‘চট্টগ্রামের ফুসফুস’ বাঁচাতে অক্সিজেন মুখে অবস্থান মুক্তিযোদ্ধার

‘চট্টগ্রামের ফুসফুস’ বাঁচাতে অক্সিজেন মুখে অবস্থান মুক্তিযোদ্ধার

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ বন্ধে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়েই অবস্থান করছেন মুক্তিযোদ্ধা নাসিরুদ্দিন চৌধুরী। ছবি: নিউজবাংলা

সিআরবির সবুজ রক্ষার আন্দোলনে শামিল হওয়া সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন মনে করছেন, হাসপাতাল নির্মাণের জন্য গাছ কাটা হলে চট্টগ্রামে মুক্ত বাতাস সেবনের সবচেয়ে বড় জায়গাটা ধ্বংস হয়ে যাবে। তাই যে করেই হোক, গাছগুলোকে কাটার হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।

‘চট্টগ্রামের ফুসফুস’ হিসেবে পরিচিত সেন্ট্রাল রেলওয়ে বিল্ডিং (সিআরবি) এলাকায় হাসপাতাল নির্মাণ বন্ধে অক্সিজেন সিলিন্ডার নিয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন মুক্তিযোদ্ধা ও বর্ষীয়ান সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন চৌধুরী।

বৃষ্টি ও অসুস্থতা উপেক্ষা করে শনিবার বেলা ১১টা থেকে অবস্থান নেন তিনি।

সিআরবির সবুজ রক্ষার আন্দোলনে শামিল হওয়া নিয়ে সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন বলেন, ‘এখন ডিসির পাহাড়ে অক্সিজেন নেই মুক্ত হাওয়া সেবনের মতো। এখন সিআরবিও যদি ধ্বংস হয়ে যায়, তাহলে আমাদের মুক্ত বায়ুর জায়গাটা ধ্বংস হয়ে যাবে; চট্টগ্রামের ফুসফুস ধ্বংস হয়ে যাবে।

‘এ জন্য আমরা বলছি, আপনারা ঐক্যবদ্ধ হোন। চট্টগ্রামের জনগণ ঐক্যবদ্ধ হয়ে অতীতে বহু ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। ১৯৩০ সালে মাস্টারদা সূর্য সেন ব্রিটিশের অস্ত্রাগার লুট করে চট্টগ্রামকে স্বাধীনের চেষ্টা করেছেন।’

তিনি আরও বলেন, ‘ভয়াবহ দূষণের শিকার চট্টগ্রাম। সিআরবি পাহাড়ের শত শত বছরের শিরীষ গাছগুলো এক একটি অক্সিজেন তৈরির কারখানা। সিআরবিতে হাসপাতাল হলে সেই অক্সিজেন ফ্যাক্টরি ধ্বংস হয়ে যাবে।’

বর্ষীয়ান সাংবাদিক নাসিরুদ্দিন সম্প্রতি করোনা থেকে সেরে উঠেছেন। তিনি দীর্ঘ সময় ধরে হৃদরোগসহ নানা শারীরিক জটিলতায় ভুগছেন।

তিনি দাবি করেন, নিজে যেভাবে হৃদরোগসহ নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে, হাসপাতাল নির্মাণ হলে সিআরবিও মৃত্যুর দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাবে।

সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণ নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে প্রতিবাদ জানিয়ে আসছে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ। কিন্তু তাদের বিরোধিতা উপেক্ষা করেই হাসপাতাল নির্মাণের প্রথম ধাপের কাজ শুরু করেছে ইউনাইটেড গ্রুপ।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

মন্তব্য

চাপের মুখে জমা দিয়ে প্রকল্পের টাকা ফের উত্তোলন

চাপের মুখে জমা দিয়ে প্রকল্পের টাকা ফের উত্তোলন

অভিযুক্ত চেয়ারম্যান এজেডএম সাজেদুল ইসলাম স্বাধীন।

গোপনে সাড়ে ১৮ লাখ টাকা তুলে আত্মসাৎ চেষ্টা ফাঁস হওয়ার পর চেয়ারম্যান স্বাধীনের বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন ইউপি সদস্য ও দলের নেতাকর্মীরাও।

