বৃষ্টি চেয়ে নামাজ, আহাজারি

বৃষ্টির জন্য বিশেষ নামাজের এই ছবি নোয়াখালীর। ছবি: নিউজবাংলা

বৃষ্টি চেয়ে নামাজ, আহাজারি

‘বৃষ্টি না হওয়ায় খাল-পুকুর-মাঠঘাট সব শুকিয়ে রয়েছে। খালের জমিতে ফাটল ধরেছে। আল্লাহ সবকিছুর মালিক। এ জন্য নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে রহমতের বৃষ্টির জন্য কেঁদেছি।’

বৃষ্টি চেয়ে ‘এস্তেস্কার’ নামাজ আদায় করা হয়েছে লক্ষ্মীপুর, খুলনা ও নোয়াখালীতে। তপ্ত রোদের মধ্যে মোনাজাতে বৃষ্টির জন্য মুসল্লিরা আহাজারি করেছেন। সবার কণ্ঠে ভেসে আসে রহমতের বৃষ্টি জন্য আবেদন।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার কুশাখালী ইউনিয়নের মুনছুর আহম্মদ বিদ্যালয়ের মাঠে শনিবার সকাল ১০টার দিকে নামাজ আদায় করেন দুই শতাধিক মুসল্লি। নামাজ শেষে দোয়া পরিচালনা করেন স্থানীয় চরমটুয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা আবু তাহের।

খুলনার দৌলতপুরের ঐতিহ্যবাহী দেয়ানা উত্তরপাড়া স্কুলমাঠে স্থানীয় মুসল্লিদের উদ্যোগে বিশেষ নামাজ আদায় ও দোয়া হয়। নামাজ পরিচালনা করেন দৌলতপুর বাজার জামে মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা মুফতি রশিদ আহমেদ। নামাজ শেষে মুসল্লিরা আল্লাহর নৈকট্য লাভের ও গুনাহ মাফের প্রার্থনায় কান্নায় ভেঙে পড়েন।

নোয়াখালী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের বোর্ড স্কুলসংলগ্ন আল ফালাহ এরিয়া মসজিদ চত্বরে শনিবার বেলা ২টার দিকে বৃষ্টির জন্য এই বিশেষ নামাজ আদায় করা হয়। এতে শতাধিক মুসল্লি অংশ নেন।

দেশের কয়েকটি জেলায় মাঝারি দাবদাহ চলছে। আর্দ্রতার পরিমাণ বেশি হওয়ায় গরমের অনুভূতিও বেশি।

আবহাওয়াবিদ আরিফ হোসেন শনিবার নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এখন যে গরম আছে, সেটি শিগগিরই কমবে না। কাল বা পরশু কমার কোনো সম্ভাবনা নেই। ২২ ও ২৩ মে একই রকম থাকবে। তবে এর চেয়ে গরম বাড়বে না। ২৪ তারিখের পর থেকে আশা করা যাচ্ছে তাপমাত্রা কমে যাবে, সঙ্গে বৃষ্টিপাতের পরিমাণ বাড়বে।’

বৃষ্টি চেয়ে নামাজ, আহাজারি


বৃহস্পতিবার আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, লঘুচাপের বর্ধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছে, যা উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত। রংপুর, রাজশাহী ও সিলেট বিভাগের কয়েক জায়গায় এবং কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলসহ ঢাকা ও খুলনা বিভাগের কিছু অঞ্চলে অস্থায়ীভাবে দমকা, ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।

মাঠে নামাজ শেষে কয়েকজন মুসল্লি বলেন, ‘কুশাখালীর অধিকাংশ মানুষ কৃষিকাজের সঙ্গে জড়িত। খালে পানি নেই। বৃষ্টি না হওয়ায় খাল-পুকুর-মাঠঘাট সব শুকিয়ে রয়েছে। খালের জমিতে ফাটল ধরেছে। আল্লাহ সবকিছুর মালিক। এ জন্য নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে রহমতের বৃষ্টির জন্য কেঁদেছি।’

