জীবিত করোনা রোগীকে মৃত দেখাল স্বাস্থ্য বিভাগ

জীবিত করোনা রোগীকে মৃত দেখাল স্বাস্থ্য বিভাগ

গত ১২ মে নমুনা পরীক্ষার প্রতিবেদনে উসমান গণি করোনা শনাক্ত হন। তারপর থেকে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৬০৭ নম্বর বেডে ভর্তি করা হয়। তিনি এখনও চিকিৎসাধীন।

চুয়াডাঙ্গায় করোনায় আক্রান্ত এক জীবিত ব্যক্তিকে মৃত দেখিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ। ঘটনা জানাজানি হলে একদিন পর তথ্যসূচি সংশোধন করা হয়। শোকজ করা হয় দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের পরিসংখ্যানবিদ শাহাজাহান আলীকে।

জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, দামুড়হুদা উপজেলার মুন্সিপুর গ্রামের ওসমান গণীর করোনা শনাক্ত হয় গত ১২ মে। ১৩ মে নিজ বাড়িতে আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় তার মৃত্যু হয়েছে উল্লেখ করে ১৮ মে তথ্যসূচি প্রকাশ করে স্বাস্থ্য বিভাগ।

উসমান গণীর ছেলে সাব্বির হোসেন জানান, তার বাবা এখনও জেলা সদর হাসপাতালের করোনা ইউনিটের ৬০৭ নম্বর বেডে ভর্তি আছেন। তার শারীরিক অবস্থাও উন্নতির দিকে।


জীবিত করোনা রোগীকে মৃত দেখাল স্বাস্থ্য বিভাগ


নিউজবাংলাকে সাব্বির বলেন, ‘বাবার মৃত্যুর খবর শুনে আমি তো অবাক হয়ে গেছি। আমি হাসপাতালে আমার বাবার দেখাশোনা করি। স্বাস্থ্য বিভাগের সঠিক তদারকি ও উদাসীনতার কারণেই এমনটি হয়েছে।

‘আমার বাবা এখন বেশ সুস্থ। দুই-একদিনের ভেতর হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেবে। দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সঠিক তথ্য যাচাই বাছাই না করেই এটি করেছে।’

এ বিষয়ে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য পরিবার ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল জানান, পরিসংখ্যানবিদ শাহাজাহান আলী যাচাই-বাছাই না করে কোনো অনুমতি বা স্বাক্ষর না নিয়ে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে ওই তথ্য পাঠিয়েছিলেন। বিষয়টি জানার পর অবশ্য রিপোর্টটি সংশোধন করা হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন এএসএম মারুফ হাসান জানান, ওই ঘটনায় পরিসংখ্যানবিদ শাহাজাহান আলীকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ

সোহেল তাজের সোমবারের ফেসবুক পোস্ট (বাঁয়ে) এবং এর আগে পরীমনিকে নিয়ে দেয়া স্ট্যাটাস।

উচ্ছৃঙ্খল আচরণকে নারী বা ব্যক্তিস্বাধীনতার সঙ্গে মিলিয়ে ফেললে ‘সমস্যা’ তৈরি হয় বলে মনে করছেন রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে নিশ্চুপ সোহেল তাজ। পরীমনির নাম উল্লেখ না করে ‘কিছু সেলিব্রেটির উচ্ছৃঙ্খল আচরণ’ নিয়ে ফের প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

সিগারেট হাতে পরীমনির ছবিতে আপত্তি জানিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ব্যাপক আলোচিত-সমালোচিত সোহেল তাজ এবার নিজের অবস্থান ব্যাখ্যা করেছেন। নিজেকে ‘ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী’ দাবি করে তিনি বলেছেন, একজন মানুষের অধিকার আছে নিজের ইচ্ছা অনুযায়ী ব্যক্তিগত জীবনযাপনের।

তবে পরীমনির নাম উল্লেখ না করে ‘কিছু সেলিব্রেটির উচ্ছৃঙ্খল আচরণ’ নিয়ে ফের প্রশ্ন তুলেছেন তিনি।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে সোমবার দুপুরে দেয়া এক স্ট্যাটাসে সোহেল তাজ লেখেন, ‘আমি বেক্তি (ব্যক্তি) স্বাধীনতায় বিশ্বাসী I (।) কে কি (কী) পোশাক পড়লো (পরল) বা ধূমপান করলো (করল) কি না (কিনা,) করলে এগুলো শুধু নারী স্বাধীনতাই না (,) বরং ব্যক্তিস্বাধীনতার কাতারে পরে (পড়ে,) আর তাই আমি মনে করি যে একজন মানুষের (নারী বা পুরুষ) অধিকার আছে তার নিজের পছন্দ মত (মতো) তার ব্যক্তিগত জীবন পরিচালনা করার I (।)’

