ছুরি মেরে খুন, মৃত্যুর আগ মুহূর্তের বক্তব্যে তোলপাড়

খুন

শ্রীমঙ্গলে ছুরিকাঘাতে শরীফ নামের এক যুবক খুন হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

শরীফের মৃত্যুর আগে দেয়া জবানবন্দি রেকর্ড করেন দৈনিক যুগান্তরের শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি সৈয়দ সালাউদ্দিন। পরে তা ফেসবুকে পোস্ট দিলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। জনমনে দেখা দেয় তীব্র প্রতিক্রিয়া।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ছুরিকাঘাতে শরীফ নামের এক যুবক খুন হয়েছেন।

মৃত্যুর আগ মুহূর্তে শরীফ নিজের নাম এবং সজিব নামে এক ব্যক্তি তাকে ছুরিকাঘাত করেছেন বলে জানান। মৃত্যুর আগ মুহূর্তের বক্তব্যের ভিডিও ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে জনমনে দেখা দেয় তীব্র প্রতিক্রিয়া।

শনিবার রাত ৯টার দিকে শহরের কলেজ রোডে প্রেসক্লাবের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ঘটনার সময় প্রেসক্লাবের সামনে ছুরিকাঘাতে মারাত্মক আহত অবস্থায় ওই যুবক ছটফট করছিলেন। লোকজন এগিয়ে গেলে তিনি নিজের নাম শরীফ এবং শহরতলীর শাহজিবাজার এলাকার শায়েস্তা মিয়ার ছেলে বলে জানান। শান্তিবাগ এলাকার সজিব নামে এক ব্যক্তি তাকে ছুরিকাঘাত করেছে বলে জানিয়েছেন।

শরীফের মৃত্যুর আগে দেয়া জবানবন্দি রেকর্ড করেন দৈনিক যুগান্তরের শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি সৈয়দ সালাউদ্দিন। পরে তা ফেসবুকে পোস্ট দিলে তোলপাড় সৃষ্টি হয়। জনমনে দেখা দেয় তীব্র প্রতিক্রিয়া।

শ্রীমঙ্গল থানার ওসি (তদন্ত) হুমায়ুন কবির জানান, শরীফ শহরতলীর শাহজীবাজার এলাকার শায়েস্তা মিয়ার ছেলে। ছুরিকাঘাতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে।

পুলিশ তাকে উদ্ধার করে শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। সেখান থেকে দুইটি ছুরি উদ্ধার করেছে পুলিশ।

স্থানীয় লোকজন জানান, ছেলেটিকে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক হাসপাতালে নিলে বেঁচে যেত।

এ বিষয়ে শ্রীমঙ্গল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আবু নাহিদ নিউজবাংলাকে বলেন, অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হতে পারে।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুস ছালেক জানান, দুই বন্ধু প্রথমে পেট্রল পাম্পের কাছে ঝগড়া করে শ্রীমঙ্গল প্রেসক্লাবের কাছে শরীফকে ছুরিকাঘাত করা হয়। শরীফের পকেটে সজিবের মোবাইল ফোন ও হাতে একটি চাকু ছিল। তার বুকের মাঝামাঝি জায়গায় ছুরিকাঘাতের চিহৃ রয়েছে।

মোবাইল নিয়ে দুই বন্ধুর মধ্যে ঝগড়া হতে পারে। তবে তদন্তের পর প্রকৃত রহস্য জানা যাবে। সজিবকে ধরতে অভিযান চলছে বলে জানান ওসি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য