জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি জেলহাজতে

চুয়াডাঙ্গা জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি রুহুল আমিন। ছবি: নিউজবাংলা

নাশকতা মামলায় জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি জেলহাজতে

২৪ মার্চ হাইকোর্ট থেকে রুহুল আমিনসহ মামলার অন্য আসামিরা অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পান। আগাম জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় রোববার তারা বিচারিক আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন।

নাশকতার পরিকল্পনা মামলায় চুয়াডাঙ্গা জেলা জামায়াতের সেক্রেটারির জামিন আবেদন গ্রহণ না করে তাকে জেলহাজতে পাঠিয়েছে আদালত।

জেলা মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের বিচারক মিজানুর রহমান রোববার দুপুরে রুহুল আমিনকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

এই মামলার আরেক আসামি পৌর জামায়াতের আমির মাসুদ পারভেজ রাসেলকে জামিন দিয়েছে আদালত।

মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন কাইজার হোসেন জোয়ার্দ্দার শিল্পী ও শরীফ উদ্দীন হাসু।

কাইজার হোসেন জোয়ার্দ্দার শিল্পী নিউজবাংলাকে বিষয়টি জানিয়েছেন।

মামলায় বলা হয়, গত ১৯ মার্চ রাতে জনগণ ও যান চলাচলে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টির অভিযোগে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার কবরী রোডের দক্ষিণ পাশ থেকে জামায়াত নেতা শরীফকে আটক করে পুলিশ।

তার কাছ থেকে জামায়াতের আমির শফিকুর রহমানের লেখা ‘বিতর্কিত’ বইসহ সাত শতাধিক ‘জিহাদি’ বই উদ্ধার করা হয়। এরপর তার দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি রুহুল আমিনের বাড়ি থেকেও একই ধরনের বই উদ্ধার করা হয়।

তবে রুহুল আমিন পালিয়ে যাওয়ায় তাকে আটক করতে পারেনি পুলিশ।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু জিহাদ ফকরুল আলম খান নিউজবাংলাকে জানান, শরীফের বিরুদ্ধে অন্তর্ঘাতমূলক কার্যকলাপ ও অপতৎপরতায় জড়িত থাকার অভিযোগে সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাহাঙ্গীর আলম বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করেন।

মামলায় শরীফ ছাড়াও জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি রুহুল আমিন, পৌর জামায়াতের আমির মাসুদ পারভেজ রাসেল এবং অজ্ঞাতপরিচয় ১০ থেকে ১৫ জনকে আসামি করা হয়।

মামলার পর ২৪ মার্চ হাইকোর্ট থেকে রুহুল আমিনসহ মামলার অন্য আসামিরা অন্তর্বর্তীকালীন জামিন পান। আগাম জামিনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় রোববার তারা বিচারিক আদালতে হাজির হয়ে জামিন আবেদন করেন।

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ভাসানচর থেকে পালানোর সময় ১৪ রোহিঙ্গা আটক

ভাসানচর থেকে পালানোর সময় ১৪ রোহিঙ্গা আটক

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর হোসেন মামুন জানান, মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে তাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের আনসার সদস্য ও স্থানীয়রা এই ১৪ জনকে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

ভাসানচর থেকে পালানোর সময় চার শিশুসহ ১৪ রোহিঙ্গাকে আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে মিরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগর এলাকার স্লুইস গেইট এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূর হোসেন মামুন জানান, মঙ্গলবার দুপুর ৩টার দিকে তাদের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্পনগরের আনসার সদস্য ও স্থানীয়রা এই ১৪ জনকে আটক করে পুলিশকে খবর দেয়। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক রোহিঙ্গারা ভাসানচর থেকে কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পালিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে সাগরপথে মিরসরাই এসেছেন বলে জানায়।