প্রকল্প ছাড়াই গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে ভূমি হস্তান্তর কর বরাদ্দের সাড়ে ১৮ লাখ টাকা তুলে ফেলেছিলেন দামোদরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান। পরে এই নিয়ে শোকজ করে স্থানীয় সরকার। নানাবিধ চাপে পরে সেই টাকা ব্যাংকে জমা দেয়া হয়। এ খবর প্রকাশিত হয় নিউজবাংলায়ও।

কিন্তু জমা দেয়ার পরদিনই ব্যাংক থেকে আবারও ওই টাকা তুলে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে। দামোদরপুর ইউপি চেয়ারম্যানের সঙ্গে যোগসাজসে টাকা জমা ও তুলে নেয়ার ঘটনায় এবার ইউপি সচিব নুরজামান মিয়াকে শোকজ করেছে স্থানীয় সরকার বিভাগ।

এর আগে, একই অভিযোগে চেয়ারম্যান এ জেড এম সাজেদুল ইসলাম স্বাধীনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলে তিনি এর জবাবে ভুল স্বীকার করেছিলেন।

কারণ দর্শানোর নোটিশ পেয়ে উন্নয়ন প্রকল্পে ইউনিয়ন পরিষদের ভূমি হস্তান্তর কর (১ শতাংশ) বরাদ্দের ব্যাংক হিসাব নম্বরে সাড়ে ১৮ লাখ টাকা জমা করেন চেয়ারম্যান।

প্রকল্প ছাড়াই টাকা তোলার ঘটনাটি ধরা পড়ে গত ১৪ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন পরিষদ পরিদর্শনে নথিপত্র যাচাইয়ে। ২৯ সেপ্টেম্বর কারণ দর্শানোর নোটিশে চেয়ারম্যানকে এক সপ্তাহের মধ্যে লিখিত জবাব দেয়ার নির্দেশ দেন গাইবান্ধা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক রোখছানা বেগম। ৭ অক্টোবর লিখিত জবাব দেন ইউপি চেয়ারম্যান স্বাধীন। এর আগের দিন তুলে নেওয়া সাড়ে ১৮ লাখ টাকা পরিষদের ব্যাংক হিসাবে জমা করা হয়।

এবার জমা করা টাকা আবারও তুলে নেয়ার ঘটনায় গত ১৯ অক্টোবর স্থানীয় সরকার বিভাগ গাইবান্ধার উপ-পরিচালক (উপ-সচিব) মোছা. রোখছানা বেগম ইউনিয়নের সচিব নুরজামান মিয়াকে সাত দিনের মধ্যে জবাব দিতে বলেছেন।

ইউনিয়ন পরিষদের ব্যাংক স্টেটমেন্ট পর্যালোচনা করে দেখা যায় গত ৩ অক্টোবর ওই সাড়ে ১৮ লাখ টাকা জমার পরদিনই দুটি চেকে আবারও পুরো টাকা উত্তোলন করা হয়েছে।

এদিকে, গোপনে সাড়ে ১৮ লাখ টাকা তুলে আত্মসাৎ চেষ্টা ফাঁস হওয়ার পর চেয়ারম্যান স্বাধীনের বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন ইউপি সদস্য ও দলের নেতাকর্মীরা। ইউপি সদস্য এস এম ওয়াহেদ মুরাদ, নুরুন্নবী আকন্দ, খোরশেদ আলম, রশিদুল ইসলাম ও নারী সদস্য মিনারা বেগম অভিযোগ করেন, চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর থেকেই স্বাধীন ক্ষমতার অপব্যবহার করে নানা অনিয়ম-দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা করে আসছেন। সদস্যদের উপেক্ষা করে একক সিন্ধান্তে তিনি বিভিন্ন প্রকল্প এবং সদস্যদের স্বাক্ষর জাল করেও লাখ-লাখ টাকা তুলে আত্মসাত করেছেন।

