অপহরণের তিন দিন পর শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার

অপহরণের তিন দিন পর শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার

গত ১৬ মে সকাল ৭টার দিকে জেলার কালিমহর ইউনিয়নের সাজুরিয়া গ্রামের নবাব মন্ডলের ছোট ছেলে মুরসালিনকে রাস্তা থেকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে চলে যায় দুর্বৃত্তরা। এরপর থেকেই শিশুটির আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায় না। ওই দিন বিকেলে নবাব মন্ডল একটি অপহরণ মামলা করেন।

রাজবাড়ীর পাংশায় অপহরণের তিন দিন পর এক শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকাল ১০টার দিকে পাংশা থানার পুলিশ উপজেলার কালিমহর ইউনিয়নের সাজুরিয়া গ্রামের একটি কালীমন্দিরের পাশের পাটক্ষেত থেকে শিশুটির মরদেহ উদ্ধার করে। মুরসালিন নামে ছয় বছর বয়সী শিশুটি ১৬ মে অপহৃত হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী মনিরা বেগম জানান, সকাল ৯টার দিকে ঘাস কাটার জন্য পাটক্ষেতে ঢোকেন তিনি। এ সময় দুর্গন্ধ পেয়ে একটু এগিয়ে গেলে একটি বস্তা দেখেন। তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন ছুটে আসেন। পরে থানায় জানালে পুলিশ ওই শিশুর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার করে।

পাংশা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন জানান, গত ১৬ মে সকাল ৭টার দিকে জেলার কালিমহর ইউনিয়নের সাজুরিয়া গ্রামের নবাব মন্ডলের ছোট ছেলে মুরসালিনকে রাস্তা থেকে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে চলে যায় দুর্বৃত্তরা। এরপর থেকেই শিশুটির আর কোনো খোঁজ পাওয়া যায় না। ওই দিন বিকেলে নবাব মন্ডল একটি অপহরণ মামলা করেন।

ওসি বলেন, ‘শিশুটির মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।’

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন রাজবাড়ীর পুলিশ সুপার (এসপি) এম এম শাকিলুজ্জামান ও অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) শেখ শরিফুজ্জামান।

আরও পড়ুন:
শিশু অপহরণ করে মুক্তিপণ দাবি, গ্রেপ্তার ২
লুকিয়ে থেকে বাবার কাছ থেকে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টা
অপহৃত দুইজন উদ্ধার, কারাগারে নারীসহ ৩
নারায়ণগঞ্জ থেকে অপহরণ, টাঙ্গাইল থেকে উদ্ধার 
অপহরণের ২০ ঘণ্টা পর স্কুলছাত্রী উদ্ধার

শেয়ার করুন

মন্তব্য