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

দরজায় ফোন নম্বর, কল দিলেই হাজির হবে পুলিশ

দরজায় ফোন নম্বর, কল দিলেই হাজির হবে পুলিশ

‘বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি’ স্লোগানে মধুখালী উপজেলার প্রতিটি বাড়ির দরজায় সাঁটানো হয়েছে বিট পুলিশের স্টিকার। সেখানে রয়েছে সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তা ও থানার ওসির মোবাইল নম্বর। এখন থেকে যেকোনো প্রয়োজনে তাদের ফোন করে সহযোগিতা নিতে পারবে এলাকাবাসী।

পুলিশের সেবা পেতে নাগরিকদের ভোগান্তি পোহানোর অভিযোগ নতুন নয়। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বা সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করা অথবা তার মোবাইল নম্বর পেতে ছুটতে হয় এখানে-সেখানে।

তবে ফরিদপুরে এখন থেকে আর কোনো অভিযোগ জানাতে বা পুলিশের জরুরি সেবা পেতে থানায় ছুটতে হবে না। মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ও পুলিশের সেবা সাধারণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দিতে ফরিদপুরের মধুখালীতে উদ্বোধন করা হয়েছে বিট পুলিশিং কার্যক্রম।

‘বিট পুলিশিং বাড়ি বাড়ি, নিরাপদ সমাজ গড়ি’ স্লোগানে উপজেলার প্রতিটি বাড়ির দরজায় সাঁটানো হয়েছে বিট পুলিশের স্টিকার। সেখানে রয়েছে সংশ্লিষ্ট বিট কর্মকর্তা ও থানার ওসির মোবাইল নম্বর। এখন থেকে যেকোনো প্রয়োজনে ফোন করে তাদের সহযোগিতা নিতে পারবে এলাকাবাসী।

মঙ্গলবার দুপুরে মধুখালী থানা সংলগ্ন এলাকার বিভিন্ন বসতবাড়ির ঘরের দরজায় এ স্টিকার লাগানোর কর্মসূচি উদ্বোধন করা হয়।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন মধুখালী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তফা মনোয়ার, মধুখালী সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক বকু, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শহিদুল ইসলামসহ কর্মকর্তারা।

মধুখালী থানার ওসি শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নে এবং পৌর এলাকায় বিট অফিসার রয়েছেন। তারা প্রতিটি ইউনিয়নের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ঘরের দরজায় মোবাইল নম্বর-সম্বলিত স্টিকার লাগিয়ে দেবেন। সাধারণ মানুষ যেন ঘরে বসেই তাদের সমস্যার কথা জানাতে পারেন এজন্যই এ ব্যবস্থা।

সহকারী পুলিশ সুপার সুমন কর বলেন, ‘এ সেবা চালুর মাধ্যমে এলাকার মানুষ দ্রুততম সময়ে পুলিশের সহযোগিতা পাবেন। মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ও পুলিশের সেবা সাধারণ মানুষের দোড়গোড়ায় পৌঁছে দিতেই এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হলো। এতে এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতিও ভালো থাকবে।’

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

চাঁদপুরে আবারও এজেন্ট ব্যাংকে চুরি

চাঁদপুরে আবারও এজেন্ট ব্যাংকে চুরি

চোরচক্র জানালার গ্রিল কেটে এজেন্ট ব্যাংকের ভেতরে ঢোকে। ছবি: নিউজবাংলা

আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংক শাখার ম্যানেজার মিজানুর রহমান বলেন, ‘সোমবার মধ্যরাতে চুরির ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। চোরচক্র ব্যাংকে পূর্ব পাশের জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে ঢুকে ভল্টে থাকা ৫ লাখ ২৭ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি জানার সাথে সাথে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি।’

চাঁদপুরে আবারও এজেন্ট ব্যাংকে চুরির ঘটনা ঘটেছে। এবার হাজীগঞ্জ উপজেলায় আল আরাফা ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংক শাখায় চুরি করেছে চোরচক্র।

সোমবার মধ্যরাতে হাজীগঞ্জ উপজেলার বেলচো বাজারে এজেন্ট ব্যাংকে এই ঘটনা ঘটে। চোরচক্র জানালার গ্রিল কেটে ভিতরে ঢোকে এবং ব্যাংকের ভল্ট ভেঙে নগদ ৫ লাখ ২৭ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়।