ট্রেড লাইসেন্স, হাট-বাজার ও ট্র্যাক্স আদায়ের টাকাও ব্যাংকে জমা না করার অভিযোগ আছে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। গত ৫ বছরে তিনি বাড়ি, গাড়িসহ বিপুল অর্থ সম্পদের মালিক হয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন ইউপি সদস্যরা।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

‘বিয়েতে গড়িমসি’, প্রেমিকের জিহ্বা কর্তন

‘বিয়েতে গড়িমসি’, প্রেমিকের জিহ্বা কর্তন

গ্রামবাসীর বরাতে পুলিশ জানায়, সাইফুলের সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেম ওই তরুণীর। নানা অজুহাতে বিয়ে পেছাচ্ছিলেন তিনি। এতে ক্ষুব্ধ ছিলেন তরুণী। শনিবার সকালে সাইফুলকে নিজের বাড়িতে ডাকেন। একপর্যায়ে ব্লেড দিয়ে দ্বিখণ্ডিত করেন জিহ্বা।

ঢাকার ধামরাইয়ে বিয়েতে কালক্ষেপণ করায় প্রেমিকের জিহ্বা দ্বিখণ্ডিত করার অভিযোগ উঠেছে এক তরুণীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় হওয়া মামলায় ওই তরুণীকে তার পরিবারের তিন সদস্যসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আহত যুবক হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

উপজেলার রোয়াইল ইউনিয়নের ফড়িঙ্গা গ্রামে অভিযুক্ত তরুণীর বাড়িতে শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আহত যুবকের নাম সাইফুল ইসলাম। ওই তরুণী ও সাইফুল একই গ্রামের বাসিন্দা।

সাইফুলের পরিবারের করা মামলায় শনিবার সন্ধ্যায় গ্রেপ্তার হয়েছেন তরুণী, তার বাবা, মা ও ভাই। তাদের রোববার আদালতে তোলা হবে।

নিউজবাংলাকে এসব নিশ্চিত করেছেন ধামরাই থানার পরিদর্শক (অপারেশন) নির্মল কুমার দাশ।

গ্রামবাসীর বরাতে তিনি জানান, সাইফুলের সঙ্গে দীর্ঘদিনের প্রেম ওই তরুণীর। নানা অজুহাতে বিয়ে পেছাচ্ছিলেন তিনি। এতে ক্ষুব্ধ ছিলেন তরুণী।

শনিবার সকালে সাইফুলকে নিজের বাড়িতে ডাকেন তরুণী। একপর্যায়ে ব্লেড দিয়ে দ্বিখণ্ডিত করেন জিহ্বা।

এরপর তরুণীর পরিবার যুবককে বেধড়ক পেটান। সাইফুল নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাকে মৃত ভেবে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যান সবাই।

নির্মল কুমার দাশ বলেন, ‘ স্থানীয়রা টের পেয়ে সাইফুলকে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করে। খবর পেয়ে পুলিশ তরুণীর বাড়ি থেকে খণ্ডিত জিহ্বা উদ্ধার করে। এদিন সন্ধ্যার দিকে ফড়িঙ্গা গ্রামে অভিযান চালিয়ে তরুণী ও তার পরিবারের তিন সদস্যকে আটক করা হয়। এর কিছু পর মামলা করে সাইফুলের পরিবার।’

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

ফেলে গেছে সন্তান, তুলে নিলেন ইউএনও

ফেলে গেছে সন্তান, তুলে নিলেন ইউএনও

শনিবার বৃদ্ধকে হাসপাতালে দেখতে যান বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সবুর আলী। ছবি- নিউজবাংলা

