করোনায় সহায়তা: বরাদ্দ ৫০০ টাকা, দেয়া হয়েছে ৪০০

করোনায় সহায়তা: বরাদ্দ ৫০০ টাকা, দেয়া হয়েছে ৪০০

‘ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ২০ পরিবারের মাঝে ৫০০ টাকা করে বিতরণের জন্য শিক্ষক সমর চাকমাকে দেয়া হয়েছিল। এখন তিনি কত টাকা করে বিতরণ করেছেন, আমরা তা জানি না।’

করোনা পরিস্থিতিতে রাঙামাটিতে কর্মহীন ও অস্বচ্ছল পরিবারপ্রতি বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল ৫০০ টাকা। তবে বরকল উপজেলার ৪ নম্বর ভূষণছড়া ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ২০ পরিবার পেয়েছে ৪০০ টাকা।

উপজেলার পিত্তিছড়া দোকানঘাট এলাকায় রোববার সকালে স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সমর বিজয় চাকমা ও গণ্যমান্য ব্যক্তিরা এ সহায়তা বিতরণ করেন।

অভিযোগ উঠেছে, শিক্ষক সমর অসহায়দের দুই হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন।

একাধিক সুবিধাভোগী অভিযোগ করেন, শিক্ষক সমর চাকমা প্রতি পরিবারকে ৪০০ টাকা করে দেন। তাদের ৫০০ টাকা করে পাওয়ার কথা থাকলেও তা দেয়া হয়নি।

নিজের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অবশ্য অস্বীকার করেছেন শিক্ষক সমর চাকমা।

তিনি দাবি করেন, গ্রামে অনেক পরিবার কর্মহীন ও অসহায় অবস্থায় দিনযাপন করছে। তবে সবাইকে তালিকাভুক্ত করা যায়নি। এ জন্য গ্রামের গণ্যমান্য ও সুবিধাভোগীদের সঙ্গে আলোচনা করে কয়েক পরিবারকে বরাদ্দের টাকা থেকে দেয়া হয়েছে। এ কারণে ২০ পরিবারকে ৪০০ টাকা করে দেয়া হয়েছে।

তবে সুবিধাভোগীরা তাদের সঙ্গে কোনো আলাপ করা হয়নি বলে জানিয়েছেন।

৪ নম্বর ভূষণছড়া ইউপি সচিব রূপায়ন খীসা নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের ২০ পরিবারের মাঝে ৫০০ টাকা করে বিতরণের জন্য শিক্ষক সমর চাকমাকে দেয়া হয়েছিল। এখন তিনি কত টাকা করে বিতরণ করেছেন, আমরা তা জানি না।’

ইউপি চেয়ারম্যান মামুনর রশিদ মামুন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বরাদ্দ করা টাকা থেকে এক টাকাও কম পাওয়ার কথা নয়। এসব টাকা অস্বচ্ছল কর্মহীন পরিবারের জন্য তালিকা করে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

বরকল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুয়েল রানা জানান, তদন্ত চলছে। যদি অনিয়মের সত্যতা পাওয়া যায়, তাহলে আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
রাতে খাদ্য নিয়ে অসহায়দের পাশে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন

শেয়ার করুন

মন্তব্য