সিলেট সিটি করপোরেশন

৬৫ বছর পর দখলমুক্ত ৮ কোটি টাকার জমি

৬৫ বছর পর দখলমুক্ত ৮ কোটি টাকার জমি

সিলেট নগরের সোবাহানীঘাট এলাকায় বৃহস্পতিবার দুপুরে জমি অবৈধ দখলমুক্ত করতে অভিযান চালায় সিটি করপোরেশন। ছবি: নিউজবাংলা

১৯৫৬ সালের খতিয়ান অনুসারে এই জমির মালিকানা ছিল স্থানীয় সরকারের। কিন্তু স্থানীয় আব্বাস উদ্দিন নগরীর সোবহানীঘাট এলাকার ওই জমিটি দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের দাবি করে ভোগ দখল করে আসছিলেন।

বেদখল হওয়ার প্রায় ৬৫ বছর পর প্রায় ৮ কোটি টাকা দামের জমি উদ্ধার করেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।

বৃহস্পতিবার দুপুরে নগরের সোবাহানীঘাট এলাকার ওই ২৫ দশমিক ৫০ শতক জমি উদ্ধার অভিযানে নেতৃত্ব দেন মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী।

অভিযানে অংশ নেন সিলেট সিটি করপোরেশনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইয়াসমিন রুমা।

তিনি বলেন, ১৯৫৬ সালের খতিয়ান অনুসারে এই জমির মালিকানা ছিল স্থানীয় সরকারের। স্থানীয় আব্বাস উদ্দিন জমিটি দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের দাবি করে ভোগ দখল করে আসছিলেন।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জানান, এ বিষয়ে উচ্চ আদালতে মামলা করে ১৯৯৭ সালে সিটি করপোরেশন। ২০১৯ সালে সিটি করপোরেশনের পক্ষে রায় দেন আদালত। প্রায় দুই বছর পর জমিটি উদ্ধার করা হলো। ৬৫ বছর ভোগদখলের পর ভূমির মালিকানা ছাড়তে হয়েছে আব্বাসকে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে এই জমির বাজার মূল্য আট কোটি টাকার ওপরে।’

মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেন, ‘এই রায়ের মাধ্যমে প্রমাণ হলো, দখল করে সরকারি সম্পত্তি আত্মসাৎ সম্ভব নয়। ৬৫ বছর পর এই মামলার রায়ে সিটি করপোরেশন জমির মালিকানা ফিরে পেয়েছে।

‘তদারকির অভাবে সিটি করপোরেশনের আরও অনেক ভূমি বেদখল রয়েছে। সেগুলোর মালিকানাও দ্রুত ফিরিয়ে আনতে আইনি প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছি।’

মেয়র বলেন, ‘উচ্চ আদালতের রায়ের পর ২০২১ সালের ১৭ জুন একই এলাকায় সিটি কর্পোরেশনের ১০ দশমিক ৯৪ শতাংশ জমি উদ্ধার ও সীমানা চিহ্নিত করা হয়।’

অভিযানে কাউন্সিলর আজাদুর রহমান আজাদ, মোহাম্মদ তৌফিক বকস, ছয়ফুল আমীন, নজরুল ইসলাম, মোস্তাক আহমদসহ সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
বনের জমি উদ্ধার করলেন এমপি
গাজীপুরে ৩০ কোটি টাকার বনভূমি উদ্ধার
পুলিশি ক্ষমতার জোরে বিধবার জমি দখলের অভিযোগ
বর্গাচাষিকে কোর্টে চালান করে জমির ধান নষ্ট করার অভিযোগ
আশুগঞ্জে ড্রেন ভেঙে তলিয়ে গেছে শত বিঘা জমির ফসল

শেয়ার করুন

মন্তব্য