বাইসাইকেল পেলেন বেদেরা

 বাইসাইকেল পেলেন বেদেরা

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ইউএনও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এটি একটি মানবিক উদ্যোগ। কারণ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী আমাদের সমাজে নানাভাবে বঞ্চিত। এই বঞ্চিত গোষ্ঠীকে যদি আমাদের সমাজের মেইন স্ট্রিমে নিয়ে আসতে পারি তা হলেই একটি উন্নত সমাজব্যবস্থা গড়ে তোলা সম্ভব।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেয়া উদ্যোগের অংশ হিসেবে ঢাকার ধামরাইয়ে পিছিয়ে পড়া বেদে সম্প্রদায়ের ১০জন নারী-পুরুষের মাঝে বাইসাইকেল বিতরণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে তাদের আবাসনের ব্যবস্থা ও শিক্ষাবৃত্তি প্রদান করা হবে বলেও জানান ইউএনও।

সোমবার বিকেলে ধামরাই উপজেলা চত্বরে রূপনগর বেদেপল্লির বেদেদের মাঝে সাইকেল বিতরণ করেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সামিউল হক।

তিনি বলেন, ‘৩৩টি গোষ্ঠীকে ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী হিসেবে স্বীকার করে সরকারের পক্ষ থেকে গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে। এদের মধ্যে বেদে সম্প্রদায় একটি। আমাদের ধামরাইতে একটি নৃগোষ্ঠীই আছে। আর তা হচ্ছে বেদেরা। তাদের জন্য উপজেলার দেপাশাইতে আমরা ঘর নির্মাণ করে দিচ্ছি। এই কাজ চলমান আছে।

‘আর আজ এই সম্প্রদায়ের ছয় জন নারী ও চার জন পুরুষকে আমরা সাইকেল দিয়েছি। এরপর তাদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি ও শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হবে।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে ইউএনও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এটি একটি মানবিক উদ্যোগ। কারণ ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী আমাদের সমাজে নানাভাবে বঞ্চিত। এই বঞ্চিত গোষ্ঠীকে যদি আমাদের সমাজের মেইন স্ট্রিমে নিয়ে আসতে পারি তা হলেই একটি উন্নত সমাজব্যবস্থা গড়ে তোলা সম্ভব।

‘আমরাতো বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখি। এই সোনার বাংলা অনেকাংশেই আমরা কিন্তু বাস্তবায়ন করতে পারি, যদি এই পিছিয়ে পড়া ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীকে আমরা সামনের সারিতে নিয়ে আসতে পারি।’

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

মন্তব্য

আ. লীগের দুই পক্ষের হাতাহাতি, পুলিশের লাঠিচার্জ

আ. লীগের দুই পক্ষের হাতাহাতি, পুলিশের লাঠিচার্জ

মাদারীপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের হাতাহাতির ঘটনায় পুলিশ লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। ছবি: নিউজবাংলা

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এহসানুল রহমান ভূঁইয়া বলেন, প্রতিবাদ থেকে একটা সময় উত্তেজিত নেতা-কর্মীরা পাশের বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও ইসলামী ব্যাংকের ঘটকচর শাখা এবং বেশ কয়েকটি দোকান-ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে।

সাবেক নৌপরিবহন মন্ত্রী ও মাদারীপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য শাজাহান খানের বাবা মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক মৌলভী আছমত আলী খানকে নিয়ে কটূক্তির প্রতিবাদের মানববন্ধনে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে তিন পুলিশসহ অন্তত ১৫ জন।

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের সদর উপজেলার কলাবাড়ি এলাকায় শনিবার সকাল ১০টায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় মহাসড়কে ঘণ্টা খানেক যান চলাচল বন্ধ ছিল।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সম্প্রতি রাজৈরে এক অনুষ্ঠানে আছমত আলী খানকে নিয়ে কটূক্তি করে বক্তব্য দেয় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শাহাবুদ্দিন আহম্মেদ মোল্লা। এ জন্য তার পদত্যাগের দাবিতে সকালে ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের কলাবাড়ি এলাকায় মানববন্ধন ও বিক্ষোভের ডাক দেয় শাজাহান খান সমর্থিত কর্মীরা।

