‘সিরিয়াফেরত জঙ্গি’ চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার

‘সিরিয়াফেরত জঙ্গি’ চট্টগ্রামে গ্রেপ্তার

মো. আরিফ মামুনের মাধ্যমে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামে যোগ দেন সাখাওয়াত। ২০১৭ সালে তিনি তুরস্কে যান। সেখান থেকে অবৈধভাবে সীমান্ত দিয়ে সিরিয়ায় গিয়ে জঙ্গিনেতা হায়াত তাহরির আশরাকের কাছ থেকে ভারী অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ নেন। সিরিয়ার ইদলিব এলাকায় প্রায় ছয় মাস প্রশিক্ষণ নেন তিনি।

চট্টগ্রামে জঙ্গি সন্দেহে সাখাওয়াত আলী নামে সিরিয়াফেরত এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

নগরীর দক্ষিণ খুলশী এলাকা থেকে শুক্রবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিট। তবে বিষয়টি শনিবার দুপুরে গণমাধ্যমকে জানান পুলিশের ওই ইউনিটের উপপরিদর্শক (এসআই) রাছিব খান।

তিনি জানান, সাখাওয়াত নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক শাখার কর্মী।

সাখাওয়াতকে আটকের পর শুক্রবার রাতেই এসআই রাছিব তার বিরুদ্ধে খুলশী থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১২ সালে ভায়রাভাই মো. আরিফ মামুনের মাধ্যমে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামে যোগ দেন সাখাওয়াত। ওই সংগঠনের নেতা চাকরিচ্যুত মেজর জিয়াসহ অন্যদের মাধ্যমে জিহাদি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়েন তিনি। এরই অংশ হিসেবে ২০১৭ সালে সাখাওয়াত তুরস্কে যান। সেখান থেকে অবৈধভাবে সীমান্ত দিয়ে সিরিয়ায় গিয়ে জঙ্গিনেতা হায়াত তাহরির আশরাকের কাছ থেকে ভারী অস্ত্র চালানোর প্রশিক্ষণ নেন। সিরিয়ার ইদলিব এলাকায় প্রায় ছয় মাস প্রশিক্ষণ নেন তিনি। পরে সিরিয়া থেকে ইন্দোনেশিয়ায় আসেন। সেখান থেকে শ্রীলঙ্কা হয়ে আবার ইন্দোনেশিয়ায় যান। চলতি বছর মার্চে তিনি দেশে ফিরে আসেন।

এসআই রাছিব খান বলেন, সাখাওয়াতকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এরই মধ্যে তার কাছ থেকে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। তাকে বিকেলে আদালতে হাজির করে রিমান্ডে পাওয়ার আবেদন করা হবে।

আরও পড়ুন:
‘আনসার আল ইসলামের’ নেতা গ্রেপ্তার 
‘আল-কায়েদার অনুসারী’ গ্রেপ্তার, ৩ দিনের রিমান্ডে
জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে দুই ‘জঙ্গি’
মোহাম্মদপুর থেকে আনসার আল ইসলামের ‘সদস্য’ গ্রেপ্তার
গাজীপুরে আনসার আল ইসলামের ‘সদস্য’ গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য