চেতনানাশক খাইয়ে বাসায় চুরি ‘জিনের বাদশার’

চেতনানাশক খাইয়ে বাসায় চুরি ‘জিনের বাদশার’

সব হারিয়ে সয়ফুল ইসলামের পরিবারের আহাজারি। ছবি: নিউজবাংলা

‘রাতে ঘরের ভিতর আসন বসাতি বলে আর আমাদের নিমের পাতা বাটতে বলে। পরে আমাদের সবার যার যার ঘরে যাতি বলে। রাত ১০টার দিক আমাদের ডেকে সবাইকে নিমপাতার রস খাইতে দেয়। সেটা খেয়ে আমরা ঘরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ি। দুপুরে আমার ঘুম ভাঙলে বাড়ির সবার ডাকি।’

ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলার হিতামপুর গ্রামের ৭০ বছরের সয়ফুল ইসলাম ভুগছিলেন নানান রোগে।

রোগ সারাতে রোববার তিনি ডেকে আনেন সদর উপজেলার কুশাবাড়িয়া গ্রামের রবিউল ইসলাম রবি নামের এক ‘জিনের বাদশাকে’। তাতেই ঘটেছে সর্বনাশ।

নিমপাতার রসের সঙ্গে চেতনানাশক খাইয়ে পরিবারের সবাইকে অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন তারা।

সয়ফুলের ছেলে সুজন ইসলাম বলেন, ‘রোববার বিকেলে এসে ওই লোক সন্ধ্যার দিকে বলে, এখন তো সন্ধ্যে হয়ে গেছে। আজকে আর যেয়ে কী করব। আর এই বাড়িতে অনেক কিছু আছে। আসন দিতি হবে।

‘তাই বলে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে দোকান থেকে মোমবাতি, সিদুঁরসহ আর কী কী যেন আনে।’

তিনি আরও বলেন, ‘রাতে ঘরের ভিতর আসন বসাতি বলে আর আমাদের নিমের পাতা বাটতে বলে। পরে আমাদের সবার যার যার ঘরে যাতি বলে।

‘রাত ১০টার দিক আমাদের ডেকে সবাইকে নিমপাতার রস খাইতে দেয়। সেটা খেয়ে আমরা ঘরে গিয়ে ঘুমিয়ে পড়ি। দুপুরে আমার ঘুম ভাঙলে বাড়ির সবারে ডাকি।’

সুজন অভিযোগ করেন, ওই ব্যক্তি তাদের অজ্ঞান করে বাড়িতে থাকা ৬৫ হাজার টাকা, ১ জোড়া স্বর্ণের দুল, ১টি আংটি, ১ জোড়া স্বর্ণের হাতের বালা ও পোশাক নিয়ে গেছেন।

শৈলকুপা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মহসীন হোসেন জানান, এ ঘটনায় থানায় কোনো অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
ফেসবুকে সম্পর্ক গড়ে ব্ল্যাকমেইল, গ্রেপ্তার ৩
দণ্ডপ্রাপ্ত প্রতারক গ্রেপ্তার
অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের ঘিরে প্রতারণার জাল
বিকাশের তিন প্রতারক আটক
‘ইমো হ্যাকার’ গ্রুপের ১৬ সদস্য গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য