ভুয়া চিকিৎসকের তিন মাসের কারাদণ্ড

ভুয়া চিকিৎসকের তিন মাসের কারাদণ্ড

র‌্যাবের ১৩ কোম্পানি কমান্ডার এম হাফিজুর রহমান জানান, নগরীর হিসান মেডিসিন মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় এসএসসি পাস আনছারী দীর্ঘদিন ধরে দন্ত চিকিৎসার নামে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন, এমন খবর আমাদের কাছে ছিল। ওষুধ প্রশাসনের সহকারী পরিচালক তৌহিদুল ইসলামের সহযোগিতায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

এসএসসি পাস হয়েও তিনি দন্ত চিকিৎসক। নামের আগে বসিয়েছেন ডাক্তার শব্দ। দিয়েছেন অত্যাধুনিক চেম্বার। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি। র‌্যাবের জালে ধরা পড়েছেন।

ভুয়া এই চিকিৎসকের নাম এম আনছারী। রংপুর জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ রায়হানুল ইসলাম ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে তাকে তিন মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন। রোববার দুপুরে এই দণ্ড দেয়া হয়।

এম আনছারী রংপুর মহানগরীর পায়রা চত্বরের হিসান মেডিসিন মার্কেটে একটি চেম্বার দিয়ে সেখানে দীর্ঘদিন ধরে মানুষকে দন্ত চিকিৎসা দিয়ে আসছিলেন।

র‌্যাবের ১৩ কোম্পানি কমান্ডার এম হাফিজুর রহমান বলেন, ‘নগরীর হিসান মেডিসিন মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় এসএসসি পাস আনছারী দীর্ঘদিন ধরে দন্ত চিকিৎসার নামে মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করে আসছেন এমন খবর আমাদের কাছে ছিল।’

ওষুধ প্রশাসনের সহকারী পরিচালক তৌহিদুল ইসলামের সহযোগিতায় একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে তাকে তিন মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয় এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের প্রতারণা থেকে বিরত থাকার অঙ্গীকারনামা করানো হয়। এম আনছারী তার দোষ স্বীকার করেছেন।

এম হাফিজুর রহমান আরও জানান, এ সময় মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও ফিজিশিয়ান স্যাম্পল থাকায় চারতলার ওই মার্কেটের ৩০টি দোকানকে বিভিন্ন অঙ্কের অর্থ জরিমানা করা হয়। মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও ফিজিশিয়ান স্যাম্পলগুলো জব্দ করা হয়।

আরও পড়ুন:
ভুয়া চিকিৎসককে কারাদণ্ড
হবিগঞ্জ শহরে হাতেনাতে ধরা ভুয়া চিকিৎসক

শেয়ার করুন

মন্তব্য