একই সময় একই স্থানে সাহাবুদ্দিন আহম্মেদ মোল্লার সমর্থকরা প্রতিবাদ সভার আয়োজন করলে দুই পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়।

পুলিশ জানায়, উত্তেজনার এক পর্যায়ে দুই পক্ষের লোকেরা হাতাহাতি শুরু করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে উভয়পক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) এহসানুল রহমান ভূঁইয়া বলেন, প্রতিবাদ থেকে একটা সময় উত্তেজিত নেতা-কর্মীরা পাশের বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক ও ইসলামী ব্যাংকের ঘটকচর শাখা এবং বেশ কয়েকটি দোকান-ঘরবাড়ি ভাঙচুর করে।

তিনি আরও জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে গেলে পুলিশ লাঠিচার্জ করে। এ সময় নেতা-কর্মীদের হামলায় তিন পুলিশও আহত হয়।

এখন ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

নৌকার প্রার্থীর প্রচারে হামলা

নৌকার প্রার্থীর প্রচারে হামলা

বরগুনার আয়লা-পাতাকাটা ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর প্রচারে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর হয় মোটরসাইকেল। ছবি: নিউজবাংলা

আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মজিবুল হক কিসলু বলেন, ‘কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শান্তিপূর্ণ প্রচারে নেমেছিলাম। পথে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফ হোসেনের সন্ত্রাসী বাহিনী আমার সমর্থকদের ওপর হামলা চালায়। তাদের হামলায় অন্তত ১০ সমর্থক আহত হয়েছে। পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে মোটরসাইকেল।'

বরগুনার আয়লা-পাতাকাটা ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচনে নৌকার প্রার্থীর প্রচারে হামলার ঘটনা ঘটেছে।

ইউনিয়নের নয়বাজার এলাকায় শনিবার দুপুর দুইটার দিকে এই হামলা হয়।

নৌকার প্রার্থীর অভিযোগ, স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা হামলা চালিয়ে ১০ জনকে আহত করে। এ সময় অন্তত ১২টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়।

আয়লা-পাতাকাটা ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান খন্দকার আশশাকুর ফিরোজ জানান, নৌকার প্রার্থী মজিবুল হক কিসলু দুপুর দুইটার পর মোটরসাইকেলে কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে প্রচারে বের হন। নয়াবাজার এলাকায় পৌঁছালে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে তার সমর্থকরা তাদের ওপর হামলা চালিয়ে দুটি মোটরসাইকেলে আগুন দেয়, ভাঙচুর করে ১২টি মোটরসাইকেল।

স্থানীয় বাসিন্দা জুলহাস মিয়া জানান, স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বেশ কিছু মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে চলে যায়।

নৌকার প্রার্থীর প্রচারে হামলা

আওয়ামী লীগ মনোনীত ইউপি চেয়ারম্যান প্রার্থী মজিবুল হক কিসলু বলেন, ‘কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে শান্তিপূর্ণ প্রচারে নেমেছিলাম। পথে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোশাররফ হোসেনের সন্ত্রাসী বাহিনী আমার সমর্থকদের উপর হামলা চালায়। তাদের হামলায় অন্তত ১০ সমর্থক আহত হয়েছে। মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে, ভাঙচুর করা হয়েছে ১২ টি মোটরসাইকেল।’

তিনি বলেন, ‘মোশাররফ হোসেন পরাজয় নিশ্চিত জেনে শুরু থেকেই সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালিয়ে আসছেন। আজকের হামলাও তারই ধারাবাহিকতা।’

এ বিষয়ে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে মোশাররফ হোসেনের মোবাইল নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যায়।

বরগুনা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কে এম তারিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। মোটরসাইকেল ভাঙচুর ও পুড়িয়ে দেয়ার বিষয়টি স্বীকার করে ওসি তারিক বলেন, ‘আলামত হিসেবে মোটরসাইকেলগুলো থানায় নিয়ে আসব। এ ঘটনায় কেউ অভিযোগ করলে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা নেবে।’

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

সাত দিনের লকডাউনে নড়াইল

সাত দিনের লকডাউনে নড়াইল

শনিবার থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্তু আগামী সাতদিন নড়াইল পৌরসভা,লোহাগড়া পৌরসভা ও কালিয়া পৌরসভাসহ সদর উপজেলার কলোড়া,সিংগাশোলপুর,বিছালি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া উপজেলার শাল নগর ইউনিয়ন এলাকায় লকডাউন চলবে।