কুশাখালী ইউনিয়নের ৮ নম্বর ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মো. করিম বলেন, ‘দুই শতাধিক মুসল্লির উপস্থিতে বৃষ্টির জন্য নামাজ ও দোয়া করা হয়েছে। বৃষ্টি না হলে জমি আবাদ করা যাবে না। মাঠঘাট সব শুকিয়ে চৌচির হয়ে পড়েছে। আল্লাহর রহমতের আশায় সবাই যার যার অবস্থান থেকে দোয়া করছেন।’

লঘুচাপের বর্তমান অবস্থা

ভারতের উত্তর আন্দামান সাগর ও পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে, যে ঝড়ের নাম হবে ‘যশ’।

ঘূর্ণিঝড়টি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। সবশেষ উড়িষ্যা-পশ্চিমবঙ্গ হয়ে আগামী ২৬ মে বুধবার বাংলাদেশের খুলনা উপকূলে পৌঁছতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

আরিফ হোসেন বলেন, ‘যে লঘুচাপের কথা বলা হয়েছে, তা এখনও উৎপত্তি হয়নি। তবে এটার সম্ভাবনা রয়েছে। কাল (২২ মে) রাত বা পরশুদিন লঘুচাপ তৈরি হতে পারে। ২৪ মের দিকে একটা সাইক্লোন হতে পারে। এরপর ২৫ তারিখ মধ্যরাত বা ২৬ তারিখ সকাল নাগাদ এটা উপকূল অতিক্রম করবে। তবে সঠিকভাবে কোন উপকূল দিয়ে এটি অতিক্রম করবে, তা আর একটু সময় না গেলে বলা যাবে না। এটা হতে পারে উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গে প্রভাব ফেলতে পারে। আবার বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিম উপকূল দিয়েও বয়ে যেতে পারে।’

আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, আগামী বুধবার সকালের দিকেই পশ্চিম বাংলায় আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’। তার আগে মঙ্গলবার থেকেই উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে অল্প থেকে মাঝারি বৃষ্টিপাত শুরু হবে। ফাঁকা এলাকায় ঝোড়ো হাওয়ার সঙ্গে প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

এবার মাগুরা শহরে অনির্দিষ্টকালের লকডাউন

এবার মাগুরা শহরে অনির্দিষ্টকালের লকডাউন

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্প্রতি জেলায় করোনার সংক্রমণ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ায় মাগুরা শহরকে লকডাউন ঘোষণা করা হলো। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত লকডাউন চলবে।

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় দেশের বিভিন্ন এলাকার মতো এবার মাগুরা শহরে লকডাউন ঘোষণা করেছে স্থানীয় জেলা প্রশাসন।

জেলা প্রশাসক আশরাফুল আলম এক গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে সোমবার থেকে লকডাউনের ঘোষণা দেন।

গণবিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সম্প্রতি জেলায় করোনার সংক্রমণ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ায় মাগুরা শহরকে লকডাউন ঘোষণা করা হলো। পরবর্তী ঘোষণা না দেয়া পর্যন্ত লকডাউন চলবে।

এ সময় জরুরি পরিষেবা ছাড়া সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকবে। খাবার ও ওষুধের দোকান ছাড়া দোকানপাট ও শপিংমল সন্ধ্যা ছয়টার পর বন্ধ থাকবে।

জেলা সিভিল সার্জনের অফিস জানিয়েছে, গত এক সপ্তাহে মাগুরায় ৩৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে, যাদের অধিকাংশ জেলার পৌর এলাকার।

বর্তমানে বাড়িতে আইসোলেশনে আছে ৫৮ জন। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন পাঁচজন।

এ পর্যন্ত জেলায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৩০৯ জনের দেহে। মৃত্যু হয়েছে ২৪ জনের।

মাগুরার সিভিল সার্জন শহীদুল্লাহ দেওয়ান নিউজবাংলাকে জানান, এক সপ্তাহ ধরে মাগুরায় করোনা পরিস্থিতি ভয়াবহ। স্বাস্থ্যবিধি না মানাটাই এর প্রধান কারণ। এ ছাড়া পাশেই সীমান্তবর্তী জেলা যশোরের কারণে বাড়তি সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিতে হচ্ছে।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

