লকডাউন: দুপুরেই শেষ টিসিবির পণ্য

লকডাউন: দুপুরেই শেষ টিসিবির পণ্য

দিনমজুর আব্বাস আলী বলেন, ‘আঁরা গরিব। লকডাউনত বেহার (বেকার)। দুই বেলা ভাত হাইত (খেতে) ন পারির। দুইয়ো পয়স বাঁচাবেল্লাই এনডেত্তুন (এখান থেকে) জিনিস কিনির।’

একদিকে করোনাভাইরাসের উচ্চ সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে চলমান লকডাউনে অনেকেই বেকার বসে আছেন। অন্যদিকে নিত্যপণ্যের বাজার চড়া।

চট্টগ্রামে কিছুটা কম দামে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য কিনতে টিসিবির ট্রাকের সামনে ভিড় করছে শতাধিক মানুষ।

বন্দর নগরীর বিভিন্ন এলাকায় বুধবার সকাল থেকে দেখা যায় পণ্য কিনতে অপেক্ষা করছে নানা পেশার মানুষ।

গুঁড়িগুঁড়ি বৃষ্টির মধ্যে কাজির দেউড়ি থেকে এসে লাইনে দাঁড়িয়েছেন দিনমজুর আব্বাস আলী।

তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আঁরা গরিব। লকডাউনত বেহার (বেকার)। দুই বেলা ভাত হাইত (খেতে) ন পারির। দুইয়ো পয়স বাঁচাবেল্লাই এনডেত্তুন (এখান থেকে) জিনিস কিনির।’

কাজির দেউড়ি এলাকায় টিসিবির পণ্য বিক্রি করছে ডিলার শুভ স্টোর। প্রতিষ্ঠানটির ম্যানেজার আল আমিন জানান, লকডাউন না থাকলে বরাদ্দকৃত পণ্য বিক্রি করতে বিকেল পর্যন্ত সময় লাগত। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দুপুরের আগেই পণ্য শেষ হয়ে যাচ্ছে।

টিসিবির চট্টগ্রামের আঞ্চলিক কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রাম নগরীতে ২২টি ট্রাকে বিভিন্ন এলাকায় সয়াবিন তেল, চিনি, ও মসুর ডাল বিক্রি শুরু হয়েছে। প্রতিটি ট্রাকে ৬০০ থেকে ৮০০ কেজি চিনি, ৩০০ থেকে ৬০০ কেজি মসুর ডাল ও ৮০০ থেকে ১ হাজার ২০০ লিটার সয়াবিন তেল বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

একজন ব্যক্তি ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ ৪ কেজি চিনি, ৫৫ টাকা কেজি দরে সর্বোচ্চ ২ কেজি ডাল ও প্রতি লিটার ১০০ টাকা দরে সর্বোচ্চ ৫ লিটার সয়াবিন তেল কিনতে পারবে।

টিসিবির চট্টগ্রামের আঞ্চলিক প্রধান জামাল উদ্দিন জানান, গত সোমবার থেকে সারা দেশের মতো চট্টগ্রামেও টিসিবির পণ্য বিক্রি শুরু হয়েছে। ঈদুল আজহার আগ পর্যন্ত পণ্য বিক্রি চলবে।

আরও পড়ুন:
তেল পেলেন না মঞ্জুরানী
সোমবার থেকে মিলবে টিসিবির তিন পণ্য
টিসিবির তেলের দাম ১০০ টাকাই থাকছে
১৫০ টাকার তেল ১০০ টাকায়, টিসিবির ট্রাকে ভিড়
চট্টগ্রামের ২০টি পয়েন্টে টিসিবির পণ্য

শেয়ার করুন

মন্তব্য