এর আগে কচুয়া উপজেলায় ইসলামী ব্যাংক ও ফরিদগঞ্জ উপজেলায় ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট ব্যাংক শাখায় চুরির ঘটনা ঘটে।

আল আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট ব্যাংক শাখার ম্যানেজার মিজানুর রহমান বলেন, ‘সোমবার মধ্যরাতে চুরির ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। চোরচক্র ব্যাংকে পূর্ব পাশের জানালার গ্রিল কেটে ভেতরে ঢুকে ভল্টে থাকা ৫ লাখ ২৭ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে যায়। ঘটনাটি জানার সাথে সাথে আমি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করি।’

এজেন্ট ব্যাংক শাখার এজেন্ট আফজাল হোসেন বলেন, চুরির ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশকে জানাই। পুলিশ এসে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তিনি বলেন, এই শাখাটি নতুন করা হয়েছে। দুই মাস আগে এর কার্যক্রম শুরু হয়। তবে ব্যাংকে কোনো সিসি ক্যামরা লাগানো ছিল না।

এ ঘটনায় পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, চুরির ঘটনায় পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে। আশা করি অতি দ্রুত চোরচক্রকে ধরে আইনের আওতায় আনা যাবে। ব্যাংকসহ বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িতদের আরও বেশি সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন তিনি।

এ ব্যাপারে হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হারুনুর রশিদ বলেন, আমরা চুরির অভিযোগের খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। চোরচক্রকে আইনের আওতায় আনতে আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। এই ঘটনায় ব্যাংকের এজেন্ট আফজাল হোসেন মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এর আগে ৭ জুন মাঝরাতে কচুয়া উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের ডুমুরিয়া ইসলামী ব্যাংকের এজেন্ট শাখায় চুরি হয়। এ সময় ভল্ট ভেঙে নগদ ৮ লাখ ১৬ হাজার ৪২২ টাকা চুরি করা হয়। এ ঘটনায় সাত লাখ টাকাসহ ব্যাংকের ম্যানেজার মামুন খান, ক্যাশিয়ার মাহাবুব আলম ও মামুনের বোন সুলতানা রাজিয়াকে আটক করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

এই ঘটনার দুই দিন পরে ৯ জুন ফরিদগঞ্জ উপজেলার গুপ্টি পূর্ব ইউনিয়নে ফকিরের বাজারে হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়কের পাশে অবস্থিত ব্যাংক এশিয়ার এজেন্ট ব্যাংক শাখায় ৬ লাখ টাকা চুরি হয়। পরে ১১ জুন ব্যাংকের পাশে ঝোপের ভেতর গর্ত থেকে পলিথিনে মোড়ানো অবস্থায় ৬ লাখ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে অশ্লীল বার্তা, যুবক গ্রেপ্তার

ভুয়া ফেসবুক আইডি থেকে অশ্লীল বার্তা, যুবক গ্রেপ্তার

‘পুলিশ সাইবার সাপোর্ট  ফর উইমেন’ নামের ফেসবুক পেজে ভিকটিমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রযুক্তি ব্যবহার করে অনুসন্ধান চালিয়ে টঙ্গী থেকে জোবায়রেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে সাইবার অপরাধের কাজে ব্যাবহৃত একটি মোবাইল সেট ও সিম উদ্ধার করা হয়।