ক্যাম্প থেকে অপহৃত রোহিঙ্গা উদ্ধার

ক্যাম্প থেকে অপহৃত রোহিঙ্গা উদ্ধার

এপিবিএনের অভিযানে উদ্ধার মুজিবুল্লাহ। ছবি: নিউজবাংলা

শুক্রবার দুপুরে জাদিমুরা ক্যাম্প থেকে মুখোশ পরা ৮-৯ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি মুজিবুল্লাহকে জোরপূর্বক নেচারি পার্কের পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায়। খবর পাওয়ার পর থেকেই জাদিমুড়া এপিবিএন ক্যাম্পের সদস্যরা উদ্ধার অভিযান শুরু করেন।

কক্সবাজারের টেকনাফের জাদিমুড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অপহরণের এক দিন পর মুজিবুল্লাহ নামের একজনকে উদ্ধার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন)।

রোববার বেলা দুইটার দিকে হ্নীলার জাদিমুরা ২৭ নম্বর ক্যাম্পের সি-ব্লকের নেচারি পার্কসংলগ্ন এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন এপিবিএন-১৬-এর অধিনায়ক এসপি তারিকুল ইসলাম।

তিনি জানান, শুক্রবার দুপুরে জাদিমুরা ক্যাম্প থেকে মুখোশ পরা ৮-৯ জন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তি মুজিবুল্লাহকে জোরপূর্বক নেচারি পার্কের পাহাড়ের দিকে নিয়ে যায়। খবর পাওয়ার পর থেকেই জাদিমুড়া এপিবিএন ক্যাম্পের সদস্যরা উদ্ধার অভিযান শুরু করেন।

এপিবিএন কর্মকর্তা আরও জানান, রোববার দুপুর একটার দিকে সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে পার্ক এলাকা থেকে মুজিবুল্লাহকে উদ্ধার করা হয়। তিনি সুস্থ আছেন। পরিবারের জিম্মায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

দুই পক্ষের সংঘর্ষে সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্য নিহত

দুই পক্ষের সংঘর্ষে সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্য নিহত

প্রতীকী ছবি।

স্থানীয় ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সকালে বাড়ির পাশের পুকুরপাড়ে মাটি ফেলা নিয়ে প্রতিবেশী সুহেল ও কাইয়ুমের সঙ্গে শাহজাহান মিয়ার কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এতে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যান শাহজাহান মিয়া।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় দুই পক্ষের সংঘর্ষে শাহজাহান মিয়া নামের সাবেক সেনাসদস্য নিহত হয়েছেন।

উপজেলার মনিয়ন্দ ইউনিয়নের মনিয়ন্দ গ্রামে রোববার সকালে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত শাহজাহান মনিয়ন্দ গ্রামের পূর্বপাড়ার মৃত সামসু মিয়ার ছেলে। তিনি বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৩ বেঙ্গলের করপোরাল ছিলেন।

স্থানীয় ও পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, সকালে বাড়ির পাশের পুকুরপাড়ে মাটি ফেলা নিয়ে প্রতিবেশী সুহেল ও কাইয়ুমের সঙ্গে শাহজাহান মিয়ার কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধস্তাধস্তি হয়। এতে শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যান শাহজাহান মিয়া।

নিহতের নাতি সাইফুল ইসলাম বলেন, ‘গতকাল পুকুরপাড়ে মাটি ফেলা নিয়ে তার দাদা শাহজাহানের সঙ্গে সুহেল ও কাইয়ুমের তর্কাতর্কি হয়। পরে আজ সকালে সুহেল ও কাইয়ুমের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে নিহত হন শাহজাহান মিয়া। আমি এই হত্যার বিচার চাই।’

আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি ধস্তাধস্তিতে শাহজাহান মিয়ার মৃত্যু হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন ও তদন্তের পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

ট্রাকের ধাক্কায় নারী শ্রমিকের মৃত্যু

ট্রাকের ধাক্কায় নারী শ্রমিকের মৃত্যু

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম জানান, হাসনা কাজে যাওয়ার সময় রাস্তা পার হতে গিয়ে দ্রুতগামী ট্রাকের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মারা যান।

নাটোরের বড়াইগ্রামে ট্রাকের ধাক্কায় অটোরাইস মিলের শ্রমিক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ট্রাকচালককে আটক করেছে হাইওয়ে পুলিশ।

