মাদক সেবনে বাধা, গৃহবধূর আঙুল কর্তন

মাদক সেবনে বাধা, গৃহবধূর আঙুল কর্তন

সোমবার বিকেলে সিদ্দিক কাজ শেষে বাড়ি ফিরে তার ভাইয়ের বাড়িতে বহিরাগতদের দেখতে পেয়ে ডাক দিলে কুদ্দুস ক্ষিপ্ত হন। তিনি বহিরাগতদের নিয়ে সিদ্দিক ও তার স্ত্রী ময়না বেগমের ওপর দা, বঁটি নিয়ে হামলা চালান। এতে ময়না বেগমের হাতের একটি আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সিদ্দিকও গুরুতর আহত হন।

ভোলার বোরহানউদ্দিনে মাদক সেবনে বাধা দেয়ায় ময়না বেগম নামে এক গৃহবধূর আঙুল কেটে নেয়ার অভিযোগ উঠেছে মো. কুদ্দুস নামের এক মাদকসেবীর বিরুদ্ধে। তার হামলায় ওই গৃহবধূর স্বামী সিদ্দিকও আহত হন।

সোমবার বোরহানউদ্দিন উপজেলার টগবি ইউনিয়নের ৯ নং ওর্য়াড মুলাই পরতণ নামক এলাকার আহম্মদ আলী হরাজী বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, সিদ্দিক ও কুদ্দুস আপন ভাই। কুদ্দুস তার বাড়িতে বাইরের লোকজন নিয়ে মাদক সেবনে প্রায়ই লিপ্ত থাকেন। এতে বড় ভাই সিদ্দিক ক্ষুব্ধ হন এবং একাধিকবার কুদ্দুসকে বাধা দেন।

সোমবার বিকেলে সিদ্দিক কাজ শেষে বাড়ি ফিরে তার ভাইয়ের বাড়িতে বহিরাগতদের দেখতে পেয়ে ডাক দিলে কুদ্দুস ক্ষিপ্ত হন। তিনি বহিরাগতদের নিয়ে সিদ্দিক ও তার স্ত্রী ময়না বেগমের ওপর দা, বঁটি নিয়ে হামলা চালান। এতে ময়না বেগমের হাতের একটি আঙুল বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সিদ্দিকও গুরুতর আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য ভোলা সদর হাসপাতালে নিয়ে আসেন। আহত সিদ্দিক ও ময়না ভোলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

কুদ্দুসের বাবা রফিজল হক বলেন, ‘আমার ছোট ছেলেকে একাধিকবার মাদক সেবনে বাধা দেয়া হয়েছে। তাকে নিয়ে চেয়ারম্যানের কাছে অনেকবার সালিশ হয়েছে। তারপরও তার কোনো উন্নতি হয়নি। আজকে আবার এই ঘটনা করেছে।’

এ বিষয়ে অভিযুক্ত কুদ্দুসের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলেও তিনি সাড়া দেননি।

এ বিষয়ে বোরহানউদ্দিন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল আমিন বলেন, ‘এ ঘটনায় এখনও কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

আরও পড়ুন:
মদসহ ১৭ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার
২১ কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার এক
স্কুলশিক্ষকসহ ৩ মাদক কারবারি গ্রেপ্তার
মাদক মামলার আসামি গ্রেপ্তার
ইয়াবাসহ ৪ যুবক গ্রেপ্তার

শেয়ার করুন

মন্তব্য