কলেজছাত্রীর ছবি ও নাম ব্যবহার করে ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্ট তৈরি করে সেখান থেকে বিভিন্নজনকে অশ্লীল বার্তা পাঠানোর অভিযোগে গাজীপুর থেকে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সোমবার রাতে টঙ্গীর খরতৈল ব্যাংকপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে ভিকটিম কলেজছাত্রী ‘পুলিশ সাইবার সাপোর্ট উইমেন’ সার্ভিসের ফেসবুক পেজে একটি অভিযোগ জানায়। সেই অভিযোগের সূত্র ধরে ওই যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার মো. জোবায়ের আহমেদ আবির ওরফে ফাহিমের বাড়ি ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার গুনিয়ারী কান্দা এলাকায়। তিনি টঙ্গী পশ্চিম থানার খরতৈল ব্যাংকপাড়া এলাকায় কাজিম উদ্দিন ম্যানেজারের বাড়িতে ভাড়া থেকে টিউশনি করতেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (অপরাধ-দক্ষিণ) মোহাম্মদ ইলতুৎ মিশ জানান, জোবায়ের ফেসবুকে মানিকগঞ্জের এক মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। কিন্তু ওই মেয়ের বান্ধবী মানিকগঞ্জ মহিলা কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী তাকে অচেনা যুবকের সঙ্গে প্রেম করতে নিষেধ করে। এ নিয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে জোবায়ের ওই বান্ধবীর ছবি সংগ্রহ করে ফেসবুকে একটি ভুয়া অ্যাকাউন্ট খোলেন। সেই ছবি ব্যবহার করে ওই অ্যাকাউন্ট থেকে তার নিকট আত্মীয় ও পরিচিতজনদের নানা আপত্তিকর ও অশ্লীল মেসেজ পাঠান।

পরে ‘পুলিশ সাইবার সাপোর্ট ফর উইমেন’ নামের ফেসবুক পেজে ভিকটিমের অভিযোগের প্রেক্ষিতে প্রযুক্তি ব্যবহার করে অনুসন্ধান চালিয়ে টঙ্গী থেকে জোবায়রেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। তার কাছ থেকে সাইবার অপরাধের কাজে ব্যাবহৃত একটি মোবাইল সেট ও সিম উদ্ধার করা হয়।

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি মোহাম্মদ শাহ আলম জানান, সোমবার রাতে গ্রেপ্তার আসামির বিরুদ্ধে টঙ্গী পশ্চিম থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা করে কলেজছাত্রী। সেই মামলায় মঙ্গলবার বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

ফরিদপুরে বেসরকারিভাবে আইসিইউ ও সিসিইউ চালু

ফরিদপুরে বেসরকারিভাবে আইসিইউ ও সিসিইউ চালু

‘করোনা রোগীদের কথা বিবেচনা করেই হাসপাতালে আমরা ৫ শয্যার আইসিইউ এবং ১১টি সিসিইউ বেড স্থাপন করেছি। এ ছাড়াও আধুনি চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থা রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটিতে। আমরা চাই এই দুর্যোগে সরকারের পাশে থেকে কাজ করতে।’

করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসা নিশ্চিতে ফরিদপুরে বেসরকারি উদ্যোগে চালু হলো নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ) এবং করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ)।

এর আগে ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১৬ শয্যার আইসিইউ বিভাগ চালু হয়। তবে সেখানে রোগীর চাপ বেশি থাকায় অনেককেই এই সেবা দেয়া সম্ভব হচ্ছে না।

সিএন্ডবি ঘাট এলাকায় মঙ্গলবার দুপুরে শহরের রেজওয়ান মোল্লা জেনারেল হাসপাতালে ১৬ শয্যা আইসিইউ এবং সিসিইউ ইউনিটের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক অতুল সরকার।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকতা মাসুম রেজা, সিভিল সার্জন মো. নাদিম, প্রেসক্লাবের সভাপতি কবিরুল ইসলাস সিদ্দিকী, হাসপাতালের চেয়ারম্যান রেজাওয়ান মোল্লা, ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৌদ মো. সালেহসহ আরও অনেকে।

সৌদ মো. সালেহ বলেন, ‘করোনা রোগীদের কথা বিবেচনা করেই এই হাসপাতালটিতে আমরা ৫ শয্যার আইসিইউ এবং ১১টি সিসিইউ বেড স্থাপন করেছি। এ ছাড়াও আধুনি চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থা রয়েছে এই প্রতিষ্ঠানটিতে। আমরা চাই এই দুর্যোগে সরকারের পাশে থেকে কাজ করতে।’

জেলা সিভিল সার্জন অফিস জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় ফরিদপুরের পিসিআর ল্যাবে ২৬৮টি নমুনার মধ্যে ১২৯টি করোনা পজিটিভ হয়েছে। আর মারা গেছেন আরও তিন ব্যক্তি। এই নিয়ে জেলায় মৃত্যের সংখ্যা দাঁড়াল ২০৪ জনে।

