যাত্রীবোঝাই বাসে ভাড়া কয়েক গুণ

বরিশালে সামাজিক দূরত্ব ছাড়াই যাত্রী তোলা হচ্ছে বাসে। ছবি: নিউজবাংলা

যাত্রীবোঝাই বাসে ভাড়া কয়েক গুণ

সরেজমিনে দেখা যায়, আন্তজেলা রুটের বাসগুলোই মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত যাত্রী পরিবহন করছে। কোনো বাসে ৬০০ টাকা আবার কোনো বাসে যাত্রীপ্রতি ৮০০ টাকা ভাড়া রাখা হচ্ছে।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাস চলাচলের নির্দেশনা থাকলেও সেটি উপেক্ষিত হচ্ছে বরিশালে। যাত্রী বোঝাই করে বাস চলাচল করলেও ভাড়া রাখা হচ্ছে কয়েক গুণ। আন্তজেলা রুটে বাস চলাচলের নির্দেশনা থাকলেও চলছে দূর পাল্লার রুটে।

শনিবার বিকেলে বরিশাল কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল নথুল্লাবাদে গিয়ে দেখা যায়, আন্তজেলা রুটের বাসগুলোই যাত্রী পরিবহন করছে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ফেরিঘাট পর্যন্ত। কোনো বাসে ৬০০ টাকা আবার কোনো বাসে যাত্রীপ্রতি ৮০০ টাকা ভাড়া রাখা হচ্ছে।

নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক পরিবহন শ্রমিক জানান, বরিশাল থেকে পাঁচ দিন ধরে মাওয়া রুটে যাতায়াত শুরু করেছে আন্তজেলা রুটের বাসগুলো।

পারিবারিক কাজে ঢাকা যাচ্ছিলেন বরিশালের কলেজ রোড এলাকার বাসিন্দা সাইফুল নহর পলাশ। টার্মিনালে এসে প্রথমে থ্রি হুইলার পেলেও পরে দেখেন সব বাসই চলাচল করছে।

তিনি বলেন, ‘মাওয়া যাওয়ার জন্য লোকাল বাসে ৬০০ টাকা ভাড়া চুক্তিতে উঠি। ঠেলে বাসের ভেতরে ঢোকানো হলে দেখি আরেক কাণ্ড। যেখানে প্রতি দুই সিটে একজন বসার কথা, সেখানে বসছে দুজন করে। এ ছাড়া অনেকে দাঁড়িয়েও ছিলেন।’

করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী, দূরপাল্লার রুটের বাস চলাচল বন্ধ থাকার কথা। অথচ নথুল্লাবাদ স্ট্যান্ড থেকে বাস ছাড়ছে স্বাভাবিকভাবেই।

বরিশাল থেকে মাওয়া রুটের বিএমএফ পরিবহন কাউন্টারের সামনে গিয়ে যাত্রীদের ভিড় দেখা গেল। প্রতি টিকিট বিক্রি হচ্ছে ৫০০ টাকায়।

যাত্রী আওলাদ হোসেন বলেন, ‘এমনে ভাড়া ২২০ টাকা। এখন ভাড়া দেয়া লাগতেছে ৫০০ টাকা। ভাড়া ডাবল দিছি, তবে সিট তো পুরো একা পাই নাই।’

তিনি বলেন, ‘আমার পাশে আরও একজন আছে। এমন দুর্ভোগ তো হওয়ার কথা না। বাসশ্রমিকদের খামখেয়ালিতে এমনটা হচ্ছে।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক বাসমালিক বলেন, ‘টানা লকডাউন থাকায় পরিবহন শ্রমিকদের অবস্থা খুবই খারাপ। আমাদের লোকাল বাসগুলো ঈদের আগে-পরে মাদারীপুর বাস মালিক সমিতির সঙ্গে কন্ট্যাক্ট করে বরিশাল টু মাওয়া রুটে যাত্রী পরিবহন করছে।’

যাত্রীবোঝাই বাসে ভাড়া কয়েক গুণ
সরকারি নির্দেশনা উপেক্ষা করে যাত্রী বসানো হয়েছে প্রতি সিটে। ছবি: নিউজবাংলা

তিনি বলেন, ‘শ্রমিকদেরও তো বাঁচতে হবে। আমাদের বাসমালিকদের অবস্থাও খুব খারাপ। আয়-ইনকাম না থাকায় মাওয়া রুটে বাস চলাচল করাতে হচ্ছে। স্বাভাবিকের তুলনায় সামান্য বেশি ভাড়া নেয়া হচ্ছে।’

