বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে গরুর হাট

বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে গরুর হাট

কঠোর লকডাউন উপেক্ষা করে নীফামারীর জলঢাকায় গরুর হাট। ছবি: নিউজবাংলা

হাটের ইজারাদার মনসুর আলী বলেন, ‘আমরা কাগজ পেয়েছি ডিসি অফিস থেকে। সেখানে কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে হাট বসানোর ক্ষেত্রে। আমরা সেগুলো পালন করে হাট বসিয়েছি। শনিবার থেকে হাট শুরু হয়েছে।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারের দেয়া কঠোর বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে নীলফামারীর জলঢাকায় গরুর বিক্রির হাট বসানোর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার মীরগঞ্জ ইউনিয়নে বসানো এই হাটে ছিল স্থানীয়দের উপচে পড়া ভিড়।

স্থানীয়রা জানান, সকাল থেকে হাট শুরু হয় এখানে। বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে আনা হয় গরু। ক্রেতা-বিক্রেতাদের অনেকেরই স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো বালাই ছিল না।

হাটের ইজারাদারদের একজন রউফুল আলম বলেন, ‘আমি হাটে তেমন যাই না। দুপুর ১২টার দিকে গিয়ে চলে এসেছি। মূল ইজারাদার দেখাশোনা করে থাকেন।’

হাটের ইজারাদার মনসুর আলী বলেন, ‘আমরা কাগজ পেয়েছি ডিসি অফিস থেকে। সেখানে কিছু শর্ত দেয়া হয়েছে হাট বসানোর ক্ষেত্রে। আমরা সেগুলো পালন করে হাট বসিয়েছি। শনিবার থেকে হাট শুরু হয়েছে।’

তবে স্থানীয়রা জানান, ২৬ জুন হাট বসানো হলে সেদিন প্রশাসন এসে ভেঙে দেয়।

মীরগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হুকুম আলী বলেন, ‘শনিবার ও মঙ্গলবার এই হাট বসে। এর আগে প্রশাসন এসে হাট বন্ধ করেছিল। আজকেও শুনছি হাট বসেছে।’

বিকাল সোয়া ৩টার দিকে যোগাযোগ করা হলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মাহবুব হাসান বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। হাট বসানোর কোনো সুযোগ নেই। ঘটনাস্থলে ম্যাজিস্ট্রেট পাঠানো হয়েছে। সঙ্গে রয়েছে সেনাবাহিনীও।’

আরও পড়ুন:
খানসামা গরুর হাটে তিলঠাঁই নেই

শেয়ার করুন

মন্তব্য