বর্তমানে খুব অসুস্থ হওয়ায় কথা বলতে পারছেন না বৃদ্ধ। সে জন্য এখনও তার বিষয়ে বিস্তারিত জানা সম্ভব হচ্ছে না।

গত কয়েকদিন ধরেই বেড়া উপজেলার কাজির হাট এলাকায় রাস্তায় পড়েছিলেন এক বৃদ্ধ। ৯০ বছর পার হয়েছে তার। পচন ধরেছে পায়ে। অসুস্থতার জন্য কথাও বলতে পারছিলেন না ঠিকমতো।

তবে স্থানীয়দের কাছে নাম-ঠিকানা দিতে সক্ষম হন সেই বৃদ্ধ। তিনি জানান, তার নাম সৈয়দ শামসুর রহমান। নাটোর জেলার লালপুর উপজেলার দয়ারামপুর গ্রামে তার বাড়ি। সন্তানরা চিকিৎসা না করে ফেলে গেছে তাকে।

কৌতুহলী কেউ এগিয়ে গেলেই বলছিলেন, ‘আমাকে আপনারা চিকিৎসা করান, আমাকে বাঁচান।’

বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে নজরে আসে বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার।

গত শুক্রবার রাত নয়টার দিকে ওই বৃদ্ধকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন তিনি।

শনিবার সকালে তিনি কিছু নতুন জামা কাপড় নিয়ে হাসপাতালে দেখতে যান ওই বৃদ্ধকে। এ সময় বৃদ্ধের শরীর ও পায়ের অবস্থা বিবেচনা করে ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠান।

অসুস্থতার ব্যাপারে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. ফাতেমা তুয-যোহরা বলেন, ‘তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। বৃদ্ধের পায়ে পচন ও পোকা ধরেছে। আর ডায়বেটিস উচ্চ মাত্রা থাকায় তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

এ বিষয়ে বেড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সবুর আলীও জানান, পায়ে পচন দেখা দেয়ায় বৃদ্ধকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাবনা জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালকের সঙ্গে কথা বলে সেখানে পাঠানো হয়েছে।

বৃদ্ধের সব চিকিৎসার খরচ বেড়া উপজেলা প্রশাসন বহন করবে বলেও জানান তিনি।

আরও জানান, বর্তমানে খুব অসুস্থ হওয়ায় কথা বলতে পারছেন না বৃদ্ধ। সে জন্য এখনও তার বিষয়ে বিস্তারিত জানা সম্ভব হচ্ছে না। একটু সুস্থ হলেই সব তথ্য পাওয়া যাবে। পরে তার পরিবারে কাছে হস্তান্তর করা হবে।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

বাড্ডায় ফার্নিচারের দোকানে আগুন নিয়ন্ত্রণে

বাড্ডায় ফার্নিচারের দোকানে আগুন নিয়ন্ত্রণে

ফাইল ছবি

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার দেওয়ান আজাদ বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও জানা যায়নি। আগুন নেভানো শেষ হলে তদন্ত করে বিষয়টি জানানো হবে।’

রাজধানীর বাড্ডার সাতারকুল এলাকার একটি ফার্নিচারের দোকানে লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে ফায়ার সার্ভিস।

ফায়ার সার্ভিসের কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার দেওয়ান আজাদ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘রাত ১০টা ৫৫ মিনিটে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। তবে সম্পূর্ণভাবে নেভানোর কাজ এখনও চলছে। আগুন নেভাতে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট কাজ করে।’

তিনি আরও বলেন, তবে প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ এবং ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও জানা যায়নি। আগুন নেভানো শেষ হলে তদন্ত করে বিষয়টি জানানো হবে।’

ফায়ার সার্ভিসের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

শনিবার রাত ১০ টার দিকে আগুনের খবর পায় ফায়ার সার্ভিস। প্রথমে আগুন নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের দুইটি ইউনিট যোগ দেয়। পরে আরও ৪টি ইউনিট কাজে যোগ দেয়।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্টের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্টের অভিযোগে যুবক গ্রেপ্তার

ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানি ও গুজব ছাড়ানোর অভিযোগে গ্রেপ্তার শোভন কুমার দাস। ছবি: নিউজবাংলা

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে র‍্যাব জানায়, গত ১৫ থেকে ২২ অক্টোবর সকাল থেকে পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে শোভন তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কিছু ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট ও লিংক শেয়ার করেন। এ ঘটনায় আরও ৪ থেকে ৫ জন জড়িত। শিগিগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।  

ফেসবুকে ধর্মীয় উসকানি ও গুজব ছাড়ানোর অভিযোগে এক যুবক গ্রেপ্তার হয়েছে যশোরে।

সদরের বকচর হুশতলা এলাকা থেকে শুক্রবার বিকেলে তাকে আটক করে র‍্যাব।

পরে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে তাকে যশোর কোতয়ালি থানায় হস্তান্তর করা হয়।

গ্রেপ্তার যুবকের নাম শোভন কুমার দাস। ২৭ বছরের শোভনের বাড়ি নড়াইল জেলার কালিয়া উপজেলার জোকারচর গ্রামে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে শনিবার দুপুরে এসব নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব যশোর ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার লে. মো. নাজিউর রহমান।

এতে বলা হয়, গত ১৫ থেকে ২২ অক্টোবর সকাল থেকে পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে শোভন তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে বেশ কিছু ধর্মীয় উসকানিমূলক পোস্ট ও লিংক শেয়ার করেন। এ ঘটনায় আরও ৪ থেকে ৫ জন জড়িত। শিগিগিরই তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

এবার বেসরকারি পর্যায়ে আয়কর সেবা

এবার বেসরকারি পর্যায়ে আয়কর সেবা

বেসরকারি পর্যায়ে আয়কর রিটার্নের সেবা দিতে ‘ডিজিট্যাক্স’ নামে একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন চালু করা হয়েছে। এটি চালু করেছে ইউনিভার্সাল নামে বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠান। এর মাধ্যমে আয়কর রিটার্ন ফরম এবং সম্পদের হিসাব-নিকাশ স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে পূরণ করা যাবে।

সরকারের পাশাপাশি বেসরকারিভাবে অনলাইনে আয়কর সংক্রান্ত সেবা দেয়ার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। এ জন্য ‘ডিজিট্যাক্স’ নামে একটি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন চালু করা হয়েছে। এটি চালু করেছে ইউনিভার্সাল নামে বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠান।

শনিবার রাজধানীর পল্টনে ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরাম (ইআরএফ)-এর কার্যালয়ে ডিজিট্যাক্সের অনলাইন ট্যাক্স অ্যাপ্লিকেশন উদ্বোধন করেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সদস্য (কর নীতি) মো. আলমগীর হোসেন।

প্রচলিত প্রথার পাশাপাশি বর্তমানে এনবিআরের অন-লাইনে আয়কর রিটার্ন ফরম পূরণসহ যাবতীয় সেবা দেয়া হয়। এর বাইরে এই প্রথমবারের মতো বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠান এই সেবা নিয়ে এলো।

বর্তমানে করদাতা শণাক্তকরণ নম্বর বা টিআইএন ৬২ লাখ। এর মধ্যে রিটার্ন জমা দেয় ২৫ লাখ।

আয়োজকরা বলেছেন, এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আয়কর রিটার্ন ফরম এবং সম্পদের হিসাব-নিকাশ স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে পূরণ করা যাবে। ঘরে বসেই করা যাবে আয়কর পরিশোধ এবং রিটার্ন ফাইল দাখিল।

