গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, স্বামী পলাতক

গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার, স্বামী পলাতক

প্রতীকী ছবি

‘রোববার দুপুরের পর রুনু ও মামুনের মোবাইলে অনেকবার কল দিই। কিন্তু তাদের ফোন বন্ধ পাই। পরে ইউপি সদস্যকে নিয়ে রুনুর ভাড়া বাসায় গিয়ে দেখি ঘরের মাঝে রুনুর মরদেহ পড়ে রয়েছে। পরে মাহমুদ হাসান পুলিশকে খবর দেয়।’

খুলনা নগরীর খানজাহান আলী থানায় ঘর থেকে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঘটনার পর থেকে খোঁজ পাওয়া যায়নি তার স্বামীর।

থানার আটরা গিলাতলা ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ভাড়া বাড়ি থেকে রোববার রাত ১০টার দিকে ওই নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

তার নাম খাদিজা আক্তার রুনু।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মাহমুদ হাসান জানান, নগরীর ডুমুরিয়ার এলাকার মো. মামুনের সঙ্গে প্রায় ১২ বছর আগে বিয়ে হয় রুনুর। তাদের কোনো সন্তান নেই। তারা মাত্তমডাঙ্গার মিরাজের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। মামুন সিএনজিচালিত অটোরিকশার চালক।

খাদিজার মা আমেনা বেগম বলেন, ‘রোববার দুপুরের পর রুনু ও মামুনের মোবাইলে অনেকবার কল দিই। কিন্তু তাদের ফোন বন্ধ পাই। পরে ইউপি সদস্যকে নিয়ে রুনুর ভাড়া বাসায় গিয়ে দেখি ঘরের মাঝে রুনুর মরদেহ পড়ে রয়েছে। পরে মাহমুদ পুলিশকে খবর দেয়।’

বাড়ির মালিক মেরাজ জানান, রুনু ও মামুনের মধ্যে প্রায়ই কলহ লেগে থাকত।

খানজাহান আলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রবীর কুমার বিশ্বাস জানান, রুনুর মুখে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঘটনার পর থেকে মামুন পলাতক।

মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
খিলগাঁওয়ে যৌতুক দাবিতে গৃহববধূকে হত্যার অভিযোগ
গৃহবধূর মৃত্যু: শ্বশুর-শাশুড়ি গ্রেপ্তার
গরুর গুতোয় গৃহবধূর মৃত‍্যু
প্রবাসীর স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার
মৃত তরুণীর মুখে বিষ, আত্মগোপনে শ্বশুর বাড়ির সবাই

শেয়ার করুন

মন্তব্য