রাণ কাড়ল শ্রমিকের

বাসই প্রাণ কাড়ল শ্রমিকের

খন্দকার সাখাওয়াত হোসেন জানান, খোরশেদ আলম দুপুর ১টার দিকে বাসস্ট্যান্ডের ভেতর একটি পার্কিং করা বাসের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় নেত্র পরিবহনের ‘সিয়াম-শারমিন’ নামক একটি বাসের চালক তার বাসটিকে স্ট্যান্ডের ভেতর থেকে মূল সড়কে নেয়ার চেষ্টা করেন। তখন দুই বাসের মাঝখানে খোরশেদ চাপা পড়েন।

বাসের সুপারভাইজারের কাজ করতেন খোরশেদ আলম। দুই বাসের মাঝখানে চাপা পড়ে প্রাণ হারিয়েছেন তিনি।

নেত্রকোণা শহরের পারলা এলাকার আন্তজেলা বাসস্ট্যান্ডে রোববার দুপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত খোরশেদের বাড়ি ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা উপজেলার মোগলটোলা গ্রামে।

নেত্রকোণা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার সাখাওয়াত হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, খোরশেদ আলম দুপুর ১টার দিকে বাসস্ট্যান্ডের ভেতর একটি পার্কিং করা বাসের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এ সময় নেত্র পরিবহনের ‘সিয়াম-শারমিন’ নামক একটি বাসের চালক তার বাসটিকে স্ট্যান্ডের ভেতর থেকে মূল সড়কে নেয়ার চেষ্টা করেন।

তখন দুই বাসের মাঝখানে খোরশেদ চাপা পড়েন। এতে তার মাথায় গুরুতর জখম হয়। পরে অন্য শ্রমিকরা তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি খন্দকার শাকের আহমেদ আরও জানান, নিহত খোরাশেদের স্বজনদের খবর পাঠানো হয়েছে। তারা এলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। আপাতত তার মরদেহটি হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ  

গাছে ঝুলছিল যুবকের মরদেহ

 

এই অবস্থায় মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা

যুবকের বাবা খায়রুল প্রধান বলেন, ‘শনিবার সকালে দোকান খুলতে বাজারের উদ্দেশে বের হয় হাবিবুল। রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। বাজারে গিয়ে দেখি দোকান খোলা। তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ ছিল। রোববার স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।’

গাজীপুরের শ্রীপুরে গাছের সঙ্গে দড়ি বাঁধা অবস্থায় এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। কাওরাইদ ইউনিয়নের পন্ডিতের ভিটা এলাকা থেকে রোববার সকাল ৮টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।

মৃত যুবকের নাম হাবিবুল বাশার। ৩৫ বছরের হাবিবুলের বাড়ি কাওরাইদ ইউনিয়নের বেলদিয়া গ্রামে। কাওরাইদ বাজারে তার একটি ফার্মেসি আছে।

এসব নিশ্চিত করেছেন শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন।

যুবকের বাবা খায়রুল প্রধান বলেন, ‘শনিবার সকালে দোকান খুলতে বাজারের উদ্দেশে বের হয় হাবিবুল। রাতে আর বাড়ি ফেরেনি। বাজারে গিয়ে দেখি দোকান খোলা। তার মোবাইল ফোনটি বন্ধ ছিল। রোববার স্থানীয়রা তার মরদেহ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।’

স্থানীয় আলফাজ মিয়া বলেন, ‘মরদেহের হাঁটু মাটিতে লেগে ছিল, গলায় দড়ি পেঁচানো। মনে হচ্ছে এটা পরিকল্পিত হত্যা।’

ওসি ইমাম হোসেন বলেন, ‘ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে মরদেহ। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

ভোট না দেয়ায় ভিক্ষুককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

ভোট না দেয়ায় ভিক্ষুককে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ

মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়নের খৈয়রভাঙ্গা এলাকার শারীরিক প্রতিবন্ধী খলিল খান। ছবি: নিউজবাংলা

খলিল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শুক্রবার সকালে আমি মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে ভিক্ষা করতে যাই। ভিক্ষা করেই আমার সংসার চলে। বাসস্ট্যান্ডে একা পেয়ে ওই সময় সোহরাব খানের সামনেই তার ভাই ও ভাইয়ের ছেলে দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়।’

মাদারীপুর সদর উপজেলার মস্তফাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে জয়ী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে শ্বাসরোধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ করেছেন শারীরিক প্রতিবন্ধী এক ভিক্ষুক।

নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীকে সমর্থন দেয়ায় হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে শনিবার রাতে সদর থানায় লিখিত অভিযোগটি দেন ভিক্ষুক খলিল খান। তার বাড়ি মস্তফাপুর ইউনিয়নের খৈয়রভাঙ্গা এলাকায়।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, গত ২৮ নভেম্বর মস্তফাপুর ইউনিয়নে ভোট হয়। নির্বাচনে আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে জয়ী হন সোহরাব খান। আরেক স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মজিবর রহমান মোটরসাইকেল প্রতীকে পরাজিত হন।

নির্বাচনে মজিবরকে সমর্থন দেন ভিক্ষুক খলিল। এতেই ক্ষিপ্ত হয় শুক্রবার সকালে মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে এলাকায় খলিলকে শ্বাসরোধে হত্যাচেষ্টা চালান সোহরাবের ভাই আনোয়োর খান ও তার ছেলে সজিব খানসহ বেশ কয়েকজন।

এ ঘটনায় খলিল নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানসহ তিনজনের নাম উল্লেখ করে সদর মডেল থানায় অভিযোগ দেন।

খলিল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শুক্রবার সকালে আমি মস্তফাপুর বাসস্ট্যান্ডে ভিক্ষা করতে যাই। ভিক্ষা করেই আমার সংসার চলে। বাসস্ট্যান্ডে একা পেয়ে ওই সময় সোহরাব খানের সামনেই তার ভাই ও ভাইয়ের ছেলে দলবল নিয়ে আমার ওপর হামলা চালায়। আমাকে সবাই মিলে মারধর করে।’

চেয়ারম্যান সোহরাব খান অবশ্য অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘ভিক্ষুককে আমি মারধর কেন করব। আমি কিছু করিনি। তবে ওই ভিক্ষুকের সঙ্গে একটু ঝামেলা হয়েছিল, যা পুলিশের এসআই খসরুজ্জামান এসে মীমাংসা করে দিয়েছেন।’

মাদারীপুর সদর মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) এএইচএম সালাউদ্দিন বলেন, থানায় এ বিষয় অভিযোগ পেয়েছি। পুলিশ তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবে।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মস্তফা রাসেল বলেন, ‘থানায় যদি অভিযোগ দেয়, তাহলে ঘটনার সঙ্গে যেই জড়িত হোক তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ২৮ হাজার

করোনায় মৃত্যু ছাড়াল ২৮ হাজার

দেশে এ পর্যন্ত করোনায় মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের। ফাইল ছবি

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৩ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ২৮ হাজার।

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ২৮ হাজার। এ সময়ের মধ্যে আরও ১৯৭ জনের শরীরে সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

রোববার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গত ২৪ ঘণ্টার এ তথ্য জানায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৭ হাজার ৪৪৩ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ১ জনের।

বিস্তারিত আসছে....

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

কর রেয়াতে চলে যায় জিডিপির ২.২৮ শতাংশ

কর রেয়াতে চলে যায় জিডিপির ২.২৮ শতাংশ

ক্ষুদ্র ও কুঠির শিল্পসহ বিভিন্ন খাতকে করমুক্ত রেখেছে সরকার। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা

এনবিআরের একটি প্রতিবেদনে বলা হয়, বিশেষ খাতগুলোকে স্বল্প কর হার সুবিধা, কর অব্যাহতি এবং কর অবকাশ সুবিধা দেয়ায় কর ভিত্তি সংকুচিত হয়েছে। যদি এসব খাতে সুবিধা বাতিল করা হয়, তা হলে কর আহরণ বর্তমানের চেয়ে বাড়বে।

কৃষি, শিল্প, সেবা, অবকাঠমোসহ বিভিন্ন খাতে কর সুবিধা দেয়ার ফলে মোট দেশজ উৎপাদনের (জিডিপি) কমপক্ষে ২ দশমিক ২৮ শতাংশ আয়কর কম আদায় হয়।

জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এক গবেষণায় এ তথ্য উঠে এসেছে। গবেষণা প্রতিবেদনটি জাতীয় আয়কর দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় সম্প্রতি উপস্থাপন করেন রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (আয়কর নীতি) সামসুদ্দীন আহমেদ।

কম আহরণের কারণ হিসেবে করের ভিত্তি সংকুচিত হওয়াকে অন্যতম প্রধান কারণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয় প্রতিবেদনে।

রাজস্ব বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, আয়কর বিভাগে পূর্ণাঙ্গ অটোমেশন অভাব, কর ফাঁকি, জটিল আইন-কানুন ও অর্থনীতির বড় একটি অংশ হিসাবের বাহিরে থাকার কারণেও কাঙ্খিত কর আদায় হচ্ছে না।

