কীটনাশক সেবনে যুবকের মৃত্যু

কীটনাশক সেবনে যুবকের মৃত্যু

প্রতীকী ছবি।

প্রায় দুই মাস আগে রকি ও আরিফার বিয়ে হয়। তারা প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত।

বগুড়ার শেরপুর উপজেলায় কীটনাশক সেবন করে আতিকুর রহমান রকি নামে এক যুবক আত্মহত্যা করেছেন।

স্বামীকে কীটনাশক সেবনরত অবস্থায় দেখে স্ত্রীও গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

শনিবার ভোরে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতাল থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেয়ার পথে রকির মৃত্যু হয়।

এর আগে শুক্রবার বিকেলে কীটনাশক সেবন করেন রকি। রকি উপজেলার বিশালপুর ইউনিয়নের নাইশিমুল গ্রামের হাফিজুর রহমানের ছেলে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন শেরপুর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, শুক্রবার বিকেলে রকি ও তার স্ত্রী আরিফার মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। বিকেলে স্ত্রীর ওপর অভিমান করে কীটনাশক সেবন করেন রকি। একপর্যায়ে পরিবারের অন্য সদস্যরা তার কীটনাশক সেবন করার বিষয়টি বুঝতে পারেন। ওই সময় তার স্ত্রী আরিফাও নিজ ঘরে গিয়ে গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তাকে (আরিফা) পরিবারের সদস্যরা উদ্ধার করেন।

অন্যদিকে রকিকে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করানো হয়। সেখান রকির অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে শজিমেক হাসপাতালে নেয়া হয়। পরে শনিবার ভোরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়া হচ্ছিল। কিন্তু পথেই তার মৃত্যু হয়।

প্রায় দুই মাস আগে রকি ও আরিফার বিয়ে হয়। তারা প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকত।

জানতে চাইলে শেরপুর থানার ওসি মো. শহিদুল ইসলাম বলেন, রকির মৃত্যুর ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য