করদাতার ব্যক্তিগত সুরক্ষার বিষয়ে তারা বলেন, প্রত্যেক করদাতার ব্যক্তিগত আইডি ও পাসওয়ার্ড থাকবে। তিনি ছাড়া আর কেউ এ তথ্য দেখতে পাবেন না। করদাতা তার তথ্য সংরক্ষণ করে রেখে যে কোনো সময় তা আবার লকইন করে এডিট করতে পারবেন।

এ সময় পেশাদার হিসাববিদদের সংগঠন দি ইনিস্টিটিউট অফ চার্টার্ড একাউন্ট্যান্টস অব বাংলাদেশের (আইসিএবি) প্রেসিডেন্ট মাহমুদুল হাসান খসরু, ঢাকা ট্যাক্সেস বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি এ কে এম আজিজুর রহমান, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক খালেদ মাহমুদ সুজন, ডিজিট্যাক্সের পরিচালক গোলাম শাহরিয়ার রঞ্জু ও ইআরএফ সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এনবিআর সদস্য আলমগীর হোসেন বলেন, মানুষের মধ্যে কর দেয়ার আগ্রহ তৈরি হয়েছে। করদাতার সংখ্যাও বাড়ছে। এতো বিপুল সংখ্যক করদাতাকে প্রচলিত পদ্ধতিতে কর সেবা দেয়া সম্ভব নয়। করদাতাকে সেবা দিতে সব কিছু অনলাইন করা ও রিটার্ন দাখিল স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতি করার বিকল্প নেই।

এনবিআর অনেক আগেই এ উদ্যোগটি নিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘অনলাইনের মাধ্যমে রিটার্ন ফরম পূরণ, দাখিল ও পেমেন্ট সিস্টেম চালু হয়েছে। বেসরকারিভাবে ডিজিট্যাক্স এগিয়ে আসায় কর সেবাকে ডিজিটাল করার উদ্যোগ আরও সহজতর হবে বলে আশা করছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘রিটার্ন দাখিল অনলাইন করার পাশাপাশি ১ নভেম্বর থেকে আমরা আয়কর মাস পালন করছি। করাঞ্চলগুলোতে মেলার পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে। করদাতারা স্বাচ্ছন্দে রিটার্ন দাখিল করতে পারবেন।’

ডিজিট্যাক্স গঠনের প্রেক্ষিত তুলে ধরে ডিজিট্যাক্সের টিম মেম্বার সৈয়দা নুসরাত হায়দার বলেন, ‘আমাদের দেশে বিভিন্ন পর্যায়ের করদাতা রয়েছে, এর মধ্যে অধিকাংশই আয়কর ক্যালকুলেশনের নিয়মাবলী ও আইন-কানুন যথাযথভাবে জানেন না।

‘ফলে সুচারুভাবে রিটার্ন প্রস্তুত করতে পারেন না। এই সমস্যা সমাধানে আমরা ব্যবহারকারীর প্রয়োজন অনুযায়ী নির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে সহজেই রিটার্ন প্রস্তুত করার ব্যবস্থা নিয়ে এসেছি।

‘আমাদের সিস্টেমে রয়েছ স্বয়ংক্রিয় আয়কর গণনা পদ্ধতি, যাতে করে ব্যবহারকারীরা সহজেই আয়কর রিটার্ন প্রস্তুত করতে পারেন। ব্যবহারকারীদের সুবিধার্থে বাংলা ভাষায়ও সফটওয়্যারটি ব্যবহারের পদ্ধতি রাখা হয়েছে।’

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, করদাতা স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে রিটার্ন পূরণ করে নিজে আয়কর অফিসে জমা দিতে পারেন অথবা গ্রাহক যদি চান, তবে ডিজিট্যাক্সের পেশাদার আইনজীবীর মাধ্যমে রিটার্ন জমা দিতে পারবেন।

