এহসান গ্রুপের ‘দুই হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ’

এহসান গ্রুপের ‘দুই হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান মাসুদ জানান, করোনাকালে এ ধরনের জমায়েতের অনুমতি নেই। সে কারণে পুলিশ তাদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছে।

এহসান গ্রুপের বিরুদ্ধে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে পিরোজপুরে কয়েক শ মানুষ পুলিশের বাধা উপেক্ষা করে মানববন্ধন করেছে।

শহরের সিও অফিস মোড়ে এহসান গ্রুপের কার্যালয়ের সামনে রোববার বেলা ১১টার দিকে তারা মানববন্ধন করেন।

তাদের অভিযোগ, বেশি মুনাফা দেয়ার কথা বলে ১২ হাজার মাঠকর্মী নিয়োগ দেন এহসান গ্রুপের মালিক রাগিব আহসান। তাদের মাধ্যমে পিরোজপুর ও এর আশপাশের জেলা বাগেরহাট, ঝালকাঠি, বরগুনা ও পটুয়াখালীর লক্ষাধিক গ্রাহকের কাছ থেকে প্রায় দুই হাজার কোটি টাকা আদায় করেন।

প্রথমে কয়েকজনকে মুনাফা দিলেও দুই বছর ধরে আর কাউকে কোনো টাকা দেননি।

তারা আরও অভিযোগ করেন, পুলিশ এহসান গ্রুপের মালিককে আইনের আওতায় আনার পরিবর্তে তাদের শান্তিপূর্ণ মানববন্ধনে বাধা দিয়েছে।

বাধা দেয়ার বিষয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুর রহমান মাসুদ জানান, করোনাকালে এ ধরনের জমায়েতের অনুমতি নেই। সে কারণে পুলিশ তাদের বাধা দেয়ার চেষ্টা করেছে।

এহসান গ্রুপের কাছ থেকে শুধু মাঠকর্মীরাই প্রতারিত হওয়ার অভিযোগ করেননি। যারা টাকা বিনিয়োগ করেছেন তাদেরও একই অভিযোগ।

জেলার সদর উপজেলার জুজখোলা গ্রামের মোস্তফা কামাল নিউজবাংলাকে জানান, তিনি ২০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করেছিলেন। কিন্তু দুই বছর ধরে কোনো মুনাফা পাননি। এমনকি মূল পুঁজিও আর ফেরত পাচ্ছেন না।

পৌর শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের ফেরদাউস মোল্লা জানান, তিনি ১ লাখ টাকা জমা দিয়েছিলেন। এখন আর সেই টাকা ফেরত পাচ্ছেন না।

এ বিষয়ে কথা বলার জন্য এহসান গ্রুপের কার্যালয়ে গিয়ে রাগিবকে পাওয়া যায়নি। ওই ভবনের দারোয়ান জানান, তিনি এখানে নেই। কোথায় আছেন জানেন না।

আরও পড়ুন:
সরকারি কর্মচারির বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও নথি চুরির অভিযোগ
সৎমাকে মৃত দেখিয়ে কোটি টাকার সম্পত্তি আত্মসাতের অভিযোগ
‘৪১ লক্ষাধিক টাকা আত্মসাৎ’, ব্যাংক এশিয়ার মামলা
ব্যাংক থেকে আড়াই কোটি টাকা আত্মসাতের চেষ্টায় ধরা
৩৫ লাখ টাকা নিয়ে ম্যানেজার পালানোর অভিযোগ

শেয়ার করুন

মন্তব্য