বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে ফেরি চলাচল শুরু

বাংলাবাজার-শিমুলিয়া রুটে ফেরি চলাচল শুরু

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ঝোড়ো বাতাস বইতে থাকলে পদ্মা নদী উত্তাল হয়ে ওঠে । বিকেলের দিকে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হলে রাত আটটার দিকে ফেরিতে যানবাহন লোড করার নির্দেশ দেয় ঘাট কর্তৃপক্ষ। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে 'কুঞ্জলতা' ফেরিটি এবং  রাত ১০টায় 'ক্যামেলিয়া' ফেরিটি শিমুলিয়ার উদ্দেশে বাংলাবাজার ঘাট ছেড়ে যায়।

মাদারীপুরের বাংলাবাজার ও মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া নৌরুটে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের প্রভাবে এক দিন বন্ধ থাকার পর সীমিত আকারে ফেরি চলাচল শুরু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ফেরি চলাচল শুরু হয়। বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ফেরিঘাট সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বাংলাবাজার ঘাট সূত্রে জানা গেছে, ঘূর্ণিঝড় ইয়াস উপকূলে আঘাত হানার আগে বুধবার ভোর ৬টা থেকে কর্তৃপক্ষের নির্দেশে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে বন্ধ রাখা হয় ফেরি চলাচল। বুধবার বাতাস ও ঢেউয়ের ধাক্কায় শিমুলিয়া ফেরিঘাটগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হয়।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ঝোড়ো বাতাস বইতে থাকলে পদ্মা নদী উত্তাল হয়ে ওঠে। বিকেলের দিকে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হলে রাত ৮টার দিকে ফেরিতে যানবাহন লোড করার নির্দেশ দেয় ঘাট কর্তৃপক্ষ। পরে রাত সাড়ে ৮টার দিকে যাত্রী ও যানবাহন নিয়ে 'কুঞ্জলতা' ফেরিটি এবং রাত ১০টায় 'ক্যামেলিয়া' ফেরিটি শিমুলিয়ার উদ্দেশে বাংলাবাজার ঘাট ছেড়ে যায়।

বিআইডব্লিউটিসির বাংলাবাজার ফেরিঘাটের ব্যবস্থাপক মো. সালাহউদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আমরা কর্তৃপক্ষের নির্দেশে সীমিত পরিসরে ফেরি চালু করেছি। এ পর্যন্ত দুটি ফেরি ঘাট ছেড়ে গেছে। আবহাওয়া স্বাভাবিক থাকলে ফেরি চলাচল করবে।'

আরও পড়ুন:
ফেরি ঘাটে কমছে না জনস্রোত
যাত্রীবোঝাই ফেরি ভিড়ছে শিমুলিয়ায়
ঈদ শেষে কেউ ফিরছে, কেউ যাচ্ছে বাড়ি
ঘাটে চাপ আছে, নেই জট
অ্যাম্বুলেন্সের জন্য মন গলেনি কেবল হাওলাদারের

শেয়ার করুন

মন্তব্য