ছাত্রদের বলাৎকারের স্বীকারোক্তি মাদ্রাসা শিক্ষকের

আদালতে স্বীকারোক্তি

চট্টগ্রামে দুই ছাত্রকে বলাৎকার মামলায় গ্রেপ্তার মাদরাসা শিক্ষক আজিজ আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানার ওসি জানান, দুই ছাত্রকে মাদ্রাসা শিক্ষক আজিজ বলাৎকার করেছিলেন। ছাত্ররা বিষয়টি তাদের অভিভাবককে জানায়। এক অভিভাবকের মামলায় পুলিশ বুধবার রাতে মাদ্রাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।

চট্টগ্রাম নগরীতে দুই ছাত্রকে বলাৎকার মামলায় গ্রেপ্তার মাদ্রাসা শিক্ষক আজিজুর রহমান আজিজ আদালতে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন।

মহানগর হাকিম আদালতে বৃহস্পতিবার বিকেলে আজিজ এই জবানবন্দি দেন।

পাহাড়তলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান ইমাম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নগরীর পাহাড়তলী থানা এলাকার আব্দুল আলী নগরে মাদরাসায় বুধবার রাতে অভিযান চালিয়ে ওই শিক্ষককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

২৬ বছর বয়সী আজিজ কক্সবাজারের উখিয়ার বটতলী গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পাহাড়তলীর দারুস সুন্নাহ আল ইসলামিয়া মাদরাসার হেফজ বিভাগের শিক্ষক।

তার বিরুদ্ধে এক ছাত্রের অভিভাবক নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে পাহাড়তলী থানায় মামলা করেন বলে জানিয়েছেন ওসি।

হাসান ইমাম জানান, দুই ছাত্রকে আজিজ বলাৎকার করছিলেন। সম্প্রতি ছাত্ররা বিষয়টি তাদের অভিভাবককে জানায়। অভিভাবকদের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে পুলিশ বুধবার রাতে ওই মাদ্রাসায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে।

ওসি বলেন, ভুক্তভোগী ছাত্ররা জানিয়েছে, আজিজ পরকালের ভয় দেখিয়ে ছাত্রদের বলাৎকার করত। বিভিন্ন মিথ্যা ফতোয়া দিয়ে অভিভাবকদের আস্থাও অর্জন করেছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন:
ছাত্র বলাৎকার: মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেপ্তার
রোজায় বলাৎকার, ঈদ শেষে মাদ্রাসায় যেতে অনীহা ছাত্রদের
মাদ্রাসাছাত্রকে বলাৎকারের অভিযোগ, শিক্ষক গ্রেপ্তার
বলাৎকার: ৯৯৯ এ কলে কওমি শিক্ষক গ্রেপ্তার
শিশু বলাৎকারের অভিযোগে নরসুন্দর গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য