ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ বিতরণ

ত্রাণ বিতরণ

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন সদরের ইউএনও মিজানুর রহমান। ছবি: নিউজবাংলা

ভোলা সদরের ইউএনও মিজানুর রহমান খান বলেন, ‘ভেদুরিয়া ইউনিয়নের আশ্রয় প্রকল্পের ক্ষতিগ্রস্ত অর্ধশতাধিক পরিবারকে ত্রাণ দেয়া হয়। পরে রাজাপুর ইউনিয়নের চর রামদাসপুরে দুই শতাধিক পরিবারকে ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হয়। পর্যায়ক্রমে জেলায় বাকি ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝেও ত্রাণ বিতরণ করা হবে।’

ভোলায় ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ বিতরণ করা হয়েছে।

সদর উপজেলার রাজাপুর ইউনিয়নে চর রামদাসপুরে রোববার সকালে দুই শতাধিক পরিবারকে ত্রাণ দেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।

এর আগে ভেদুরিয়া ইউনিয়নের মাঝিরহাট এলাকার আশ্রয় প্রকল্পের অর্ধশতাধিক পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করেন তিনি।

ত্রাণসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ১০ কেজি চাল, এক কেজি ডাল, এক কেজি চিনি, দুই কেজি চিড়া, এক কেজি তেল, আধা কেজি নুডুলস ও এক কেজি লবণ।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন রাজাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান খান, জেলা প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক অমিতাভ রায় অপুসহ অনেকে।

ইউএনও মিজানুর রহমান খান বলেন, ‘দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মাধ্যমে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে চিহ্নিত করে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণসামগ্রী পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। প্রথম দিনে সদর উপজেলার ভেদুরিয়া ইউনিয়নের আশ্রয় প্রকল্পের অর্ধশতাধিক পরিবারকে ত্রাণ দেয়া হয়। পরে রাজাপুর ইউনিয়নের চর রামদাসপুরে দুই শতাধিক পরিবারের মাঝে ত্রাণ পৌঁছে দেয়া হয়। পর্যায়ক্রমে জেলার বাকি ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝেও ত্রাণ বিতরণ করা হবে।’

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে সরকারি হিসাবে উপকূলীয় ভোলার সাত উপজেলায় দুর্ভোগে পড়েছে প্রায় ১ লাখ ৬৮ হাজার পরিবার। ১১ হাজার ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। ঝড়ে জেলায় আংশিক বিধ্বস্ত হয়েছে ৭ হাজার ৭৩০টি ঘর। সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্ত ৩ হাজার ৫৭৯টি ঘর। নিখোঁজ রয়েছে দুই হাজার গবাদিপশু।

ঘূর্ণিঝড় সাড়ে ১৬ কিলোমিটার বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঝড়ে ভোলায় মারা গেছেন দুই জন।

আরও পড়ুন:
হয়নি বাঁধ মেরামত, প্লাবিত হচ্ছে আরও এলাকা
ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ শুরু
জোয়ারে নিখোঁজ শিশুর মরদেহ উদ্ধার
ভেসে গেছে ৬৪ কোটি টাকার মাছ, ১০০০ মহিষ
ইয়াস: খুলনায় ৩০ পয়েন্টে বিলীন ৭০০ মিটার বাঁধ

শেয়ার করুন

মন্তব্য