পরিত্যক্ত সেপটিক ট্যাংকে শিক্ষার্থীর মরদেহ

পরিত্যক্ত সেপটিক ট্যাংকে শিক্ষার্থীর মরদেহ

তারাকান্দা থানার ওসি আবুল খায়ের জানান, ইকবাল ময়মনসিংহ রুমডো পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করতেন। গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে চা পানের কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন তিনি।

ময়মনসিংহের তারাকান্দায় পরিত্যক্ত সেপটিক ট্যাংক থেকে শাহিনুর আলম ইকবাল নামে এক শিক্ষার্থীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

উপজেলার পলাশকান্দা গ্রামে বাড়ির পাশের সেপটিক ট্যাংক থেকে শনিবার বেলা ২টার দিকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তারাকান্দা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল খায়ের জানান, ইকবাল ময়মনসিংহ রুমডো পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করতেন। গত মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে চা পানের কথা বলে বাড়ি থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হন তিনি।

ওসি আরও জানান, এ ঘটনায় বুধবার রাতে ইকবালের বাবা আব্দুর রউফ থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। শনিবার দুপুরে পরিত্যক্ত ওই সেপটিক ট্যাংক থেকে দুর্গন্ধ পেয়ে স্থানীয় লোকজন থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ গিয়ে ইকবালের মরদেহ পায়।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে জানিয়ে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, ওই শিক্ষার্থীকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে।’

নিহতের স্বজন রফিকুল ও সমলা খাতুন জানান, ইকবাল যে দোকানে চা খেতে গিয়েছিলেন, সেখানে দু-তিনজন যুবকের সঙ্গে আড্ডা দেন। স্থানীয়দের কাছে অপরিচিত ওই যুবকদের সঙ্গেই তিনি দোকান থেকে বের হন।

আরও পড়ুন:
পানিতে ডুবে দুই জেলায় দুই শিশুর মৃত্যু
বাঙ্গালি নদীতে নারীর মরদেহ
ঘরের আড়ায় মাদ্রাসাছাত্রীর ঝুলন্ত মরদেহ
খাল থেকে কঙ্কাল উদ্ধার 
কৃষকের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার

শেয়ার করুন

মন্তব্য