নোয়াখালী সদরে ৭ দিনের লকডাউন   

নোয়াখালী সদরে ৭ দিনের লকডাউন   

নোয়াখালী জেলা করোনা কমিটির সভা। ছবি: নিউজবাংলা

বিকেল ৪টার দিকে জেলা করোনা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ৫ জুন ভোর ৬টা থেকে ১১ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় নোয়াখালী পৌরসভাসহ সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

পৌরসভার সব ওয়ার্ডসহ উপজেলা সদরের নোয়ান্নই, কাদির হানিফ, বিনোদপুর, নোয়াখালী, অশ্বদিয়া ও নেয়াজপুর ইউনিয়নে শনিবার ভোর থেকে এ লকডাউন কার্যকর হবে।

শুক্রবার সন্ধ্যা পৌনে ৬টায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. ইফতেখার হোসেন।

তিনি জানান, বিকেল ৪টার দিকে জেলা করোনা কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ৫ জুন ভোর ৬টা থেকে ১১ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত এ লকডাউন চলবে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের সচিব প্রদীপ রঞ্জন চক্রবর্তী। আরও উপস্থিত ছিলেন নোয়াখালীর জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম খান ও জেলা পুলিশ সুপার আলমগীর হোসেন।

সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে জানানো হয়, লকডাউনের আওতায় আনা এলাকাগুলোর প্রবেশ পথে লাল পতাকা টানিয়ে দেয়া হয়েছে। কেউ যেন এসব এলাকায় প্রবেশ না করে বা বের না হয় সেজন্য মাইকিং করা হবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারহানা জাহান উপমা জানান, লকডাউন কার্যকর করতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনায় সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারি বিধিনিষেধ মানার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে সবার প্রতি আহ্বানও জানান তিনি।

ঈদুল ফিতরের পর থেকে সদর উপজেলায় করোনা আক্রান্তের হার জেলায় সর্বোচ্চ। এখন পর্যন্ত এ উপজেলায় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৩ হাজার ১৪০ জনের।

আরও পড়ুন:
ঝিনাইদহে ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত ১৫
করোনা: শ্রীমঙ্গলে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে লকডাউন
সাতক্ষীরায় শনিবার থেকে সাত দিনের লকডাউন
৭ দিনের লকডাউনে সীমান্তবর্তী বাওলী গ্রাম
নওগাঁয় কঠোর প্রশাসন

শেয়ার করুন

মন্তব্য