তবে উচ্ছৃঙ্খল আচরণকে নারী বা ব্যক্তিস্বাধীনতার সঙ্গে মিলিয়ে ফেললে ‘সমস্যা’ তৈরি হয় বলে মনে করছেন রাজনীতিতে দীর্ঘদিন ধরে নিশ্চুপ সোহেল তাজ।

তিনি লিখেছেন, ‘সমস্যা হচ্ছে যখন আমরা উসৃঙ্খল (উচ্ছৃঙ্খল) আচরনকে (আচরণকে) নারী/ব্যক্তি স্বাধীনতার সাথে (সঙ্গে) মিলিয়ে ফেলি I (।) বাংলাদেশে যখন মাদক একটি বিরাট সমস্যা (,) যখন সোশ্যাল মিডিয়ার এডিকশন এর কারণে ছেলে মেয়েরা (ছেলে-মেয়েরা) মানুসিক ভাবে (মানসিকভাবে) আক্রান্ত হচ্ছে (ডিপ্রেশন) (,) তখন নতুন প্রজন্মের জন্য প্রয়োজন ইতিবাচক অনুপ্রেরণা (,) যা আমরা পাই অনুকরণীয় ব্যক্তিত্বদের জীবন থেকে- আর সেটা কখনোই সম্ভব হবে না যদি কিছু উসৃঙ্খল (উচ্ছৃঙ্খল) সেলিব্রিটিরা (সেলিব্রিটি) তাদের বেপরোয়া ব্যক্তি জীবনধারা তাদের সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে আমাদের নতুন প্রজন্মের উপর চাপিয়ে দেয় I (।)’

সোহেল তাজ মনে করেন, অনুপ্রেরণা আসে অনুকরণীয়দের কাছ থেকে। আর এ জন্যই পরীমনির ছবিটি নিয়ে তার আক্ষেপ।

আলোচিত অভিনেত্রীর নাম উল্লেখ না করে তিনি লিখেছেন, ‘আমাদের নতুন প্রজন্মের সামনে তুলে ধরতে হবে এমন ব্যক্তিত্বদের (,) যারা তাদের দৃঢ়ঢ়তা (দৃঢ়) মনোবল এবং আত্মবিশ্বাস কে (আত্মবিশ্বাসকে) কাজে লাগিয়ে সকল (সব) প্রতিকূলতা পার করে শুধু নারী অধিকারের লড়াই করেন নাই (করেননি,) বরং সকল (সব) মানুষের কল্যানে (কল্যাণে) কাজ করে গেছেন- (।) এনাদের (ওনাদের) ইতিবাচক কর্মের (কাজের) মধ্যে রেখে গেছেন নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা।’

(এখানে সোহেল তাজের ফেসবুক পোস্টের বানান হুবহু রেখে ও বাংলা একাডেমির বানান ব্র্যাকেটের ভেতর রাখা হয়েছে। এতে দেখা যায়, সোহেল তাজের পোস্টে বানান ও যতিচিহ্ন মিলিয়ে অন্তত ৩৬টি ভুল রয়েছে।)

ব্যক্তিস্বাধীনতায় বিশ্বাসী, তবে পরীমনি ‘উচ্ছৃঙ্খল’: সোহেল তাজ
সোহেল তাজের পোস্টে অসংখ্য ভুল বানান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে

এই পোস্ট দেয়ার সঙ্গে সঙ্গে ফের সমালোচনার মুখে পড়েছেন সোহেল তাজ। তার স্ট্যাটাসের মূল বক্তব্য ছাপিয়ে, বানান ভুলের বিষয়টি নজরে এনেছেন নেটিজেনরা।

প্রীতিলতা গুপ্ত নামের একজন কমেন্ট করেছেন, ‘আপনিও নতুন প্রজন্মের অনুসরণীয়। বানানগুলো শুদ্ধ লিখলে শ্রদ্ধার জায়গাটুকু অটুট থাকে। বাংলা তো আমাদেরই।’

উত্তরে সোহেল তাজ লিখেছেন, ‘তাড়াহুড়া করে লেখা হয়েছে- ঠিক মতো চেক করা হয় নাই I (।) কোন বানানে ভুল আছে ইকটু (একটু) বলে দিলে ভাল (ভালো) হয়।’

সোহেল তাজের উত্তরেও দেখা যায় ভুল বানান রয়েছে।

ঢাকাই চলচ্চিত্রের আলোচিত চিত্রনায়িকা পরীমনি বৃহস্পতিবার ফেসবুকে ধূমপানের ভঙ্গিমায় একটি ছবি পোস্ট করে লেখেন, সিগারেট স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

এর পরই বিষয়টির নিন্দা জানিয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন সোহেল তাজ।

তিনি লেখেন, ‘একজন সেলেব্রিটির কাছ থেকে এ রকম অশোভন আচরণ কাম্য নয়- আমাদের ছেলে মেয়েদের উপর নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে......’