ফরিদপুরের জেলা প্রশাসক অতুল সরকার জানান, ‘সরকারি নির্দেশে আমরা করোনার সময়ে জেলার প্রাইভেট হাসপাতাল মালিকদের অনুরোধ করেছিলাম, রোগীদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেয়ার, আজ তারই প্রতিফলন হলো।’

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

আ. লীগ নেতা নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন

আ. লীগ নেতা নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন

আওয়ামী লীগ নেতা নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের দাবিতে মানববন্ধন। ছবি: নিউজবাংলা

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের কুমারশীল মোড় থেকে ঘোড়াপট্টি পর্যন্ত দুই সারিতে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন হয়। এ সময় ক্ষুব্ধরা সাতদিনের মধ্যে নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ইজিবাইক ও ব্যাটারিচালিত রিকশার লাইসেন্স নিয়ে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে ফেসবুকে মন্তব্য করায়, আওয়ামী লীগের নেতা সৈয়দ নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে রিকশা-অটোরিকশা মালিক ও চালক সমিতি।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে শহরের কুমারশীল মোড় থেকে ঘোড়াপট্টি পর্যন্ত দুই সারিতে দাঁড়িয়ে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন হয়। এ সময় বিক্ষুব্ধরা সাতদিনের মধ্যে নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের দাবি জানায়।

কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ভোর ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক চলাচল বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়ে হাজারো মানুষ।

প্রেসক্লাবের সামনে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও চালক সমিতির সভাপতি হোসেন মিয়া, সাধারণ সম্পাদক দুলাল মিয়া, ইজিবাইক মালিক ও চালক সমিতির সভাপতি এস এম মনির হোসেন, সাধারণ সম্পাদক এম ডি দুলাল মিয়া, গোলাম অটো গ্যারেজের মালিক গোলাপ মিয়া, হুমায়ূন অটো গ্যারেজের মালিক হুমায়ূন মিয়া, জসিম অটো গ্যারেজের মালিক জসিম মিয়া, শাহ আলম অটো গ্যারেজের মালিক শাহ আলম বক্তব্য দেন।

মানববন্ধনে স্মারকলিপি পাঠ করেন সংগঠনের পক্ষে শাহ মো. কামাল।

তিনি বলেন, গত বছর যানজট নিরসনে পৌর এলাকার বিভিন্ন সড়কে ১ হাজার ১০০টি ইজিবাইক ও তিন হাজার ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইসেন্স দেয়া হয়। লাইসেন্সের ফি পৌরসভার রশিদে সোনালী ব্যাংকে দেয়া হয়। একইভাবে পৌর এলাকায় পূর্ব থেকে লাইসেন্সপ্রাপ্ত ২ হাজার ৪৮২টি ব্যাটারিচালিত রিকশার লাইসেন্স নবায়ন এবং ২০২০-২১ অর্থ বছরে ৫১৮টি লাইসেন্স দেওয়া হয়।

‘জনৈক সৈয়দ নজরুল ইসলাম নিজের ফেসবুক থেকে ব্যাটারিচালিত রিকশা ও ইজিবাইক লাইসেন্সপ্রাপ্তিতে চাঁদাবাজির মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ উত্থাপন করেছেন।

‘রিকশা ও ইজিবাইক মালিক এবং চালকদের মধ্যে তীব্র ক্ষোভ, অসন্তোষ ও উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। আগামী সাতদিনের মধ্যে সৈয়দ নজরুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করতে হবে। অন্যথায় ৩০ জুন থেকে দিনব্যাপী রিকশা ও ইজিবাইক ধর্মঘট পালনসহ জেলার বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে প্রতিবাদ সমাবেশ করা হবে। মানববন্ধন শেষে তাঁরা জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারের কছে স্মারকলিপি জমা দেন।'

এ বিষয়ে জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক সৈয়দ নজরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, আমার বিরুদ্ধে বেনামে কতগুলো ফেসবুক আইডি খুলে এসব লিখেছে। এসব আমার কাছে সংরক্ষিত আছে।

