ফটিকছড়িতে প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার 

ফটিকছড়িতে প্রবাসীর মরদেহ উদ্ধার 

‘বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে ঝুম বৃষ্টির সময় কাউকে না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। পরে তাকে না পেয়ে অনেক খোঁজাখুঁজি ও এলাকায় মাইকিং করা হয়৷ শনিবার সকালে নিজ বাড়ির পাশের কাঞ্চনা ছড়ায় তার মরদেহ দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।’

দুই মাসে আগে ওমান থেকে দেশে ফেরেন। মহামারির কারণে চেষ্টা করেও আর কর্মস্থলে ফিরতে পারেননি। এ নিয়ে চলছিল অশান্তি। মানসিকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন প্রবাসী। অবশেষে মিলল তার নিথর দেহ।

ঘটনাটি চট্টগ্রামের ফটিকছড়ির। উপজেলার দাঁতমারা ইউনিয়নের বড় বেতুয়া এলাকা থেকে শনিবার বেলা ১১টার দিকে আব্দুস ছালামের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

ছালাম ওই এলাকার শেখ আহমদের ছেলে।

দাঁতমারা তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক গোলাম আবছার নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আব্দুচ আনুমানিক দুই মাস আগে ওমান থেকে দেশে আসেন। করোনার কারণে আবারও বিদেশ যেতে না পারায়, কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন হয়ে পড়েন তিনি।

‘বৃহস্পতিবার রাত দেড়টার দিকে ঝুম বৃষ্টির সময় কাউকে না বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে যান। পরে তাকে না পেয়ে অনেক খোঁজাখুঁজি ও এলাকায় মাইকিং করা হয়৷ শনিবার সকালে নিজ বাড়ির পাশের কাঞ্চনা ছড়ায় তার মরদেহ দেখে পুলিশকে খবর দেয় স্থানীয়রা। মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ।’

ছালামের সঙ্গে কারও কোনো বিরোধ ছিল বলে জানা যায়নি। পরিবারের আবেদনের প্রেক্ষিতে মরদেহ ময়নাতদন্ত ছাড়াই স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান পরিদর্শক গোলাম আবছার।

শেয়ার করুন

মন্তব্য