এই স্ট্যাটাস নিয়ে ফেসবুকে সরব হয়ে ওঠেন নেটিজেনরা।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

নারীকে ছুরিকাঘাত, সাবেক স্বামী আটক

নারীকে ছুরিকাঘাত, সাবেক স্বামী আটক

হাসপাতালে আহত ফাহমিদাকে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ছবি: নিউজবাংলা

সদর হাসপাতালের চিকিৎসক সাজিদ হাসান জানান, ফাহমিদার দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গায় পূর্ব বিরোধের জেরে এক নারীকে ছুরিকাঘাতের অভিযোগে সাবেক স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ বলছে, পৌর এলাকার শেখপাড়ায় সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ওই হামলার ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দেয়।

আহত ফাহমিদা ফাইম শেখপাড়ার আবু কাউসার মধুর মেয়ে। আটক জসিম উদ্দিনের বাড়ি সদর উপজেলার আলুকদিয়া গ্রামে।

ফাহমিদার বাবা আবু কাউসার মধু জানান, বেশ কয়েক বছর আগে জসিমের সঙ্গে তার মেয়ের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে কলহ বাড়তে থাকে।

সম্পর্কের অবনতি হওয়ায় ১ বছর আগে তাদের বিচ্ছেদ হয়। কিন্তু এর পরও জসিম তার মেয়েকে নানাভাবে উত্যক্ত করত।

তিনি বলেন, ‘আজ হঠাৎ জসিম আমার বাড়িতে আসে। হঠাৎ মেয়ের ঘরে ঢুকে তাকে চাকু দিয়ে আঘাত করে। তার চিৎকারে ছুটে আসেন প্রতিবেশীরা। জসিমকে আটক করেন তারা। মেয়েকে ভর্তি করা হয় চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে।’

সদর হাসপাতালের চিকিৎসক সাজিদ হাসান জানান, ফাহমিদার দুই হাতসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মাসুদুর রহমান জানান, অভিযুক্ত জসিমকে আটক করা হয়েছে। তবে এখনও থানায় কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

নির্বাচনে জাতিসংঘের সহযোগিতা লাগবে না: তথ্যমন্ত্রী

নির্বাচনে জাতিসংঘের সহযোগিতা লাগবে না: তথ্যমন্ত্রী

ফাইল ছবি

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ সোমালিয়া বা ইথিওপিয়ার নয় যে, এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের সহায়তা লাগবে। আমি মনে করি নির্বাচনের এখনও অনেক বাকি। নির্বাচন কমিশন অনেক শক্তিশালী। এখানে কারও সহযোগিতা প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না।’

আগামী জাতীয় নির্বাচন সম্পন্নের বিষয়ে জাতিসংঘের সহায়তা প্রয়োজন নেই বলে জানিয়েছেন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

সোমবার নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ সোমালিয়া বা ইথিওপিয়ার নয় যে, এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের সহায়তা লাগবে।

‘আমি মনে করি নির্বাচনের এখনও অনেক বাকি। নির্বাচন কমিশন অনেক শক্তিশালী। এখানে কারও সহযোগিতা প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না।’

বাংলাদেশ চাইলে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতিসংঘ সব ধরনের সহযোগিতা দিতে প্রস্তুত বলে রোববার এক অনুষ্ঠানে জানান ঢাকাস্থ জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সেপ্পো।

তিনি বলেন, ‘জাতিসংঘ কোনো দেশের নির্বাচনি প্রক্রিয়ায় হস্তক্ষেপ করে না। তবে কোনো দেশের সরকার নির্বাচন-প্রক্রিয়ায় সহায়তা চাইলে জাতিসংঘ তা দিয়ে থাকে। আগামী জাতীয় নির্বাচনে বাংলাদেশ সরকার জাতিসংঘের কোনো সহযোগিতা চাইলে আমরা সেই সহযোগিতা দেবো।’