বরিশাল আন্তজেলা রুটের একটি বাসের চালক আলিম তালুকদার বলেন, ‘আমরা তো অনেক দিন বাস চালাইন্না বন্ধ রাখছি। মোগো ১৪ রুটে গাড়ি চালাইতাম। তয় মোগো সামনে দিয়া সিএনজি, মাহিন্দ্রা, অ্যাম্বুলেন্স আর মাইক্রোবাসে কইরা যাত্রী মাওয়া নেতে আছে।’

তিনি বলেন, ‘হেরা জনপ্রতি ২২০ থেকে ২৫০ টাকার ভাড়া রাখতে আছে ৭০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত। আমরা কী শুধু দেখমু আর না খাইয়া থাকমু?’

আলিম তালুকদার আরও বলেন, ‘লোকাল রুটে এহন যাত্রী নাই। তাই মালিকগো লগে কথা কইয়া বাস মাওয়ায় চালাইতে আছি। ভাড়া বেশি নেই না, মানে দু-এক শ টাকা বেশি নিই। আমাগোও তো পোষান লাগবে।’

আরেকটি বাসে চালকের সহযোগী হিসেবে কাজ করা রবিউল ইসলাম বলেন, ‘গাদাগাদি কইরা কাউরেই বওয়ান হয় না। হেরা হেগো মতো বয়। মোরা বাস চালাইলেই সমস্যা খালি, হেয়া ছাড়া তো সমস্যা নাই।’

বাস চলাচ‌লের বিষ‌য়ে ব‌রিশাল জেলা বাস মা‌লিক গ্রু‌পের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মাস‌রেক বাবলু ব‌লেন, ‘আন্তরু‌টের বাস লং রু‌টে চলাচল ক‌রে না। এ রকম কিছু ঘটলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হ‌বে।’

ব‌রিশাল মে‌ট্রোপ‌লিটন পু‌লি‌শের ট্রা‌ফিক বিভা‌গের উপক‌মিশনার জা‌কির আলম মজুমদার ব‌লেন, ‘পু‌লি‌শের তদার‌কি র‌য়ে‌ছে। বিষয়‌টি খ‌তি‌য়ে দেখা হ‌বে।’

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

মন্তব্য

৪০ হাজার ইয়াবাসহ আটক রোহিঙ্গা যুবক

৪০ হাজার ইয়াবাসহ আটক রোহিঙ্গা যুবক

ইয়াবাসহ বিজিবির হাতে আটক রোহিঙ্গা যুবক। ছবি: সংগৃহীত

বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার কুলালপাড়া নামক জায়গায় স্থানীয় আব্দুল হকের বাড়িতে ইয়াবার একটি বড় চালান লুকানো আছে।

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ- বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের অভিযানে এক রোহিঙ্গা যুবক ৪০ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক হয়েছে। আটক রোহিঙ্গা শরনার্থীর যুবকের নাম আয়াছ উদ্দিন।

বিজিবির টেকনাফ ব্যাটালিয়নের লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানা যায়, টেকনাফ উপজেলার জালিয়াপাড়া এলাকার কুলালপাড়া নামক জায়গায় স্থানীয় আব্দুল হকের বাড়িতে ইয়াবার একটি বড় চালান লুকানো আছে।

মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে টেকনাফ ব্যাটালিয়ন (২ বিজিবি) সদর থেকে একটি টহলদল সেখানে পৌঁছে বাড়িটি তল্লাশি করে।

বিজিবি জানায়, তল্লাশির সময় বাড়িতে থাকা ওই রোহিঙ্গা যুবক আয়াছকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, ইয়াবা চালান সংগ্রহের জন্যই তিনি ওই বাড়িতে যান। পরে তার তথ্যে সে বাড়ি থেকে ৪০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

সেই সঙ্গে ইয়াবা বিক্রির ২০ হাজার টাকাও জব্দ করে বিজিবি।

বুধবার মামলা করে আসামিকে থানা-পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ

চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের দুই পক্ষে সংঘর্ষ

চট্টগ্রামে ছাত্রলীগের সংঘর্ষে আহত একজন। ছবি: নিউজবাংলা

মেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই শীলব্রত বলেন, ‘বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন আহত হয়েছে। দুপুর পৌনে ২টার দিকে তাদের চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।’