এনবিআরের প্রতিবেদনে বলা হয়, শিল্পায়ন, বিদেশি বিনিয়োগ আকৃষ্টকরণ এবং জনগুরুত্বপূর্ণ বিশেষ খাতগুলোকে স্বল্প কর হার সুবিধা, কর অব্যাহতি এবং কর অবকাশ সুবিধা দেয়ায় কর ভিত্তি সংকুচিত হয়েছে। যদি এসব খাতে সুবিধা বাতিল করা হয়, তা হলে কর আহরণ বর্তমানের চেয়ে বাড়বে বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়।

সবশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, আয়কর আদয়ের পরিমাণ প্রায় ৮৫ হাজার কোটি টাকা। এটি এনবিআরের মাধ্যমে সংগৃহীত রাজস্বের শতকরা ৩৫ ভাগ।

রাজস্ব বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, আমাদের অর্থনীতির যে আকার তার সঙ্গে কর আহরণের সামাঞ্জস্য নেই। এর মূল কারণ প্রতি বছর বিপুল পরিমাণ আয়ের তথ্য গোপন করে কর ফাঁকি দেয়া হয়।

জিডিপির হিসাবে বছরে কত পরিমাণ কর ফাঁকি হয়, তার কোনো গবেষণালব্ধ তথ্য এনবিআরের কাছে নেই। তবে রাজস্ব বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, আদায়যোগ্য করের কমপক্ষে ৪০ থেকে ৫০ ভাগ কম আদায় হয়।

এনবিআরের সাবেক সদস্য আমিনুর রহমান বলেন, দেশের মোট জনসংখ্যা, মাথাপিছু আয়, মোট দেশজ উৎপাদন ইত্যাদি বিবেচনা করলে করদাতার সংখ্যা এবং আদায় বর্তমানের চেয়ে কমপক্ষে দ্বিগুণ হওয়া উচিত।

প্রতিবেদনে বলা হয়, আয়কর সংগ্রহে ধারাবাহিক প্রবৃদ্ধি অর্জিত হলেও আমাদের কর বনাম জিডিপি অনুপাত এখনও কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারেনি।

এক দশক আগে ২০১১-১২ অর্থবছরে আয়কর আদায়ে প্রবৃদ্ধির হার ছিল প্রায় ১১ শতাংশ। গত অর্থবছরে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩ শতাংশের বেশি।

এনবিআর বলেছে, আয়কর আদায় বাড়লেও জিডিপি বনাম কর অনুপাত সেভাবে বাড়েনি।

এক দশক আগে জিডিপির বিপরিতে কর সংগ্রহ ছিল ১০ শতাংশ। এক দশক পর গত অর্থবছরে তা সামান্য বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ১২ শতাংশ।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সাবেক কর্মকর্তা ও গবেষণা সংস্থা পিআরআই-এর নিবার্হী পরিচালক ড. আহসান এইচ মনসুর বলেন, ‘বাংলাদেশের কর ব্যবস্থার যথেষ্ঠ দুর্বলতা আছে। এখানে বড় ধরনের সংস্কার দরকার। এনবিআরকে ঢেলে সাজাতে হবে। এখন যে এনবিআর আছে, তা দিয়ে প্রত্যাশিত রাজস্ব আয় সম্ভব নয়। এর আমূল পরিবর্তন দরকার।’

যেসব খাতে কর অব্যাহতি সুবিধা দেয়া হয়েছে

এনবিআরের প্রতিবেদন অনুযায়ী যেসব খাতে কর অব্যাহতি সুবিধা দেয়া হয়েছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে ভৌত অবকাঠামো, তথ্য প্রযুক্তি, রপ্তানিমুখী পোশাক ও বস্ত্র, হস্তজাত, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প ও কৃষি খাত।

বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও পরিবহনসহ সরকার এ পর্যন্ত ১৮টি ভৌত অবকাঠামো খাতে কর অব্যাহতি সুবিধা দিয়েছে। প্রোডাক্টশন শেয়ারিং কনট্রাক্ট বা পিএসসির আওতায় বিদেশি তেল গ্যাস কোম্পানিকে কর সুবিধা দেয়া হয়েছে। বাংলাদেশে যেসব বিদেশি পরামর্শক কাজ করছেন, তারা কর সুবিধা ভোগ করছেন।

জিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে বর্তমানে ২২টি তথ্যপ্রযুক্তি খাত শতভাগ কর অব্যাহতি সুবিধা পাচ্ছে। বিশ্ব প্রতিযোগিতার সক্ষমতা অর্জনে তৈরি পোশাক খাতকে কম হারে (১২ শতাংশ) কর সুবিধা দেয়া হয়েছে।