সরকার ও বিরোধী পক্ষের মধ্যে সমঝোতার চেষ্টায় জাতিসংঘ মধ্যস্থতার কোনো উদ্যোগ নেবে কি না, সে বিষয়টি পরিষ্কার করেননি মিয়া সেপ্পো।

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন অনুষ্ঠান একান্তই হোস্ট কান্ট্রির স্টেকহোল্ডারদের বিষয়। তারা চাইলে জাতিসংঘ যেকোনো ধরনের সহায়তা করে। কোনো দেশ চাইলেই তাদের নির্বাচনে সহযোগিতা দেয় জাতিসংঘ। সেটা বাংলাদেশেও ঘটতে পারে।’

২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির বহুল আলোচিত নির্বাচনের আগে জাতিসংঘের বিশেষ দূত হিসেবে রাজনীতি বিভাগের অ্যাসিস্ট্যান্ট সেক্রেটারি অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো সরকার ও বিরোধী দলের মধ্যে বিরোধ নিষ্পত্তিতে মধ্যস্থতায় দুই দফা ঢাকা এসেছিলেন। কিন্তু সেই সিরিজ সংলাপ সফল হয়নি।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

পরিমাণে কম, লাখ টাকা জরিমানা

পরিমাণে কম, লাখ টাকা জরিমানা

মানিকগঞ্জে ধলেশ্বরী ফিলিং স্টেশনে অভিযান। ছবি: নিউজবাংলা

ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল বলেন, অভিযানের সময় তেল কম দেয়ার প্রমাণ মেলে। তখন স্টেশনের মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয় এবং পরিমাপ যন্ত্রটি ঠিক করে তেল বিক্রির নির্দেশনা দেয়া হয়।

লিটারপ্রতি তেল কম দেয়ায় মানিকগঞ্জে এক ফিলিং স্টেশন মালিককে জরিমানা করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা সংরক্ষণ অধিদপ্তর সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সদরের নারাঙ্গাই এলাকায় ধলেশ্বরী ফিলিং স্টেশনে অভিযান চালায়। এ সময় প্রতিষ্ঠানটির মালিক রাজা মিয়াকে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। বন্ধ করে দেয়া হয় তেল বিক্রিও।

অধিদপ্তরের মানিকগঞ্জের সহকারী পরিচালক আসাদুজ্জামান রুমেল জানান, দীর্ঘদিন ধরে ধলেশ্বরী ফিলিং স্টেশনে ক্রেতাদের লিটারপ্রতি তেল কম দেয়া হচ্ছে এমন অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানের সময় তেল কম দেয়ার প্রমাণ মেলে। তখন স্টেশনের মালিককে এক লাখ টাকা জরিমানা করা হয় এবং পরিমাপ যন্ত্রটি ঠিক করে তেল বিক্রির নির্দেশনা দেয়া হয়।

যদি তারা এই নির্দেশনা অমান্য করে তাহলে ওই স্টেশনের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার কাজে যোগ দিতে বাধা নেই

১৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার কাজে যোগ দিতে বাধা নেই

এই নিয়োগে কোটা পদ্ধতি সঠিকভাবে অনুসরণ না করে প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে উল্লেখ করে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেছিলেন মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৩৪ প্রার্থী।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরে ১ হাজার ৬৫০ উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ নিয়ে হাইকোর্টের খারিজ আদেশ বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ। এর ফলে নিয়োগ পাওয়াদের কাজে যোগ দিতে কোনো বাধা নেই।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনসহ পাঁচ বিচারপতির আপিল বেঞ্চ আবেদনটি সোমবার খারিজ করে দেয়।

এর আগে শনিবার আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এ আবেদনের শুনানির জন্য আজকের তারিখ ঠিক করে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়।

আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার রোকন উদ্দিন মাহমুদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল এ এম আমিন উদ্দিন ও অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ মোহাম্মদ মোর্শেদ।

রিট থেকে জানা যায়, ২০১৮ সালের ২৩ জানুয়ারি ১ হাজার ৬৫০ জন উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তার নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে সব ধরনের পরীক্ষা শেষে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি ফল প্রকাশ করা হয়।

তবে এতে কোটা পদ্ধতি সঠিকভাবে অনুসরণ না করে প্রাথমিক ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে উল্লেখ করে কৃষি মন্ত্রণালয়ের সচিব ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর আবেদন করেন মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নেয়া ৩৪ প্রার্থী।

পরে ফল না পেয়ে চাকরিপ্রার্থী ৩৪ জন রিট আবেদন করে। এরপর একে একে ২০ রিট হয়। এ সংক্রান্ত ২০ রিটের পরিপ্রেক্ষিতে জারি করা রুল বৃহস্পতিবার খারিজ করে দেয় হাইকোর্ট।

