পাইপ কেটে মৃত নবজাতক উদ্ধার

পাইপ কেটে মৃত নবজাতক উদ্ধার

পাইপ কেটে বের করা অপরিণত নবজাতক।

প্রসূতির চাচি আনজুমান আরা বলেন, ‘হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর আলট্রাসনোগ্রাম করে মৃত বাচ্চার কথা জানতে পারি। আজ দুপুরে টয়লেটে গেলে সেখানে বাচ্চা প্রসব করে মিনি। এ সময় টয়লেটের ভেতরে পড়ে যায় নবজাতকটি।’

নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের টয়লেটের পাইপ কেটে ছয় মাসের অপরিণত এক নবজাতকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা।

হাসপাতালের মা ও শিশু ওয়ার্ডের নিচতলার পাইপ কেটে শুক্রবার বেলা সাড়ে তিনটার দিকে ওই নবজাতককে বের করা হয়।

এর আগে টয়লেটে মৃত নবজাতক প্রসব করেন মা মিনি বেগম।

মিনি বেগম ডিমলা উপজেলার ডিমলা ইউনিয়নের ঠুটারডাঙ্গা এলাকার মিনারুল ইসলামের স্ত্রী।

মিনারুল জানান, ছয় মাস সাত দিনের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে গেল বুধবার এই হাসপাতালে ভর্তি করেন তিনি।

প্রসূতির চাচি আনজুমান আরা বলেন, ‘হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার পর আলট্রাসনোগ্রাম করে মৃত বাচ্চার কথা জানতে পারি। আজ দুপুরে টয়লেটে গেলে সেখানে বাচ্চা প্রসব করে মিনি। এ সময় টয়লেটের ভেতরে পড়ে যায় নবজাতকটি।’

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স নীলফামারীর স্টেশন অফিসার মিয়ারাজ উদ্দিন জানান, টয়লেটের পাইপ কেটে বাচ্চাটি বের করা হয়েছে।

জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা অমল রায় বলেন, মৃত অপরিণত নবজাতক জন্ম দেয় ওই প্রসূতি। টয়লেটে গেলে সেখানে সন্তান প্রসব করেন তিনি। পাইপের ভেতর পড়ে গেলে ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা এসে উদ্ধার করেন।

আরও পড়ুন:
মেহগনি বাগানে কাঁদছিল নবজাতকটি
ঢামেকে একসঙ্গে ৪ শিশুর জন্ম, দুজনের মৃত্যু
২ মাথা ৩ পা নিয়ে জন্ম, ২ ঘণ্টা পর মৃত্যু
রেলস্টেশনে ভারসাম্যহীন নারীর পাশে মৃতপ্রায় নবজাতক
ইডেন কলেজের সামনের সড়কে নবজাতকের মরদেহ

শেয়ার করুন

মন্তব্য