নড়াইলে করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় শনিবার সন্ধ্যা ৬টা থেকে সাত দিনের লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে করোনা প্রতিরোধ কমিটির এক জরুরি সভায় শুক্রবার রাত ৮টার দিকে এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় জানানো হয়, শনিবার থেকে প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্তু আগামী সাতদিন নড়াইল পৌরসভা, লোহাগড়া পৌরসভা ও কালিয়া পৌরসভাসহ সদর উপজেলার কলোড়া, সিংগাশোলপুর,বিছালি ইউনিয়ন এবং লোহাগড়া উপজেলার শালনগর ইউনিয়ন এলাকায় লকফডাউন চলবে।

লোহাগড়া উপজেলা প্রশাসন ও কালিয়া উপজেলা প্রশাসন করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এছাড়া করোনা ঠেকাতে মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিতে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে জেলা প্রশাসন।

করোনায় নড়াইলে ২৪ ঘন্টায় আক্রান্ত হয়েচেন ৫১ জন। এদের মধ্যে সদর উপজেলায় ৩৬, লোহাগড়া উপজেলায় ১২ ও কালিয়া উপজেলায় ৩ জন।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

বেতন দাবিতে সড়কে চাকরিচ্যুত শ্রমিকরা, পুলিশের লাঠিপেটা

বেতন দাবিতে সড়কে চাকরিচ্যুত শ্রমিকরা, পুলিশের লাঠিপেটা

নারায়ণগঞ্জে বকেয়া পাওনার দাবিতে সড়ক অবরোধ করে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বিক্ষোভ করেছে পোশাককারখানার শ্রমিকরা। ছবি: নিউজবাংলা

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী নিউজবাংলাকে জানান, মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা সমাধানের জন্য আন্দোলনরত শ্রমিকদের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু শ্রমিকরা এ আশ্বাস না মেনে আরও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন।

নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জে আদমজী ইপিজেড এলাকায় বকেয়া বেতনের দাবিতে শনিবার সকাল আটটা থেকে প্রায় তিন ঘণ্টা সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেছে একটি পোশাক কারখানার চাকরিচ্যুত শ্রমিকরা।

স্থানীয় লোকজন জানিয়েছেন, আদমজী ইপিজেডের সামনে কুনতুং এ্যাপারেলস লি. (ফ্যাশন সিটি) নামের পোশাক কারখানার চাকরিচ্যুত দুই শতাধিক শ্রমিক শনিবার সকাল আটটার দিকে নারায়ণগঞ্জ-আদমজী সড়কে এ বিক্ষোভ শুরু করেন। তারা টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বেতনের দাবিতে স্লোগান দিতে থাকেন। এতে দুই পাশে দীর্ঘ যানজট লেগে যায়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ বেলা ১১টার দিকে লাঠিপেটা ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে আন্দোলনরত শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এ সময় অন্তত ৫ শ্রমিক আহত হন। দুপুর ২টার দিকে সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

গত মাসের বেতন চেয়ে কারখানা মালিকদের পক্ষ থেকে কোনো সমাধান পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ করেছেন আন্দোলনরত এক শ্রমিক।

তিনি বলেন, ‘হঠাৎ করেই আমাদের দুই শতাধিক শ্রমিককে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে। কিন্তু গত মাসের বেতন পরিশোধ করা হয়নি আজও। এ জন্য চাকরিচ্যুত শ্রমিকরা বকেয়া বেতনের দাবিতে সকালে নারায়ণগঞ্জ-আদমজী সড়কে অবস্থান নেন। এ সময় পুলিশ আমাদের লাঠিপেটা করে ও টিয়ার শেল মারে। এতে আমাদের অন্তত পাঁচ শ্রমিক আহত হয়েছেন।’

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী নিউজবাংলাকে জানান, মালিকপক্ষের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা সমাধানের জন্য আন্দোলনরত শ্রমিকদের আশ্বাস দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু শ্রমিকরা এ আশ্বাস না মেনে আরও ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন। তারা সড়ক অবরোধ করে ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকেন। পরে পুলিশ তাদের ধাওয়া, লাঠিপেটা ও টিয়ার শেল নিক্ষেপ করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

