‘ধর্ষণে’ অসুস্থ শিশু, ৭ দিন পর মামলায় গ্রেপ্তার ফুপা

‘ধর্ষণে’ অসুস্থ শিশু, ৭ দিন পর মামলায় গ্রেপ্তার ফুপা

গত ২৯ জুন রাতে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিশুটিকে ধর্ষণ করে তার ফুপা। শিশুর চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে আসামি পালিয়ে যায়। সামাজিক কারণে মেয়েটির পরিবার বিষয়টি গোপন রেখে বাড়িতেই তার চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছিল।

মাদারীপুরের কালকিনিতে শিশু ধর্ষণের অভিযোগে সাত দিন পর মামলা করেছেন বাবা। আসামি করা হয়েছে শিশুর ফুপাকে। মামলার পরপরই গ্রেপ্তার করা হয়েছে আসামিকে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) গোলাম মোস্তফা রাসেল।

কালকিনি থানা সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার বিকেলে এক ব্যক্তি থানায় এসে অভিযোগ করেন, তার ১১ বছরের মেয়ের ধর্ষণ হয়েছে। সেই অভিযোগে শিশুর ফুপাকে আসামি করে তিনি মামলা করেন সন্ধ্যায়।

মামলায় বলা হয়েছে, গত ২৯ জুন রাতে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে শিশুটিকে ধর্ষণ করে তার ফুপা। শিশুর চিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে গেলে আসামি পালিয়ে যায়।

সামাজিক কারণে মেয়েটির পরিবার বিষয়টি গোপন রেখে বাড়িতেই তার চিকিৎসা চালিয়ে যাচ্ছিল। তবে মঙ্গলবার মেয়েটির অসুস্থতা বাড়লে তাকে কালকিনি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মামলার পর রাতেই গ্রেপ্তার করা হয় আসামিকে।

এসপি গোলাম মোস্তফা রাসেল আরও জানান, মঙ্গলবার ডাসার থানাতেও শিশু ধর্ষণের অভিযোগে একটি মামলা হয়েছে।

ডাসার থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সেখানকার নবগ্রাম ইউনিয়নে মঙ্গলবার সকালে ভাইয়ের ১৩ বছরের মেয়েকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যান এক ব্যক্তি। শিশুটি তখন বাসায় একা ছিল। পরে বাবা-মা বাড়ি ফিরলে শিশুটি তাদের সব জানায়। সন্ধ্যায় শিশুর বাবা ডাসার থানায় মামলা করলে পুলিশ রাতে ওই ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করে।

আরও পড়ুন:
ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে বাবা গ্রেপ্তার
‘ধর্ষণে’ অন্তঃসত্ত্বার সন্তান প্রসব, গ্রেপ্তার হয়নি আসামি
হারাগাছে ধর্ষণ মামলায় ইমাম কারাগারে
পুত্রবধূর ধর্ষণ মামলায় শ্বশুর রিমান্ডে
কিশোরী ধর্ষণ মামলায় যুবক গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য