হস্তজাত, কুটির শিল্প ও মাঝারি শিল্প যাদের বছরে লেনদেন বা টার্নওভার ৫০ লাখ টাকা, তাদের কর মওকুফ করে দেয়া হয়েছে। কম উন্নত এলাকায় শিল্প স্থাপন উৎসাহিত করতে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পকে কর রেয়াত দেয়া হয়েছে।

বর্তমানে পাটজাত দ্রব্য উৎপাদন করলে কম হারে কর আদায় করা হয়। কৃষিজাত উৎপাদন থেকে অর্জিত আয়ের ওপর ১০ বছর পর্যন্ত করমুক্ত সুবিধা ভোগ করা যায়।

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে আ. লীগ নেতা বহিষ্কার

অসৌজন্যমূলক আচরণের দায়ে আ. লীগ নেতা বহিষ্কার

সাটুরিয়ার ধানকোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হককে বহিষ্কার করা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফাজ উদ্দিন জানান, শনিবার দুপুর ১২টার দিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সদর উপজেলার পড়পাড়ায় দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় করেন। সেখানে আব্দুল মজিদ ফটোর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন আব্দুল হক।

মানিকগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল মজিদ ফটোর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করায় সাটুরিয়া উপজেলার ধানকোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হককে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার দুপুরে সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফজলুল রহমান ও সাধারণ সম্পাদক আফাজ উদ্দিন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

শনিবার রাতে সাটুরিয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগ আব্দুল হককে বহিষ্কার করে।

বহিষ্কারপত্রে বলা হয়, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাটুরিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মজিদ ফটোর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করায় ধানকোড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হককে সাময়িকভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আফাজ উদ্দিন জানান, শনিবার দুপুর ১২টার দিকে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক সদর উপজেলার পড়পাড়ায় দলীয় নেতা-কর্মীদের নিয়ে মতবিনিময় করেন। সেখানে আব্দুল মজিদ ফটোর সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন আব্দুল হক।

তিনি জানান, রাতে সাটুরিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগ আব্দুল হককে দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেয়।

এ বিষয়ে আব্দুল হক বলেন, ‘বহিষ্কারের আগে জেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা ঘটনার মীমাংসা করেছিলেন। তবু আব্দুল মজিদ ফটোর ব্যক্তিগত কারণে আমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। রাজনৈতিক কারণে নয়।’

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন

সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের যাত্রা শুরু

সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের যাত্রা শুরু

শিক্ষা সভ্যতার অগ্রযাত্রার মূল উপাদান বলে উল্লেখ করেন ক্যাম্পাস নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নাহিদ হাসান। তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাস নিউজ রাষ্ট্রের ভবিষ্যত কর্ণধার শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র হিসেবে আপোষহীনভাবে কাজ করে যাবে।’

ক্যাম্পাস আর ক্যারিয়ার বিষয়ক সকল সংবাদে পাঠকের চাহিদা পূরণের অঙ্গীকার নিয়ে যাত্রা শুরু করল সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজ।

রাজধানীর পান্থপথে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে সীমিত পরিসরে সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের শুভ সূচনা করেন জনপ্রিয় সাহিত্যিক ও জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক এবং সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ।

ক্যাম্পাস নিউজ শিক্ষাঙ্গন ও শিক্ষার্থীদের কল্যাণে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন আনিসুল হক। শিক্ষা নিয়ে এমন উদ্যোগের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি ক্যাম্পাস নিউজ শিক্ষাক্ষেত্রের সঙ্গতি ও অসঙ্গতি তুলে ধরবে।’

ক্যাম্পাস নিউজ দেশ ও দেশের মানুষের জন্য সৎভাবে কাজ করবে বলে জানান আব্দুল আজিজ। ক্যাম্পাস নিউজকে সত্য প্রকাশে আপোষহীন থাকার নির্দেশনা দেন তিনি।

শিক্ষা সভ্যতার অগ্রযাত্রার মূল উপাদান বলে উল্লেখ করেন ক্যাম্পাস নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নাহিদ হাসান। তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাস নিউজ রাষ্ট্রের ভবিষ্যত কর্ণধার শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র হিসেবে আপোষহীনভাবে কাজ করে যাবে।’

ক্যাম্পাস নিউজের নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ কবীর উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

আরও পড়ুন:
১৬ বছর পর চাঁদপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি
মাছের আড়ত দখলের জেরে বাবুকে হত্যা: পুলিশ
বাড়ির সামনে সাবেক স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা
ফ্রি অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে করোনা আক্রান্তের পাশে স্বেচ্ছাসেবক লীগ
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতার ‘স্বেচ্ছাচারী চাঁদাবাজি’

শেয়ার করুন