আধুনিক যন্ত্রের কক্ষে ৮ বছরে হয়নি কোনো অস্ত্রোপচার

আধুনিক যন্ত্রের কক্ষে ৮ বছরে হয়নি কোনো অস্ত্রোপচার

চাটমোহর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স।

চাটমোহর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, অস্ত্রোপচারের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রয়োজন। তবে হাসপাতালটিতে তেমন কোনো চিকিৎসক নেই। এতে বছরের পর বছর তালাবদ্ধ রয়েছে আধুনিক অস্ত্রোপচার কক্ষটি।

পাবনার চাটমোহর উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ৫০ শয্যায় উন্নীত ও আধুনিক যন্ত্রসহ অস্ত্রোপচার কক্ষ উদ্বোধন করা হয়েছিল ২০১৩ সালে। আগে এ হাসপাতালে সিজার, অ্যাপেনডিসাইটিসসহ সাধারণ কিছু অস্ত্রোপচার হলেও সংস্কারের পর আট বছরে হয়নি একটি অস্ত্রোপচারও।

চার লাখ জনসংখ্যার এ উপজেলায় অধিকাংশ মানুষের চিকিৎসার প্রধান স্থান সরকারি হাসপাতালটি। তবে অস্ত্রোপচারের সুবিধা না থাকায় রোগীরা বেশি টাকা ব্যয়ে বেসরকারি হাসপাতাল বা ক্লিনিকে যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

দীর্ঘদিন অস্ত্রোপচার কক্ষ তালাবদ্ধ থাকায় মূল্যবান যন্ত্রপাতিও অকেজো হয়ে পড়ছে।

হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের দাবি, অস্ত্রোপচারের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক প্রয়োজন। তবে হাসপাতালটিতে তেমন কোনো চিকিৎসক নেই। এতে বছরের পর বছর তালাবদ্ধ রয়েছে অস্ত্রোপচার কক্ষটি।

এটি কবে বা আদৌ চালু হবে কি না তাও জানাতে পারেননি কেউ।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি আগে ৩১ শয্যার ছিল। রোগীর সংখ্যার কারণে পরে এটি ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হয়। নির্মাণকাজ শেষে ২০১৩ সালের ৭ সেপ্টেম্বর স্থানীয় সংসদ সদস্য মকবুল হোসেন হাসপাতালটি উদ্বোধন করেন।

ওই সময় হাসপাতালের পুরাতন ভবনের অস্ত্রোপচার কক্ষটি নতুন ভবনে স্থানান্তর করা হয়। আধুনিক সুযোগ-সুবিধা ও মূল্যবান যন্ত্রপাতি সংযোজন করে অপারেশন থিয়েটারটি আরও যুগোপযোগী করা হয়। তবে এরপর আর সেখানে কোনো অস্ত্রোপচার হয়নি।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ওমর ফারুক বুলবুল জানান, অস্ত্রোপচার কক্ষটি চালুর জন্য তিনি একাধিকবার পদক্ষেপ নিয়েছেন। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অনেকবার চিকিৎসকসহ প্রয়োজনীয় যন্ত্র চেয়ে চাহিদাপত্রও পাঠানো হয়েছে। তবে এখন পর্যন্ত কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি।

আরও পড়ুন:
ধার করা লোক দিয়ে চলছে হাসপাতাল ল্যাব
হাসপাতালে ৩০০ টাকার খাবারের একি হাল!
২০ ঘণ্টা পর সরল চট্টগ্রাম শিশু হাসপাতালের পানি
আবু নাসের হাসপাতালে করোনা ইউনিট চালু শনিবার
স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের নতুন ভবনে ‘১০০’ ফাটল

শেয়ার করুন

মন্তব্য