আইসিএবির প্রেসিডেন্ট মাহমুদুল হাসান খসরু বলেন, আয়কর আইন হলো পৃথিবীর সবচেয়ে কঠিনতম একটি আইন। এটি প্রতিনিয়ত পরিবর্তন হয়। এ আইন নিয়ে এতো বড় ‍উদ্যোগ নেয়ায় ডিজিট্যাক্স প্রশংসার দাবি রাখে।

তিনি বলেন, ডিজিট্যাক্সের এ উদ্যোগটি করদাতাদের সহায়তা করবে। এর ফলে বিপুল মানুষকে রিটার্ন দাখিলে আগ্রহী করা যাবে। সরকারও রাজস্ব পাবে।

অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্যে রাখেন ডিজিট্যাক্সের উপদেষ্টা ও দেশ ইউনিভা্র্সালর নির্বাহী পরিচালক মোসারাত নাইমা।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন

জমি নিয়ে বিরোধ, চাচাতো ভাইদের হাতে ‘খুন’

জমি নিয়ে বিরোধ, চাচাতো ভাইদের হাতে ‘খুন’

স্থানীয়রা জানান, আবু জাফর তার চাচাতো ভাইদের কাছে কিছু জমি বিক্রি করেন। ২১ অক্টোবর সেই জমির দলিল করা হয়। চাচাতো ভাইয়েরা কৌশলে জাফরের বাড়ির দাগের জমি ভেন্ডারের মাধ্যমে দলিলে যুক্ত করে নেন। ঘটনা জানতে পেরে শনিবার দুপুরে দুই পরিবারের লোকজন বৈঠকে বসেন। সেই বৈঠককে কেন্দ্র করেই হত্যার ঘটনা ঘটে।

বরিশালের বাকেরগঞ্জে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে আবু জাফর শরীফ নামের এক যুবক চাচাতো ভাইদের হাতে খুন হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার কলসকাঠি ইউনিয়নের গুড়িয়া গ্রামে শনিবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, ৩৮ বছর বয়সী আবু জাফর তার চাচাতো ভাইদের কাছে কিছু জমি বিক্রি করেন। ২১ অক্টোবর সেই জমির দলিল করা হয়। চাচাতো ভাইয়েরা কৌশলে জাফরের বাড়ির দাগের জমি ভেন্ডারের মাধ্যমে দলিলে যুক্ত করে নেন। ঘটনা জানতে পেরে শনিবার দুপুরে দুই পরিবারের লোকজন বৈঠকে বসেন। সেই বৈঠককে কেন্দ্র করেই হত্যার ঘটনা ঘটে।

জাফরের ভাই তোফাজ্জেল শরীফ বলেন, ‘চাচাতো ভাই জামাল শরীফ ও আবুল শরীফের কাছে আমার ভাই জাফর কিছু জমি বিক্রয় করে। সেই জমি দলিল করার সময় তারা ভেন্ডারের মাধ্যমে বাড়ির দাগের জমি দলিলে অন্তর্ভুক্ত করে নেয়। সবকিছু জেনে আবু জাফর বাড়ির দুই পরিবারের লোকদের সঙ্গে আলোচনায় বসলে একপর্যায়ে কথা-কাটাকাটি হয়। তখন চাচাতো ভাইয়েরা জাফরকে তাদের ঘরের নিয়ে আটকে রাখে। কিছুক্ষণ পরে রক্তাক্ত অবস্থায় জাফরকে বৈঠকের রুমে ফেলে তারা পালিয়ে যায়। তাকে বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

বাকেরগঞ্জ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সত্যরঞ্জন খাসকেল এ ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, এ বিষয়ে মামলা প্রক্রিয়াধীন। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সিআরবি রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি 
সিআরবি রক্ষায় অনশনের ঘোষণা ড. অনুপম সেনের
সিআরবিতে হঠাৎ গভীর নলকূপ, কিছুই জানে না কর্তৃপক্ষ
সিআরবি বাঁচানোর দাবি ১০১ পেশাজীবীর
সিআরবি রক্ষার দাবি ১০১ নাগরিকের

শেয়ার করুন