বাঁশ ঝাড়ে মিলল অটোচালকের ঝুলন্ত মরদেহ

বাঁশ ঝাড়ে মিলল অটোচালকের ঝুলন্ত মরদেহ

প্রতীকী ছবি

ওই অটোরিকশা চালকের ছোট ভাই বলেন, ‘পারিবারিক কোনো অশান্তি বা কারো সাথে কোনো বিরোধি ছিল না আমার ভাইয়ের। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টা দিকে ভাইয়ের সঙ্গে ফোনে আমার শেষ কথা হয়। এরপর আর কোনো যোগাযোগ হয়নি। শনিবার সকালে লোকজনের মাধ্যমে তার লাশ উদ্ধারের খবর পাই।’

রংপুর নগরীর একটি বাঁশ ঝাড় থেকে শেখ সোহেল রানা নামে এক অটোচালকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নগরীর পাঠানপাড়া এলাকার ওই বাঁশ ঝাড় থেকে শনিবার বেলা ১১টার দিকে ওই ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার করা হয়, নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রশিদ।

সোহেল রানার বাড়ি নগরীর বড়বাড়ি দোলাপাড়া এলাকায়।

সোহেলের ছোট ভাই আবু রায়হান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘পারিবারিক কোনো অশান্তি বা কারো সাথে কোনো বিরোধি ছিল না আমার ভাইয়ের। শুক্রবার রাত সাড়ে ১১টা দিকে ভাইয়ের সঙ্গে ফোনে আমার শেষ কথা হয়। এরপর আর কোনো যোগাযোগ হয়নি। শনিবার সকালে লোকজনের মাধ্যমে তার লাশ উদ্ধারের খবর পাই।’

সোহেলের মৃত্যুর বিষয়ে পরিবারের আর কেউ কোনো তথ্য জানায়নি।

স্থানীয় কাউন্সিলর শফিকুল ইসলাম মিঠু জানান, বাঁশ ঝাড়ে সোহালের ঝুলন্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ এসে লাশ উদ্ধার করে।

কোতোয়ালি থানার ওসি আব্দুর রশিদ বলেন, ‘এটি হত্যা না আত্মহত্যা এখনও কিছু বলা যাচ্ছে না। তদন্তের পর বিস্তারিত জানা যাবে।’

সোহেলের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় একাধিক মাদক মামলা রয়েছে বলেও জানান ওসি।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
মাটি খুঁড়ে মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার
মহাসড়কের পাশে দিনমজুরের মরদেহ
নদীতে ভাসমান মরদেহ উদ্ধার
মহাসড়কের পাশে পড়ে ছিল মরদেহ
নিখোঁজের ৩ দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

শেয়ার করুন

মন্তব্য