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন

ট্রাকে ‘ধর্ষণ’, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে উদ্ধার

ট্রাকে ‘ধর্ষণ’, ৯৯৯ থেকে কল পেয়ে উদ্ধার

পুলিশের হাতে আটক ট্রাকচালক। ছবি: নিউজবাংলা

ট্রাকে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে চালককে আটক করা হয়েছে। জব্দ করা হয়েছে ট্রাকটি। তবে পালিয়ে গেছে হেলপার। জরুরি সেবা নম্বরে ফোন পেয়ে মেয়েটিকে উদ্ধার করে পুলিশ।

ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী একটি ট্রাকে মানসিক ভারসাম্যহীন প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জাতীয় জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ থেকে ফোন পেয়ে সিরাজগঞ্জের কড্ডার মোড় এলাকা থেকে ট্রাকসহ তাকে উদ্ধার করে পুলিশ। আটক করেছে ট্রাকের চালককে। জব্দ হয়েছে ট্রাকটিও।

ইউনুস আলী সুমন নামে এক যুবক ৯৯৯ নম্বরে ফোনটি করেন। তিনি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত।

আটক ট্রাকচালকের বাড়ি বগুড়া জেলায়।

বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার কড্ডা এলাকায় দায়িত্বে থাকা ট্রাফিক সার্জেন্ট আমির হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি নিউজবাংলাকে জানান, উত্তরবঙ্গগামী ওই ট্রাকে (বগুড়া ট-১১-২৫১৬) গাজীপুরের চন্দ্রা এলাকা থেকে দুই যুবক ওঠেন। এ সময় এক ব্যক্তি ওই প্রতিবন্ধী তরুণীকে তুলে দেন। তিনি মেয়েটিকে সিরাজগঞ্জের চান্দাইকোনা নামিয়ে দিতে বলেন। চালক ও হেলপারকে জানান, তরুণীর মানসিক সমস্যা আছে।

তারা তরুণীকে ট্রাকের সামনের আসনেই বসতে দেন। পথে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা এলাকায় এসে ট্রাকটি থামিয়ে চালক দুই যুবককে কোনও কাজ থাকলে সেরে নিতে বলেন। তখন দুই যুবক ট্রাক থেকে নেমে যান।

ফিরে আসার পর একজন দেখতে পান তরুণীকে ধর্ষণ করছেন চালক ও হেলপার। তিনি তাদের ছবি তোলার চেষ্টা করেন। তখন দুই যুবককে রেখে ট্রাক নিয়ে সটকে পড়েন চালক ও হেলপার।

এ সময় যুবকটি ৯৯৯-এ কল দিয়ে বিষয়টি জানান। তিনি ট্রাকের নম্বর দেন বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার পুলিশসহ ট্রাফিক ও হাইওয়ে পুলিশকে। এরপরই সন্ধ্যায় বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম সংযোগ সড়কের কড্ডার মোড় এলাকায় ট্রাক থেকে প্রতিবন্ধী নারীকে উদ্ধার করা হয়।

গাড়িটি জব্দের পাশাপাশি আটক করা হয় ট্রাকচালককে। তবে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে হেলপার পালিয়ে যায়। তরুণীসহ চালককে বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।

বঙ্গবন্ধু পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোসাদ্দেক হোসেন ধর্ষণের বিষয়টি নিশ্চিত করে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে যে তরুণীটি ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। তবে তিনি মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন হওয়ায় স্পষ্টভাবে কিছু বলতে পারছেন না। নিশ্চিত হওয়ার জন্য তার ডাক্তারি পরীক্ষা করা হবে।’

আরও পড়ুন:
হেফাজতের সহিংসতায় প্ররোচনা: জামায়াতের শাহজাহান রিমান্ডে
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামায়াত নেতা গ্রেপ্তার
জিহাদি বইসহ আটক ৮, পুলিশের দাবি জামায়াত-শিবির নেতা-কর্মী
জামায়াত-শিবিরের ১১ নেতাকর্মী আটক
জামায়াতের ৯ নেতা-কর্মী কারাগারে

শেয়ার করুন