আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে যুবক আটক

আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে মারধরের অভিযোগে যুবক আটক

হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা রোকসানা সুরাইয়া নিউজবাংলাকে জানান, ফারজানাকে পিটিয়ে একাধিক স্থানে মারাত্মক জখম করা হয়েছে। তার মাথা, হাত-পাসহ বেশ কয়েক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন আছে।

ফেনীর পরশুরামে শ্বশুরবাড়ি থেকে আম-কাঁঠাল কম দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে এক যুবকের বিরুদ্ধে।

ওই নারীর স্বামী এয়াকুব আলী ও শ্বশুর আবুল কাশেম বেন্ডরকে সোমবার রাত আটটার দিকে বাড়ি থেকে আটক করেছে পুলিশ।

ফারজানা আক্তার সুমির অভিযোগ, রোববার রাতে নেশাগ্রস্ত অবস্থায় ইয়াকুব আলী তাকে লোহার রড দিয়ে পেটান এবং ইট দিয়ে মাথা ও পিঠ থেঁতলে দেন।

স্থানীয় লোকজন তাকে পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেছেন।

হাসপাতালের চিকিৎসা কর্মকর্তা রোকসানা সুরাইয়া নিউজবাংলাকে জানান, ফারজানাকে পিটিয়ে একাধিক স্থানে মারাত্মক জখম করা হয়েছে। তার মাথা, হাত-পাসহ বেশ কয়েক জায়গায় আঘাতের চিহ্ন আছে।

স্থানীয় লোকজন জানান, ২০১৫ সালে পরশুরামের বক্সমাহমুদ ইউনিয়নের সাতকুচিয়া গ্রামের এয়াকুব আলীর সঙ্গে উত্তর চন্দনার ফারজানা আক্তার সুমির বিয়ে হয়। তাদের একটি পুত্রসন্তান আছে।

এর আগেও এয়াকুব যৌতুকসহ নানা কারণে ফারজানাকে মারধর করতেন। ২০১৭ সালের শেষ দিকে তাদের বিবাহবিচ্ছেদও হয়। ছয় মাস পরই ২০১৮ সালে তাদের আবার বিয়ে হয়।

পরশুরাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খালেদা দেওয়ান জানান, অভিযোগ পেয়ে ওই নারীর স্বামী ও শ্বশুরকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় এখনও কোনো মামলা হয়নি।

আরও পড়ুন:
ভেবেছিলেন নিজের স্ত্রী, মার দিয়ে দেখলেন অন্যের
জমি নিয়ে বিরোধে অন্তঃসত্ত্বা নারীর পেটে লাথি 
সেই দপ্তরির মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনচালককে মারধর
সেই দপ্তরি গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য