পরে হাইকোর্টের ওই আদেশের পর আপিল বিভাগে আবেদন করেন রিটকারীরা। চেম্বার বিচারপতি সেই আবেদনের শুনানির জন্য আপিলের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে পাঠিয়ে দেয়। আপিল বিভাগ শুনানি নিয়ে আবেদনটি ডিসমিস (খারিজ) করে দেয়।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

২২ বছর পর কৃষক দলের কমিটি

২২ বছর পর কৃষক দলের কমিটি

কৃষক দলের নতুন সভাপতি হাসান জাফির তুহিন (বাঁয়ে) সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল। ছবি: সংগৃহীত

সংগঠনটির আংশিক কমিটিতে হাসান জাফির তুহিনকে সভাপতি ও শহীদুল ইসলাম বাবুলকে করা হয়েছে সাধারণ সম্পাদক। আর সহসভাপতি হিসেবে আছেন হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু।

২২ বছর পর গঠিত হলো জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের কেন্দ্রীয় কমিটি।

সংগঠনটির নেতা হাসান জাফির তুহিনকে সভাপতি এবং শহীদুল ইসলাম বাবুলকে সাধারণ সম্পাদক পদে মনোনীত করে আংশিক কেন্দ্রীয় কমিটির অনুমোদন দেয়া হয়েছে।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর কমিটির অনুমোদন দেন বলে সোমবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানান বিএনপির ভারপ্রাপ্ত দপ্তর সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।

আংশিক কমিটিতে সিনিয়র সহসভাপতি হিসেবে আছেন হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু, সহসভাপতি গৌতম চক্রবর্তী, যুগ্ম সম্পাদক পদে টি এস আইয়ুব, মোশারফ হোসেন এবং দপ্তর সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন শফিকুল ইসলাম।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন

দেড় লাখের বেশি ইয়াবাসহ আটক ১

দেড় লাখের বেশি ইয়াবাসহ আটক ১

উখিয়ায় ইয়াবা কেনা-বেচার সময় সাদ্দাম হোসেনকে আটক করে বিজিবি। ছবি : নিউজবাংলা

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ বলেন, বিজিবির রেজুআমতলী বিওপির সদস্যরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তথ্য পেয়ে উখিয়ার ঠান্ডার মিয়ার বাগান পূর্ব দরগারবিলে অবস্থান নেয়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে ইয়াবা কেনা-বেচা করার সময় সাদ্দাম হোসেনকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা বস্তা তল্লাশি করে এক লাখ ৬০ হাজার পিস বার্মিজ ইয়াবা জব্দ করা হয়।

কক্সবাজারে ১ লাখ ৬০ হাজার পিস বার্মিজ ইয়াবাসহ একজনকে আটক করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

উখিয়ায় রোববার রাতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। আটক করা ব্যক্তির নাম সাদ্দাম হোসেন।

কক্সবাজার ৩৪ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আলী হায়দার আজাদ আহমেদ সোমবার গণমাধ্যমে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিজিবির কক্সবাজার ব্যাটালিয়নের রেজুআমতলী বিওপির সদস্যরা জানতে পারে চোরাকারবারিরা রোববার মিয়ানমার থেকে দেশে ইয়াবার চালান নিয়ে আসবে। এমন তথ্য পেয়ে বিজিবির টহলদল উখিয়ার ঠান্ডার মিয়ার বাগান পূর্ব দরগারবিলে অবস্থান নেয়।

সেখানে রাত সাড়ে ১০টার দিকে ইয়াবা কেনা-বেচা করার সময় সাদ্দাম হোসেনকে আটক করা হয়। এ সময় তার সঙ্গে থাকা বস্তা তল্লাশি করে এক লাখ ৬০ হাজার পিস বার্মিজ ইয়াবা জব্দ করা হয়।

তিনি আরও বলেন, এ বছর এখন পর্যন্ত চোরাচালান ও মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ৩৭ লাখ ৭৪ হাজার ৪০৬ পিস বার্মিজ ইয়াবা জব্দ ও ১৭৫ জনকে আটক করেছে কক্সবাজার ব্যাটালিয়ন।

আরও পড়ুন:
ভারত থেকে ফিরলেন আরও ১১৮ জন
ভারতফেরত ৩ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত
কোয়ারেন্টিনে থাকা ভারতফেরত নারীর মৃত্যু
করোনায় মৃত্যু শনাক্ত বাড়ছে
অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকা পোড়াল মালাউই

শেয়ার করুন