কোম্পানীগঞ্জে হরতালে পুলিশের গুলি

কোম্পানীগঞ্জে হরতালে পুলিশের গুলি

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর হোসেন জানান, তারা রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়েছিল। পুলিশ সরাতে গেলে তারা পুলিশের গাড়ির দিকে ইটপাটকেল ছোড়ে। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। এরপর পুলিশ ২০-২২টি গুলি ছোড়ে।

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় আওয়ামী লীগের (একাংশ) ডাকা হরতালে বাধা দেয়ায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে আটজন আহত হয়েছেন।

তাদের মধ্যে গুলিবিদ্ধ চারজন উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদলের অনুসারী ও বাকি চারজন পুলিশ সদস্য।

উপজেলার চর কাঁকড়া ইউনিয়নের টেকের বাজারে শনিবার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

চর কাঁকড়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা জামাল উদ্দিন জানান, পুলিশের গুলিতে আহত চারজন হলেন ৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা ফখরুল ইসলাম সবুজ, তার ছেলে চয়ন ও সবুজের ভাগনে মো. আরিয়ান এবং ওই ইউনিয়নের রূপনগর গ্রামের মো. হৃদয়।

স্থানীয় লোকজন জানান, হরতালের শুরুতে বাদলের অনুসারীরা বসুরহাট-পেশকারহাট প্রধান সড়ক অবরোধ করেন। এ সময় পুলিশ তাদের বাধা দেয়। একপর্যায়ে পুলিশ লাঠিচার্জ করে তাদের সরিয়ে দেয়ার চেষ্টা করলে তারা পাল্টা ইট-পাটকেল ছোড়া শুরু করেন। এতে পুলিশের কয়েকজন আহত হন।

পরে পুলিশ গুলি ছুড়লে বাদলের চার অনুসারী আহত হন।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইফুদ্দিন আনোয়ার জানান, রাস্তায় পুলিশের ওপর আক্রমণ করলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ফাঁকা গুলি ছোড়া হয়। তবে এ ঘটনায় কতজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর হোসেন জানান, তারা রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়েছিল। পুলিশ সরাতে গেলে তারা পুলিশের গাড়ির দিকে ইটপাটকেল ছোড়ে। এতে পুলিশের চার সদস্য আহত হন। এরপর পুলিশ ২০-২২টি গুলি ছোড়ে।

এর আগে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদলের ওপর হামলার প্রতিবাদে ৪৮ ঘণ্টার হরতাল ডেকেছে উপজেলা আওয়ামী লীগের একাংশ।

তাদের অভিযোগ, এই হামলার ঘটনা বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জার নেতৃত্বে হয়েছে।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের (একাংশ) মুখপাত্র মাহবুবুর রশীদ মঞ্জু শনিবার দুপুরে নিজের ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে হরতালের ডাক দেন।

শনিবার দুপুর ১টা থেকে শুরু হয়ে আগামী ৪৮ ঘণ্টা চলবে এই হরতাল।

লাইভে মঞ্জু বলেন, ‘সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের ডুয়েল রোল প্লে করছেন। এই ডুয়েল রোল প্লে করে আপনি কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মানসম্মান নষ্ট করে দিয়েছেন।

‘আমরা প্রতিবাদ করেছি। আপনি আমাদের মাঠে নামিয়েছেন। এর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিলে আমরাও মুখ খুলব।’

কোম্পানীগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে বসুরহাট-দাগনভূঞা সড়কে শনিবার সকাল পৌনে ১০টার দিকে মিজানুর রহমান বাদলের ওপর হামলা হয়। এ সময় বাদলের সঙ্গে থাকা উপজেলা আওয়ামী লীগের মুখপাত্র হাসিবুল হোসেন আলালকেও জখম করা হয়।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

৭৯২ অ্যাম্পুল ভারতীয় মাদকসহ গ্রেপ্তার ১

৭৯২ অ্যাম্পুল ভারতীয় মাদকসহ গ্রেপ্তার ১

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় মাদকদ্রব্য ভারতীয় বুপরেনরফাইন ইনজেকশনসহ একজনকে গ্রেপ্তার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর।

