মৃত্যুর ৪ বছর পর সুদের জন্য স্ত্রী-কন্যাকে নির্যাতন

সুদের দাবিতে নির্যাতনের শিকার হয়ে হাসপাতালে ভর্তি প্রয়াত আবদুল খালেকের স্বজন। ছবি: নিউজবাংলা

মৃত্যুর ৪ বছর পর সুদের জন্য স্ত্রী-কন্যাকে নির্যাতন

স্থানীয় কয়েকজন জানান, গোলজার অনেক বছর ধরে সুদের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ১ হাজার টাকায় সপ্তাহে তাকে ১০০ টাকা সুদ দিতে হয়।

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে মৃত্যুর চার বছর পর সুদের টাকা দাবি করে ঋণগ্রহীতার স্ত্রী ও দুই কন্যাকে নির্যাতন এবং বাড়ি থেকে টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

উপজেলার আওলাই ইউনিয়নের সুকানপুকুর গ্রামের মৃত আবদুল খালেকের মেয়ে খালেদা খাতুন এ অভিযোগ করেন।

তিনি জানান, নির্যাতনে তারা আহত হলে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে তাদের ভর্তি করা হয়। প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে পরে তারা বাড়ি ফিরে আসেন।

খালেদা জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে একই উপজেলার রহমতপুর গ্রামের দাদন ব্যবসায়ী গোলজার মন্ডল ও তার ছেলে লাবুসহ কয়েকজন মোটরসাইকেল নিয়ে তার বাবার বাড়িতে যান। তারা দাবি করেন, তার বাবা আবদুল খালেক জীবিত থাকা অবস্থায় গোলজারের কাছ থেকে দাদনের টাকা নিয়েছিলেন, যা সুদে-আসলে এখন ২ লাখ টাকা হয়েছে।

খালেদা বলেন, ‘আমার বাবা চার বছর আগে মারা গেলেও এ ব্যাপারে আমাদের পরিবারের কেউ কিছুই জানে না। দাবি করা টাকা দিতে রাজি না হওয়ায় পরে তারা আমার মা, আমাকে ও আমার বোন পাপিয়া খাতুনকে মারধর করেন।

‘এ ছাড়া তারা আমাদের ঘরে থাকা ৭৫ হাজার টাকা, প্রয়োজনীয় কাগজপত্র, এক ভরির স্বর্ণের চেইন, কানের দুল ও আংটি কেড়ে নিয়ে যান। যাওয়ার সময় হুমকিও দিয়ে যান তারা।’

মৃত্যুর ৪ বছর পর সুদের জন্য স্ত্রী-কন্যাকে নির্যাতন
দাদন ব্যবসায়ী গোলজার মন্ডল

নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক স্থানীয় কয়েকজন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, গোলজার অনেক বছর ধরে সুদের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। ১ হাজার টাকায় সপ্তাহে তাকে ১০০ টাকা সুদ দিতে হয়।

গোলজার অবশ্য তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি বলেন, ‘আবদুল খালেক বেঁচে থাকতে আমার কাছ থেকে সাদা চেক রেখে ২ লাখ ২৬ হাজার টাকা ঋণ নেন। সেই টাকা পরিশোধ না করেই তিনি মারা গেছেন।

‘সম্প্রতি সেই টাকার সুদে-আসলে ৫ লাখ টাকার চেক লিখে ব্যাংকে গেলে খালেকের অ্যাকাউন্টে টাকা না থাকায় তুলতে পারিনি। এ অবস্থায় চেকটি আমার এক আত্মীয়কে দিই। টাকাগুলো তোলার জন্য সেই আত্মীয় খালেকের বাসায় গিয়েছিলেন কি না এ বিষয়ে বলতে পারব না।’

পাঁচবিবি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা পলাশ কুমার দেব জানান, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

মন্তব্য

প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ

প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ

শিশুটির বাবার অভিযোগ, গত ৯ জুন সকালে খাওয়াদাওয়া শেষে শিশুটি মাঠে ঘুড়ি ওড়াতে যায়। সে সময় প্রতিবেশী এক যুবক তাকে পাশের বাগানে নিয়ে গিয়ে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। কাউকে জানালে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় প্রতিবেশী যুবকের বিরুদ্ধে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ১০ বছরের শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে।

ওই শিশুকে বুধবার দুপুর ২টার দিকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শিশুটির বাবার অভিযোগ, গত ৯ জুন সকালে খাওয়াদাওয়া শেষে শিশুটি মাঠে ঘুড়ি ওড়াতে যায়। সে সময় প্রতিবেশী এক যুবক তাকে পাশের বাগানে নিয়ে গিয়ে দেশীয় অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে। কাউকে জানালে প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

তিনি জানান, বুধবার দুপুরে তার ছেলে খুব অসুস্থ হয়ে পড়লে বাবাকে বিষয়টি খুলে বলে। এরপর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওই যুবকের বিরুদ্ধে তিনি মামলা করবেন।

হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সোহানা আহমেদ জানান, শিশুটিকে অসুস্থ অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চূড়ান্ত পরীক্ষার পর এ বিষয়ে স্পষ্টভাবে বলা যাবে।

এ বিষয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, ওই ঘটনায় থানায় এখনও কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

‘ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ’: কুপিয়ে জখম করা যুবকের মৃত্যু

‘ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ’: কুপিয়ে জখম করা যুবকের মৃত্যু

স্থানীয়রা জানান, ৪-৫ দিন আগে রত্নাদিয়া গ্রামের একটি খালে গোসল করছিল স্কুলপড়ুয়া কয়েক কিশোরী। ওই সময় স্থানীয় শিপন, পারভেজ, রাকিবসহ কয়েকজন বখাটে গোসল করতে নেমে তাদের ইভটিজিং করেন। রুবেল এর প্রতিবাদ করলে ওই যুবকদের সঙ্গে তার কথাকাটাকাটি হয়।

মানিকগঞ্জে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করা নিয়ে দ্বন্দ্বে কুপিয়ে জখম করা যুবকের মৃত্যু হয়েছে।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার মধ্যরাতে তার মৃত্যু হয়। রুবেল হোসেন নামে ওই যুবকের বাড়ি সদর উপজেলার হাটিপাড়া ইউনিয়নের রত্নাদিয়া গ্রামে।

কয়েকদিন আগে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করার জের ধরে মঙ্গলবার এক দল যুবক তাকে কুপিয়ে আহত করে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

এ ঘটনায় শিপন হোসেন নামে এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, ৪-৫ দিন আগে রত্নাদিয়া গ্রামের একটি খালে গোসল করছিল স্কুলপড়ুয়া কয়েক কিশোরী। ওই সময় স্থানীয় শিপন, পারভেজ, রাকিবসহ কয়েকজন বখাটে গোসল করতে নেমে তাদের ইভটিজিং করেন। রুবেল এর প্রতিবাদ করলে ওই যুবকদের সঙ্গে তার কথাকাটাকাটি হয়।

তারা আরও জানান, সেই ঘটনার জের ধরে মঙ্গলবার শিপন ও তার বন্ধুরা রুবেলকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করে। তাকে উদ্ধারের পর প্রথমে নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্বজনরা। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

মানিকগঞ্জ সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ভাস্কার সাহা জানান, এ ঘটনায় শিপন নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। অন্যদের আটকের চেষ্টা চলছে। সদর থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

আধিপত্য বিস্তারের জেরে ককটেল বিস্ফোরণ

আধিপত্য বিস্তারের জেরে ককটেল বিস্ফোরণ

সদর থানার ওসি মোজাফফর হোসেন জানান, শেখপাড়ার ওদুদ মহুরী ও জালাল মেম্বরের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছে। সেই জেরে বুধবার দুই গ্রুপ ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৮টি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করেছে। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে। তবে এ ঘটনায় কেউ হতাহত হয়নি।

উপজেলার মহারাজপুর ইউনিয়নের শেখপাড়ায় বুধবার বেলা ১১টার পর থেকে এ ঘটনা ঘটে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শেখপাড়ার ওদুদ মহুরী ও জালাল মেম্বরের মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলছে। সেই জেরে বুধবার দুই গ্রুপ ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৮টি অবিস্ফোরিত ককটেল উদ্ধার করেছে। পরিস্থিতি এখন পুলিশের নিয়ন্ত্রণে।

তবে কতগুলো ককটেল বিস্ফোরিত হয়েছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

স্থানীয় লোকজন জানান, দুই পক্ষ প্রায় ২০-৩০টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে।

ওসি জানান, এ ঘটনায় কেউ মামলা করেনি। তবে জড়িতদের ধরতে পুলিশের চেষ্টা চলছে।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

৪০ হাজার ইয়াবাসহ আটক রোহিঙ্গা যুবক

৪০ হাজার ইয়াবাসহ আটক রোহিঙ্গা যুবক

ইয়াবাসহ বিজিবির হাতে আটক রোহিঙ্গা যুবক। ছবি: সংগৃহীত

বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার কুলালপাড়া নামক জায়গায় স্থানীয় আব্দুল হকের বাড়িতে ইয়াবার একটি বড় চালান লুকানো আছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ- বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অভিযানে এক রোহিঙ্গা যুবক ৪০ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক হয়েছে। আটক রোহিঙ্গা শরণার্থী যুবকের নাম আয়াছ উদ্দিন।

বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার কুলালপাড়া নামক জায়গায় স্থানীয় আব্দুল হকের বাড়িতে ইয়াবার একটি বড় চালান লুকানো আছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) সদর থেকে একটি টহলদল সেখানে পৌঁছে বাড়িটি তল্লাশি করে।

বিজিবি জানায়, তল্লাশির সময় বাড়িতে থাকা ওই রোহিঙ্গা যুবক আয়াছকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, ইয়াবা চালান সংগ্রহের জন্যই তিনি ওই বাড়িতে যান। পরে তার তথ্যে সে বাড়ি থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