উপজেলার গড়মাটি এলাকায় রোববার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

৪৭ বছর বয়সী নিহত হাসনা বেগমের বাড়ি বড়াইগ্রাম উপজেলার গড়মাটি গ্রামে। তিনি অটোরাইস মিলের শ্রমিক ছিলেন।

বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে জানান, হাসনা কাজে যাওয়ার সময় রাস্তা পার হতে গিয়ে ট্রাকের ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মারা যান। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এ ঘটনায় ট্রাকচালক শিবলু প্রামাণিককে আটক করা হয়েছে। তবে চালকের সহকারী পালিয়ে গেছে।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে বাড়ছে করোনা রোগীর চাপ

বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে বাড়ছে করোনা রোগীর চাপ

গত ১২ দিনে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৮ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৪ জন, সুস্থ হয়েছেন দুইজন। প্রতিদিনই আসছে রোগী, কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী শয্যা না থাকায় ভর্তি নিতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর চাপ বাড়ছে ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে।

গত ১২ দিনে হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৮ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৪ জন, সুস্থ হয়েছেন দুইজন। প্রতিদিনই আসছে রোগী, কিন্তু চাহিদা অনুযায়ী শয্যা না থাকায় ভর্তি নিতে পারছে না কর্তৃপক্ষ।

ফরিদপুরের সিভিল সার্জন ছিদ্দীকুর রহমান জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন এক ব্যক্তি। আর নতুন শনাক্ত হয়েছে ২২ জন। জেলায় এ পর্যন্ত ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১০ হাজার ৯০৯ জন, মারা গেছেন ১৮৮ ব্যক্তি।

তিনি জানান, শতকরা হিসাবে করোনা পরীক্ষায় পজিটিভের হার ২০ দশমিক ৮০, মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৭২ এবং সুস্থতার হার ৯৪ দশমিক ৬৬।

ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রেজিস্ট্রার বই থেকে জানা যায়, গত ১ জুন থেকে ১৩ জুন পর্যন্ত চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১৪ ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। যাদের মধ্যে ১১ জনই ৫০ ঊর্ধ্ব।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ১২ দিনে আইসিইউয়ে যারা মারা গেছেন তারা হলেন, ভাঙ্গার আমুদ আলী, রাজবাড়ীর শহিদুল রহমান ও আবুল হোসেন, বোয়ালমারীর রহিমা বেগম, শহরের ঝিলটুলির মোসলেমউদ্দিন ও এমএ মামুন, মাদারীপুরের মনোয়ারা বেগম ও নূরুল হক, গোয়ালন্দর খাদেজা বেগম, কালুখালীর রফিকুল ইসলাম, কানাইপুরের লাল মিয়া, গোপালগঞ্জের দুর্গা রানী, সালথার অঞ্জনা রানী ও চরভদ্রাসনের ইউসুফ হোসেন।

হাসপাতালের আইসিইউয়ে ১৬ শয্যা থাকলেও সচল রয়েছে ১৪টি। আইসিইউ ইনর্চাজ অনন্ত বিশ্বাস বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি দুই সপ্তাহ ধরে অবনতির দিকে। রোগীর চাপ বাড়ছে অনেক। কিছু দিন আগেও ওয়ার্ডে রোগী ছিল ৩/৪ জন। এখন সেখানে সিট ফাঁকা নেই।’

তিনি জানান, করোনার এই দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধরন আগের থেকে ভিন্ন। কারণ এখন আইসিইউয়ে ভর্তি হয়ে সুস্থতার হার একেবারেই কম। মারা যাচ্ছে বেশি এবং তাও আবার দ্রুত।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু

স্থায়ীয় লোকজন জানিয়েছে, দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে গ্রামের একটি পুকুরে গোসল করতে যায় শিশু দুটি। অনেক সময় পার হয়ে গেলেও বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন তাদের খোঁজাখুঁজি শুরু করে।

বগুড়ার গাবতলীতে পুকুরে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার ডিহি ডওর গ্রামের একটি পুকুর থেকে রোববার দুপুরে তাদের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

মৃত শিশুরা হলো ওই গ্রামের ৮ বছর বয়সী সৌরভ ও একই গ্রামের ৯ বছর বয়সী সোহান। তারা দুইজন প্রতিবেশী।