দামুড়হুদা উপজেলার জয়রামপুর গ্রামের কাঠালতলা থেকে শনিবার সকাল সাড়ে ৭টায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার জয়নাল আবেদীনের বাড়ি কাঠালতলা এলাকায়।

জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শরিয়তউল্লাহ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান, মাদক কেনাবেচার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে ৭৯২টি অ্যাম্পুল ভারতীয় বুপরেনরফাইন ইনজেকশনসহ জয়নালকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা একই এলাকার কালাম আলী মন্ডল পালিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান, আটকের পর দামুড়হুদা মডেল থানায় জয়নালের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। মামলায় কালামকে পলাতক আসামি দেখানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন

‘মাদকবাহী’ মাইক্রোচাপায় এএসআই নিহতের ঘটনায় পুলিশের ২ মামলা

‘মাদকবাহী’ মাইক্রোচাপায় এএসআই নিহতের ঘটনায় পুলিশের ২ মামলা

নিহত এএসআই সালাহ উদ্দিন। ছবি: নিউজবাংলা

শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে চান্দগাঁও থানার কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় একটি মাইক্রোর চাপায় নিহত হন এএসআই সালাহ উদ্দিন। আহত হন মো. মাসুম নামের এক কনস্টেবল। পুলিশ জানায়, মাইক্রোবাসটি ছিল মাদকবাহী।

চট্টগ্রামের চান্দগাঁওয়ে মাইক্রোবাসের চাপায় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সালাহ উদ্দিন নিহতের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ।

শুক্রবার বিকেলে চান্দগাঁও থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আমির হোসেন মামলা দুটি করেন।

মামলার বিষয়টি ‍নিউজবাংলাকে রাতে নিশ্চিত করেছেন চান্দগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘শুক্রবার বিকেলে এসআই আমির হোসেন একটি হত্যা ও আরেকটি মাদক মামলা করেন। দুই মামলাতেই অজ্ঞাতপরিচপয় ব্যক্তিদের আসামি করা হয়েছে।’

এ ঘটনায় জড়িত আসামিদের চিহ্নিত করে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে বলে জানান ওসি।

এর আগে শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে চান্দগাঁও থানার কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকায় একটি মাইক্রোর চাপায় নিহত হন এএসআই সালাহ উদ্দিন। আহত হন মো. মাসুম নামের এক কনস্টেবল। পুলিশ জানায়, মাইক্রোবাসটি ছিল মাদকবাহী।

চান্দগাঁও থানার ওসি মোস্তাফিজুর জানান, শুক্রবার ভোর ৪টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পার্বত্য এলাকা থেকে চোলাই মদবাহী একটি কালো মাইক্রোবাস চট্টগ্রাম শহরের দিকে আসছে বলে জানতে পারেন এসআই সালাহ উদ্দিন।

এতে কাপ্তাই রাস্তার মাথা এলাকার মেহেরাজখানঘাটা পেট্রোল পাম্পের সামনে কালো মাইক্রোবাসকে থামার সংকেত দিলে গাড়িটি গতি কমিয়ে আনে।

এ সময় গাড়িটি থেমেছে ভেবে এএসআই সালাহ উদ্দিন ও চালক মাসুম মাইক্রোবাসটির কাছে গেলে গাড়িটি গতি বাড়িয়ে দুইজনকে চাপা দেয়। আহত দুইজনকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক সালাহ উদ্দিনকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি জানান, বিষয়টি জানতে পেরে ওই মোবাইল টিমের অফিসার এসআই রফিকুল ইসলাম ফোর্সসহ গাড়িটিকে তাড়া করেন।

নগরীর এক কিলোমিটার এলাকায় গাড়িটি থামিয়ে গাড়ির চালকসহ অন্যরা পালিয়ে যান৷ পরে পুলিশ গাড়িটি জব্দ করে। ওই গাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ৭০০ লিটার চোলাই মদ উদ্ধার করা হয়।

আরও পড়ুন:
এক বাইক চুরির তদন্তে মিলল চারটি
মোটরসাইকেল চালানো শিখতে গিয়ে স্কুলছাত্রের মৃত্যু
বন্ধুদের মোটরসাইকেল রেসে প্রাণ গেল দুই জনের
সেই শিক্ষিকা করোনামুক্ত কি না নিশ্চিত নয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ
ট্রাকচাপায় বাইকচালক নিহত

শেয়ার করুন