সেই সঙ্গে ইয়াবা বিক্রির ২০ হাজার টাকাও জব্দ করে বিজিবি।

বুধবার মামলা করে আসামিকে থানা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আহত একজন। ছবি: নিউজবাংলা

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বলেন, ‘বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে দুজন আহত হয়েছেন। বেলা পৌনে ২টার দিকে তাদের চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।’

প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম কলেজে সংঘর্ষে জড়িয়েছে শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষ। এতে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ক্যাম্পাসসংলগ্ন কেয়ারি শপিংমলের সামনে সংঘর্ষে জড়ায় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিকের পক্ষ।

আহত দুই শিক্ষার্থী হলেন ইংরেজি বিভাগের স্নাতক শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল সাইমুন এবং ডিগ্রি শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল মালেক রুমি। তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শীলব্রত বড়ুয়া নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে দুজন আহত হয়েছেন। বেলা পৌনে ২টার দিকে তাদের চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।’

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কী নিয়ে সংঘর্ষ, কাদের মধ্যে সংঘর্ষ, এখনও বুঝতে পারছি না। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন সবকিছু স্বাভাবিক আছে।’

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা, গ্রেপ্তার ১

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা, গ্রেপ্তার ১

প্রতীকী ছবি

ওই তরুণীর পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, সকালে ওই ব্যক্তি পরিবারের অন্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে তার প্রতিবেশী ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে ওই তরুণী আওয়াজ করলে ও লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই ব্যক্তি সটকে পড়েন।

খুলনা মহানগরীতে এক শারীরিক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে সোনাডাঙ্গা থানার পুলিশ। পরে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার মামলা করা হয় এবং তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

আটক ব্যক্তি সোনাডাঙ্গার ময়লাপোতা এলাকার একটি বস্তির বাসিন্দা।

বুধবার সকালে ওই তরুণীর স্বজনদের অভিযোগের পর পুলিশ তাকে আটক করে। সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মমতাজুল হক বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন।

ওই তরুণীর পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, সকালে ওই ব্যক্তি পরিবারে অন্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে তার প্রতিবেশী ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে ওই তরুণী আওয়াজ করলে ও লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই ব্যক্তি সটকে পড়েন।

ওসি মমতাজুল বলেন, ‘ওই তরুণীর পরিবারের লোকজন থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ ওই ব্যক্তিকে আটক করে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার মামলা করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন

বাসচাপায় প্রাণ গেল মোটরসাইকেল আরোহীর

বাসচাপায় প্রাণ গেল মোটরসাইকেল আরোহীর

সাভারে বাসচাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

সাভারে বাসচাপায় মৃত্যু হয়েছে এক বাইকচালকের। আশুলিয়ায় রাস্তা পার হওয়ার সময় প্রাণ গেছে গৃহপরিচারিকার।

সাভারে বাসচাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নবীনগর বাসস্ট্যান্ডের সেনা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে ফুটওভার ব্রিজের নিচে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম জাহিদুল ইসলাম, তার বাড়ি রাজধানীর হাজারীবাগে।

নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সাভার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ করিম।

তিনি বলেন, দুপুর ১২টার দিকে নবীনগর বাসস্ট্যান্ডের ওই ওভারব্রিজের নিচে একটি অজ্ঞাত বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাইকচালকের মৃত্যু হয়।

মরদেহ ও দুর্ঘটনাকবলিত বাইকটি সাভার হাইওয়ে থানায় নেয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, জাহিদ কোনো বাইক রাইডার গ্রুপের সদস্য।

ওসি সাজ্জাদ আরও জানান, বাসটি শনাক্তের চেষ্টা চলছে। নিহতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিকে, সাভারেই পিকআপ ভ্যানের চাপায় এক গৃহপরিচারিকার মৃত্যু হয়েছে।

টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের মরাগাং এলাকায় বুধবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত সুজাতা রানী বর্মন নওগাঁ জেলার নেয়ামতপুর থানার সদায় বর্মনের স্ত্রী। তিনি তুরাগ এলাকায় থেকে বাসাবাড়িতে কাজ করতেন।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সুদীপ কুমার গোপ নিউজবাংলাকে জানান, সকালে মরাগাং এলাকায় সড়ক পার হচ্ছিলেন সুজাতা। এ সময় একটি দ্রুতগতির পিকআপ ভ্যান তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। পরে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়।

মরদেহ দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কর্তন
নির্যাতনের শিকার সেই রিকশাচালক মারা গেছেন
ভারতে বাংলাদেশি তরুণীকে নির্যাতনের ‘হোতা’ গ্রেপ্তার
গৃহকর্মী নির্যাতন, স্বামী-স্ত্রী রিমান্ডে
‘খুন্তির ছ্যাঁকা দিত, নখও তুলে ফেলেছে’

শেয়ার করুন