মোটরসাইকেল নিতে এসে বঁটিসহ আটক

মোটরসাইকেল নিতে এসে বঁটিসহ আটক

ঘটনার প্রায় আধা ঘণ্টা পর শরীফ হোসেন একটি ধারালো বঁটি সঙ্গে নিয়ে টিএসআই বেলাল হোসেনের কাছে আসেন এবং বলেন জরিমানা পরিশোধ করে তিনি মোটরসাইকেল ফিরিয়ে নিতে চান। তাকে ট্রাফিক অফিসে গিয়ে অনলাইনে টাকা পরিশোধ করে মোটরসাইকেলটি ফিরিয়ে নেয়ার জন্য বলা হলে তিনি তার হাতে থাকা বঁটি নিয়ে বেলাল হোসেনের ওপর চড়াও হন।

মোটরসাইকেল থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চেয়েছিল পুলিশ। কিন্তু মোটরসাইকেলের চালক শরীফ হোসেন শেখ তা দেখাতে ব্যর্থ হন। তাই ছোট মামলা দিয়ে পুলিশ মোটরসাইকেলটিকে ট্রাফিক অফিসে পাঠায়। এতে প্রচণ্ড ক্ষিপ্ত হন শরীফ হোসেন শেখ। ধারালো বঁটি নিয়ে ভয় দেখিয়ে তার জব্দ করা মোটরসাইকেল ফেরত নিতে আসেন। কিন্তু এবার তিনি আটক হন পুলিশের হাতে।

ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার বিকেল সাড়ে পাঁচটার দিকে নওগাঁ শহরের ব্রিজের মোড় এলাকায়।

আটক শরীফ হোসেন শেখ নওগাঁ পৌরসভার খাস-নওগাঁ ৪ নম্বর ওয়ার্ড কমিশনার আব্দুল মালেক শেখ খোয়াজের ছেলে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, সোমবার বিকেলে শহরের ব্রিজের মোড় থেকে যুবক শরীফ হোসেনসহ তিনজন মোটরসাইকেলে করে তাজের মোড়ের দিকে যাচ্ছিলেন। এ সময় ব্রিজের মোড়ে কর্তব্যরত টিএসআই বেলাল হোসেন মোটরসাইকেলটি থামিয়ে কাগজপত্র দেখতে চাইলে শরীফ হোসেন দেখাতে ব্যর্থ হন। তিনি টিএসআইকে বলেন, কাগজপত্র বাসায় আছে। তারপর শরীফ হোসেন পরিচয় দেন তার বাবা পৌরসভার একজন কমিশনার। পরিচয় পাওয়ার পর তার মোটরসাইকেলের বিরুদ্ধে ছোট মামলা দিয়ে মোটরসাইকেলটি ট্রাফিক অফিসে পাঠানো হয়।

ঘটনার প্রায় আধা ঘণ্টা পর শরীফ হোসেন একটি ধারালো বঁটি সঙ্গে নিয়ে টিএসআই বেলাল হোসেনের কাছে আসেন এবং বলেন জরিমানা পরিশোধ করে তিনি মোটরসাইকেল ফিরিয়ে নিতে চান। তাকে ট্রাফিক অফিসে গিয়ে অনলাইনে টাকা পরিশোধ করে মোটরসাইকেলটি ফিরিয়ে নেয়ার জন্য বলা হলে তিনি তার হাতে থাকা বঁটি নিয়ে বেলাল হোসেনের ওপর চড়াও হন। এ সময় সেখানে থাকা ট্রাফিক সার্জেন্ট মাহাবুব ইবনে হায়দার ছুটে আসেন এবং শরীফের হাতে থাকা বঁটিটি কেড়ে নিয়ে আটক করেন। এরপর থানা-পুলিশকে খবর দিলে তারা এসে বঁটি জব্দ এবং শরীফকে থানায় নিয়ে যায়।

নওগাঁ ট্রাফিক ইন্সপেক্টর রাহাত হোসেন তরফদার বলেন, ‘ওয়্যারলেসে কল পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দেখি থানার কিলোডিউটি গাড়ি সেখানে দাঁড়িয়ে আছে। সেখানে একজন যুবককে আটক করা আছে। পরে তাকে থানায় পাঠানো হয়।’

তিনি বলেন, ‘মোটরসাইকেলটিতে কোনো নম্বরপ্লেট ছিল না। তার ওপর তিনজন একসঙ্গে যাচ্ছিল, যা বেআইনি। দায়িত্ব পালনের সময় ট্রাফিক পুলিশের প্রতি এমন ভয়াবহ আচরণ সত্যিই দুঃখজনক।’

আরও পড়ুন:
‘ছিনতাইয়ের মাইক্রো’ নিয়ে ঢাকায় পালানোর চেষ্টা, গ্রেপ্তার ১
চোরাই মোটরসাইকেলসহ গ্রেপ্তার ৫  
পাসপোর্ট অফিসে অভিযান, দালালচক্রের ১১ জন আটক
রাজশাহীতে এবার চার লাইকি ভিডিও তারকা আটক 
আরেক রিকশাচালককে নির্যাতন

শেয়ার করুন

মন্তব্য