ছাত্র বলাৎকার মামলায় মাদ্রাসাশিক্ষক গ্রেপ্তার

শিক্ষক গ্রেপ্তার

আলমডাঙ্গায় ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে মামলায় শাহিন আলম নামের এক মাদরাসা শিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।ছবি: নিউজবাংলা

মামলায় বলা হয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার আসাননগর গ্রামের আলামিন সোসাইটি হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও লিল্লাহ বোর্ডিংয়ে কয়েক বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন শাহিন আলম। শুক্রবার ভোরে ১১ বছর বয়সী এক ছাত্রকে নিজের ঘরে ডেকে তিনি বলাৎকার করেন। শিশুটি গোপনে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়িতে গিয়ে নির্যাতনের কথা পরিবারের লোকজনদের জানায়।

চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ এনে করা মামলায় শাহিন আলম নামের এক মাদ্রাসাশিক্ষককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

উপজেলার আসাননগর আলামিন সোসাইটি হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও লিল্লাহ বোর্ডিংয়ে শনিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শাহিন আলম ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার কেষ্টপুর গ্রামের বাসিন্দা।

আলমডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর কবীর জানান, ছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগে শনিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন শিশুটির বাবা।

মামলায় বলা হয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার আসাননগর গ্রামের আলামিন সোসাইটি হাফেজিয়া মাদ্রাসা ও লিল্লাহ বোর্ডিংয়ে কয়েক বছর ধরে শিক্ষকতা করছেন শাহিন আলম। শুক্রবার ভোরে ১১ বছর বয়সী এক ছাত্রকে নিজের ঘরে ডেকে তিনি বলাৎকার করেন। শিশুটি গোপনে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে বাড়িতে গিয়ে নির্যাতনের কথা পরিবারের লোকজনদের জানায়।

নির্যাতনের শিকার শিশুটির বাবা জানান, বলাৎকারের ঘটনা শুক্রবার বিকেলে মাদ্রাসা কমিটিকে বলা হয়েছে। কমিটি বিষয়টি এড়িয়ে যায়। তারা নানা টালবাহানা শুরু করে। পরে তিনি মামলা করেন।

গ্রেপ্তার শাহিন আলমকে রোববার সকালে আদালতে নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ওসি আলমগীর কবীর।

আরও পড়ুন:
ছাত্রদের বলাৎকারের স্বীকারোক্তি মাদ্রাসা শিক্ষকের
ছাত্র বলাৎকার: মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার
রোজায় বলাৎকার, ঈদ শেষে মাদ্রাসায় যেতে অনীহা ছাত্রদের
মাদ্রাসাছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ, শিক্ষক গ্রেপ্তার
বলাৎকার: ৯৯৯ এ কলে কওমি শিক্ষক গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য