স্থায়ীয় লোকজন জানিয়েছে, দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে গ্রামের একটি পুকুরে গোসল করতে নামে তারা। অনেক সময় পার হয়ে গেলেও বাড়ি ফিরে না আসায় পরিবারের লোকজন তাদের খোঁজাখুঁজি শুরু করে।

পরে দুপুর ২টার দিকে পুকুরে নেমে সৌরভ ও সোহানের মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

গাবতলী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়া লতিফুল ইসলাম বলেন, কারো কোনো অভিযোগ না থাকায় দাফনের জন্য শিশু দুটির মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন

নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ

নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, হত্যার অভিযোগ

প্রতীকী ছবি।

শমসেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শাহ্ আলম জানান, রোববার ভোরে শমশেরনগর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের বাসিন্দা মঈনুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাসুক আলী পুলিশ ফাড়িঁতে খবর দিলে দুপুরে তারা মরদেহ উদ্ধার করে।

মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জের গোবিন্দপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে এক নারীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। রোববার দুপুর ১২টার দিকে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়।

ওই নারীর স্বামীর পরিবার বলছে, রান্না ঘরের আড়ার সঙ্গে উড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন তিনি। তবে মৃত নারীর ভাইয়ের দাবি, হত্যার পর মরদেহ ঝুলিয়ে রেখেছে তার স্বামী।

মৃত নারীর নাম দীপা চৌধুরী। ২৮ বছরের দীপা মুন্সিবাজার ইউনিয়নের বিক্রমকলস গ্রামের সাইফুল ইসলামের স্ত্রী।

শমসেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) শাহ্ আলম নিউজবাংলাকে জানান, রোববার ভোরে শমশেরনগর গোবিন্দপুরের বাসিন্দা মঈনুল ইসলামের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। শমশেরনগর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মাসুক আলী পুলিশ ফাড়িঁতে খবর দিলে দুপুরে তারা মরদেহ উদ্ধার করে।

সাইফুল ইসলামের বোন সেফি বেগম নিউজবাংলাকে জানান, রমজানের কয়েকদিন আগে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার পর, দীপাকে নিয়ে তার বাড়িতে থাকতে শুরু করেন সাইফুল। এ বাড়িতে দীপা তার সঙ্গে ঘুমাত। সকালে রান্না ঘরে তার মরদেহ দেখতে পান।

দীপার ভাই সুমন চৌধুরী নিউজবাংলাকে জানান, এটি দীপার দ্বিতীয় বিয়ে। আগের সংসারে অপু নামে ১৪ বছরের ছেলে আছে তার। সাইফুল ইসলামের সঙ্গে তার বোনের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠলে গত মার্চে তারা বিয়ে করেন। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে তাদের মধ্যে কলহ দেখা দেয়।

‘দীপার স্বামী সাইফুল পরকিয়ায় জড়িত। এ নিয়ে বাড়িতে তাদের মধ্যে কলহ দেখা দিলে সাইফুল দীপাকে নিয়ে তার বোনের বাড়িতে এনে রাখত। সেখানে দীপার ওপর নির্যাতন চালানো হত। কদিন আগেই দীপার ৫-৬ লাখ টাকার স্বর্ণ বিক্রি করে দেয় সাইফুল। আমার বোনকে হত্যা করা হয়েছে। শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।’

শমশেরনগর পুলিশ ফাঁড়ির উপ পরিদর্শক (এসআই) শাহ আলম নিউজবাংলাকে জানান, সুরতহাল শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। প্রতিবেদন আসার পর পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শমসেরনগর পুলিশ তদন্ত ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মোশাররফ হোসেন জানিয়েছেন, পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।

আরও পড়ুন:
তাপমাত্রায় স্বস্তি, বৃষ্টির অস্বস্তিতে কাটতে পারে ঈদ
বৃষ্টি হতে পারে ঈদের দিনও
সাত মাস পর বৃষ্টি এলো ‘আমের রাজধানীতে’
টানা তাপদাহের পর খুলনায় স্বস্তির বৃষ্টি
খোলা মাঠে দাঁড়িয়ে বৃষ্টির জন্য নামাজ

শেয়ার করুন