প্রভাব বিস্তারকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম কলেজে সংঘর্ষে জড়িয়েছে শাখা ছাত্রলীগের দুই পক্ষ। এতে দুই শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন।

বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ক্যাম্পাস সংলগ্ন কেয়ারি শপিংমলের সামনে সংঘর্ষে জড়ায় কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদুল করিম ও সাধারণ সম্পাদক সুভাষ মল্লিকের পক্ষ।

আহত দুই শিক্ষার্থী হলেন ইংরেজী বিভাগের স্নাতক শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ আল সাইমুন এবং ডিগ্রী শেষ বর্ষের শিক্ষার্থী আবদুল মালেক রুমি। তাদের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

চমেক হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শীলব্রত বড়ুয়া নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে দুইজন আহত হয়েছে। দুপুর পৌনে ২টার দিকে তাদের চমেক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।’

চকবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কী নিয়ে সংঘর্ষ, কাদের মধ্যে সংঘর্ষ এখনও বুঝতে পারছি না। ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এখন সবকিছু স্বাভাবিক আছে।’

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা, গ্রেপ্তার ১

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা, গ্রেপ্তার ১

প্রতীকী ছবি

ওই তরুণীর পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, সকালে ওই ব্যক্তি পরিবারের অন্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে তার প্রতিবেশী ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে ওই তরুণী আওয়াজ করলে ও লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই ব্যক্তি সটকে পড়েন।

খুলনা মহানগরীতে এক শারীরিক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে সোনাডাঙ্গা থানার পুলিশ। পরে তার বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার মামলা করা হয় এবং তাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়।

আটক ব্যক্তি সোনাডাঙ্গার ময়লাপোতা এলাকার একটি বস্তির বাসিন্দা।

বুধবার সকালে ওই তরুণীর স্বজনদের অভিযোগের পর পুলিশ তাকে আটক করে। সোনাডাঙ্গা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মমতাজুল হক বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন।

ওই তরুণীর পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, সকালে ওই ব্যক্তি পরিবারে অন্য সদস্যদের অনুপস্থিতিতে তার প্রতিবেশী ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। পরে ওই তরুণী আওয়াজ করলে ও লোকজনের উপস্থিতি টের পেয়ে ওই ব্যক্তি সটকে পড়েন।

ওসি মমতাজুল বলেন, ‘ওই তরুণীর পরিবারের লোকজন থানায় অভিযোগ করলে পুলিশ ওই ব্যক্তিকে আটক করে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত ব্যক্তির বিরুদ্ধে ধর্ষণচেষ্টার মামলা করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

বাসচাপায় প্রাণ গেল মোটরসাইকেল আরোহীর

বাসচাপায় প্রাণ গেল মোটরসাইকেল আরোহীর

সাভারে বাসচাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

সাভারে বাসচাপায় মৃত্যু হয়েছে এক বাইকচালকের। আশুলিয়ায় রাস্তা পার হওয়ার সময় প্রাণ গেছে গৃহপরিচারিকার।

সাভারে বাসচাপায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছেন।

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের নবীনগর বাসস্ট্যান্ডের সেনা শপিং কমপ্লেক্সের সামনে ফুটওভার ব্রিজের নিচে বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম জাহিদুল ইসলাম, তার বাড়ি রাজধানীর হাজারীবাগে।

নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন সাভার হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাজ্জাদ করিম।

তিনি বলেন, দুপুর ১২টার দিকে নবীনগর বাসস্ট্যান্ডের ওই ওভারব্রিজের নিচে একটি অজ্ঞাত বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই বাইকচালকের মৃত্যু হয়।

মরদেহ ও দুর্ঘটনাকবলিত বাইকটি সাভার হাইওয়ে থানায় নেয়া হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, জাহিদ কোনো বাইক রাইডার গ্রুপের সদস্য।

ওসি সাজ্জাদ আরও জানান, বাসটি শনাক্তের চেষ্টা চলছে। নিহতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হচ্ছে।

এদিকে, সাভারেই পিকআপ ভ্যানের চাপায় এক গৃহপরিচারিকার মৃত্যু হয়েছে।

টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের মরাগাং এলাকায় বুধবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত সুজাতা রানী বর্মন নওগাঁ জেলার নেয়ামতপুর থানার সদায় বর্মনের স্ত্রী। তিনি তুরাগ এলাকায় থেকে বাসাবাড়িতে কাজ করতেন।

আশুলিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সুদীপ কুমার গোপ নিউজবাংলাকে জানান, সকালে মরাগাং এলাকায় সড়ক পার হচ্ছিলেন সুজাতা। এ সময় একটি দ্রুতগতির পিকআপ ভ্যান তাকে চাপা দিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। পরে মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেয়া হয়।

মরদেহ দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য রাজধানীর শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

মামাকে হত্যার অভিযোগে আটক ভাগ্নে

মামাকে হত্যার অভিযোগে আটক ভাগ্নে

জয়পুরহাটে ভাগ্নের ছুরিকাঘাতে মামা নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

পরিবারের বরাত দিয়ে ওসি জানান, রাজু তার মামা মোস্তাককে কিছু টাকা ধার দেন। ওই টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রাজু ঘর থেকে ধারালো ছুরি এনে মোস্তাককে এলোপাতারি কোপায়।

জয়পুরহাট পৌর শহরে পাওনা টাকার জন্য মামাকে খুন করেছেন ভাগ্নে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন একজন।

শহরের হারাইল এলাকায় বুধবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মোস্তাক হোসেন ওই এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। আহত ব্যক্তির নাম জিম হোসেন। তিনি মোস্তাকের আরেক ভাগ্নে।

ঘটনাস্থল থেকেই আটক করা হয়েছে মোস্তাকের ভাগ্নে রাজু আহম্মেদকে। তার বিরুদ্ধেই মোস্তাককে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। একই এলাকায় থাকতেন তারা।

পরিবারের বরাত দিয়ে জয়পুরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম আলমগীর জাহান জানান, রাজু তার মামা মোস্তাককে কিছু টাকা ধার দেন। ওই টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে রাজু ঘর থেকে ধারালো ছুরি এনে মোস্তাককে এলোপাতারি কোপায়।

এ সময় জিম তাকে বাঁচাতে গেলে রাজু তাকেও কোপায়।

ওসি আরও জানান, তাদের চিৎকারে এলাকাবাসী গিয়ে রাজুকে আটক করে পুলিশে দেয়। আহতদের উদ্ধার করে জয়পুরহাট জেলা আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করলে চিকিৎসক মোস্তাককে মৃত ঘোষণা বরেন।

গুরুতর আহত জিমকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

ফুলবাড়ী সীমান্তে করোনায় একজনের মৃত্যু

ফুলবাড়ী সীমান্তে করোনায় একজনের মৃত্যু

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আবেদের বাড়ি বাংলাদেশে হলেও তার শ্বশুরবাড়ি সীমান্তের ওপারে ভারতের সাহেবগঞ্জ থানার সেউটি-২ গ্রামে। শ্বশুরবাড়ির লােকজন সব সময় আবেদের বাড়িতে যাতায়াত করে।

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীর সীমান্তে করোনায় আক্রান্ত এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

রংপুর মেডিক্যালের করােনা ইউনিটে বুধবার সকালে সাড়ে ৭টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ওই রোগীর নাম আবেদ আলী। ফুলবাড়ী সদর ইউনিয়নের নাখারজান এলাকার আন্তর্জাতিক মেইন পিলার-৯৪১-এর পাশে তার বাড়ি।

আবেদের ছেলে মমিন জানান, তার বাবা অসুস্থ হলে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের করােনা ইউনিটে ভর্তি করা হয়। সেখানে ১৩ দিন ধরে চিকিৎসা নিচ্ছিলেন তিনি।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, আবেদের বাড়ি বাংলাদেশে হলেও তার শ্বশুরবাড়ি সীমান্তের ওপারে ভারতের সাহেবগঞ্জ থানার সেউটি-২ গ্রামে। শ্বশুরবাড়ির লােকজন সব সময় আবেদের বাড়িতে যাতায়াত করে।

আবেদের করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়রা এলাকায় ভারতীয় লোকজনের আসা-যাওয়া ঠেকাতে সীমান্তে প্রশাসনের নজরদারী বাড়ানোর দাবি জানান।

