বিশেষ বিধিনিষেধে কুড়িগ্রাম শহর

ব্যারিকেড

কুড়িগ্রাম শহরে যানচলাচল নিয়ন্ত্রণে সড়কে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড দেয়া হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা

কুড়িগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম জানান, গত এক সপ্তাহে কুড়িগ্রাম পৌর এলাকায় ৪৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। করোনা নিয়ন্ত্রণে শহরের তিন ওয়ার্ডে বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। বন্ধ করা হয়েছে সামাজিক অনুষ্ঠানসহ সব ধরণের গণজমায়েত।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় কুড়িগ্রাম পৌর শহরের তিন ওয়ার্ডে এক সপ্তাহের জন্য বিধিনিষেধ আরোপ করেছে প্রশাসন।

জেলা প্রশাসনের এই বিধিনিষেধ আপাতত তিন ওয়ার্ডের ৩১টি পাড়ায় সোমবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে ২১ জুন পর্যন্ত কার্যকর থাকবে।

জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ রেজাউল করিম সোমবার বিকেলে এক প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে পৌরসভার ২, ৩ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডে বিশেষ বিধিনিষেধ জারি করেন।

জেলা প্রশাসক জানান, গত এক সপ্তাহে কুড়িগ্রাম পৌর এলাকায় ৪৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। করোনা নিয়ন্ত্রণে শহরের তিন ওয়ার্ডে বিশেষ বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে। বন্ধ করা হয়েছে সামাজিক অনুষ্ঠানসহ সব ধরণের গণজমায়েত।

তবে হাটবাজারে খাদ্য দ্রব্য পরিবহণে ব্যবহৃত যানবাহন রাত ১০টার পর থেকে সকাল ৭টা পর্যন্ত সুবিধাজনক সময়ে আনলোড করা যাবে।

ফায়ার সার্ভিস, অ্যাম্বুলেন্স, বিদ্যুৎ ও সরকারি কাজে নিযুক্ত গাড়ি, ওষুধের দোকান এ আদেশের আওতামুক্ত থাকবে।

নির্দেশনা অনুযায়ী কুড়িগ্রাম পৌরসভায় সব ধরনের যানবাহন আসন সংখ্যার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাচল করতে পারবে।

বিশেষবিধি নিষেধে এলাকাগুলোতে এরই মধ্যে যানচলাচল নিয়ন্ত্রণে মূল সড়কে বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড দেয়া হয়েছে।

পুলিশ সুপার সৈয়দা জান্নাত আরা জানান, পরিস্থিতির উন্নতি না হলে জেলা করোনা প্রতিরোধ কমিটি লক ডাউনের বিষয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেবে।

বিধিনিষেধে শহরের দাদামোড়, পৌরবাজার, হাসপাতালপাড়া ও জিয়াবাজারের মূল প্রবেশ পথ দিয়ে যানচলাচল বন্ধ রয়েছে।

আরও পড়ুন:
চবির ৪৫ শতাংশ শিক্ষার্থী টিকার জন্য আবেদন করেননি
যশোরে একদিনে সর্বোচ্চ শনাক্তের রেকর্ড
করোনায় আরও ৫০ মৃত্যু, শনাক্ত ৩৩১৯
ভারতে ৭৭ দিন পর সর্বনিম্ন শনাক্ত
রামেকের করোনা ইউনিটে টানা দুই দিন ১২ মৃত্যু

শেয়ার করুন

মন্তব্য