১ কোটি ৩৫ লাখ টাকার টেন্ডারে ‘অনিয়ম’

১ কোটি ৩৫ লাখ টাকার টেন্ডারে ‘অনিয়ম’

ঠিকাদারদের অভিযোগ, প্রভাবশালীদের হুমকিতে ১৭ ঠিকাদারের ১২ জনই দরপত্র জমা না দেয়ায় কাজটি পেয়েছে জামাল ট্রেডার্স।

খুলনা জেলা পরিষদের ১ কোটি ৩৫ টাকার উন্নয়ন কাজের টেন্ডার অনিয়ম করে বাগিয়ে নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রাজনৈতিক দলের প্রভাবশালী ঠিকাদারদের মধ্যস্থতায় মঙ্গলবার কাজটি পায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স জামাল ট্রেডার্স। তবে একাধিক ঠিকাদার টেন্ডার জমা দিতে পারেননি বলে অভিযোগ করেছেন।

জেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ১ কোটি ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে খুলনা সদরে শেখ জামাল টেনিস একাডেমি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে গত ১৩ জুন দরপত্র চাওয়া হয়। ২৯ জুন মঙ্গলবার দুপুর ১টায় দরপত্র জমার শেষ সময় ছিল। দরপত্র উন্মুক্ত করার সময় ছিল বেলা ৩টা।

কাজটি পেতে দরপত্র বিক্রি হয় ১৭টি। তবে নির্ধারিত সময়ে দরপত্র জমা পড়ে পাঁচটি। তার মধ্যে সর্বনিম্ন দরদাতা হিসেবে কাজটি পায় মেসার্স জামাল ট্রেডার্স।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করেন, আগের দিন ঠিকাদারদের কাছ থেকে দরপত্র নিয়ে নেয়া হয়েছে। এ ছাড়া সকাল থেকে জেলা পরিষদের ভেতরে সরকারসমর্থক প্রভাবশালী ঠিকাদাররা টেন্ডার নিয়ে সমঝোতার চেষ্টা করেন। তাদের ভয়ে সাধারণ ঠিকাদাররা দরপত্র জমা দিতে পারেননি।

তারা আরও অভিযোগ করেন, প্রভাবশালীদের হুমকিতে ১৭ ঠিকাদারের ১২ জনই দরপত্র জমা না দেয়ায় কাজটি পেয়েছে জামাল ট্রেডার্স।

খুলনা জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, ১৭টি দরপত্র বিক্রি হলেও দরপত্র জমা পড়ে পাঁচটি। এখন টিইসি কমিটিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

সিন্ডিকেটের বিষয়ে তিনি দাবি করেন, তার দপ্তরে কোনো সমঝোতা হয়নি। বাইরে কিছু হলে সেটি তিনি জানেন না।

আরও পড়ুন:
১৭ শিক্ষার্থীর উপবৃত্তি প্রধান শিক্ষকের ‘পকেটে’
শ্রমিকের বদলে যন্ত্র, কাটা পড়ছে গাছ
আমার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা: এস কে সুর
ডিসির বিরুদ্ধে স্কুলে ভর্তিতে অনিয়মের অভিযোগ
‘আমরা সরকারি দল, কাজ ইচ্ছামতো করব’

শেয়ার করুন

মন্তব্য