ফুলবাড়ী হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, গত দুই সপ্তাহে সেখানে এক শিশুসহ করােনা শনাক্ত হয়েছে ১১ জনের।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুমন দাস জানান, ভারতীয় ব্যক্তিদের সংস্পর্শে থাকার কারণে আবেদের করোনা হতে পারে। আর সীমান্ত এলাকায় করোনা নিয়ে সচেতনতাও কম।

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন

নাটোরে দুই পৌর এলাকায় চলছে কঠোর লকডাউন

নাটোরে দুই পৌর এলাকায় চলছে কঠোর লকডাউন

জেলার সিভিল সার্জন কাজী মিজানুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, করোনা সংক্রমণ বাড়ার কারণে নাটোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৯টি শয্যা বাড়িয়ে ৫০টি করা হলেও রোগীর চাপ সামলানো যাচ্ছে না। বুধবার সকাল পর্যন্ত ৫২ জন রোগী ভর্তি আছেন করোনা ইউনিটে। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা সংক্রমণ কমছে না।

নাটোরে দুটি পৌর এলাকায় চলছে দ্বিতীয় দফায় লকডাউন।

আগামী সাত দিনের এই লকডাউনের প্রথম দিন বুধবার সকাল ৬টা থেকেই প্রশাসনিক তৎপরতা শুরু হয়েছে। অপ্রয়োজনে সাধারণ মানুষকে ঘরের বাইরে বের না হতে এবং মাস্ক পরা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে চালানো হচ্ছে প্রচার।

এর আগে, সপ্তাহব্যাপী নাটোরের সিংড়া ও নাটোর পৌরসভা এলাকায় কঠোর বিধিনিষেধ দিলেও করোনা সংক্রমণ ও আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা কমেনি। তাই দ্বিতীয় দফায় আরও সাত দিনের কঠোর লকডাউন ঘোষণা করে জেলা প্রশাসন।

জেলার সিভিল সার্জন কাজী মিজানুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, করোনা সংক্রমণ বাড়ার কারণে নাটোর সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ১৯টি শয্যা বাড়িয়ে ৫০টি করা হলেও রোগীর চাপ সামলানো যাচ্ছে না। বুধবার সকাল পর্যন্ত ৫২ জন রোগী ভর্তি আছেন করোনা ইউনিটে। স্বাস্থ্যবিধি না মানায় করোনা সংক্রমণ কমছে না।

তিনি বলেন, ‘প্রশাসনের অভিযানের পাশাপাশি সাধারণ মানুষকে সচেতন হতে হবে। আর তা না হলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে পারে। প্রতিদিনই হাসপাতালের করোনা ইউনিটে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। আজকে করোনা শনাক্ত ও আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর কোনো ফলাফল জেলা সিভিল সার্জন অফিসে এসে পৌঁছায়নি। মঙ্গলবার নাটোর পৌর এলাকায় আক্রান্তের হার ছিল ৬৫ শতাংশ। সিংড়ায় এই হার ছিল ৪৬ শতাংশ।’

সিভিল সার্জন জানান, মঙ্গলবার ২৪ ঘণ্টায় জেলায় ২৮৮টি নমুনা পরীক্ষায় ১২০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই হিসাবে শনাক্তের হার ৪১ শতাংশ। জেলায় এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে ৩৯ জন মারা গেছেন। ১৫ জুন পর্যন্ত জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৫ জন।

পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা জানান, কঠোর লকডাউন মানার জন্য শহরের সবগুলো প্রবেশপথে পুলিশের চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ শহরে প্রবেশ করতে এবং শহর থেকে কেউ বাইরে বের হতে পারবেন না।

নাটোর জেলা প্রশাসক মো. শাহরিয়াজ জানান, করোনা সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতির কারণে দ্বিতীয় দফার লকডাউনে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটরা মনিটরিং করছেন। কেউ স্বাস্থ্যবিধি না মানলে তাকে আইনের আওতায় নেয়া হচ্ছে। প্রথম দফার লকডাউন সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছে, এবারের লকডাউনও সফল হবে।

আরও পড়ুন:
গণপরিবহন চালুতেই সমাধান দেখছেন বিশেষজ্ঞরা
ফ্যামিলিকে কীভাবে পালব
সন্ধ্যা হলেই ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস
৫০০০ কোটি টাকা প্রণোদনা দাবি পরিবহন মালিক-শ্রমিকদের
শহরে বাস নামানোর প্রস্তুতি, স্বস্তির সঙ্গে আছে হতাশাও

শেয়ার করুন